আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

একনেক সভায় পিরোজপুরের উন্নয়নে ৬শ কোটি টাকার প্রকল্প পাশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ মার্চ ২০২১ | ১৬২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দক্ষিণের জেলা পিরোজপুর নদী-নালা, খাল-বিল অধ্যুষিত। কৃষিজাত পণ্য ও মৎস্য সম্পদে সমৃদ্ধ হলেও জেলাটি শিক্ষাক্ষেত্রে অনেকটাই অনগ্রসর। তাছাড়া উপকূলীয় জেলা হিসেবে প্রাকৃতিক দুর্যোগগুলোও নিয়মিত মোকাবিলা করতে হয় এই জেলার বাসিন্দাদের। জলাশয়ের আধিক্যের কারণে জেলাটি অবকাঠামোগত উন্নয়নের দিক থেকেও পিছিয়ে রয়েছে।

পিছিয়ে থাকা এই জেলাটির পল্লী অবকাঠামো উন্নয়নের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আর এর জন্য হাতে নেওয়া হচ্ছে ৬০০ কোটি টাকার প্রকল্প। প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী-সচিবরা একনেক সভায় অংশ নেন। একনেক সভা শেষে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব জয়নুল বারী সাংবাদিকদের সামনে বিস্তারিত তুলে ধরেন।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এই প্রকল্পের আওতায় পিরোজপুর জেলার ৪৪৮ দশমিক ২৯ কিলোমিটার সড়ক পাকা করা হবে, তাতে করে জেলার সামগ্রিক যোগাযোগব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। শুধু তাই নয়, গ্রামীণ জনগণের জন্য বাজার, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত সুবিধাও বাড়ানো হবে। এতে করে স্থানীয়দের জীবনযাত্রার মান বাড়বে। একইসঙ্গে স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদে কর্মসংস্থানের সুযোগও তৈরি হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, প্রকল্পটি প্রস্তাব পাওয়ার পর গত বছরের ২৯ অক্টোবরে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় কিছু সুপারিশ দেওয়া হয়। সেসব সুপারিশ বাস্তবায়ন করে উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) পুনর্গঠন করা হয়েছে। ফলে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি উপস্থাপন করা রয়েছে। চলতি বছর থেকে ২০২৫ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি)।

স্থানীয় সরকার বিভাগ বলছে, পিরোজপুরে মোট নিবন্ধিত গ্রামীণ সড়ক রয়েছে ৪ হাজার ৭৬৭ কিলোমিটার। এর মধ্যে কাঁচা সড়কের পরিমাণ ২ হাজার ৮১৩ কিলোমিটার। তাছাড়া এ জেলাটি প্রচুর নদ-নদী অধ্যুষিত বলে অবকাঠামোর অপ্রতুলতা রয়েছে। ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাস নিত্যদিনের সঙ্গী হওয়ায় অবকাঠামো উন্নয়নের দিক থেকে পিছিয়ে রয়েছে।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে এই এলাকার গ্রামীণ যোগাযোগ অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও সহজ হবে। এছাড়া গ্রোথ সেন্টার ও গ্রামীণ হাট-বাজার উন্নয়নের মাধ্যমে প্রকল্প এলাকার অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সম্প্রসারণ করে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।

প্রকল্পের মূল কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে ২২ দশমিক ৬৭ কিলোমিটার উপজেলা সড়ক উন্নয়ন, ৫৭ দশমিক ৩৩ কিলোমিটার ইউনিয়ন সড়ক উন্নয়ন, ৩৬৮ দশমিক ২৯ কিলোমিটার গ্রাম সড়ক উন্নয়ন, ৭৩২ মিটার গ্রামীণ সড়কে ব্রিজ নির্মাণ, গ্রামীণ সড়কে কালর্ভাট নির্মাণ, ৭৬ দশমিক ৯৩ কিলোমিটার সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ এবং ১৯টি হাটবাজার ও ঘাটলা নির্মাণ।

প্রকল্পটির দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানিসম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সদ্য সাবেক সদস্য (সাবেক সচিব) জাকির হোসেন আকন্দ বলেন, গ্রামীণ সড়ক উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষণ করা হলে পল্লী অঞ্চলের নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপন ও উন্নয়নের মাধ্যমে পরিবহণ ব্যয় যেমন কমবে, তেমনি জীবনমান উন্নয়ন হবে। এছাড়া, গ্রোথ সেন্টার গ্রামীণ হাট নির্মাণের মাধ্যমে কৃষিপণ্য বিপণন, বাজারজাতকরণে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। এতে কৃষি ও অকৃষি খাতে স্থানীয়ভাবে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।


আরও খবর



কাটাখালিতে ১৭ জনের মৃত্যু : হানিফ বাসের চালক আটক

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | ৭৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজশাহীতে বাসের সঙ্গে সংঘর্ষে মাইক্রোবাসের সিলিণ্ডার বিফোরণের পর আগুন ধরে ১৭ জন নিহতের ঘটনায় হানিফ বাসের চালক আব্দুল রহিমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (২৭ মার্চ) দুপুর ২টার দিকে পুঠিয়া উপজেলার মাহিন্দ্র বাইপাস থেকে কাটাখালি থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, গ্রেফতারকৃত বাস চালক আব্দুল রহিম পুঠিয়া উপজেলার বাড়ইপাড়া গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে।

তিনি আরও বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় ১৭ জন নিহতের ঘটনায় গত শুক্রবার রাতে হানিফ বাসের চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। কাটাখালি থানার এসআই নুর মোহাম্মদ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় ১৭ জনকে হত্যা ও কয়েকজন জখমের অভিযোগ আনা হয়েছে। সেই মামলায় বাস চালক আব্দুর রহিমকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, নিহত ১৭ জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে সাড়ে ৩টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমাগার থেকে শোকে হতবিম্বল স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। এর পর লাশ নিয়ে তারা রংপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হন।

এদিকে, সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়টি তদন্তের জন্য অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবু আসলামকে আহ্বায়ক করে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করে দিয়েছেন জেলা প্রশাসন। একইসঙ্গে তাদেরকে দ্রুত তদন্ত শেষ করে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল।

তিনি বলেন, নিহতদের দাফনের জন্য প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। এছাড়াও লাশ তাদের বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার (২৬ মার্চ) দুপুরে রাজশাহীর কাটাখালি থানার সামনে বাসের সঙ্গে সংঘর্ষের পর সিলিন্ডার বিস্ফোরণে মাইক্রোবাসে আগুন গেলে যায়। এতে হাইস মাইক্রোবাসের ১৭ যাত্রী দগ্ধ হয়ে মারা যান। ওই মাইক্রোবাসে ১৮ জন যাত্রী ছিলেন। আহত অবশিষ্টজন হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার নাম পাভেল (২৭)।

আর নিহতরা হলেন- রংপুরের পীরগঞ্জের ডারিকাপাড়ার অধিবাসী আহত পাভেলের বাবা মোখলেসুর রহমান (৪৫), মা পারভীন বেগম (৪০), রাঙ্গামাটি গ্রামের মো. সালাহউদ্দিন (৩৬), তার স্ত্রী শামসুন্নাহার (২৫), তাদের ছেলে সাজিদ (৮), মেয়ে সাফা (২), শামসুন্নাহারের বড় বোন কামরুন্নাহার (৩৭), উপজেলা সদরের মো. ভুট্টু (৪০), তার স্ত্রী মুক্তা বেগম (৪০), ছেলে ইয়ামিন (১৫), বড় মজিদপুরের ফুলমিয়া (৪০), তার স্ত্রী নাজমা বেগম (৩৫), ছেলে ফয়সাল (১৫) এবং মেয়ে সুমাইয়া (৮), সাবিহা (৩), দুরামিঠিপুরের ব্যবসায়ী শহীদুল ইসলাম (৪৬) এবং মাইক্রোবাসের চালক মো. হানিফ (৩০)। হানিফের বাড়ি পীরগঞ্জ উপজেলার পঁচাকান্দ গ্রামে।


আরও খবর
গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ ৪

শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১




তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে মামুনুলকে গ্রেফতার : ডিসি মতিঝিল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | ১২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
নামাজের পর মসজিদের বেদীর ওপরে অনেকে কথা বলছিল, সেখান থেকেই সংঘর্ষের শুরু। তবে সেখানে কোনো সিনিয়র নেতাকে দেখিনি। অনেকে ভেতরে ছিল, সিনিয়র নেতারা ভেতরে ছিল কি-না তা তদন্তে উঠে আসবে

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বায়তুল মোকাররম মসজিদে তাণ্ডবের ঘটনায় হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হকসহ হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের ১৭ নেতার নামে মামলা হয়েছে। মামলার এজাহারে এক নম্বর ও হুকুমের আসামি করা হয়েছে মামুনুল হককে।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সাংবাদিকদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

মামুনুল হককে গ্রেফতার করা হবে কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ডিসি বলেন, আমরা তদন্ত করব। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হবে তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, এজাহারে যাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে তাদের অনেকের রাজনৈতিক পরিচয় রয়েছে। তবে আমরা কোনো পদ বিবেচনায় নেব না। আমরা অপরাধ বিবেচনায় নিয়ে অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। মামলাটি গতকাল রাতে হয়েছে। এখনও প্রি-ম্যাচুরড রয়েছে। আমরা আসামিদের প্রকৃত পরিচয়, তারা বর্তমানে কোথায় অবস্থান করছে, ২৬ তারিখ তারা কোথায় ছিল, বায়তুল মোকাররমে সরাসরি উপস্থিত ছিল কি-না, তারা নাশকতার নির্দেশ-উসকানি দিয়েছে কি-না, হামলার অর্থদাতা বা মাস্টারমাইন্ড কি-না তা শনাক্ত করে তাদের গ্রেফতারসহ যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

সেদিন সংঘর্ষের সময় ঘটনাস্থলে সরকার দলীয় লোকজনও ছিল। সরকারদলের একজনই এই মামলাটি করেছেন। এ বিষয়ে পুলিশের অবস্থান জানতে চাইলে ডিসি বলেন, যিনি মামলা করেছেন, তিনি একজন ব্যবসায়ী। তিনি টাইলসের আঘাতে আহত হয়েছেন। তার অন্য কোনো পরিচয় আছে কি-না তা আমরা খুঁজে বের করব।

মামলায় হেফাজতের নেতাদের নাম উল্লেখ করা হলেও তারা ঘটনাস্থলে ছিলেন কি-না? জানতে চাইলে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, নামাজের পর মসজিদের বেদীর ওপরে অনেকে কথা বলছিল, সেখান থেকেই সংঘর্ষের শুরু। তবে সেখানে কোনো সিনিয়র নেতাকে দেখিনি। অনেকে ভেতরে ছিল, সিনিয়র নেতারা ভেতরে ছিল কি-না তা তদন্তে উঠে আসবে।

এর আগে সোমবার (৫ এপ্রিল) রাত পৌনে ১০টায় আরিফ উজ জামান নামের ওয়ারীর এক ব্যক্তি হত্যা চেষ্টা ও বিস্ফোরক আইনসহ কয়েকটি ধারায় পল্টন থানায় মামলাটি করেন।

মামলার অন্য ১৬ আসামি হলেন- হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব, যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা লোকমান হাবিব, যুগ্ম-মহাসচিব নাসির উদ্দিন মনির, নায়েবে আমির মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া, মাওলানা নুরুল ইসলাম জেহাদী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নায়েবে আমির মাজেদুর রহমান, মাওলানা হাবিবুর রহমান, মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়্যুবী ও সহকারী মহাসচিব মাওলানা জসিম উদ্দিন।

এছাড়াও রয়েছেন- সংগঠনটির টঙ্গীর সহ-সাংগঠনিক মাওলানা মাসুদুল করিম, অর্থ সম্পাদক মুফতি মনির হোসাইন কাশেমী, প্রচার সম্পাদক মাওলানা যাকারিয়া নোমান ফয়েজী, মাওলানা ফয়সাল আহমেদ, সহকারী দাওয়া সম্পাদক মাওলানা মুশতাকুন্নবী, ছাত্র ও যুব সম্পাদক মাওলানা হাফেজ মো. জোবায়ের ও দফতর সম্পাদক মাওলানা হাফেজ মো. তৈয়ব।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ২৬ মার্চ বায়তুল মোকাররমে মামুনুল হকের নির্দেশে ১৭ হেফাজত নেতার নেতৃত্বে দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্রসহ দা, ছোরা, কুড়াল, কিরিচ, হাতুড়ি, তলোয়ার, লাঠিসোটাসহ অতর্কিত হামলা চালানো হয়। এ হামলায় আরিফ-উজ-জামান গুরুতর আহত হন।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৭৫ জন

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। অন্যদিকে মৃত্যুর সংখ্যা কোন ভাবেই কমছে না। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন করে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৭৫ জন।

এতে করোনায় মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬ লাখ ৪৪ হাজার ৪৩৯ জনে। আর মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৯ হাজার ৩১৮ জনে।

সোমবার (৫ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনা-বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৯৩২ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৪১৪ জন।

এ সময়ে ৩১ হাজার ৯৭৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষা করা হয়েছে ৩০ হাজার ২৩৯টি নমুনা। মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৮ লাখ ১৩ হাজার ৬২৪টি।

নিউজ ট্যাগ: করোনা আক্রান্ত

আরও খবর



ফ্লাইট চালুর দাবিতে প্রবাসীদের সড়ক অবরোধ

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ৬১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লকডাউনের চতুর্থ দিনে ফ্লাইট চালুর দাবিতে সড়ক অবরোধ করে রেখেছেন প্রবাসীরা। শনিবার (১৭ এপ্রিল) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের সামনে তারা সড়ক অবরোধ করে রাখেন।

এসময় সড়কে যানচলাচল বন্ধ থাকে বেশ কিছু সময়। পরে শতাধিক প্রবাসী কর্মীরা সোনারগাঁও হোটেল সংলগ্ন সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকিট কাউন্টার অফিসের সামনে ভিড় জমান।

এসময় এয়ারলাইন্স অফিসের সামনে দাড়িয়ে ফ্লাইট চালুর দাবিতে বিভিন্ন শ্লোগান দেন বিক্ষুদ্ধরা।

আজ শনিবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের রিয়াদগামী ফ্লাইট (বিজি৫০৩৯) সকাল ৬টা ১৫ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল। এ কারণে এয়ারলাইন্সের নির্দেশনা অনুসারে ছয় ঘণ্টা আগে রাত ১টার মধ্যেই হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসেছিলেন যাত্রীরা।

কিন্তু সৌদি আরবে অবতরণের অনুমতি না পাওয়ায় ফ্লাইটটি বাতিল হয়েছে। এতে ক্ষুব্ধ প্রবাসী কর্মীরা রাত থেকেই বিমানবন্দর চত্ত্বরে বিক্ষোভ শুরু করেন।


আরও খবর



খেলতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার ৮ বছরের শিশুঃ ধর্ষক আটক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাঙামাটি থেকে শহিদুল ইসলাম হৃদয়

রাঙামাটি জেলাধীন কাপ্তাই উপজেলার ওয়াগ্গা ইউনিয়নের তালুকদার পাড়ায় দ্বিতীয় শ্রেণীর শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে উপজাতীয় এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত ধর্ষক উক্ত ভিকটিমের চাচা বলে জানাগেছে।

অমল তালুকদার (২২) নামের এই যুবক ওয়াগ্গা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের তালুকদার পাড়া(দ্যোলন্যারমুখ) এলাকার জনৈক শান্তি তালুকদারের সন্তান। রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ছূফি উল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

থানা সূত্রে জানাগেছে, রবিবার(৪ এপ্রিল) সকালে নিজ বাড়ির উঠানে খেলা করার সময় বিস্কুট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে নিজ ঘরে নিয়ে যায়। এ সময় আসামি তার নিজ ঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং চিৎকার করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয় শিশুটিকে। ধর্ষিতা বাড়িতে এসে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে সোমবার ০৫ এপ্রিল-২০২১ তারিখ বিকেল তিন টার সময় ধর্ষিতার মা ধর্ষিতাকে বার বার জিজ্ঞাস করলে আসামী অমল তালুকদার তাকে তার নিজ ঘরে ধর্ষণ করেছে বলে শিশুটি তার মাকে জানায়। সাথে সাথেই অসুস্থ ভিকটিমকে কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে শিশুটি।

এই ঘটনায় শিশুটির পিতা বাদী হয়ে সোমবার রাতেই তার শিশু মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে তারই চাচাতো ভাই অমল তালুকদারকে আসামী করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। মামলা নং-০২, তারিখঃ ০৫ এপ্রিল-২০২১)ধারাঃ ৯(১), ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী-২০০৩।

রাঙামাটি পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(অপরাধ) মোঃ ছূফি উল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, অভিযোগ পাওয়ার পরপরই অভিযান পরিচালনা করে মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে কাপ্তাই থানা পুলিশ। এই ঘটনায় মামলাও দায়ের করা হয়েছে। ভিকটিমকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ধর্ষণ রাঙামাটি

আরও খবর