আজঃ শনিবার ০২ মার্চ 2০২4
শিরোনাম

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ রোববার দুপুরে

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আগামীকাল রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর আড়াইটায় আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশিত হবে সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল কলেজে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফলফল। এ দিন আনুষ্ঠানিকভাবে ফল ঘোষণা করবেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল সেন।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম প্রধান।

তিনি জানান, ১১ ফেব্রুয়ারি (রোববার) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সভাকক্ষে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হবে। এ নিয়ে ব্রিফিং করবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন।

এবারের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ১৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ঢাকায় কেন্দ্র ছিল পাঁচটি, ঢাকার বাইরে ১৪টি। ৩৭টি সরকারি মেডিকেল কলেজে পাঁচ হাজার ৩৮০টি আসন এবং বেসরকারি পর্যায়ে অনুমোদিত ৬৭টি মেডিকেল কলেজে মোট ছয় হাজার ২৯৫টি আসনের বিপরীতে এবার এক লাখ চার হাজার ৩৭৪ জন ভর্তিচ্ছু আবেদন করেছেন।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের তথ্যমতে, দেশের সরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে ২০২৩-২৪ সেশনে মোট আসন রয়েছে পাঁচ হাজার ৩৮০টি। সে হিসাবে প্রায় ১৯ জন আসনপ্রতি লড়বে। আর বেসরকারি মেডিকেলে আসন রয়েছে ছয় হাজার ১৬৮টি। সব মিলিয়ে ১১ হাজার ৫৪৮টি আসনের জন্য ভর্তিযুদ্ধে অংশ নেন শিক্ষার্থীরা। সে ক্ষেত্রে আসনপ্রতি লড়ছেন প্রায় ৯ জন শিক্ষার্থী।

এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম নম্বর (পাস নম্বর) গতবারের মতো এবারও ৪০ রাখা হয়েছে। মাইগ্রেশনের জন্য তিনবার সময় পাবেন শিক্ষার্থীরা। বেসরকারি মেডিকেলে ভর্তির জন্য সব কলেজকে উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। অর্থাৎ শিক্ষার্থীরা সব কলেজে চয়েজ একবারে দিতে পারবেন, সরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতেও একই নিয়ম বহাল।

সরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি থাকা দ্বিতীয়বার ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ১০ নম্বর কাটা হবে। এ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় জেলা কোটা বাতিল করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নির্ধারিত সময়ে আসন পূরণ করা না গেলে সেসব আসনে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ভর্তির সুযোগ পাবেন।


আরও খবর



সিভাসুতে কৃষিবিজ্ঞান বিষয়ে ৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা ১৩ জুলাই

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

Image

কৃষিবিজ্ঞান বিষয়ে ডিগ্রি প্রদানকারী ০৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১৩ জুলাই সারাদেশে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে।

 কৃষি গুচ্ছের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির এক সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। এবার কৃষি গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণে নেতৃত্ব দেবে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু)। ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য পরবর্তীতে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে।

২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে কৃষিবিজ্ঞান বিষয়ে গুচ্ছ সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত এক সভা সোমবার বিকালে সিভাসুর উপাচার্য প্রফেসর ড. এএসএম লুৎফুল আহসান এর সভাপতিত্বে উপাচার্যের অফিস কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিভাসুর ট্রেজারার প্রফেসর ড. মো: কামালসহ বিভিন্ন অনুষদের ডিন, রেজিস্ট্রার, বিভাগীয় প্রধান, পরিচালক, প্রক্টর এবং কয়েকজন সিনিয়র শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন।

৯টি বিশ্ববিদ্যালয় হলো- বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও কুড়িগ্রাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।


আরও খবর



সম্পর্ক এগিয়ে নিতে ঢাকায় মার্কিন প্রতিনিধিদল

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদার করতে তিন দিনের সফরে ঢাকায় এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিল, ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট এবং এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্টের (ইউএসএআইডি) প্রতিনিধিদল। শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দলটি দেশে পৌঁছে। ঢাকার মার্কিন দূতাবাস থেকে এক মিডিয়া নোটে প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানানো হয়।

মিডিয়া নোটে উল্লেখ করা হয়েছে, ওয়াশিংটন ডিসি থেকে ঢাকায় ২৪-২৬ ফেব্রুয়ারি সফরে আসা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস।

দেশে আসা মার্কিন প্রতিনিধিরা হলেন- রাষ্ট্রপতির বিশেষ সহকারী ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের (এনএসসি) ডিরেক্টর এলিন লাউবাকের, ইউএসএআইডির এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোর অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেটর মাইকেল শিফার এবং ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি আফরিন আক্তার।

ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে পারস্পরিক স্বার্থের অগ্রগতির জন্য কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং অভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা করবেন তারা। সফরকালে তারা তরুণ অ্যাক্টিভিস্ট, সুশীল সমাজ, শ্রমিক সংগঠক এবং মুক্ত গণমাধ্যমের বিকাশে নিযুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন।

মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিকের জন্য অভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গিকে এগিয়ে নেওয়া, মানবাধিকারকে সমর্থন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, আন্তর্জাতিক হুমকির বিরুদ্ধে আঞ্চলিক সহনশীলতার শক্তিকে এগিয়ে নিতে এবং অর্থনৈতিক সংস্কারের প্রচারে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারত্বে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।


আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




জাতীয় ক্রিকেট দলের স্পন্সর হলো রবি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের স্পন্সরের স্বত্ত্ব পেয়েছে রবি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সঙ্গে ফেব্রুয়ারি থেকে ২০২৭ সালের জুলাই পর্যন্ত অর্থাৎ সাড়ে তিন বছরের চুক্তি হয়েছে রবির।

শুক্রবার মিরপুর স্টেডিয়ামের বিসিবি কার্যালয়ে বিসিবি ও রবির মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়। রবির পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) রাজীব শেঠি, চিফ কমার্শিয়াল অফিসার শিহাব আহমাদ এবং বিসিবির পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে রবি ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত জাতীয় ক্রিকেট দলের স্পন্সর হিসেবে যুক্ত ছিল। নতুন করে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার বিষয়ে রবির এমডি ও সিইও রাজীব শেঠি বলেন, দেশের ক্রিকেটের অনেক সাফল্যের সঙ্গে রবি নামটি যুক্ত। রবি পারবে তুমিও চেতনায় উদ্দীপ্ত হয়ে টাইগাররা আগামীতেও বিশ্বমঞ্চে বড় বড় পাবে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে আবারও যুক্ত হতে পেয়ে রবি গর্বিত।

বিসিবির সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, জাতীয় দলের স্পন্সর হিসেবে রবির মতো প্রতিষ্ঠানকে পাশে পেয়ে বিসিবি আনন্দিত। এ চুক্তির মাধ্যমে সামনের দিনে বাংলাদেশের ক্রিকেট নতুন উচ্চতায় পৌঁছে যাবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি।


আরও খবর



ফের বন্ধ মেট্রোরেল

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আবারও বন্ধ হয়ে আছে মেট্রোরেল চলাচল। সম্প্রতি বেশ কয়েকবার এ ঘটনা ঘটেছে। এতে ভোগান্তির সঙ্গে সঙ্গে বিরক্ত যাত্রীরা।

সূত্র জানায়, দুপুর ২টা ২০ মিনিট থেকে বন্ধ হয়ে আছে মেট্রোরেল।

কর্তৃপক্ষ বলছে, যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে সামিয়িক বন্ধ আছে মেট্রোরেল চলাচল।

অমিতাভ নামের এক যাত্রী জানিয়েছেন, তিনি ২৭ মিনিট ধরে মিরপুর ১০ স্টেশনে দাঁড়িয়ে আছেন। তবে এখনও মেট্রোরেল আসেনি।

বায়জিদ ইসলাম নামের একজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন, শাহবাগ স্টেশন এ প্রায় এক ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়ে আছি।

সুষ্পিতা চৌধুরী নামের এক যাত্রী জানিয়েছেন, তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে মেট্রোর অপেক্ষায় ৩০ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে আছেন।

এর আগে সবশেষ বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দেড়টার দিকে মেট্রো চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। সেবার ইলেকট্রিক তারের ওপর ঘুড়িটি পড়ায় সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছিল বলে জানায় ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড।


আরও খবর



দেশের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ রাখবে ভারত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখেছিল ভারত। দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সেটা অব্যাহত থাকবে। অর্থাৎ এর আগে মসলাজাতীয় পণ্যটি রপ্তানি করবে না তারা। ভারতীয় প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এবং দ্য হিন্দুর প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়, গত ২০ ফেব্রুয়ারি এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে মরিয়া ভারত সরকার। সেই সঙ্গে অভ্যন্তরে পর্যাপ্ত সরবরাহ রাখতে চায় তারা। সেই লক্ষ্যে রান্নাঘরের মুখ্য পণ্যটি রপ্তানি নিষিদ্ধ রাখতেই আগ্রহী তারা। প্রয়োজনে বন্ধ রাখার মেয়াদ আরও বাড়তে পারে।

বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে ভোক্তা বিষয়ক সচিব রোহিত কুমার বলেন, পেঁয়াজ রপ্তানিতে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হচ্ছে না। এ নিয়ে বিদ্যমান অবস্থান পরিবর্তনের কোনো বাধ্যবাধকতা আপাতত নেই। ভারতে পেঁয়াজের দর যৌক্তিক পর্যায়ে আনতে মুখিয়ে আছে সরকার। দেশের মার্কেটে পণ্যটির সহজলভ্যতা ও প্রাপ্যতা নিশ্চিত করতে চায় তারা। এখন মূলত তাতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি খবর বের হয়, পেঁয়াজ রপ্তানিতে জারি করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে ভারত। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়তেই দেশটিতে নিত্যপণ্যটির দর ৪০ দশমিক ৬২ শতাংশ বেড়ে যায়। পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি দেশটির বাজারে পাইকারিতে প্রতি কুইন্টালের মূল্য দাঁড়ায় ১২৮০ রুপি (ভারতীয় মুদ্রা)।

সূত্র জানায়, সামনে ভারতে জাতীয় নির্বাচন। এর আগে পেঁয়াজের ওপর থেকে নরেন্দ্র মোদি সরকারের নিষেধাজ্ঞা ওঠানোর সম্ভাবনা ক্ষীণ। একরকম নেই বললেই চলে। কারণ, শীতকালীন মৌসুমে দেশটির শীর্ষ উৎপাদক অঞ্চল মহারাষ্ট্রে তুলনামূলক কম উৎপন্ন হয়েছে।

অবশ্য ইতোমধ্যে বাংলাদেশসহ কয়েকটি বন্ধুত্বপূর্ণ দেশে সীমিত পরিমাণে পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত। সেই চুক্তি বজায় থাকতে পারে।


আরও খবর
এক মাসে রিজার্ভ বাড়ল ৬৩ কোটি ডলার

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪