আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

ফেব্রুয়ারির নয় দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ৬৩ কোটি ডলার

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

চলতি মাসের প্রথম নয় দিনে প্রবাসীরা ৬৩ কোটি ১৭ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন। এই হিসাবে প্রতিদিন গড়ে ৭ কোটি ২ লাখ ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এই চিত্র উঠে এসেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৬৩ কোটি ১৭ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলারের মধ্যে রাষ্ট্র মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৬ কোটি ৯০ লাখ ৯০ হাজার ডলার। বিশেষায়িত ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২ কোটি ৯৬ লাখ ৪০ হাজার ডলার। আর বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ৫৩ কোটি ১৬ লাখ ৫০ হাজার ডলার এবং বিদেশি খাতের ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ১৩ লাখ ৯০ হাজার ডলার।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ১ থেকে ২ ফেব্রুয়ারি দেশে ৭ কোটি ১১ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স আসে। আর ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত এসেছে ৫৬ কোটি ৬ লাখ ৩০ হাজার ডলার।

বিগত ৭ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ প্রবাসী আয় এসেছিল গত মাস জানুয়ারিতে। ওই মাসে দেশে রেমিট্যান্স এসেছিল ২১০ কোটি ৯ লাখ ৫০ হাজার ডলার।

নিউজ ট্যাগ: রেমিট্যান্স

আরও খবর
এক মাসে রিজার্ভ বাড়ল ৬৩ কোটি ডলার

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




প্রতি বছর বিশ্বে ক্যানসারে আক্রান্ত চার লাখ শিশু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রতি বছর বিশ্বে অন্তত চার লাখ শিশু ক্যানসারে আক্রান্ত হয়। উন্নত দেশগুলোতে ক্যানসার থেকে রোগীর সুস্থ হওয়ার হার প্রায় ৮০ শতাংশ। বাংলাদেশে এ হার এখনো ৩০ শতাংশ। তবে যথাসময়ে ক্যানসার শনাক্ত করা গেলে এবং উন্নত চিকিৎসা পেলে ৭০ শতাংশ রোগী সুস্থ হয়।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ব শিশু ক্যানসার দিবস। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য যথাসময়ে সঠিক চিকিৎসায় শিশু ক্যানসার নিরাময় সম্ভব। দিবসটি উপলক্ষে সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) মিলনায়তনে শিশু হেমাটোলজি বিভাগের উদ্যোগে শোভাযাত্রা ও বৈজ্ঞানিক সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সচেতনতার অভাব, মাত্রাতিরিক্ত চিকিৎসা ব্যয়, স্বাস্থ্যসেবার সুযোগের অভাবসহ নানান কারণে বেশির ভাগ ক্যানসার আক্রান্ত শিশু মারা যায়। শিশুদের মধ্যে সাধারণত লিউকেমিয়া বা রক্তের ক্যানসার বেশি হয়। ক্যানসার আক্রান্ত শিশুদের মধ্যে এক-তৃতীয়াংশ লিউকেমিয়ায় আক্রান্ত।

বিশিষ্ট শিশু ক্যানসার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. আমিরুল মোরশেদ জানান, প্রাপ্তবয়স্কদের মতো একই কারণে শিশুদের ক্যানসার হয় না। প্রধানত বংশক্রমিক বা জেনেটিক্যাল কারণে শিশুদের ক্যানসার হয়ে থাকে। শিশুর দেহে শুরুতেই ক্যানসার শনাক্ত ও সঠিক চিকিৎসা দিতে পারলে পরবর্তী সময়ে সুস্থ-স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউটসহ দেশের ১৪টি সরকারি মেডিকেল কলেজে শিশু ক্যানসার রোগীদের সুচিকিৎসার পূর্ণ ব্যবস্থা রয়েছে। এখন দেশেই সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে অভিজ্ঞ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা শিশু ক্যানসার রোগীদের আন্তর্জাতিকমানের চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন।


আরও খবর



অর্ধশতাব্দী পর ফের চন্দ্রপৃষ্ঠে মার্কিন মহাকাশযান

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

অ্যাপোলো মিশনের সাফল্যের ৫০ বছর পর আবারও চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের চন্দ্রযান। তবে এবার এ অভিযান পরিচালনা করেছে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁদের দক্ষিণ মেরুর কাছে অবতরণ করে ষড়ভুজ আকৃতির রোবট মহাকাশযান অডিসিয়াস। 

হাউস্টনভিত্তিক মহাকাশ গবেষণা কোম্পানি ইনটুইটিভ মেশিন আইএম-১ নামে এই মিশন পরিচালনা করেছে। ইনটুইটিভ মেশিনের প্রধান নির্বাহী ও সহপ্রতিষ্ঠাতা স্টিভ আন্টেমুস বলেন, এ চন্দ্রযানকে অভিযানের জন্য প্রস্তুত করতে তারা অনেক নির্ঘুম রাত পার করেছেন। চন্দ্রযানের যে অংশটি চাঁদের পৃষ্ঠে যাবে, সেই ল্যান্ডারের নাম দেওয়া হয়েছে মহাকবি হোমারের দ্য ওডিসি মহাকাব্যের নায়কের নামানুসারে অডিসিয়াস

বাণিজ্যিক মহাকাশযানের মাধ্যমে পরিচালিত এই চন্দ্রাভিযানে অর্থায়ন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসা।  ইনটুইটিভ মেশিন ও নাসা যৌথ বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। ইনটুইটিভ মেশিন হিউস্টনভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠান

ইনটুইটিভ মেশিনের সহসভাপতি ট্রেন্ট মার্টিন বলেন, ঈশ্বরের গতিতে ছুটো, ওডিসিউস। চলতে থাকো ইতিহাস গড়ার লক্ষ্যে। সম্প্রতি আরেকটি কোম্পানি চাঁদে অভিযানের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। অ্যাস্ট্রোবায়োটিক টেকনোলজির তৈরি চন্দ্রযানটি ১০ দিন মহাশূন্যে ঘোরাঘুরির পর প্রশান্ত মহাসাগরে পড়ে।

১৯৬৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাপোলো-১১ চন্দ্রযান প্রথমবারের মতো মানুষ নিয়ে চাঁদে অবতরণ করে। এরপর ১৯৭২ সালে নাসা চাঁদে অ্যাপোলো ১৭ মিশন পরিচালনা করে।


আরও খবর



বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু হচ্ছে শুক্রবার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে শুক্রবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) শুরু হচ্ছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। এবার অংশ নিচ্ছেন মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা। ইতোমধ্যে সামিয়ানা টাঙানোর কাজ সমাপ্ত হয়েছে। মুসল্লিদের ভিড়ও বাড়ছে। তিন দিনের ইজতেমা ঘিরে টঙ্গী ও আশপাশের এলাকায় ধর্মীয় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

শুক্রবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) ফজরের নামাজের পর ধর্মীয় বয়ানের মাধ্যমে শুরু হবে ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। পরবর্তী তিন দিন দেশ বিদেশের মাওলানারা বয়ান করবেন। রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে ইজতেমা। জানা গেছে, সন্ধ্যায় দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজ থেকে সাদের তিন ছেলেসহ ১৪ জনের একটি জামাত ইজতেমায় এসে পৌঁছেছে।

ইজতেমায় অংশ নিতে বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মুসল্লিরা আসছেন। এবারও ইজতেমা স্থলের আশেপাশে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী। বসানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা।

এদিকে বুধবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) মাওলানা সাদকে ইজতেমায় আসার অনুমতির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার অনুসারী বাংলাদেশ মুসল্লি পরিষদ। এজন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি জোরালো আহ্বান জানিয়েছেন তারা। অন্যথায় ক্ষুব্ধ মুসল্লিরা কোনো প্রকার ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করলে তার দায়ভার সরকারকে নিতে হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তারা।

সরেজমিন দেখা গেছে, ইজতেমা ময়দানের সব প্রস্তুতি প্রায় শেষের পথে। প্রথম পর্বের মুসল্লিদের ফেলে যাওয়া ময়লা-আবর্জনা ইতোমধ্যে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। ময়দানের পশ্চিম পাশে তুরাগ নদের পূর্বপাড়ে নামাজের মিম্বর ও উত্তর-পশ্চিম কোণে বিদেশি মেহমানদের জন্য নির্ধারিত কামরার পাশে বয়ানমঞ্চ নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়াও শামিয়ানা টানানো, বিদ্যুৎ ও মাইক সংযোগের জন্য তার টানানোসহ তাশকিল কামরা, জুড়নেওয়ালি জামাতের কামরা, তুরাগ নদের পশ্চিমপাড়ে বধিরদের বয়ান শোনার জন্য পৃথক কামরা তৈরি করা হয়েছে।

বুধবার থেকেই দেশি ও বিদেশি মেহমানরা আসতে শুরু করেছেন। আজকের মধ্যেই দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মুসল্লি ময়দানে এসে তাদের জন্য নির্ধারিত খিত্তায় অবস্থান নেবেন বলে জানিয়েছেন দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বি প্রকৌশলী শাহ মোহাম্মদ মুহিবুল্লাহ।

অন্যদিকে প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমাও ভালোভাবে পরিচালিত হবে বলে গাজীপুর জেলা প্রশাসক, সিটি করপোরেশনের মেয়র, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ফায়ার সার্ভিস, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী র‌্যাব, পুলিশ, সিটিএসবি, ডিএসবিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেন। এদিকে ইজতেমা চলাকালে ট্রাফিক ও যাতায়াত ব্যবস্থা আগের মতোই বলবৎ থাকবে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সাল থেকে টঙ্গীর এই ময়দানে তাবলিগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমা হয়ে আসছে। তবে তাবলীগ জামায়াতের নেতাদের বিভেদের কারণে ২০১৭ সাল থেকে দুই পর্বে হচ্ছে বিশ্ব ইজতেমা।


আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




দেশের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ রাখবে ভারত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখেছিল ভারত। দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সেটা অব্যাহত থাকবে। অর্থাৎ এর আগে মসলাজাতীয় পণ্যটি রপ্তানি করবে না তারা। ভারতীয় প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এবং দ্য হিন্দুর প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়, গত ২০ ফেব্রুয়ারি এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে মরিয়া ভারত সরকার। সেই সঙ্গে অভ্যন্তরে পর্যাপ্ত সরবরাহ রাখতে চায় তারা। সেই লক্ষ্যে রান্নাঘরের মুখ্য পণ্যটি রপ্তানি নিষিদ্ধ রাখতেই আগ্রহী তারা। প্রয়োজনে বন্ধ রাখার মেয়াদ আরও বাড়তে পারে।

বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে ভোক্তা বিষয়ক সচিব রোহিত কুমার বলেন, পেঁয়াজ রপ্তানিতে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হচ্ছে না। এ নিয়ে বিদ্যমান অবস্থান পরিবর্তনের কোনো বাধ্যবাধকতা আপাতত নেই। ভারতে পেঁয়াজের দর যৌক্তিক পর্যায়ে আনতে মুখিয়ে আছে সরকার। দেশের মার্কেটে পণ্যটির সহজলভ্যতা ও প্রাপ্যতা নিশ্চিত করতে চায় তারা। এখন মূলত তাতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি খবর বের হয়, পেঁয়াজ রপ্তানিতে জারি করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে ভারত। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়তেই দেশটিতে নিত্যপণ্যটির দর ৪০ দশমিক ৬২ শতাংশ বেড়ে যায়। পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি দেশটির বাজারে পাইকারিতে প্রতি কুইন্টালের মূল্য দাঁড়ায় ১২৮০ রুপি (ভারতীয় মুদ্রা)।

সূত্র জানায়, সামনে ভারতে জাতীয় নির্বাচন। এর আগে পেঁয়াজের ওপর থেকে নরেন্দ্র মোদি সরকারের নিষেধাজ্ঞা ওঠানোর সম্ভাবনা ক্ষীণ। একরকম নেই বললেই চলে। কারণ, শীতকালীন মৌসুমে দেশটির শীর্ষ উৎপাদক অঞ্চল মহারাষ্ট্রে তুলনামূলক কম উৎপন্ন হয়েছে।

অবশ্য ইতোমধ্যে বাংলাদেশসহ কয়েকটি বন্ধুত্বপূর্ণ দেশে সীমিত পরিমাণে পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত। সেই চুক্তি বজায় থাকতে পারে।


আরও খবর
এক মাসে রিজার্ভ বাড়ল ৬৩ কোটি ডলার

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




সিপিবির কমিটির সমালোচনা করে বক্তব্য, মঞ্জুরুল আহসানকে অব্যাহতি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খানকে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ছয় মাসের জন্য দলীয় সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে দলটির সাবেক এই সভাপতির। আজ সোমবার দুপুরে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য লুনা নূর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় কমিটির জরুরি সভায় পার্টির শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য গঠনতন্ত্র অনুযায়ী মনজুরুল আহসান খানকে উপদেষ্টার পদ থেকে স্থায়ী অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তাঁর সদস্যপদ আগামী ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। সদস্যপদ স্থগিত থাকাকালীন তাঁর কার্যকলাপ সম্পর্কে নতুন কোনো অভিযোগ উত্থাপিত হলে সেক্ষেত্রে পুনরায় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সভায় পার্টির শৃঙ্খলা, রীতিনীতি ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার যেকোনো পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৭ ফেব্রুয়ারি একটি গণমাধ্যমে বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির সমালোচনা করে মনজুরুল আহসান বলেন, বর্তমান সিপিবির নেতৃত্বে রয়েছে একটা সুবিধাবাদী গোষ্ঠী। এরা অতীতেও কোনো আন্দোলন করেনি, বর্তমানেও করে না।

তিনি আরও বলেন, তাল মিলিয়ে চলতে তো পারছেই না, উল্টো আরও পিছিয়ে এসেছে। এই কমিটিকে আমরা সরিয়ে দেব। সেন্ট্রাল কমিটিতে তাঁদের একজনের মেজরিটি। সারা দেশের সদস্যদের মধ্যে আমাদের মেজরিটি বেশি। বেশিরভাগ জেলা আমাদের সমর্থন করবে। আমরা একটা রিকুইজিশন সম্মেলন ডেকে তাদের সরিয়ে দেব।


আরও খবর