আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

ফেসবুকে উল্টাপাল্টা লিখলেই ব্যবস্থা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
এটি কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়। অনেক সময় বিভাগের শিক্ষার্থীরা আবেগপ্রবণ হয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেক কিছু লিখে থাকে। এতে বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত লকডাউন শিথিল করে গণপরিবহন, দূরপাল্লার বাস ও দোকানপাট-শপিংমল খুললেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে বিরুপ কোনো মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আনোয়ার বেগমের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপিতে বলা হয়েছে বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হতে পারেএমন কিছু সামাজিক মাধ্যমে না লেখার জন্য একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।

বুধবার (০৯ জুন) এ বিষয়ে অধ্যাপক আনোয়ারা বেগম গণমাধ্যমকে বলেন, এটি কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়। অনেক সময় বিভাগের শিক্ষার্থীরা আবেগপ্রবণ হয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেক কিছু লিখে থাকে। এতে বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়। তাই একটি সতর্কতামূলক বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, শিক্ষার্থীরা তাদের ভোগান্তি নিয়ে লিখতে পারবে না এটি বাকস্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ। কারণ গত চার মাসেও স্নাতকের রেজাল্ট প্রকাশ করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় কোন অনুগত দাস তৈরির কারখানা নয়।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার গণমাধ্যমকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে এমন কোনো মন্তব্য শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখবে তা হতে পারে না। আমি বিজ্ঞপ্তিটি সমর্থন করি। বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে কোনো শিক্ষার্থী যদি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উল্টাপাল্টা কিছু লেখেন তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



ইসরায়েলকে আমরা স্বীকার করি না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | ১২১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইসরায়েলকে দেশ হিসেবে স্বীকার করি না, তাই সে দেশে কোনো বাংলাদেশি গেলে শাস্তি পেতে হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

বুধবার (২৬ মে) সকালে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় ফিলিস্তিনের জনগণের জন্য চিকিৎসা সরঞ্জাম হস্তান্তর শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। এসব চিকিৎসা সরঞ্জাম বাংলাদেশে নিযুক্ত ফিলিস্তিন রাষ্ট্রদূত ইউসেফ এস ওয়াই রামাদানের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশের পাসপোর্ট থেকে এক্সেপ্ট ইসরায়েল লেখা বাদ প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন আরও বলেন বলেন, ফিলিস্তিনের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক আগের মতো রয়েছে। বাংলাদেশ ফিলিস্তিনি জনগণের সমর্থনে কাজ করে যাবে।

ড. মোমেন বলেন, বাংলাদেশের কোনো কোনো গণমাধ্যম পাসপোর্ট সংশোধন নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি করছে। তবে ইসরায়েল নিয়ে আমাদের অবস্থান খুব সুস্পষ্ট। ফিলিস্তিন নীতিতে আমাদের অবস্থান পরিবর্তন হয়নি।


আরও খবর



জলবায়ু পরিবর্তন থেকে বাঁচতে গাছ লাগাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | ৮৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের পরিবেশ আমাদেরই রক্ষা করতে হবে। এ দেশ আমাদের। আজকে জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হলে, আমাদের সবুজ বাংলাকে আরও সবুজ করতে হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। বাংলাদেশকে আমরা সোনার বাংলা হিসেবে গড়তে চাই।

শনিবার (৫ জুন) সরকারি বাসভবন গণভবনে জাতীয় বৃক্ষরোপণ অভিযান-২০২১ উদ্বোধনের সময় প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

তিনি বলেন, আসুন আমরা সবাই মিলে ব্যাপকভাবে বৃক্ষরোপণ করি এবং আমাদের সোনার বাংলাকে আরও সোনার সবুজ বাংলা করি। বনায়নে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্যের কথা জানিয়ে টানা তিনবারের সরকার প্রধান বলেন, আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ। আমরা এগিয়ে যাব।

বনায়নের ক্ষেত্রে আমাদের অনেক সাফল্য। আমরা যে ব্যবস্থা নিয়েছি তার ফলে আজকে আমাদের প্রায় ২২ শতাংশ বনায়ন সৃষ্টি হয়েছে। তাছাড়া আমাদের পারিবারিকভাবে বাগান সৃষ্টি হচ্ছে। সবাই এখন সচেতন।

প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে আহ্বান জানিয়ে বলেন, আসুন আমরা সবাই মিলে ব্যাপকভাবে বৃক্ষরোপণ করি এবং আমাদের সোনার বাংলাকে আরও সোনার সবুজ বাংলা করি। আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ। আমরা এগিয়ে যাব।

গণভবনে চারা রোপন করে বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, আজকে বিশ্ব পরিবেশ দিবস। আমি নিজে বৃক্ষরোপণ করলাম। সেই সঙ্গে আমি দেশবাসীকে আহ্বান জানাব, যার যেখানে যতটুকু জায়গা আছে গাছ লাগান। তিনটা করে গাছ লাগাতে পারলে সব থেকে ভালো হয়। আর সেটা যদি না পারেন একটা করে হলেও লাগাবেন। আমরা চাই যে একটা ফলজ, একটা বনজ, একটা ভেষজ এ ধরনের গাছ লাগাবেন। পরিবেশ রক্ষায়, নিজের আর্থিক সচ্ছলতা ও পরিবেশ রক্ষার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি উপযোগী সেটা হলো ব্যাপকভাবে বৃক্ষরোপণ করা।

প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব কে এম শাখাওয়াত মুন জানান, এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, সচিব জিয়াউল হাসান, প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার মো. নজরুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।


আরও খবর



নবাবগঞ্জে ১০ জনের দেহে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট সনাক্ত

প্রকাশিত:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | ১২৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় ১০ জনের শরীরে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট সনাক্ত হয়েছে। সনাক্ত হওয়া ১০ জনই পেশায় শ্রমিক। তারা চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে নবাবগঞ্জে আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজে এসেছিলেন।

আজ শনিবার (৫ জুন) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, আক্রান্ত বিভিন্ন বয়সী ওই দশজন শ্রমিকের কাজ করেন। গত মাসের ১৮ তারিখে তারা সকলে ট্রাকযোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজের জন্য নবাবগঞ্জে এসেছিলেন। বিষয়টি জানতে পেরে ২৬ মে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য তাদের ঢাকার বক্ষব্যাধী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। এখনও তারা সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

তাদের সকলের শরীরে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরণের ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে বলে নিশ্চিত করেন ডা. শহিদুল।


নিউজ ট্যাগ: নবাবগঞ্জ

আরও খবর



ঝিনাইদহে ১৫ সেকেন্ডের ঝড়েই লণ্ডভণ্ড অর্ধশত ঘরবাড়ি

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | ১৩৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের আড়মুখী গ্রামে ঝড়ের তাণ্ডবে প্রায় অর্ধশত ঘরবাড়ি লণ্ডভণ্ড হয়েছে। এ সময় নারী-শিশুসহ অন্তত ৩ জন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ মে) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার আড়মুখী গ্রামে এ ঝড় আঘাত হানে।

নলডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কবীর হোসেন জানান, মঙ্গলবার বিকেলে থেকেই হালকা বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টিপাত হয়। সন্ধ্যার পর হঠাৎ করেই আকাশ কালো মেঘে ঢেকে যায়। শুরু হয় ঝড়। ১৫ থেকে ২০ সেকেন্ড স্থায়ী এ ঝড়ে আড়মুখী গ্রামের কুটিপাড়া থেকে পশ্চিম পাড়া পর্যন্ত প্রায় ১শ মিটারের মতো ব্যাস ধারণ করে ২ কিলোমিটার লম্বা স্থান ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। এতে অর্ধশত কাঁচা-পাকা বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়। উপড়ে যায় শতশত গাছপালা। ঝড়ের কবলে পড়ে নারী ও শিশুসহ তিনজন আহত হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত ওই গ্রামের বাবলু শেখ বলেন, হঠাৎ করে ঝড় শুরু হলো। কিছু বোঝার আগেই ১৫ থেকে ২০ সেকেন্ডের মধ্যে গাছপালা উপড়ে গেল। বাড়িঘরে ভেঙে মাটির সঙ্গে মিশে গেছে।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগিতার জন্য সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়াও তাদের শুকনা খাবার দেওয়া হচ্ছে।

নিউজ ট্যাগ: ঝড়ের তাণ্ডব

আরও খবর



শরীয়তপুরের রাস্তা সংস্কারের দাবীতে স্মারকলিপি

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | ১৮১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আমাদের অভিযোগ ছয়শত পরিবারের চলাচলের জন্য বৃক্ষতলা থেকে তেলীবাড়ি পর্যন্ত গ্রামীণ রাস্তাটি দীর্ঘদিনেও সংস্কার হয়নি। তার উপর রাস্তাটির নেই কোনো শাখা রাস্তা। গ্রামীণ রাস্তাটি ইটের সোলিং দিয়ে তৈরী হলেও বন্যা

শরীয়তপুর থেকে সাইফ রুদাদ

শরীয়তপুর সদর উপজেলার পালং ইউনিয়নের পাটনীগাঁও এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত দাবী করে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি করেছে। গ্রামের একমাত্র রাস্তাটি সংস্কারের দাবীতে এ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

বুধবার(০২জুন) সকাল ১০ টায় শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয় প্রাঙ্গনে শতাধিক গ্রামবাসী মানববন্ধন করে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে।

এসময় বক্তারা বলেন, আমাদের অভিযোগ ছয়শত পরিবারের চলাচলের জন্য বৃক্ষতলা থেকে তেলীবাড়ি পর্যন্ত গ্রামীণ রাস্তাটি দীর্ঘদিনেও সংস্কার হয়নি। তার উপর রাস্তাটির নেই কোনো শাখা রাস্তা। গ্রামীণ রাস্তাটি ইটের সোলিং দিয়ে তৈরী হলেও বন্যা, ভারী বর্ষণ ইত্যাদি কারণে বর্তমানে করুণ দশা। এ রাস্তা দিয়ে পাটনীগাঁও, ধামসী, চাঁদসার, সিঙ্গাচুড়া সহ আশেপাশের গ্রামের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ধামসি-পাটনীগাঁও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়তে যায়। কিন্তু শিক্ষার্থীরা রাস্তা ভাঙা হওয়ার কারণে পড়ে গিয়ে আহত হয় বলে অধিকাংশ সময় ঝড়ে পড়ে। কষ্ট করে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়লেও গ্রামে কোনো উচ্চ বিদ্যালয় না থাকায় শিক্ষার্থীরা ষষ্ঠ শ্রেণীতে শহরে পড়তে যেতে চায় না ভাঙা রাস্তাটি পায়ে হেটে। যার কারণে পাটনীগাঁওর শিক্ষার হার ক্রমাগত হ্রাসের দিকে, যা উদ্বেগজনক। তাছাড়া গ্রামটিতে একটি কমিউনিটি ক্লিনিক থাকলেও তা অধিকাংশ সময় বন্ধ থাকে বিধায় প্রেগন্যান্টসহ ইমার্জেন্সী রোগীরা হাসপাতালে যেতে পারে না, ফলে ঘটে দুর্ঘটনা।

রাস্তাটির কারণে রাস্তাটির কারণে ধানসহ অন্যান্য ফসলের ন্যায্য দাম পাচ্ছে না কৃষকরা, ফরিয়ারা এসে প্রতিমণে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা কম দাম দিয়ে ফসল নিয়ে যায়। এলাকায় কোনো অঘটন ঘটলে থানা পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস আসতে পারে না। এলাকাটির অধিকাংশ পরিবার হিন্দু হওয়ায় এখানে প্রতিবছর নাম কীর্তন হয় কিন্তু দূরের কোনো অতিথি আসতে পারে না। রাস্তাটির কারণে আমরা ছেলে-মেয়ে বিয়ে দিতেও বাধা পাচ্ছি। যাতায়াতে অসুবিধা বলে আমাদের গ্রামে কেউ আত্মীয়তাও করতে চায় না।

রাস্তাটির বিষয়ে জন প্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, ভিলেজ রাস্তা রিপেয়ারিং এর অন্তর্ভূক্ত নয় রাস্তাটি, ভিলেজ রিপেয়ারিং এর অন্তর্ভূন্ত না হওয়ায় রাস্তাটি করা সম্ভব হচ্ছে না আমাদের পক্ষে। এমতাবস্থায় আমরা সর্বশেষ আপনার দ্বারস্থ্য হয়েছি, একমাত্র আপনার হস্তক্ষেপই পারে আমাদের রাস্তাটি সংস্কার করে আমাদের গ্রামের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সকল প্রকার সমস্যা দূর করতে।

নিউজ ট্যাগ: শরীয়তপুর

আরও খবর