আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

ফেসবুকের গোপন কালো তালিকায় বাংলাদেশি ৬ জঙ্গি সংগঠন

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৫৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অপপ্রচার রোধে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রায় চার হাজার জঙ্গি সংগঠন ও ব্যক্তিকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে ফেসবুক। এই তালিকায় বাংলাদেশের এক ব্যক্তি ও ছয় জঙ্গি সংগঠনের নাম রয়েছে। সোমবার (১২ অক্টোবর) যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্টারসেপ্ট ফেসবুকের গোপন এ তালিকা প্রকাশ করেছে।

তালিকাভুক্ত ছয় বাংলাদেশি সংগঠন হলো- আল মুরসালাত মিডিয়া, ইসলামিক স্টেট বাংলাদেশ, হরকাত উল-জিহাদ-ই-ইসলামী বাংলাদেশ, আনসারুল্লাহ বাংলা টিম, জামায়াত উল মুজাহিদিন বাংলাদেশ ( জেএমবি ) এবং সাহাম আল-হিন্দ মিডিয়া।

ফেসবুকের তালিকায় বিপজ্জনক হিসেবে চিহ্নিত ব্যক্তির নাম তরিকুল ইসলাম। তার সঙ্গে জামায়াত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) সম্পর্ক আছে।

এছাড়া জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সঙ্গে সাহাম আল-হিন্দ মিডিয়ার এবং ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে আল মুরসালাত মিডিয়ার।

ফেসবুকের এই তালিকায় স্থান পেয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের দাতব্য সংস্থা, হাসপাতাল, লেখক, রাজনীতিক, এমনকি মৃত ঐতিহাসিক ব্যক্তিও। এসব ব্যক্তি সংগঠনকে ফেসবুকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

যারা এসব তালিকাভুক্ত ব্যক্তি ও সংগঠন নিয়ে আলোচনা করেন তাদেরকেও শাস্তির আওতায় আনে ফেসবুক। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, যারা জঙ্গি সংগঠনগুলোর মতো মারাত্মক ক্ষতিকর কাজ করতে পারেন তাদেরকে প্রথম স্তরে, যারা সিরিয়ার সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর মতো সহিংস তাদেরকে দ্বিতীয় স্তরে এবং যারা ফেসবুকের বিদ্বেষমূলক বক্তব্য এবং বিপজ্জনক সংগঠনের নীতিমালা লঙ্ঘন করে তাদেরকে তৃতীয় স্তরের শাস্তির আওতায় আনা হয়। তাই বাংলাদেশের যেসব জঙ্গি সংগঠন ও ব্যক্তির নাম তালিকায় আছে, তাদের নিয়ে আলোচনা করলেও শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে ব্যবহারকারীদের।


আরও খবর



জাপার মহাসচিব হলেন মুজিবুল হক চুন্নু

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | ৭৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় পার্টির (জাপা) নতুন মহাসচিব হয়েছেন মুজিবুল হক চুন্নু। সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী এর আগে দলের কো-চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সদ্যপ্রয়াত মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর স্থলাভিষিক্ত হলেন।

আজ শনিবার গঠনতন্ত্রের অধিকারবলে মহাসচিব হিসেবে মুজিবুল হকের নাম ঘোষণা করেন দলের চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের। চুন্নু কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) আসনের নির্বাচিত সংসদ সদস্য।

মহাসচিব হওয়ার পর এক প্রতিক্রিয়ায় মুজিবুল হক চুন্নু সাংবাদিকদের বলেন, বিকেলেই আমার সঙ্গে দলের চেয়ারম্যানের (জি এম কাদের) সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি দলের নতুন মহাসচিব হিসেবে আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন।

সাবেক এই শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, এখন আমার দায়িত্ব হলো, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দলকে শক্তিশালী করা, দলের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি করা।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২ অক্টোবর রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান জাপার মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু।

জানা যায়, বাবলুর মৃত্যুর পর পরবর্তী সময়ে মহাসচিব হিসেবে মসিউর রহমান রাঙ্গা, এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশিদ, গাইবান্ধা-১ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়ার নাম আলোচনায় আসে।

গত ৭ সেপ্টেম্বর পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ জাপার মহাসচিব হিসেবে মুজিবুল হক চুন্নু ও রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া নাম প্রস্তাব করেন দলের চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের কাছে। শেষ পর্যন্ত মুজিবুল হককে বেছে নেন দলের চেয়ারম্যান।

জাতীয় পার্টি জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করছে। তবে দলটি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটেরও অংশীদার। দশম জাতীয় সংসদে জাতীয় পার্টি বিরোধী দলের পাশাপাশি সরকারের মন্ত্রিসভায়ও অংশ নেয়। সেই মন্ত্রিসভায় শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন মুজিবুল হক চুন্নু।


আরও খবর



নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়ন চেয়ে রিট

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে বুধবার রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়।

রিটে আইন প্রণয়নের আগ পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন গঠন সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম স্থগিত রাখতে বলা হয়েছে। নিবন্ধনভুক্ত রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ কংগ্রেসের মহাসচিব আইনজীবী মো. ইয়ারুল ইসলাম রিটটি দায়ের করেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও আইন সচিবকে রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

আইনজীবী ইয়ারুল ইসলাম জানান, এর আগে নির্বাচন কমিশন আইন ২০২১ এর খসড়ার আলোকে আইন প্রণয়ন করার জন্য আইন মন্ত্রণালয় ও নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছি। কিন্তু চিঠির কোনো জবাব বা নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এ কারণে রিট করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সংবিধানের ১১৮ (১) অনুচ্ছেদে নির্বাচন কমিশন গঠনের কথা বলা আছে। গত ৭ অক্টোবর এক অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সাফ জানিয়ে দিয়েছেন সার্চ কমিটির মাধ্যমেই নির্বাচন কমিশনের নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও কমিশনের সদস্য নিয়োগ করা হবে।


আরও খবর



দোহারে দৈনিক বাংলাদেশের খবর পত্রিকার ৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি পালিত

প্রকাশিত:রবিবার ১০ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১০ অক্টোবর ২০২১ | ৪৬০জন দেখেছেন
Image

নাজনীন সিকদার, দোহার (ঢাকা)

জাতীয় দৈনিক বাংলাদেশের খবর’ পত্রিকার সাফল্যের সঙ্গে পথচলার ৬ষ্ঠ বর্ষ অতিক্রম করে সপ্তম বছরে পদার্পণ করেছে। রোববার সকাল ১১ টায় ঢাকার দোহার উপজেলায় বেগম আয়েশা শপিং কমপ্লেক্সে কেক কেটে কর্মসূচির পালন করা হয়েছে।

বাংলাদেশের খবর পত্রিকাটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এই সফলতার ধারাবাহিকতা যেন অব্যাহত রেখে সামনে এগিয়ে যেতে পারে এবং সাধারণ মানুষের খবরকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয় সেই আহবান জানান অতিথিরা। অনুষ্ঠানে দৈনিক বাংলাদেশের খবরের দোহার প্রতিনিধি মো. জুবায়ের আহম্মেদকে কেক খাইয়ে দিয়ে বর্ষপূতিতে শুভেচ্ছা জানান অতিথিরা।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দোহার প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. কামরুল হাসান, নববাংলা পত্রিকার প্রকাশক মো. বিল্লাল হোসেন, নববাংলা উপদেষ্টা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, দোহার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও জাগ্রত জনতার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মো. আতাউর রহমান সানী, দোহার প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি দৈনিক সমকাল পত্রিকার প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান টিপু, একাত্তর টিভির ঢাকা জেলা প্রতিনিধি ফারুক আহমেদ, কুসুমহাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আমজাদ হোসেন আজাদ, নববাংলার নির্বাহী সম্পাদক কাজী জোবায়ের আহমেদ, নাট্যকার ও পরিচালক শেখ সেলিম, দৈনিক আগামীর সময় পত্রিকার সহ-সম্পাদক আবুল হাশেম ফকির, দৈনিক ভোরের ডাক প্রতিনিধি মো. শাহাদাত হোসেন, দৈনিক আজকের দর্পণ পত্রিকার প্রতিনিধি নাজনীন সিকদার, দৈনিক ভোরের পাতা পত্রিকার প্রতিনিধি মো. সুজন হোসেন, দৈনিক খোলা কাগজ পত্রিকার প্রতিনিধি মহিউল ইসলাম পলাশ, দৈনিক আমার সময় পত্রিকার প্রতিনিধি মাকসুমুল মুকিম, মো. রফিক নাজুমল বারী প্রমুখ।


আরও খবর



খাবারের আশায় ছেলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | ৬৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নওগাঁর নিয়ামতপুরে শুধু দুমুঠো ডাল-ভাত খেয়ে বেঁচে থাকার আশায় ছেলের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ময়েজ উদ্দীন (৮০) নামে এক অসহায় বাবা।

সোমবার ওই বৃদ্ধ তার ছেলে মুনছের আলী (৩৫) ও পুত্রবধূ সুলতানা বেগমের (৩০) বিরুদ্ধে নিয়ামতপুর থানায় এ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাঁড়ইল ইউনিয়নের দিঘীপাড়া (পশ্চিম পাহাড়) গ্রামের বাসিন্দা ময়েজ উদ্দীন বার্ধক্যজনিত কারণে বর্তমানে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। কিন্তু ছেলে ভরণপোষণ না দেওয়ায় এ বয়সে শুধু বাঁচার তাগিদে নিজেকেই নিজের খাবার রান্না করে খেতে হয়।

স্থানীয়রা জানান, ওই বৃদ্ধ বাবার প্রতি তার ছেলে খুবই উদাসীন। কোনো খোঁজখবর রাখে না তার। বৃদ্ধ বাবার সঙ্গে মাঝেমধ্যেই ছোটখাটো বিষয় নিয়ে তুমুল ঝগড়া করে ছেলে। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশও হয়েছে। তবে প্রতিকার হয়নি। অবশেষে নিরুপায় হয়ে ভরণপোষণের দাবিতে আইনের আশ্রয় প্রার্থনা করেছেন তিনি।

ভুক্তভোগী বাবা ময়েজ উদ্দীন ছেলের প্রতি আক্ষেপ করে জানান, যোগ্য কর্মক্ষম ছেলে থাকলেও না খেয়ে দিন কাটে তার। বয়সের ভারে কিছুই করতে পারেন না তিনি। সম্প্রতি তার ভরণপোষণও বন্ধ করে দিয়েছে ছেলে। পুত্রবধূর প্রতি কিছুটা ভরসা করলেও সেও তার ছেলের মতোই আচরণ শুরু করেছে এখন। যেদিন শরীর খুব খারাপ থাকে রান্না হয় না তার। উপোস থাকতে হয় সারাদিন। পাড়া-প্রতিবেশীরা খোঁজ নিয়ে কিছু দিলে পেটে যায় তার। সব মিলিয়ে অর্ধহারে-অনাহারে দিন কাটছে এখন। অসুখ-বিসুখ, চিকিৎসার কথা বলতেই দুই চোখ বেয়ে অশ্রু নামে তার।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, শুনেছি সরকার নাকি বৃদ্ধ পিতা-মাতার ভরণপোষণ নিশ্চিত করতে আইন করেছে। সেই ভরসায় শুধু দুমুঠো ডাল-ভাত খেয়ে বেঁচে থাকার আশায় ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছি।

নিউজ ট্যাগ: থানায় অভিযোগ

আরও খবর



গ্রেপ্তার হতে পারেন নাসির-তামিমা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
মামলার অভিযোগে আরও বলা হয়, তামিমা বাদীর সঙ্গে বিয়ের সম্পর্ক চলমান থাকাবস্থায় নাসিরের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন। নাসির বাদীকে ফোন করে জানান যে সম্পূর্ণ বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবগত

ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা তাম্মীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন জানিয়েছেন মামলার বাদী রাকিব হাসান। আজ বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসীমের আদালতে তিনি এ আবেদন করেন। রাকিবের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিআইবি) একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদন আমলে নিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করার আবেদন করেছি। আদালত নথি পর্যালোচনায় আদেশ পরে দেবেন বলে জানিয়েছেন।

আদালত যদি গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন মঞ্জুর করেন, তাহলে যে কোন সময়ে গ্রেপ্তার হতে পারেন নাসির এবং তামিমা।

এর আগে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ডিভোর্স পেপার ছাড়াই অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করার অভিযোগে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা তাম্মীর বিরুদ্ধে করা মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন আদালত।

ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালতে তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

রাকিবের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান বলেন, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি বাদীর (রাকিব হাসান) সঙ্গে ১ নম্বর আসামি তামিমা সুলতানার ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক ৩ লাখ এক টাকা দেনমোহরে বিয়ে এবং রেজিস্ট্রি হয়। বিয়ের পর থেকে তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে সংসার করতে থাকেন। তাদের তোবা হাসান নামে এক মেয়ে রয়েছে। যার বর্তমান বয়স ৮ বছর।

মামলা সূত্রে আরও জানা যায়, তামিমা পেশায় একজন কেবিন ক্রু। তিনি সৌদি এয়ারলাইন্সে কর্মরত রয়েছেন। চাকরির সুবাদে তিনি ২০২০ সালের ১০ মার্চ সৌদিতে গিয়েছিলেন। মহামারির কারণে জরুরি অবস্থা সৃষ্টি হইলে সেখানেই অবস্থান করেন। এ সময় ফোন এবং সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে রাকিবের সঙ্গে তার যোগাযোগ হতো।

মামলায় বলা হয়, চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি তামিমার সঙ্গে ২ নং আসামির (ক্রিকেটার নাসির) কথিত বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পরে তা বাদীর নজরে আসে। বাদী এই ধরনের ছবি দেখে হতবাক হয়ে যান। পরবর্তীতে পত্রিকায় এই বিষয়ে সংবাদ দেখে তিনি ঘটনার বিষয় নিশ্চিত হন।’

এ ছাড়া তাদের গায়ে হলুদ ও বিয়ে পরবর্তী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান যথাক্রমে ১৭ ও ২০ ফেব্রুয়ারি সম্পন্ন হয়। যা ইতোমধ্যে বিভিন্ন সংবাদে প্রকাশিত হয়েছে।

মামলার অভিযোগে আরও বলা হয়, তামিমা বাদীর সঙ্গে বিয়ের সম্পর্ক চলমান থাকাবস্থায় নাসিরের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন। নাসির বাদীকে ফোন করে জানান যে সম্পূর্ণ বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবগত এবং তার নিকট তামিমা আছেন। বাদীর সঙ্গে বিয়ের সম্পর্ক চলমান থাকাবস্থায় তামিমার নাসিরকে বিয়ে করা যা ধর্মীয় এবং রাষ্ট্রীয় আইনে সম্পূর্ণ অবৈধ। আসামির সঙ্গে তিনি অবৈধ বিয়ের সম্পর্ক দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছেন, যা নিকৃষ্ট ব্যভিচার।’

অভিযোগে আরও বলা হয়, আসামিদের এরূপ অনৈতিক ও অবৈধ সম্পর্কের কারণে বাদী ও তার শিশু কন্যা মারাত্মকভাবে মানসিক বিপর্যস্ত হয়েছেন। আসামিদের এহেন কার্যকলাপে বাদীর চরমভাবে মানহানি হয়েছে যা বাদীর জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।’


আরও খবর