আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

ফিলিপাইনে ৭.৬ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা জারি

প্রকাশিত:শনিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২3 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২3 | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ফিলিপাইনের দক্ষিণাঞ্চলীয় মিন্দানাও দ্বীপে রিখটার স্কেলে ৭ দশমিক ৬ মাত্রার শক্তিশালী এক ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। শনিবার স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৩৭ মিনিটের দিকে এই ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে মিন্দানাও ও এর আশপাশের এলাকা। তবে ভূমিকম্পে কোনো হতাহত কিংবা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কি না তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি।

মার্কিন ভূ-তাত্ত্বিক জরিপসংস্থা ইউএসজিএস বলছে, শনিবার ফিলিপাইনের মিন্দানাও দ্বীপে ৭ দশমিক ৬ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। ভূমিকম্পের উৎপত্তি হয়েছে ভূপৃষ্ঠ থেকে ৩২ দশমিক ৮ কিলোমিটার গভীরে।

অন্যদিকে, ইউরোপীয়-ভূমধ্যসাগরীয় ভূমিকম্প কেন্দ্র (ইএমএসসি) বলছে, মিন্দানাওয়ে আঘাত হানা ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৫। ভূপৃষ্ঠ থেকে ৬৩ কিলোমিটার গভীরে এই ভূমিকম্পের উৎপত্তি হয়েছে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, মার্কিন সুনামি সতর্কতা ব্যবস্থা ভূমিকম্পের পর মিন্দানাও দ্বীপে সুনামি সতর্কতা জারি করেছে।

এর আগে, গত মাসে ফিলিপাইনের দক্ষিণাঞ্চলে ৬ দশমিক ৭ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানে। ১৭ নভেম্বরের ওই ভূমিকম্পে দেশটির সারাঙ্গানি, কোটাবাটো এবং দাভাও প্রদেশে অন্তত আটজনের প্রাণহানি ঘটে। এছাড়া ভূকম্পনে আহত হন আরও ১৩ জন। ভূমিকম্পে দেশটিতে অর্ধ-শতাধিক বাড়িঘর এবং অন্যান্য ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় ‘‘রিং অব ফায়ারে’’ অবস্থিত ফিলিপাইনে প্রায়ই ভূমিকম্প হয়। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপসংস্থা রিং অব ফায়ারকে বিশ্বের সবচেয়ে ভূমিকম্প এবং আগ্নেয়গিরির সক্রিয় অঞ্চল হিসেবে শনাক্ত করেছে।


আরও খবর



‘ভাষা আন্দোলনের নেতৃত্ব দানকারীদের অন্যতম প্রধান ছিলেন বঙ্গবন্ধু’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মশিউর রাহাত (পিরোজপুর)

Image

পিরোজপুর ১ আসনের সংসদ সদস্য শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, প্রতিষ্ঠিত সত্য যে ভাষা আন্দোলনের নেতৃত্ব দানকারীদের অন্যতম প্রধান ছিলেন আমাদের স্বাধীনতার জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

বুধবার সন্ধ্যায় পিরোজপুরের শারিকতলা ইউনিয়নের শনিরহাটে মহান ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, এই বাংলাদেশ অর্জন এমনি এমনি আসে নাই। ভাষা আন্দোলন থেকে কিন্তু শুরু আর সেটাকে পুর্ণঙ্গতা পায় ছেষট্টির ৬ দফা আন্দোলনে। পরে ৬২ সালের শিক্ষা কমিশন আন্দোলন। ৬৯ এ গণঅভ্যুথান। ৭১ এ মুক্তিযুদ্ধ। মূল কথা ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে শুরু হয়ে ৭১ এ মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য থেকে আমরা আমাদের বাঙালিত্বকে খুঁজে পেয়েছি।

এ সময় রেজাউল করিম ওই এলাকার কিছু সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমরা এ অবস্থার পরিত্রাণ করবো। এ এলাকায় যে সকল উন্নয়ন হয় নাই আমি তা করবো। আমি আপনাদের সেবক হিসেবে আপনাদের পাশে আছি। ভয় পাবেন না।

আলোচনা অনুষ্ঠানে বাবুল তালুকদারের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আক্তারুজ্জামান ফুলু ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বায়েজিদ হোসেন।


আরও খবর



শিশুদের লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টেশনের সব ধরণের ব্যবস্থা নেয়া হবে : উপাচার্য

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ বলেছেন, শিশুদের লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টেশনের সব ধরণের ব্যবস্থা নেয়া হবে। এটা নিশ্চিত করতে পারলে বিদেশে যাওয়ার রোগীর প্রবণতা আরো কমে আসবে এবং বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রশাসন একাধিক ক্যাডাভেরিক ট্রান্সপ্ল্যান্ট, বড়দের লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট, নিয়মিত চোখের কর্ণিয়া প্রতিস্থাপন, বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্টেশন, টেস্টটিউব বেবীর জন্মদান, স্টেম সেল থেরাপি, নিয়মিত কিডনী প্রতিস্থাপনসহ জটিল জটিল রোগের চিকিৎসাসেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছে। স্বল্পমূল্যে এই সকল চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে। এতে করে চিকিৎসা ব্যয়ের জন্য ডলারের উপর চাপ কমছে।

আজ শনিবার শহীদ ডা. মিলন হলে আয়োজিত শিশুদের লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টেশন ও নতুন জীবনের প্রত্যাশা ( হোপ ফর নিউ লাইফ, বিলিয়ারি এট্রেসিয়া সারভাইভরস এন্ড স্কপ অফ পেডিয়াট্রিক লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টেশন ইন বাংলাদেশ) নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে  উপাচার্য মহোদয় এসব কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পেডিয়াট্রিক সার্জারি (শিশু সার্জারি) বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. একেএম জাহিদ হোসেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন শিশু সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. সুশংকর কুমার মন্ডল ও সহকারী অধ্যাপক ডা. এস এম সাইফুল ইসলাম।

সেমিনারে জানানো হয়, বাংলাদেশের জনসংখ্যার প্রায় তিন ভাগের এক ভাগ শিশু, এই শিশুদের মধ্যে যারা নবজাতক তাদের মধ্যে একটা বৃহৎ অংশ জন্ডিসে ভোগে। পিত্ত নালীর জন্মগত ত্রুটির কারণে যে জন্ডিস হয় তার একটা বড় অংশ হয় বিলিয়ারি এট্রেসিয়ার কারণে। বিলিয়ারি এট্রেসিয়া নাম একটি জন্মগত রোগ। বিপিয়ারি অ্যাট্রেসিয়া পিত্তনালীর একটি জন্মগত রোগ যা লিভারের ভেতর এবং বাইরে বিস্তৃত থাকতে পারে।

বিলিয়ারি অ্যাট্রেসিয়া রোগে জন্মগতভাবে পিত্তনালী তৈরী হয় না।এই রোগে লিভারে উৎপাদিত পিত্তরস পিত্তনালীতে আসতে পারে না। যার যলে উৎপাদিত পিত্ত লিভারে জমা হয়ে বিভিন্ন জটিলতা তৈরী করে। পরবর্তীতে সঠিক চিকিৎসা না হলে লিভার নষ্ট হয়ে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটে। অতীতে বিলিয়ারি অ্যাট্রেসিয়াকে একটি দূরারোগ্য ও প্রাণঘাতি রোগ হিসাবে বিবেচনা করা হত।

কিন্তু জাপানি সার্জন ডা. মোরিও কাসাই কর্তৃক উদ্ভাবিত পদ্ধতি কাসাই পোর্টোয়েন্টরোস্টমি (Kasai Portoenterostomy ) ব্যবহার করে সারা পৃথিবীর লক্ষ লক্ষ বিলিয়ারি অ্যাট্রেসিয়া আক্রান্ত শিশুর জীবন বাঁচানো সম্ভব হয়েছে। বিলিয়ারি আট্রেসিয়া বেগের মূল চিকিৎসা লিভার প্রতিস্থাপন। এ রোগে আক্রান্ত শিশুদের জন্মের ৬০-৭০ দিনের মধ্যে কাসাই অপারেশন করতে পারলে লিভার নষ্ট হওয়ার প্রক্রিয়া দীর্ঘায়িত হয়। কাসাই অপারেশন পরবর্তী সময়ে শতকরা ৬০ ভাগ রোগীর ৬ মাসের মধ্যে জন্ডিস কমে যায়। যারা ২ মাসের মধ্যে চিকিৎসা নিতে পারে না অথবা অপারেশন পরবর্তী যাদের জন্ডিস কমে না তাদের দ্রুত লিভার ট্রান্সপ্লান্টেশন এর প্রয়োজন হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অতি অর খরচে দীর্ঘদিন যাবৎ কাসাই অপারেশন সম্পন্ন করে আসছে। যার ফলাফল আশাব্যঞ্জক। ভবিষ্যতে এই সকল শিশুসহ অন্যান্য বিলিয়ারি অ্যাট্রেসিয়ায় আক্রান্ত বাচ্চাদের লিভার প্রতিস্থাপন প্রয়োজন হবে। কিন্তু লিভার প্রতিস্থাপন একটি ব্যয়বহুল চিকিৎসা। ইউরোগে এর খরচ প্রায় ২ কোটি টাকা, ভারতে প্রায় ৬০-৭০ লক্ষ টাকা এবং বাংলাদেশে অনুমানিক ২০-৩০ লক্ষ টাকা খরচ হবে। এ কারণে শিশু যকৃত প্রতিস্থাপন আমাদের তথা শিশু সার্জারী বিভাগ এর বর্তমান স্বপ্ন। যা পুরণের জন্য আমাদের দরকার একটি উপযুক্ত অবকাঠামো, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি, প্রশিক্ষন, দক্ষ জনশক্তি যা কিনা শিশু বাস্তব।

সেমিনারে আরো বলা হয়, বিএসএমএমইউ এর শিশু সার্জারী বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ কে এম জাহিদ হোসেন এর সহায়তায় কাসাই অপারেশন এর যাত্রা শুরু। বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ এর প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় শিশুদের লিভার প্রতিস্থাপন শুরু করতে শিশু সার্জারি বিভাগ দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। আমাদের প্রিয় সন্তানদের হাসিমুখ চিরস্থায়ী হোক। আসুন শিশুদের এই দীর্ঘ ক্লান্তিকর যাত্রায় আমরা সহযাত্রী হই। বিনা চিকিৎসায় কোন শিশুর হাসি মুছে যেতে দেব না। এই আমরা প্রত্যাশা করি।


আরও খবর



সারা বিশ্বে অপতথ্য ও বিভ্রান্তিকর তথ্যের প্রচার লক্ষ্য করা যাচ্ছে : আরাফাত

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিশ্বব্যাপী অপতথ্য ও ভুল তথ্য প্রতিরোধে বাংলাদেশ ও তুরস্ক যৌথভাবে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত।

আজ শনিবার স্থানীয় সময় দুপুরে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি)-এর সদস্য দেশগুলোর তথ্যমন্ত্রীদের ইসলামিক সম্মেলনের বিশেষ অধিবেশনের পূর্বে তুরস্কের যোগাযোগ অধিদপ্তরের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ফাহরেতিন আলতুন এর সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান ।

বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, সারা বিশ্বে অপতথ্য ও বিভ্রান্তিকর তথ্যের প্রচার লক্ষ্য করা যাচ্ছে। অনেক সময় উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এগুলো ছড়ানো হচ্ছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশও এর নেতিবাচক শিকার। অপতথ্য ও ভ্রান্ত তথ্য প্রতিরোধ তাই এখন একটি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও তুরস্ক দুদেশের মধ্যে যৌথ সহযোগিতার ক্ষেত্র তৈরি হতে পারে। তথ্য ও অভিজ্ঞতা বিনিময়, প্রযুক্তিগত সহায়তাসহ অপরাপর সহযোগিতার বিষয়ে দুই দেশ একসাথে কাজ করতে পারে।

বাংলাদেশের তথ্য প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ফিলিস্তিনের গাজায় যেভাবে ক্রমাগত বিভ্রান্তিকর অপতথ্য ছড়ানোর ঘটনা ঘটছে, তা বিশ্ব খুব কমই দেখেছে। এই ধরণের অপতথ্য প্রচারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য, প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য সম্মিলিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন।

দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অপতথ্য ও ভুল তথ্য প্রচারের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ও তুরস্ক যৌথভাবে কাজ করার ব্যাপারে বাংলাদেশর তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেন তুরস্কের যোগাযোগ অধিদপ্তরের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ফাহরেতিন আলতুন।


আরও খবর



কুসিক উপ-নির্বাচন মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন চারজন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রবিউল বাশার খান, কুমিল্লা

Image

কুসিক উপ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে ভোটারদের মাঝে। ভোটাররা মনে করেন এই উপ-নির্বাচন হবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্ণ। কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন চারজন। মেয়র পদে উপ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দানের সময় সকল মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের উপচে পড়া ভিড় ছিল।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিকাল চারটা পর্যন্ত ৮ প্রার্থীর মনোনয়ন ক্রয়ের বিপরীতে বিকেল চারটা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা হয়েছে মোট ৪ জনের। এরা হলেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. তাহসীন বাহার সূচনা, মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য নূর-উর রহমান মাহমুদ তানিম, বিএনপির বহিষ্কৃত দু নেতা কুসিকের সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু ও বহিষ্কৃত কেন্দ্রিয় সেচ্ছাসেবক দলের নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার।

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক  ডা. তাহসিন বাহার সূচনা দুপুরে কুমিল্লা আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফরহাদ হোসেনের নিকট মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

এসময় নারী নেত্রী মেহেরুন্নেসা বাহার, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এড জহিরুল ইসলাম সেলিম, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আতিকুল্লাহ খোকন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড. সৈয়দ নূরুর রহমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এড. মো আমিনুল ইসলাম টুটুলসহ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচনে নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে ইভিএমে মাধ্যমে ভোট নেওয়া হবে। সর্বমোট ২ লক্ষ ৪২ হাজার ৪৫৮ জন ভোটার ভোট দিতে পারবেন। এর মধ্যে ১ লক্ষ ১৮ হাজার ১৮২ জন পুরুষ ভোটার এবং ১ লক্ষ ২৮ হাজার ২৭৮ জন নারী ভোটার রয়েছেন। এছাড়াও ২ জন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন। বিগত নির্বাচনে সিটিতে ভোটার ছিল ২ লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ছিল ১ লাখ ১৭ হাজার ৯২ জন, পুরুষ ভোটার ছিল ১ লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। এরই মধ্যে উপ-নির্বাচনে পুরুষ ও নারী ভোটার বেড়েছে ১২ হাজার ৫৩৮ জন।

কুমিল্লা আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, মোট ১০৫টি ভোটকেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোট নেওয়া হবে। মনোনয়নপত্র বাছাই ১৫ ফেব্রুয়ারি। আপিলের সময়সীমা ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। আপিল নিষ্পত্তি ১৯-২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২২ ফেব্রুয়ারি। প্রতীক বরাদ্দ ২৩ ফেব্রুয়ারি। ভোট গ্রহণ ৯ মার্চ সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত নেওয়া হবে   ইভিএমে মাধ্যমে।

২০২২ সালের কুসিকের তৃতীয় নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা মনিরুল হক সাক্কুকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন নৌকা প্রতীকের আরফানুল হক রিফাত। ওই নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী রিফাত ৫০ হাজার ৩১০ এবং সাক্কু পান ৪৯ হাজার ৯৬৭ ভোট।

২০২৩ সালের ১৩ ডিসেম্বর সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সাবেক মেয়র আরফানুল হক রিফাত। এরপর থেকে প্যানেল মেয়র হাবিবুর আল আমিন সাদী ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।


আরও খবর



সম্পর্ক এগিয়ে নিতে ঢাকায় মার্কিন প্রতিনিধিদল

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদার করতে তিন দিনের সফরে ঢাকায় এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিল, ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট এবং এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্টের (ইউএসএআইডি) প্রতিনিধিদল। শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দলটি দেশে পৌঁছে। ঢাকার মার্কিন দূতাবাস থেকে এক মিডিয়া নোটে প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানানো হয়।

মিডিয়া নোটে উল্লেখ করা হয়েছে, ওয়াশিংটন ডিসি থেকে ঢাকায় ২৪-২৬ ফেব্রুয়ারি সফরে আসা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস।

দেশে আসা মার্কিন প্রতিনিধিরা হলেন- রাষ্ট্রপতির বিশেষ সহকারী ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের (এনএসসি) ডিরেক্টর এলিন লাউবাকের, ইউএসএআইডির এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোর অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেটর মাইকেল শিফার এবং ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি আফরিন আক্তার।

ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে পারস্পরিক স্বার্থের অগ্রগতির জন্য কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং অভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা করবেন তারা। সফরকালে তারা তরুণ অ্যাক্টিভিস্ট, সুশীল সমাজ, শ্রমিক সংগঠক এবং মুক্ত গণমাধ্যমের বিকাশে নিযুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন।

মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিকের জন্য অভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গিকে এগিয়ে নেওয়া, মানবাধিকারকে সমর্থন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, আন্তর্জাতিক হুমকির বিরুদ্ধে আঞ্চলিক সহনশীলতার শক্তিকে এগিয়ে নিতে এবং অর্থনৈতিক সংস্কারের প্রচারে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারত্বে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪