আজঃ বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদককে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | ১১৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আশিকুর রহমান রকিকে (২৫) গত রবিবার রাত সাড়ে ১০টায় গাইবান্ধা পৌরসভার পূর্বপাড়ার হালিম বিড়ি ফ্যাক্টরী সংলগ্ন রাস্তার মোড়ে দুর্বৃত্তরা প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করে। নিহত রকি ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের মধ্য কঞ্চিপাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি মেম্বার মৃত ছইদার রহমানের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা গেছে, আশিকুর রহমান রকি রাতে শহরের পুরাতন বাজার এলাকার ফার্মেসী থেকে ওষুধ কিনে সোহেল ও প্লাবনকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলে নিজ বাড়ি ফুলছড়ির কঞ্চিপাড়ার দিকে যাচ্ছিল। এসময় পথিমধ্যে শহরের পূর্বপাড়ার হালিম বিড়ি ফ্যাক্টরী সংলগ্ন রাস্তার মোড়ে পৌঁছলে পূর্ব থেকেই ওঁৎ পেতে থাকা পূর্বপাড়ার নবাব আলীর ছেলে কাঞ্চন ও তার সহযোগীরা রকির উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। এসময় অপর এক মটরসাইকেলে রকির সঙ্গে আসা তাকে রক্ষা করতে এগিয়ে গেলে আব্দুল মমিন মাস্টার গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রকির চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসার আগেই দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় রকিকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

গাইবান্ধা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাহফুজুর রহমান জানান, নিহত রকির বড় ভাই আতিকুর রহমান সরকার সোমবার বাদি হয়ে গাইবান্ধা সদর থানায় কাঞ্চনকে প্রধান আসামি এবং ৩ জনের নামসহ আরও অজ্ঞাত ৭/৮ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এব্যাপারে গাইবান্ধা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আসিফ সরকার জানান, গত দুই মাস আগে পূর্বপাড়া এলাকার নবাব আলীর ছেলে কাঞ্চনের সাথে রকির মোটরসাইকেলের হর্ণ বাজানো নিয়ে বাকবিতন্ডা হয়। এরই জের ধরে উভয়ের মধ্যে শত্রুতার সৃষ্টি হয়। এরই জের ধরে কাঞ্চন তার দলবলসহ রকির উপর হামলা চালায়। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে অতিসত্বর হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম সেলিম পারভেজ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, হত্যাকারী কাঞ্চন ও তার সহযোগীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তোহিদুল ইসলাম জানান, বিষয়টি নিয়ে পুলিশ কাজ করছে। আশা করি অল্প সময়ের মধ্যেই প্রকৃত কারণসহ হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



বরিশালে একদিনে ২০ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৮৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বরিশাল বিভাগের ছয় জেলায় করোনা পজিটিভ ৭ জন ও উপসর্গ নিয়ে ১৩ জনসহ মোট ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে বরিশাল, পিরোজপুর ও ঝালকাঠীতে ২ জন করে এবং পটুয়াখালীতে ১ জন করোনা পজিটিভি ছিলেন। বাকিরা করোনার উপসর্গে মারা যান।

এছাড়া বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যালের আরটিপিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৯৯ জন পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। বরিশালে করোনা শনাক্তের হার ৫২ দশমিক ৬৪ ভাগ। বিভাগীয় সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এদিকে, আজ থেকে নতুন করে শুরু হওয়া লকডাউন কার্যকরে বরিশালে সকাল থেকে টহল দিতে দেখা গেছে পুলিশ ও সেনা সদস্যদের। শহরের প্রবেশমুখ ও বিভিন্ন এলাকায় চেক পোষ্ট বসিয়ে আইন অমান্যকারীদের শাস্তির আওতায় আনছে বলে জানিয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। যে কোনও মূল্যেই এবার কঠোর লকডাউন কার্যকর করবেই বলে জানিয়েছে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

আজ শুক্রবার ছুটির দিনে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি সকালে তেমন দেখা যায়নি। তবে গতকাল রাজধানী ঢাকা থেকে যারা রওনা হয়েছিলেন সাঝ সকালে বাড়ি ফেরার পথে গণপরিবহন না পাওয়ায় তারা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে।



আরও খবর



থাইল্যান্ডে করোনা নিয়ন্ত্রণে কারফিউসহ কঠোর পদক্ষেপ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা নিয়ন্ত্রণে থাইল্যান্ড সোমবার রাজধানী ব্যাংককে কারফিউ জারি সহ নানা ধরনের কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এর ফলে এক কোটিরও বেশি লোককে কঠোর বিধি নিষেধের আওতায় পড়তে হচ্ছে।

করোনার উচ্চ সংক্রমণের ধরণ আলফা ও ডেল্টার কারণে দেশটিতে করোনা রোগী দ্রুতই বাড়ছে। রাজধানী ব্যাংককে রাত ৯টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত কারফিউ জারি ছাড়াও আরো নয়টি প্রদেশে কঠোর বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

একসাথে পাঁচজনের বেশি লোক একত্রিত হতে পারবে না। গণপরিবহন নেটওয়ার্কও রাত নয়টা থেকে বন্ধ থাকবে। সুপারমার্কেট, রেস্টুরেন্ট, ব্যাংক, ফার্মেসি ও ইলেকট্রনিক ছাড়া সকল দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

থাইল্যান্ডে এ পর্যন্ত তিন লাখ ২৬ হাজার ৩শরও বেশি লোক করোনায় আক্রান্ত এবং দুই হাজার ৭১১ জন মারা গেছে। তবে বেশিরভাগ সংক্রমণ ও মৃত্যু এপ্রিলে নতুন দফায় শুরু হওয়া করোনার কারণে হয়েছে।



আরও খবর
ভারতে আবারও বেড়েছে মৃত্যু

বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১




শিবচরে শিশুকে যৌন হয়রানি, অভিযুক্ত গ্রেফতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | ১১৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাদারীপুর থেকে দেলোয়ার হোসাইন

মাদারীপুরের শিবচরে এক কন্যা শিশুকে( ৯) যৌন হয়রানির অভিযোগে ফরহাদ মুন্সী (৪৫) নামের এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে শিবচর থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) বিকেলে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে শিবচর থানায় মামলা দায়ের করেন। আর রাতেই  ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়।আজ সকালে শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ মিরাজ হোসেন গণমাধ্যমে এবিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আটক ফরহাদ মুন্সী উপজেলার শিরুয়াইল ইউনিয়নের পশ্চিম কাকৈর গ্রামের মৃত জলিল মুন্সীর ছেলে।

শিবচর থানা ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শিরুয়াইল ইউনিয়নের পশ্চিম কাকৈর গ্রামে নয় বছর বয়সী শিশুটি অপর এক শিশুর সাথে বাড়ির কাছে পুকুরপাড়ে খেলছিল। এসময় আশেপাশে কেউ না থাকায় প্রতিবেশী ফরহাদ মুন্সী (৪৫) নামের এক ব্যক্তি ওই শিশুটিকে কোলে বসিয়ে যৌনাঙ্গ এবং বুকে স্পর্শ করতে থাকে। উভয় শিশু কান্নাকাটি শুরু করলে তাদের হত্যার ভয় দেখিয়ে ছেড়ে দেয়। পরে বাড়ি গিয়ে সব খুলে বললে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে শিবচর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। রাতেই অভিযুক্ত ফরহাদ মুন্সীকে তার এলাকা থেকে গ্রেফতার করে শিবচর থানা পুলিশ।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিরাজ হোসেন বলেন, ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ এনে শিশুটির পিতা বৃহস্পতিবার বিকেলে শিবচর থানায় মামলা দায়ের করেন। রাতেই আমরা অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করি।


আরও খবর



দেশব্যাপী আগস্টের সব অনুষ্ঠানে র‌্যাবের টহল: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ০১ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০১ আগস্ট ২০২১ | ৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
অনুষ্ঠানে মাস্ক পরা নিশ্চিত করা হবে এবং আমরা অনুরোধ রাখব মাস্ক ছাড়া কেউ যেন অনুষ্ঠানে না যায়। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে আরও কিছু নির্দেশনা যদি আসে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দেশব্যাপী আয়োজিত সব অনুষ্ঠানে র‌্যাবের টহল থাকবে। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে সকলকে বাধ্যতামূলক মাস্ক পরতে হবে।

রবিবার সচিবালয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত অনুষ্ঠিত এক বৈঠক শেষে এ কথা জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহদাতবার্ষিকী পালন করতে যাচ্ছি। এ উপলক্ষে আজকের সভায় বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সিদ্ধান্তগুলো হলো- জাতীয় শোক দিবসে ধানমন্ডিস্থ বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর প্রাঙ্গণে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাও সেদিনের জন্য করা হবে। ঢাকার বনানীস্থ কবরস্থানে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি বলেন, বনানী কবরস্থানসহ দেশব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানে র‌্যাবের টহল থাকবে। বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গোয়েন্দা নজরদারি থাকবে। সব অনুষ্ঠানে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ থাকবে। প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার ব্যবস্থা থাকবে।

জাতীয় শোক দিবসের সবল অনুষ্ঠানে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার জন্য সকলকে অনুরোধ জানান আসাদুজ্জামান কামাল।

তিনি বলেন, অনুষ্ঠানে মাস্ক পরা নিশ্চিত করা হবে এবং আমরা অনুরোধ রাখব মাস্ক ছাড়া কেউ যেন অনুষ্ঠানে না যায়। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে আরও কিছু নির্দেশনা যদি আসে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। যে অনুষ্ঠানগুলো হবে তার নিরাপত্তা এবং অনুষ্ঠানগুলো যাতে সুন্দরভাবে হয় তার জন্যই আমরা বৈঠক করেছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, জাতীয় শোক দিবসের সব অনুষ্ঠানেই পোশাকি নিরাপত্তা বাহিনীসহ সাদা পোশাকের বাহিনী কাজ করবে। টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে ফতেহা পাট, প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক পুষ্পস্তবক অর্পণ, মোনাজাত, বিশেষ দোয়া মাহফিলে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে অনুষ্ঠানের আয়োজনে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিধিনিষেধ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, টিকা দেয়ার বিষয়ে আমার সভাপতিত্বে একটি কমিটি হয়েছে। এই মাসের ৭ তারিখ থেকে আমরা তার ব্যবস্থা করছি। টিকা দেয়ার জন্য সবাইকে মাস্ক পরা, স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য আমরা অনুরোধ করছি।

বৈঠকে জননিরাপত্তা সচিব, পুলিশের আইজিপি বেনজির আহমেদসহ সব আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রধান ও গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



নগদের বিরুদ্ধে গুজব ছড়ানোর সাথে বিকাশের সংশ্লিষ্টতা

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | ১৪৫জন দেখেছেন
Image

মোবাইল আর্থিক সেবা (এমএফএস) কোম্পানি নগদের বিরুদ্ধে প্রচারণার পেছনে এটির প্রতিদ্বন্দ্বী কোম্পানি বিকাশের যোগসাজশ পেয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন আদালতে জমা দিয়েছে পুলিশের এই সংস্থাটি।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি নগদের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ (লিগ্যাল অ্যান্ড কমপ্লায়েন্স) তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী বিকাশের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন।

এজাহারে বলা হয়, নগদের সুনামে ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি অপরাধী চক্র সংঘবদ্ধ হয়ে প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক ক্ষতি ও জনগণের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে লিফলেট মুদ্রণ ও বিতরণ করছে।

সারা দেশে নগদ লিমিটেডের প্রায় ৩ লাখ আউটলেটসহ বিভিন্ন বাজার ও জনবহুল স্থানে বিভিন্ন সময়ে একটু ভেবে দেখবেন কী শিরোনামে একটি লিফলেট ছড়ানো হয়। এর মাধ্যমে নগদের আর্থিক ও সামাজিক সুনামের ক্ষতিসাধন করা হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান নগদের ৫১ শতাংশ শেয়ার ডাক বিভাগের। বাকি ৪৯ শতাংশ শেয়ারের মালিকানা থার্ড ওয়েভ টেকনোলজিস লিমিটেডের।

এজাহারে আরও বলা হয়, পূর্বপরিকল্পিতভাবে লিফলেট বিতরণের মাধ্যমে অপপ্রচার, প্রতারণা ও মানহানিকর গুজব রটিয়ে কোম্পানির সুনাম ও আর্থিক ক্ষতিসাধন করা হয়েছে।

মামলা গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) সত্যতা যাচাইয়ের দায়িত্ব দেয় আদালত। ২৮ ফেব্রুয়ারি মামলা তদন্ত শুরু করে পিবিআই। তদন্ত শেষে বিস্তারিত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেয় সংস্থাটি।

তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পুলিশ পরিদর্শক মেছবা উদ্দিন বলেন, নগদের অভিযোগ সত্য কি না যাচাই করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয় আমাদের। আমরা রিপোর্ট করে দিয়েছি যে, ঘটনার সত্যতা আছে। নগদের অভিযোগ সঠিক।

পিবাআইয়ের তদন্ত প্রতিবেদনে বিকাশের ১৬ কর্মকর্তার জড়িত থাকার তথ্যপ্রমাণ পাওয়ার কথা বলা হয়েছে। তারা হলেন এ কে এম নাজমুল করিম (ক্লাস্টার বিজনেস হেড, সেন্ট্রাল নর্থ ক্লাস্টার, বিকাশ লিমিটেড), মশিউর রহমান (নারায়ণগঞ্জ রিজিওনাল ম্যানেজার, বিকাশ লিমিটেড), আব্দুহ সুফী (রিজিওনাল ম্যানেজার, বিকাশ লিমিটেড), আলামিন হোসেন (রিজিওনাল কো-অর্ডিনেটর, বিকাশ লিমিটেড), আবু হেনা গোলাম কিবরিয়া (এরিয়া ম্যানেজার, বিকাশ লিমিটেড), গোলাম সারোয়ার (ডি এমপি ঢাকা, টেরিটরি অফিসার, বিকাশ লিমিটেড), রফিকুল ইসলাম (ম্যানেজার, ট্রিলজি ডিস্ট্রিবিউশন লি., বিকাশ লিমিটেড), নাহিদ হাসান (সুপারভাইজার, ট্রিলজি ডিষ্ট্রিবিউশন লি., বিকাশ লিমিটেড), নুমানুল হক (টেরিটরি ম্যানেজার, বিকাশ লিমিটেড), মির্জা শিহাব উদ্দিন (জেনারেল ম্যানেজার, জারাফ সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং লি, বিকাশ লিমিটেড), রামানন্দ চন্দ্র সরকার (ডিস্ট্রিবিউটর অ্যান্ড মার্চেন্ডাইজিং মানেজার, জারাফ সেলস এন্ড মার্কেটিং), মাজহারুল ইসলাম শাওন (ডিএসও, জারাফ সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং, বিকাশ লিমিটেড), আরিফ (ডিএসও, ট্রিলজি ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেড, বিকাশ লিমিটেড), তরিকুল ইসলাম (ডিএসও, ট্রিলজি ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেড, বিকাশ লিমিটেড), শেখ ফরিদ (ডিএসও, এ আই ডি ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেড, বিকাশ লিমিটেড) ও নাঈম (ডিএসও, মাজিম অ্যাগ্রো লিমিটেড।)

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, তদন্তকালে সাক্ষ্যপ্রমাণে জানা যায়, বিকাশ লিমিটেডের ক্লাস্টার বিজনেস হেড নাজমুল করিম এবং রিজিওনাল ম্যানেজার আব্দুহু সুফী তাদের মোবাইল নম্বর থেকে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ সেন্ট্রাল নর্থ ক্লাস্টার থেকে লিফলেট সরবরাহ করার জন্য অন্যদের কাছে পাঠিয়েছিলেন।

লিফলেট শেয়ার, প্রিন্ট ও সরবরাহ শেষে লিফলেটটি তারা সকলে ওই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে মুছে ফেলেন। তাদের বক্তব্য পর্যালোচনা করে দেখা যায় যে, চাকুরির স্বার্থে, বিকাশ কোম্পানিকে আর্থিকভাবে লাভবান করতে ও নগদকে হেয় প্রতিপন্ন ও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে তারা এ কাজ করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মামলা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনো মন্তব্যে রাজি হয়নি বিকাশ কর্মকর্তারা।

প্রতিষ্ঠানের প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা শামসুদ্দিন হায়দার ডালিম আজকের দর্পণকে বলেন, এই বিষয়টা এখন তদন্তাধীন। পিবিআই তাদের প্রতিবেদন কোর্টে জমা দিয়েছে। একটা হেয়ারিং হবে। এই প্রতিবেদন তারা গ্রহণ করবে কি করবেন না, এটা কি পরবর্তীতে মামলা চলবে কি চলবে না, এটার অনেকগুলো প্রক্রিয়া রয়েছে।

এই তদন্তাধীন অবস্থায় মন্তব্য করা সমীচীন না। তদন্তে তারা যা পেয়েছে, সেটা তো কোর্টে প্রমাণ করতে হবে, সে যে পক্ষই হোক। এটা একটা লম্বা প্রক্রিয়া। তাই প্রক্রিয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা কোনো মন্তব্য করতে পারব না।


আরও খবর