আজঃ শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪
শিরোনাম

ঘুম থেকে উঠেই সারা গায়ে যন্ত্রণা হওয়ার কারণ

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সকালে ঘুম ভাঙতেই গায়ে হাত পায়ে অসহ্য যন্ত্রণা। মাঝেমাঝে অতিরিক্ত পরিশ্রম করার ফলে এমনটা হওয়া স্বাভাবিক। তবে রোজ এমন যন্ত্রণা কিন্তু মোটেই ভাল লক্ষণ নয়।

১) ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি

আপনার শরীরে পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি না থাকলে হাইপোক্যালশেমিয়া বা রক্তের ক্যালশিয়ামের মাত্রা কমে যায়। শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ, যেমন কিডনি ও পেশি সঠিক ভাবে কাজ করার জন্য ক্যালশিয়ামের উপর নির্ভর করে। হাড়ের স্বাস্থ্য ভাল রাখতেও ক্যালশিয়াম প্রয়োজন। ভিটামিন ডি পর্যাপ্ত মাত্রায় না থাকলে শরীরে ক্যালশিয়ামের শোষণ হয় না। ফলস্বরূপ গাঁটে গাঁটে যন্ত্রণা হতে পারে।

২) অ্যানিমিয়া

রক্তে লোহিত রক্ত কণিকার অভাব হলে শরীরের টিস্যুগুলি পর্যাপ্ত মাত্রায় অক্সিজ়েন পায় না। অ্যানিমিয়া হলেই এমনটা হয়। এর ফলে রক্তাল্পতা হলে শরীর ক্লান্ত হয়ে পড়ে। ফলে সকালে ঘুম থেকে উঠেও ঝিমুনি ভাব আসে। হাতে-পায়ে যন্ত্রণাও হতে পারে।

অতিরিক্ত ওজনের ফলে আপনার পিঠ এবং ঘাড়ের উপর চাপ পড়ে, যার ফলে শরীরের ওই অংশগুলিতে ব্যথা হয়।

অতিরিক্ত ওজনের ফলে আপনার পিঠ এবং ঘাড়ের উপর চাপ পড়ে, যার ফলে শরীরের ওই অংশগুলিতে ব্যথা হয়। ছবি: শাটারস্টক

৩) ওজন বাড়লে

অতিরিক্ত ওজনের ফলে আপনার পিঠ এবং ঘাড়ের উপর চাপ পড়ে, যার ফলে শরীরের ওই অংশগুলিতে ব্যথা হয়। অতিরিক্ত ওজনের কারণে ঘুমের মধ্যে শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যাধিও হতে পারে, যা ঘুমের উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলে। এর থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় হয় ওজন কমানো। খাওয়াদওয়ার পরিমাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা।

৪) গদির জন্য

অনেক চিকিৎসকরা বলেন গদিতে শোয়ার অভ্যাসের কারণেও ঘুম থেকে উঠে গায়ে-হাত পায়ে ব্যথা হতে পারে। বাজারে এখন বিভিন্ন ধরনের গদি পাওয়া যায়, তাই কেনার আগে ভাল করে যাচাই করে নিন, আদৌ তা শরীরের জন্য ঠিক কি না।

৫) ঘুমোনোর অভ্যাস

অনেক সময় শোয়ার দোষেও ঘুম থেকে ওঠার পর সারা শরীরে যন্ত্রণা হয়। তাই শোয়ার ভঙ্গিতে বদল আনার প্রয়োজন আছে।


আরও খবর



সারাদেশে বৃষ্টির আভাস

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন স্থানে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) নিয়মিত বুলেটিনে সকাল ৯টা থেকে পরের ২৪ ঘণ্টার বার্তায় অধিদফতর জানিয়েছে, রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের বেশিভাগ জায়গায়, ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

এতে আরো বলা হয়, সেই সাথে রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, রাজশাহী, পাবনা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়ার ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।

অধিদফতর জানিয়েছে, দেশের উত্তরাঞ্চলে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র তা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

সিনপটিক অবস্থা সম্পর্কে অধিদফত বলেছে, মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

গতকালকের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয় রাজশাহীতে এবং আজকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২২ দশমিক নয় ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয় ঠাকুরগাঁওয়ে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত ১০২ মিলিলিটার রেকর্ড করা হয় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়।


আরও খবর
নয় অঞ্চলে ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের আভাস

বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24




চসিক মেয়রের সিঙ্গাপুর যাত্রা, ভারপ্রাপ্ত মেয়র আফরোজা জহুর

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী দ্যা ওয়ার্ল্ড সিটিস সামিট ২০২৪ এ যোগদান ও ব্যক্তিগত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে।

শনিবার (১ জুন) সকাল ১১ টায় চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে অভ্যন্তরীণ একটি ফ্লাইটে ঢাকায় রওনা হয়েছেন।

দেশে ফিরবেন আগামী ১২ জুন (বুধবার)। মেয়র সিঙ্গাপুর অবস্থানকালীন সময়ে প্যানেল মেয়র ও সংক্ষিত কাউন্সিলর আফরোজা জহুর (আফরোজা কালাম) ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন।

সিটি মেয়রকে বিদায় জানান চসিকের ভারপ্রাপ্ত মেয়র আফরোজা জহুর (আফরোজা কালাম), কাউন্সিলর ছালেহ্ আহম্মদ চৌধুরী, আবদুল মান্নান, আতাউল্লাহ চৌধুরী, পুলক খাস্তগীর, সমাজ সেবক সাইফুল করিম চৌধুরী ও চসিকের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

আজ রাত ১২টায় ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরের চাঙ্গি আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। সিঙ্গাপুর সফর শেষে আগামী ১২ জুন (বুধবার) দেশে ফিরার কথা রয়েছে মেয়রের।


আরও খবর



বেনজীরের পুকুরে চুরির সময় ৬০০ কেজি মাছ জব্দ

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

গোপালগঞ্জে জব্দ হওয়া পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদের সাভানা ইকো রিসোর্ট থেকে চুরি করার সময় প্রায় ৬০০ কেজি মাছ জব্দ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন।

শুক্রবার (৮ জুন) রাতে এসব মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত মাছ বিক্রি করে সরকারি কোষাগারে ৮৩ হাজার ৭৫৪ টাকা জমা দেয়া হয়েছে।

গত ২৭ মে বেনজীর আহমেদ, তাঁর স্ত্রী ও সন্তানদের নামে থাকা ৩৪৫ বিঘা (১১৪ একর) জমি জব্দ (ক্রোক) এবং বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকে তাঁদের নামে থাকা ৩৩টি ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধ (ফ্রিজ) করার আদেশ দেন ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন। এর মধ্যে সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক রয়েছে। এরপর ২৬ মে একই আদালত বেনজীর আহমেদ, তাঁর স্ত্রী ও তিন মেয়ের স্থাবর সম্পদ ক্রোক, তাদের নামে থাকা ব্যাংক হিসাব এবং বিভিন্ন কোম্পানিতে তাদের নামে থাকা শেয়ার অবরুদ্ধ করার আদেশ দেন।

দুদক সূত্রে জানা যায়, উক্ত সম্পদের রিসিভার নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান থাকাবস্থায় ক্রোককৃত সম্পত্তির মধ্যে সাভানা ইকো রিসোর্টে অবস্থিত পুকুরের মাছসহ বিভিন্ন সম্পদ চুরি হচ্ছে বলে দুদক কর্মকর্তারা খবর পান। বিষয়টি দুদকের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা সরেজমিনে তথ্য সংগ্রহের জন্য নির্দেশনা দেন। এরপর দুদকের একটি টিম শুক্রবার সাভানা ইকো রিসোর্টে যান। এ সময় রিসোর্টের ভেতরে ২০ একরের একটি পুকুরে মাছ ধরতে দেখেন তারা। দুদক টিম আসার খবর পেয়ে আসামিসহ অন্যরা পালিয়ে যান। এ সময় ৫৫৫ কেজি তেলাপিয়া ও ৩৭.৫০ কেজি কাতলা মাছ জব্দ করা হয়। পরে তা নিলামে তুলে ৮৩ হাজার ৭৫৪ টাকায় বিক্রি করা হয়।

মাছ ধরার কাজে নিয়োজিত জেলেদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, রিসোর্টের মৎস হ্যাচারি কর্মকর্তা সফিকুল ইসলামের নির্দেশে তারা মাছ ধরছেন। বিষয়টি দুদকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। এরপর গোপালগঞ্জে দুদকের সহকারী পরিচালক মো. সোহরাব হোসেন সোহেল সদর থানায় মামলা করেন। এতে রিসোর্টের মৎস হ্যাচারি কর্মকর্তা সফিকুল ইসলামকে আসামি করা হয়।

সার্ভার জটিলতার কথা বলে গত ৩ জুন থেকে সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক বন্ধের ঘোষণা করে রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ। ২০১৫ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত র‍্যাবের মহাপরিচালক এবং ২০২০ সাল থেকে ২০২২ পর্যন্ত পুলিশের মহাপরিদর্শক থাকার সময়ে বেনজীর আহমেদ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের বৈরাগীটোল গ্রামে গড়ে তোলেন সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক।


আরও খবর



ঈদুল আজহা: ট্রেনের ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঈদুল আজহা উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শেষে এবার ফিরতি যাত্রার টিকিট বিক্রি শুরু করল বাংলাদেশ রেলওয়ে। সোমবার (১০ জুন) সকাল ৮টা থেকে রেলওয়ের ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। চলবে ১৪ জুন পর্যন্ত।

আজ বিক্রি হচ্ছে ২০ জুনের টিকিট, ২১ জুনের আসন বিক্রি হবে ১১ জুন; ২২ জুনের আসন বিক্রি হবে ১২ জুন; ২৩ জুনের আসন বিক্রি হবে ১৩ জুন এবং ২৪ জুনের আসন বিক্রি হবে ১৪ জুন। পশ্চিমাঞ্চলে চলাচল করার আন্তঃনগর ট্রেনের আসনের টিকিট সকাল ৮টা থেকে পাওয়া যাচ্ছে। আর পূর্বাঞ্চলের ট্রেনের আসন বেলা ২টা থেকে বিক্রি করা হবে।

যেভাবে কাটবেন টিকিট

এবারও বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইট থেকে সহজেই টিকিট কাটতে পারবেন যাত্রীরা। এজন্য রেলওয়ের ওয়েবসাইটে একবার রেজিস্ট্রেশন করলেই হবে। আর যারা আগেই রেজিস্ট্রেশন করেছেন, তারা সরাসরি লগইন করেই টিকিট কাটতে পারবেন।

যাদের আগে থেকে রেজিস্ট্রেশন করা নেই তারা বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে উপরের দিকে রেজিস্ট্রেশন লেখা অংশে ক্লিক করতে হবে। পরে রেজিস্ট্রেশন নামে নতুন একটি পেজ আসবে। সেখানে প্রয়োজনীয় ব্যক্তিগত তথ্য নির্ভুলভাবে দিতে হবে। এরপর মোবাইল নম্বরে একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) চলে আসবে। সেটি সঠিকভাবে পূরণ করে ভেরিফাই বাটনে ক্লিক করলেই সফলভাবে রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে। পরে বাংলাদেশ রেলওয়ে নামে নতুন একটি পেজ আসবে। সেখানে ব্যবহারকারী স্বয়ংক্রিয়ভাবে লগইন হয়ে যাবেন। এরপর টিকিট কাটতে পারবেন।

টিকিট কেনার জন্য প্রথমে রেলওয়ের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। কেউ স্বয়ংক্রিয়ভাবে লগইন না হয়ে থাকলে ই-মেইল ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে লগইন করতে হবে। এরপর যে পেজ আসবে তাতে কাঙ্ক্ষিত ভ্রমণ তারিখ, যাত্রা শুরুর স্টেশন, গন্তব্য স্টেশন শ্রেণি পূরণ করে ফাইন্ড টিকিট বাটনে ক্লিক করতে হবে। পরের পেজে ট্রেনের নাম, সিট খালি আছে নাকি নেই এবং ট্রেন ছাড়ার সময় দেখাবে। সেখান থেকে ট্রেন অনুযায়ী ভিউ সিটস বাটনে ক্লিক করে আসন খালি থাকা সাপেক্ষে পছন্দের আসন নির্বাচন করে কন্টিনিউ পারচেজে ক্লিক করতে হবে।

পেমেন্টের ক্ষেত্রে ভিসা, মাস্টার কার্ড কিংবা বিকাশে পেমেন্ট করলে একটি ই-টিকিট অটো ডাউনলোড হবে। পাশাপাশি যাত্রীর ই-মেইলেও টিকিটের একটি কপি চলে যাবে। পরে ই-মেইলের ইনবক্স থেকে টিকিট প্রিন্ট করে ফটো আইডিসহ ই-টিকিট প্রদত্ত টিকিট প্রিন্ট দিয়ে সংশ্লিষ্ট সোর্স স্টেশন থেকে যাত্রার আগে ছাপানো টিকিট সংগ্রহ করা যাবে। তবে টিকিট প্রিন্ট না করলেও সমস্যা নেই, মোবাইল থেকে দেখালেও হবে।


আরও খবর
সাত নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে

বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24




পুলিশ পরিচয়ে স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নাজনীন শিকদার (দোহার-নবাবগঞ্জ)

Image

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় আলকাম ওরফে কামরুল নামে এক ভুয়া পুলিশকে গ্রেপ্তার করেছে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ।

শুক্রবার (৩১ মে) দুপুরে নবাবগঞ্জ থানায় ঢাকা জেলা দোহার সার্কেল এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল আলম এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল আলম বলেন, আসামী আলকাম ওরফে কামরুল নিজেকে পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন স্কুলপড়ুয়া ছাত্রী ও প্রবাসী স্বামীর স্ত্রীদের সাথে সর্ম্পক গড়ে তুলে এবং বিবাহের প্রস্তাব দেয়। এরই জের ধরে দশম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ৩১ মার্চ দুপুরে উপজেলার গালিমপুর বাজার থেকে  অপহরণ করে রাজধানী ঢাকায় নিয়ে যায়। এর কিছুদিন পর ঢাকা থেকে মেয়েটিকে পঞ্চগড় নিয়ে যায়। পরবর্তীতে অপহরণকৃত মেয়েটির সাথে জোর পূর্বক শারীরিক সম্পর্ক করে। এ সময় আলকাম ওরফে কামরুল ওই মেয়েটির সাথে আপত্তিকর ছবি তুলে ও ভিডিও ধারণ করে। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে ছেড়ে দিয়ে ভাইরাল হওয়ার কথা বলে মেয়েটির পরিবারকে হুমকি দিয়ে তাদের কাছে ১০ লাখ টাকা দাবি করে।

পুলিশ সুপার আরো বলেন, এরই জের ধরে ভুক্তভোগী ওই মেয়েটির পরিবার নবাবগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করলে আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় বৃহস্পতিবার (৩০ মে) রাতে রাজধানীর মিরপুর মডেল থানা এলাকার একটি ভাড়া বাড়ি থেকে প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর আাসামি আলকাম ওরফে কামরুলের ব্যবহার করা পুলিশের পোষাক, একটি মোবাইল, পুলিশের বুটজুতা, পুলিশের বেল্ট ও কালো রং এর একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত আলকাম নবাবগঞ্জ উপজেলার আগলা ইউনিয়নের ছাতিয়া এলাকার আব্দুল ওহাবের ছেলে।

এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহ-জালাল বলেন, গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারক আলকাম পুলিশের কাছে অপহরণ ও মেয়েটির সাথে হওয়া ঘটনার বিষয়টি স্বীকার করে। এ ঘটনায় আলকামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতনসহ পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।


আরও খবর