আজঃ বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

গুগল ওয়ার্কস্পেসে বড় পরিবর্তন আনার ঘোষণা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | ১৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গুগল ওয়ার্কস্পেসে বড় পরিবর্তন আনার ঘোষণা দিয়েছে সার্চ ইঞ্জিন প্ল্যাটফর্ম গুগল| এই পরিবর্তনের ফলে গুগল মিট, স্ক্রিন শেয়ারিং, পোলস, মিটিং চ্যাট, হ্যান্ড রেইজ ও কোয়েশ্চেন-অ্যানসার সেশনসহ একাধিক অপশন যুক্ত হবে। টেকক্রাঞ্চের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

সোমবার (১৪ জুন) এক ঘোষণায় গুগল ওয়ার্কস্পেসের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও জেনারেল ম্যানেজার জেভিয়ার সলতেরিও বলেন, গুগল ওয়ার্কস্পেসে এতোদিন প্রিমিয়ার ফিচার চালু ছিল। এখন থেকে ব্যবহারকারীরা ফ্রি ও প্রিমিয়াম ফিচারের মাধ্যমে গুগল ওয়ার্কস্পেস ব্যবহার করতে পারবেন। আমাদের উদ্দেশ্য কেবল ব্যবহারকারীর প্রয়োজন মেটানো।

গুগল ওয়ার্কস্পেসের এই পরিবর্তন জিমেইল ব্যবহারকারীরা বুঝতে না পারলেও ড্রাইভ ও ডক ব্যবহারকারীরা এটি বুঝতে পারবেন। গুগল ওয়ার্কস্পেস তথা ডক, ড্রাইভ, শিট, মিটসহ একাধিক ফিচার ফ্রি ও প্রিমিয়াম ব্যবহার করা যাবে। এই অতিরিক্ত সেবা গ্রহণের জন্য ব্যবহারকারীকে কী পরিমাণ অর্থ ব্যয় করতে হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে জেভিয়ার সলতেরিও বলেন, ব্যবহারকারীদের সুবিধার্থে শুরু থেকেই আমাদের ফিচারগুলো অপটিমাইজ করা হয়েছে।

গুগল ওয়ার্কস্পেসটিতে নতুন ফিচারসহ ব্যবহারকারীর ইন্টারফেসেও উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনা হবে। উন্মুক্ত করা হবে সব ব্যবহারকারীর জন্য। নতুন ফিচারের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে গুগল চ্যাটের আপডেট যা হ্যাংআউট নামে পরিচিত।

গুগল চ্যাটের আপডেট করা হলে ব্যবহারকারী আরো ভালোভাবে অনলাইনে তাদের কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন। যদিও এতে অনেকগুলো সহায়ক টুল বা ফিচার রয়েছে। কিন্তু সার্চ ইঞ্জিন প্ল্যাটফর্ম গুগল বলছে, একাধিক ফাইল ও টাস্কের মাধ্যমে ব্যবহারকারী আগের তুলনায় ভালো স্পেস পাবেন।

গুগল চ্যাটের পরিবর্তন ছাড়াও আরও যে ফিচারগুলোর কথা বলা হয়েছে- গুগল মিট, যেমন স্ক্রিন শেয়ারিং, পোলস, মিটিং চ্যাট, হ্যান্ড রেইজ ও কোয়েশ্চেন-অ্যানসার সেশনসহ একাধিক অপশনে আসবে পরিবর্তন। ফিচারটি চলতি বছরের সেপ্টেম্বর থেকে চালু হওয়ার কথা রয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, ব্যবহারকারীর তথ্যের সুরক্ষার জন্য আগামীতে গুগল আরও উন্নত সার্ভিস নিয়ে আসবে। ইতোমধ্যে ফ্লোক্রিপ্ট, ফিউচার-এক্স, থালস এবং ভার্চুর সঙ্গে ব্যবসায়িক অংশীদারিত্বেও সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছে।


আরও খবর



রেকর্ড গড়ে প্রথম রাউন্ডেই বাদ পড়লেন সানিয়া মির্জা

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১২৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টোকিও অলিম্পিকে ম্যাটে নেমেই অনন্য এক কীর্তি গড়েছেস ভারতীয় টেনিস তারকা সানিয়া মির্জা। ভারতের প্রথম মহিলা অ্যাথলেট হিসেবে চারটি অলিম্পিকে নামার রেকর্ড গড়লেন তিনি।

আর এই কীর্তি গড়ার দিনেও আলো ছড়াতে পারলেন না অলিম্পিকের মঞ্চে। মহিলা ডাবলসের প্রথম রাউন্ডে বাদ পড়ে গেলেন তিনি। আশা জাগিয়েও সফল হতে পারল না সানিয়া মির্জা ও অঙ্কিতা রায়না জুটি।

মহিলা টেনিসের কথা উঠলেই আলোচনায় থাকেন ভারতীয় ক্রিকেটার শোয়েব মালিকের স্ত্রী ভারতীয় সেনসেশন সানিয়া মির্জা। ক্যারিয়ারে ভুরিভুরি অর্জন থাকলেও অলিম্পিক মঞ্চে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারলেন না তিনি। রবিবার আধিপত্য বিস্তার করে শুরুটা হলেও পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাকে।

ইউক্রেনের যমজ বোনের জুটি লাইয়ুড মাইলা কিচেনক ও নাদিয়া কিচেনকের কাছে হেরেছেন সানিয়া-অঙ্কিতা। নাটকীয়তায় ভরা এই ম্যাচ ইউক্রেনের এই যমজ বোন ০-৬, ৭-৬ (০), ১০-৮ জিতে নেন তারা।

লাস্যময়ী টেনিস তারকা সানিয়া মির্জা তার ক্যারিয়ারে গ্র্যান্ড স্লাম জিতেছেন ছয়বার। এটি ছিল তার চতুর্থ অলিম্পিক। মহিলা ডাবলসে তিনি এবার বেছে নিয়েছিলেন তরুণ খেলোয়াড় অঙ্কিতা রায়নাকে। সানিয়াকে নিয়ে টেনিসে পদক জেতার স্বপ্ন দেখছিল ভারত, সেটা পূরণ হলো না। তবে টেনিসে ভারতে পদক জয়ের স্বপ্নটা কেবল বাঁচিয়ে রাখলেন সুমিত নাগাল।


আরও খবর



মিশ্র ডোজ বিপজ্জনক, জানালো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ জুলাই ২০২১ | ১৭৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ কিছুতেই কমছে না। এর মধ্যে কিছুটা আশার আলো জ্বালিয়েছে ভ্যাকসিন আবিষ্কারের বিষয়টি। এর প্রয়োগ নিয়েও চলছে নানা বিচার বিশ্লেষণ।

করোনা প্রতিরোধে দুই ডোজে দুই কোম্পানির টিকা নেয়ার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে অনেক দেশেই। আর এই দুরকমের টিকা ভয়ঙ্কর বিপদ ডেকে আনতে পারে বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সোমবার (১২ জুলাই) করোনা টিকা নিয়ে ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে নিজের মতামত জানান সংস্থাটির প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্যা স্বামীনাথন। সেখানে মিশ্র টিকার কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

রয়টার্সের বরাত দিয়ে সংস্থাটির প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্যা স্বামীনাথন বলেন, বহু মানুষ মিশ্র টিকা নেয়ার কথা ভাবছেন। প্রথম টিকা এক সংস্থার নিয়েছেন, দ্বিতীয় টিকাটি অন্য সংস্থার নিতে পারেন কিনা। এই মিশ্র টিকার কার্যকারিতা সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে কিছু জানা নেই। এই সংক্রান্ত কোনো তথ্যপ্রমাণ মেলেনি এখনও পর্যন্ত।

স্বামীনাথন আরও বলেন, তাই দুরকমের টিকা নেওয়ার এই প্রবণতা ভয়ঙ্কর বিপদ ডেকে আনতে পারে। জার্মানি এবং ইউরোপের একাধিক দেশে ইতিমধ্যেই দুবার দুরকমের টিকা নেওয়ার নিয়ম চালু হয়েছে।

ভারতেও বর্তমানে কোভিশিল্ড, কোভ্যাক্সিন এবং স্পুটনিক-ভি টিকাকরণে ব্যবহৃত হচ্ছে। এর মধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছ থেকে এমন সতর্কবার্তা এলো।



আরও খবর
ভারতে আবারও বেড়েছে মৃত্যু

বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১




প্রধানমন্ত্রীর জন্য আনারস পাঠালেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ১১ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ জুলাই ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য উপহার হিসেবে ৮০০ কেজি আনারস পাঠিয়েছেন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। রোববার (১১ জুলাই) সকাল সোয়া ৯টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে আনারসগুলো পাঠানো হয়। বন্দরে আনারসগুলো গ্রহণ করেন চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনের দ্বিতীয় সচিব উদত ঝা।

এর আগে গত ৫ জুলাই আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের জন্য উপহার হিসেবে ৩০০ কেজি হাড়িভাঙা আম পাঠান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রংপুরের বিখ্যাত এই হাড়িভাঙা আম খেতে অনেক সুস্বাদু। ওইদিন ত্রিপুরার আগরতলাস্থ বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনার মোহাম্মদ জোবায়েদ হোসেন আমগুলো গ্রহণ করেন। এরপর তিনি মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার তুলে দেন।

স্থলবন্দর সূত্রে জানা গেছে, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর তরফ থেকে তার প্রতিনিধি দল আখাউড়া স্থলবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য উপহারস্বরূপ আনারসগুলো নিয়ে আসেন। ৮০টি কার্টনে মোট ৮০০ কেজি আনারস ছিল। এরপর আনারসগুলো চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনের দ্বিতীয় সচিব উদত ঝার হাতে তুলে দেওয়া হয়। ভারতীয় হাইকমিশন এই উপহার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পৌঁছে দেবেন।

চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনের দ্বিতীয় সচিব উদত ঝা সাংবাদিকদের বলেন, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যকার সম্পর্ক দিন দিন মজবুত হচ্ছে। এই উপহার আদান-প্রদান দুই দেশের মধ্যকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কেরই নিদর্শন। আমরা আশা করছি, উপহারগুলো আজই ঢাকা পৌঁছে যাবে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এ সময় আখাউড়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. সাইফুল ইসলাম, আখাউড়া স্থলবন্দরের সহকারী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান ও আখাউড়া স্থল শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



আরও খবর



স্বরূপকাঠিতে ধর্ষণের শিকার হয়ে প্রতিবন্ধী শিশু ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, গ্রেফতার-২

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১৩৮জন দেখেছেন
হযরত আলী হিরু, স্বরূপকাঠি

Image

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে ৬ ব্যাক্তি কর্তৃক বিভিন্ন সময় ধর্ষণের শিকার হয়ে ১৫ বছর বয়সের এক প্রতিবন্ধী শিশু এখন ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। ধর্ষণে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো নান্দুহার গ্রামের ফিরোজ মিয়ার ছেলে উজ্জল ও একই গ্রামের মৃত কামাল হোসেনের ছেলে মকবুল হোসেন। শনিবার রাতে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামী করে নেছারাবাদ থানায় মামলা দায়ের করেন। বাদীর অভিযোগে প্রকাশ তার বুদ্ধি প্রতিবন্ধি ১৫ বছরের মেয়েকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে প্রতিবেশি আসামীরা বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করে। বর্তমানে মেয়েটি ৫ মাসের অন্তঃসত্বা । তাকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে ৬ জনের নাম প্রকাশ করে।

নেছারাবাদ থানার ওসি আবির মোহাম্মদ হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। রাতেই অভিযান চালিয়ে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়। আসামীদের পিরোজপুর আদালতে পাঠানো এবং ভিকটিমকে ডাক্তারী পরীক্ষা করানোর জন্য সিভিল সার্জন অফিসে পাঠানো হয়েছে। অপর আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর



ভুল স্বীকার ও ক্ষমা চাইলেন ডা. জাহাঙ্গীর কবীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে ভুল ব্যাখ্যা দেওয়ার ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে ভিডিও সরিয়ে নিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন লাইফস্টাইল নিয়ে দেশের আলোচিত চিকিৎসক ডা. জাহাঙ্গীর কবির।

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) দুপুরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের নিজস্ব ভেরিফায়েড পেজে তিনি ক্ষমা চান।

করোনা টিকা নিয়ে ভুল ব্যাখ্যা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, করোনার ভ্যাকসিন বিষয়ে কিছু তথ্য সহজভাবে বোঝাতে গিয়ে আমার অসাবধানতা বশত ভুল ব্যাখ্যা দিয়েছিলাম। এ নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হলে আমি অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে ভিডিওতে যে তথ্যগুলো ভুল ছিল এবং যে কথাগুলো জনমনে বিভ্রান্তি ছড়াতে পারে সেসব বিষয়ে সুস্পষ্ট বক্তব্য দিয়ে পূর্বের ভিডিওটি অনলাইন থেকে সরিয়ে নিয়েছি। একইসঙ্গে সবাইকে ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য পরামর্শ এবং উৎসাহ দিয়েছি।

ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

আসসালামু আলাইকুম, আমি ডা. মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবীর। সুস্থ থাকার লক্ষ্যে একটি স্বাস্থ্যকর জীবনধারা নিয়ে কাজ করছি। সেই লক্ষ্যে দীর্ঘ দিন ধরে আমার রোগীদের লাইফস্টাইল মডিফিকেশনের পরামর্শ দিয়ে আসছি। ইদানিংকালে আমার একটি ভিডিও এবং দুটি পোস্ট নিয়ে আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। প্রথমত সুস্থ থাকার জন্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো বিষয়ে গুরুত্বারোপ করে আমি একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলাম, সেখানে করোনার ভ্যাকসিন বিষয়ে কিছু তথ্য সহজভাবে বোঝাতে গিয়ে আমার অসাবধানতা বশত ভুল ব্যাখ্যা দিয়েছিলাম। এ নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হলে আমি অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে ভিডিওতে যে তথ্যগুলো ভুল ছিল এবং যে কথাগুলো জনমনে বিভ্রান্তি ছড়াতে পারে সেসব বিষয়ে সুস্পষ্ট বক্তব্য দিয়ে পূর্বের ভিডিওটি অনলাইন থেকে সরিয়ে নিয়েছি। একইসঙ্গে সবাইকে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য পরামর্শ এবং উৎসাহ দিয়েছি। এরপরেও কয়েকজন সম্মানিত ডাক্তার আমাকে ভুল বুঝে সরাসরি আমার নাম উল্লেখ করে নানান রকম পোস্ট করেন। তন্মধ্যে একটি পোস্টের স্ক্রিনশট আমি আমার পেজে শেয়ার করেছিলাম।

এছাড়া অন্য একটি জনসচেতনতামূলক পোস্টে উদাহরণ স্বরুপ একটি প্রেসক্রিপশন শেয়ার করেছিলাম। ওই প্রেসক্রিপশনটি যিনি লিখেছিলেন তার প্রতি সম্মান প্রদর্শনপূর্বক আমি তার নাম ও রেজিস্ট্রেশন নম্বরটি প্রকাশ করিনি। তথাপি এই পোস্টটি নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হলে তৎক্ষণাৎ দুটি পোস্টই ডিলিট করে দেই। আমি বিশ্বাস করি, আমাদের ডাক্তার সমাজের প্রত্যেকেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনসেবা করে যাচ্ছেন, মানবিক কাজ করে যাচ্ছেন, এজন্য প্রত্যেক ডাক্তারই আমার কাছে অত্যন্ত সম্মানিত ও শ্রদ্ধাভাজন। একজন ডাক্তার হিসেবে আমি কখনোই কাউকে অসম্মান করতে পারি না এবং আমি তা করতে চাইও না। তবুও আমার অন্বিচ্ছায় তা হয়ে থাকলে তার জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী।

উপরোক্ত বিষয়গুলোর বাইরে আরও যে বিষয়ে সমালোচনা এসেছে তার মধ্যে অন্যতম হলো, আমার পরামর্শকে কিটো ডায়েট হিসেবে অ্যাখ্যায়িত করা হয়েছে। এই বিষয়ে আমি বহুবার নানান ভিডিওর মাধ্যমে বলেছি যে আমি শুধুমাত্র ডায়েট বা খাদ্যাভ্যাস নিয়ে কথা বলি না। আমি মূলত পাঁচটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকি। এর মধ্যে স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের পাশাপাশি অটোফেজি, পর্যাপ্ত ঘুম, নিয়মিত ব্যায়াম ও মানসিক প্রশান্তির চর্চা করাকে সমানভাবে গুরুত্ব দেই। আমি কখনোই ঔষধ বিরোধী না, আমি সব সময় বলে এসেছি জরুরি চিকিৎসায় ঔষধ অপরিহার্য। তবে লাইফস্টাইল রোগগুলো লাইফিস্টাইল মডিফাই করে প্রতিরোধ করা যেতে পারে এবং সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। আমিও আমার রোগীদের প্রয়োজনে ঔষধ লিখছি, সুতরাং ঔষধের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। আমি সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করার চেষ্টা করছি যেন স্বাস্থ্যকর জীবন যাপনের মাধ্যমে দীর্ঘদিন ঔষধ ছাড়া সুস্থ থাকতে পারেন। বিশেষভাবে উল্লেখ্য, যেসব রোগীরা সরাসরি আমার পরামর্শ নেন আমি তাদের নিয়মিত অবজারবেশনে রাখার চেষ্টা করি এবং কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে আমার পরামর্শের নানান প্রভাব ও প্রতিকারের বিষয়ে আলোকপাত করে থাকি।

সর্বোপরি আমি মনে করি চিকিৎসক সমাজে আমরা সবাই সহকর্মী, একে অপরের সহযোগী। এখানে রয়েছেন আমার সম্মানিত শিক্ষক-শিক্ষিকারা, শ্রদ্ধাভাজন বড় ভাই-বোন, বন্ধুরা ও আগামীর সম্ভাবনাময় জুনিয়র ডাক্তাররা। জনস্বার্থে সব চিকিৎসকই একেকজন যোদ্ধা। করোনা মহামারির এ চরম দুর্দিনে ডাক্তারদের মত যোদ্ধারাই নিজেদের জীবন ঝুঁকির কথা ভুলে জরাগ্রস্ত মানুষের পাশে থেকেছে এখনো আছে। আজকের পুরো বিশ্ব চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নয়ন ও বাস্তবায়নের সঙ্গে জড়িত সকলের কাছে কৃতজ্ঞ। আমি সকলের প্রতি সম্মান রেখে বলছি, মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে, তাই আপনারা আমার কোনো ভুল ধরিয়ে দিলে আমি তা শুধরে নেব। নিজের ভুলকে আমি ভুল হিসেবে গ্রহণ করে তা শুধরে নেব, আর আপনাদের কাছেও আমার অনুরোধ আপনারা আমার পূর্বের ভুলগুলো ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। কেননা আমরা তো সকলে মিলে মানব সেবার ব্রতেই চিকিৎসা পেশাকে বেছে নিয়েছি আর সেজন্য আমরা একে অপরের প্রতি সম্মান রেখে একযোগে কাজ করতে পারি।

আমি নিজেও একজন চিকিৎসক, সবসময়ই প্রত্যেক চিকিৎসকের সম্মান রক্ষা ও অবদান স্বীকার আমার কাছে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায়। বহু আগে থেকেই আমি নিজেও চিকিৎসকদের নিরাপত্তা, অধিকার ও দায়িত্ব নিয়ে সোচ্চার আছি। সেই লক্ষ্যে আমি ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি, রাইটস অ্যান্ড রেসপন্সিবিলিটিস (এফডিএসআর) এর সঙ্গে প্রোগ্রাম করেছিলাম, তা আমার পেজ থেকে শেয়ার করেছিলাম সকলের উদ্দেশে। তবুও মানুষ হিসেবে আমি ভুলের ঊর্ধ্বে নই। তাই আমার কথায় হয়তো অনেক সহকর্মী- সিনিয়র চিকিৎসক কষ্ট পেয়েছেন কিংবা মনক্ষুণ্ন হয়েছেন। আমি তাদের সবার প্রতি আন্তরিকভাবে দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী।

এর আগে গতকাল (২ আগস্ট) অপচিকিৎসার অভিযোগ তুলে ডা. জাহাঙ্গীরকে চিঠি দিয়ে সতর্ক করেছে চিকিৎসকদের সংগঠন ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি রাইটস অ্যান্ড রেসপন্সিবিটিলিস (এফডিএসআর)। সংগঠনটি বলছে, এটি বন্ধ না করলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেই সঙ্গে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে বিষোদগারের জন্য তাকে (ডা. জাহাঙ্গীর) দুঃখ প্রকাশ করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, আপনার সাম্প্রতিক সময়ের কর্মকাণ্ড আমাদের দৃষ্টিগোচর হওয়ায় এই পত্র লিখতে হচ্ছে। আপনি নিশ্চয়ই জানেন,

চিকিৎসক হিসেবে আমাদের যেমন নানারকম বিশেষ অধিকার রয়েছে তেমনি দায়িত্বও রয়েছে। এফডিএসআর মনে করে কোনো চিকিৎসকেরও দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করার ও অসত্য বলার অধিকার নাই। এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আপনি জীবনধারা পরিবর্তন ও এর মাধ্যমে নানারকম ক্রনিক রোগের চিকিৎসা করছেন বলে দাবি করেন।

এজন্য অনলাইন ও অফলাইনে মানুষকে সুস্থ জীবন গড়ে তোলার জন্য লাইফস্টাইল বা জীবনধারা পরিবর্তনের পরামর্শ দিচ্ছেন। এসবই আপাত দৃষ্টিতে চমৎকার কাজ। কিন্তু আপনার মনে রাখতে হবে আপনার পরামর্শ হতে হবে তথ্য উপাত্ত দিয়ে সমর্থিত ও বিজ্ঞানভিত্তিক।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, আপনি সম্প্রতি বলেছেন কোভিড ভ্যাক্সিনের মাধ্যমে শরীরে অ্যান্টিবডি প্রবেশ করানো হয়। আরও বলেছেন ভাইরাসের বিভিন্ন স্ট্রেইনের জন্য ভিন্ন ভিন্ন ভ্যাকসিন দরকার।


আরও খবর