আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

হাজী সেলিমের খালাসের বিরুদ্ধে দুদকের আপিল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় তথ্য গোপনের অভিযোগে তিন বছরের সাজা থেকে সংসদ সদস্য (এমপি) হাজী মোহাম্মদ সেলিমকে খালাসের বিরুদ্ধে আপিল করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার (১০ মে) দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, তিন বছরের সাজা থেকে হাজী সেলিমকে হাইকোর্ট খালাস দিয়েছিলেন। তার বিরুদ্ধে আমরা আপিল করেছি।

এর আগে ২০০৭ সালের ২৪ অক্টোবর হাজী সেলিমের বিরুদ্ধে লালবাগ থানায় অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ মামলায় ২০০৮ সালের ২৭ এপ্রিল তাকে দুই ধারায় ১৩ বছরের কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। ২০০৯ সালের ২৫ অক্টোবর এ রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন হাজী সেলিম। ২০১১ সালের ২ জানুয়ারি হাইকোর্ট এক রায়ে তার সাজা বাতিল করেন।

পরবর্তী সময়ে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে দুদক। ওই আপিলের শুনানি শেষে ২০১৫ সালের ১২ জানুয়ারি হাইকোর্টের রায় বাতিল করে পুনরায় হাইকোর্টে শুনানির নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ।

এরপর গত ৯ মার্চ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) হাজী মোহাম্মদ সেলিমকে বিচারিক আদালতের দেওয়া ১০ বছর কারাদণ্ডাদেশ বহাল রাখেন হাইকোর্ট। তবে একই মামলায় তথ্য গোপনের অভিযোগে তিন বছরের দণ্ড থেকে খালাস পান তিনি। রায় ঘোষণার ৩০ দিনের মধ্যে তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়। বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

ওই রায় ঘোষণার পর আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান বলেছিলেন, দুদক আইনে (২৬ এর ২ ধারা) করা মামলায় সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে হাজী সেলিমকে বিচারিক আদালত ৩ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছিলেন। সেই অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত না হওয়ায় হাজী সেলিমকে তথ্য গোপনের অভিযোগ থেকে খালাস দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, দুদক এ অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি।

কিন্তু দুদক আইনের ২৭ (১) ধারা অনুসারে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে হাজী সেলিমকে বিচারিক আদালত ১০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছিলেন। ওই অভিযোগে তার সাজা বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশের রায় দেন আদালত।


আরও খবর



তরমুজ নিয়ে বাবার উপর অভিমান, ছেলের আত্মহত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | ৬১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মোংলায় বাবার উপর অভিমান করে আত্মহত্যা করেছেন ছেলে। মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) বিকালে উপজেলার জয়খাঁ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর রাতেই নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি বুধবার বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি মেম্বার মনমতো বৈরাগী জানান, উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের জয়খাঁ গ্রামের বাসিন্দা পিযুষ বৈরাগীর ছেলে পথিক বৈরাগী বাবার সঙ্গে বন্ধুদের নিয়ে তরমুজের ক্ষেত করেন। বাবার পাশাপাশি বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে সেই ক্ষেতের পরিচর্যা করেন পথিকও। পথিক খুলনার একটি বেসরকারী ইউনিভার্সিটিতে পড়াশুনার সুবাদে খুলনায় চলে যান। পরে বাড়িতে এসে দেখেন তার বাবা সেই তরমুজ ক্ষেত বিক্রি করে দেন।

ক্ষেত বিক্রির আগে পথিক বাবার কাছে বন্ধুদের জন্য তরমুজ রাখতে বলেন। কিন্তু বাবা বন্ধুদের তরমুজ না দিয়ে ক্ষেত বিক্রি করে দেয়ার ঘটনায় মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) বিকালে বাবার সঙ্গে কথা-কাটাকাটি ও অভিমান করেন পথিক। বন্ধুদের তরমুজ দিতে না পারায় ও বাবার উপর অভিমান করে বিকালে ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় গামছা পেচিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। পরে খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

ইউপি মেম্বার বলেন, পাঁচ বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে ক্ষেত পরিচর্যা করে তাদের খাওয়ার জন্য একটি করে তরমুজ দিতে না পারায় বাবার সঙ্গে ঝগড়া ও অভিমান করে আত্মহত্যা করেন।

তিনি আরো বলেন, পথিক খুবই বদরাগী ছিলেন। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে পথিক সবার ছোট।

এ ব্যাপারে মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে এনে থানায় রাখা হয়েছে। বুধবার (২০ এপ্রিল) সকালে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

নিউজ ট্যাগ: আত্মহত্যা

আরও খবর



ঢাবি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট এ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. আকরাম হোসেনের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন ওই বিভাগের এক শিক্ষার্থী। ফলে ওই বিভাগে নিয়োগের সুপারিশ পাওয়া দুই সদ্য প্রভাষকের নিয়োগ সুপারিশ বাতিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারক কমিটি (সিন্ডিকেট)।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারনী কমিটির (সিন্ডিকেট) সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান সভায় উপস্থিত থাকা একাধিক সিন্ডিকেট সদস্য।

অধ্যাপক ড. মো. আকরাম হোসেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির কোষাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

সূত্র জানায়, অভিযোগকারী শিক্ষার্থী ২০১৯ সালের ১০ মে ব্যবসা শিক্ষা অনুষদের তৎকালীন ডীন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম বরাবর যৌন নিপীড়নের অভিযোগ দেন। ২০১৮ সালে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে বাদ যাওয়া হিসেবে অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করেন অভিযোগকারী শিক্ষার্থী। তবে অভিযোগপত্রটি বেশি দূর গড়ায়নি।

সূত্র আরো জানায়, সম্প্রতি প্রভাষক নিয়োগে ওই শিক্ষার্থী আবেদন করলে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তোলায় নিয়োগে সুপারিশ করেনি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. আকরাম হোসেন- এ মর্মে উল্লেখ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো.আখতারুজ্জামান বরাবর অভিযোগপত্র দেন। ওই শিক্ষার্থীর অভিযোগের ভিত্তিতে নিয়োগ সুপারিশ বাতিল করেছে সিন্ডিকেট।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ বলেন, ওই শিক্ষার্থীর অভিযোগপত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেলে পাঠানো হয়েছে। যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেলের তদন্ত প্রতিবেদন আলোকে ওই ছাত্রীর নিয়োগের বিষয়ে সিন্ডিকেট সিদ্ধান্ত নেবে।

এবিষয়ে জানতে চাইল অভিযুক্ত অধ্যাপক মো. আকরাম হোসেন বলেন, ওই শিক্ষার্থীর অভিযোগের কপি দুটি পড়লে বুঝা যায় যে ওই শিক্ষার্থী বিচার চায় না, চাকরি চায়। তার চাকরি হলে আর অভিযোগ থাকবে না। এসব অভিযোগের সাথে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। শিক্ষকদের অভ্যন্তরীণ ষড়যন্ত্রের শিকার বলে উল্লেখ করেন অধ্যাপক আকরাম।


আরও খবর



রেলওয়ের ৪৬ ইঞ্জিন যাত্রা করছে ২৭ এপ্রিল

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | ৩০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অবেশেষে বাংলাদেশ রেলওয়ের ৪৬টি লোকোমোটিভের (ইঞ্জিন) আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হচ্ছে আগামী ২৭ এপ্রিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রডগেজ ও মিটারগেজের এ লোকোমোটিভগুলো উদ্বোধন করবেন। দেশে আসা এবং রেল বহরে যুক্ত হওয়ার কয়েক মাস পর এগেুলো উদ্বোধন হচ্ছে। বাংলাদেশ রেলওেয়ের যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৮৬২ সালে দর্শনা থেকে জগতি পর্যন্ত ৫৩ দশমিক ১১ কিলোমিটার লাইন স্থাপনের মধ্য দিয়ে। রেলওয়ের সেই যে পথ চলা শুরু তারপর আর থেমে নেই। কিন্তু চলছে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে।

১৯৫৩ সালে বাংলাদেশ রেলওয়েতে যুক্ত হয়েছিল ২৪৩টি লোকোমোটিভ(ইঞ্জিন)। তারপর প্রায় ৭৭ বছর পার হয়ে গেলেও দেশের রেলওয়েতে নতুন ইঞ্জিন বা লোকোমোটিভ সংযোজন হয়নি। যার ফলে সাড়ে ৭১ শতাংশ লোকোমোটিভ বয়সের ভারে জীর্ণ। এগুলোকে মেরামত করে ঠেলাধাক্কায় চলছিল রেল।

রেলওয়েতে গতি আনতে সরকার নতুন লোকোমোটিভ কেনার উদ্যোগ নেয়। ২০০৯ সালে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর রেলওয়েকে নিয়ে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করে। ওই পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই রেলওয়ের জন্য ৫০টি মিটারগেজ ও ৪২টি ব্রডগেজ লোকোমোটিভ বা ইঞ্জিন কেনার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। এরই অংশ হিসেবে ২০১৯ সালে এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) অর্থায়নে ৪০টি ব্রডগেজ লোকমোটিভ ক্রয়ের জন্য বাংলাদশে রেলওয়ে আমেরিকান কোম্পানির সঙ্গে। একইভাবে এডিবির অর্থায়নে ২০১৮ সালে ১০টি মিটারগেজ ডিজেল ইলেকট্রিক লোকোমোটিভ ক্রয়ের চুক্তি স্বাক্ষর করে। আর ২০১৯ সালে ইডিসিএফ, কোরিয়ার অর্থায়নে আরও ২০টি মিটারগেজ ডিজেল ইলেকট্রিক লোকোমোটিভ ক্রয়ের চুক্তি স্বাক্ষর করে রেলওয়ে।

চুক্তি অনুযায়ি ক্রয়কৃত ব্রডগেজ ও মিটারগেজ লোকোমোটিভগুলোর মধ্যে ২০২০ ও ২০২১ সালে মোট ৪৬টি লোকোমোটিভ দেশে আসে রেলওয়ের বহরে যুক্ত হয়। এরমধ্যে মিটারগেজ লোকোমোটিভের সংখ্যা হচ্ছে ৩০টি এবং ব্রডগেজের সংখ্যা হচ্ছে ১৬টি। বাকিগুলো আগামী ২০২৪ সালের মধ্যে রেলওয়েতে যুক্ত হবে।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, দেশে আসা লোকোমোটিভগুলোর মধ্যে মিটারগেজের লোকেোমোটিভগুলো ইতিমধ্যে পূর্বাঞ্চল রেলে চলাচল করছে। আর ব্রডগেজ মিটারগুলো পশ্চিমাঞ্চল রেলে ট্রায়াল রান দিচ্ছে। লোকোমোটিভগুলো ২০২০ সালে দেশে আসলেও কোভিড-১৯ এর সংক্রমণের কারণে লোকোমোটিভগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা যায়নি। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিয়েছেন আগামী ২৭ এপ্রিল লোকোমোটিভগুলো আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের।

জানতে চাইলে রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, 'আমরা ৪৬টি লোকোমোটিভ উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে সময় চেয়েছিলাম। প্রধানমন্ত্রী ২৭ এপ্রিল সময় দিয়েছেন। আশা করছি ওই দিন লোকোমোটিভগুলো উদ্বোধন হবে। মিটারগেজের লোকোমোটিভগুলো চলছে। তবে ব্রডগেজেরগুলো ট্রায়াল রান দিচ্ছে।'

শুধু এই লোকোমোটিভই নয়, রেলওয়ের গতি, যাত্রী সেবা এবং পণ্য পরিবহনের মান বাড়াতে সরকার আরও ৪৬টি নতুন ব্রডগেজ লোকোমোটিভ, ৫৬০টি নতুন ব্রডগেজ যাত্রীবাহী ক্যারেজ, ১৫০টি নতুন মিটারগেজ যাত্রীবাহী ক্যারেজ, ১২৫টি আধুনিক লাগেজ ভ্যান, ১ হাজার ৩১০টি নতুন ওয়াগন সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছে রেলওয়ে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ আশা করছে, আগামী দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে এসব লোকোমোটিভ ও ক্যারজেগুলো রেলওয়েতে যুক্ত হবে। বাড়বে যাত্রী সেবার মানও।

নিউজ ট্যাগ: বাংলাদেশ রেলওয়ে

আরও খবর



মা হওয়ার পর কাজলের আবেগঘন পোস্ট

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের দক্ষিণী সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী কাজল আগারওয়াল মা হয়েছেন। গত ১৯ এপ্রিল তার কোলজুড়ে এসেছে পুত্রসন্তান। নাম রেখেছেন নীল। সুখবরটি কাজলের স্বামী গৌতম কিসলু প্রকাশ্যে এনেছিলেন। এবার মা হওয়ার অভিজ্ঞতা ও অনুভূতি নিয়ে আবেগঘন পোস্ট দিলেন কাজল। ইনস্টাগ্রামে দেওয়া সেই পোস্টে তিনি তুলে ধরেছেন অত্যন্ত কঠিন এবং স্বর্গীয় এই অনুভূতির কথা।

অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় একটি ফটোশুট করেছিলেন কাজ। সেই ফটোশুটের একটি মায়াবী ছবি শেয়ার করে অভিনেত্রী লিখেছেন, ছোট্ট নীলকে পৃথিবীতে স্বাগত জানানোর জন্য উত্তেজিত এবং উচ্ছ্বসিত। এটা স্মরণীয়, অপ্রতিরোধ্য, দীর্ঘ ও সবচেয়ে আনন্দদায়ক অভিজ্ঞতা।

কাজল জানান, জন্মের পরই যখন তার কোলে সন্তানকে দেওয়া হয়, ওই মুহূর্তের অভিজ্ঞতা অবর্ণনীয়। তিনি লিখেছেন, জন্মের কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে নীলকে শ্লেষ্মা, ঝিল্লি ও প্লাসেন্টা দিয়ে আবৃত অবস্থায় আমার বুকে ধরে রাখাই আমার আত্মার শান্তি। ওই মুহূর্তে আমি প্রকৃত ভালোবাসা ও কৃতজ্ঞতার গভীরতা বুঝতে পেরেছি। সন্তান জন্ম দেওয়ার কঠিন এই সময়টার কথা জানিয়ে কাজল লিখেছেন, সহজ ছিল না। নিদ্রাহীন ৩ রাত, ভোরে রক্তক্ষরণ, থলথলে পেট, যন্ত্রণা, প্রসারিত ত্বক, ভিজে যাওয়া প্যাড, স্তন পাম্প, অনিশ্চয়তা, অবিরাম উদ্বেগ, ঠিকঠাক করতে পারছি কিনা, মাথায় একগুচ্ছ দুশ্চিন্তা ঘুরপাক খেয়েছে।

সন্তানের মুখ দেখার পর সব কষ্ট ভুলে যান কাজল। তিনি লিখেছেন, এটি এরকম মুহূর্ত- সকালে-বিকেলে মিষ্টি আলিঙ্গন, আত্মবিশ্বাসের দৃষ্টিতে একে অপরের চোখের দিকে তাকিয়ে থাকা, ছোট্ট চুম্বন, দুজনের মধ্যে শান্ত মুহূর্ত, বেড়ে উঠছি, শিখছি, আবিষ্কার করছি। বাস্তবে প্রসবোত্তর গ্ল্যামারাস নয়, তবে নিশ্চিত সুন্দর হতে পারে।

কাজলের এই আবেগে ভরা পোস্টে ভক্ত-শুভাকাঙ্খীদের ভালোবাসা উপচে পড়ছে। ইতোমধ্যে সাড়ে ৮ লাখের বেশি রিঅ্যাকশন জমা হয়েছে এতে। রয়েছে হাজারো মন্তব্য। যেগুলোতে সবাই কাজলের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন।

নিউজ ট্যাগ: কাজল আগারওয়াল

আরও খবর



শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো আর্জেন্টিনা

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ আর্জেন্টিনায় শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো। বুধবার বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টার দিকে লাতিন আমেরিকার দেশটিতে আঘাত হানে এ ভূকম্পন। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থার (ইউএসজিএস) হিসাবে, রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৮।

ইউএসজিএস জানিয়েছে, ভূমিকম্পটির উৎপত্তিস্থল ছিল আর্জেন্টিনার সান আন্তোনিও দে লস কোবরেস শহর থেকে ৭৮ কিলোমিটার উত্তর-উত্তরপশ্চিমে এবং কেন্দ্র ছিল ভূপৃষ্ঠ থেকে ১৯৩ কিলোমিটার গভীরে।

আর্জেন্টিনা ছাড়াও শক্তিশালী এ ভূকম্পনের প্রভাব অনুভূত হয়েছে প্রতিবেশী দেশ বলিভিয়া, চিলি এবং প্যারাগুয়েতেও। ভূমিকম্পের কারণে এখন পর্যন্ত ওই অঞ্চলে কোনো সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়নি। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রশান্ত মহাসাগরীয় সুনামি সতর্কীকরণ কেন্দ্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মার্কিন ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস (এনডব্লিউএস) জানিয়েছে, আর্জেন্টিনায় ভূমিকম্পের প্রভাবে কোনো ধ্বংসাত্মক প্রশান্ত মহাসাগরীয় সুনামির আশঙ্কা নেই এবং হাওয়াইতে কোনো সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়নি।


আরও খবর