আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১
শিরোনাম

হাসপাতাল থেকে পালালো ভারত ফেরত ১০ করোনা রোগী

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল থেকে ভারতফেরত ১০ জন করোনা রোগী পালিয়েছেন। শনিবার সকাল থেকে রবিবার দুপুরের মধ্যে তারা হাসপাতাল ছেড়ে পালিয়ে গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হাসপাতালের নার্স ও কর্মচারীদের অবহেলার কারণে তারা পালিয়ে যান বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে করোনাভাইরাসের ইন্ডিয়ান ভ্যারিয়েন্ট দেশে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানান, হাসপাতালে দেওয়া নাম-ঠিকানা অনুসারে খুঁজে বের করে স্ব স্ব জেলায় আইসোলেশনে রাখা হবে।

সোমবার দুপুর সোয়া ১২টায় মোবাইলে জেলা প্রশাসক মো. তাজুল ইসলাম খান বলেন, হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়া রোগীদের তালিকা আমার কাছে পাঠানো হবে বলে তত্ত্ববধায়ক জানিয়েছেন। কিন্তু এখনও পাইনি। পাওয়ার পর সংশ্লিষ্ট জেলার প্রশাসন ও পুলিশকে জানানো হবে।

হাসপাতালের তত্ত্ববধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায়কে মোবাইলে কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের একটি সূত্র জানায়, গত শনিবার সকাল ১০টা ৫৭ মিনিটে ভারতফেরত কিছু রোগীকে ভর্তি করা হয়। রবিবারও রোগী আসে। সব মিলিয়ে দুদিনে ১০ জন করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের সবাইকে হাসপাতালের তৃতীয় তলায় করোনা ওয়ার্ডে পাঠানো হয়।

হাসপাতালের ভর্তি রেজিস্টার মতে, ভর্তি রোগীরা হলেন-যশোর শহরের বিমান অফিস মোড়ের আবুল কাসেমের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৫৭), খালধার রোডের বিশ্বনাথের স্ত্রী মালা দত্ত (৫০), সদর উপজেলার পাঁচবাড়িয়া গ্রামের রবিউল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (১৯), একই গ্রামের একরামের স্ত্রী রোমা (৩০), প্রতাপকাঠি গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে মমিন, রামকান্তপুর গ্রামের গোলাম রব্বানীর স্ত্রী নাসিমা বেগম (৫০), বাঘারপাড়া উপজেলার রায়পুর গ্রামের ফজর আলীর ছেলে শহিদুল ইসলাম (৪৫), ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জের মনোতোষের স্ত্রী শেফালি রানি, খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার রামরাইল গ্রামের আহম্মদ সানার ছেলে আমিরুল সানা ও একই জেলার রূপসা এলাকার শের আলীর ছেলে সোহেল (১৭)।

করোনা ওয়ার্ডে দায়িত্বরত সিনিয়র নার্স লাবনী বিশ্বাস সাংবাদিকদের জানান, ভারত থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আসা ১০ জন ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। রবিবার সকালের পর থেকে তাদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

চিকিৎসকরা জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী কোনো পরিবারে থাকলে, তার মাধ্যমে প্রথমে তার পরিবার এবং আশপাশের লোকজনও আক্রান্ত হতে পারেন।

যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের একাধিক চিকিৎসক বলেন, করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট উদ্বেগ তৈরি করেছে। ফলে উধাও হওয়া রোগীরা যদি ভারতীয় ভেরিয়েন্টের বাহক হন তাহলে তা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।


আরও খবর



সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ মে ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা বেগম খালেদা জিয়াকেও ছাড় দেয়নি, তাই সরকারের বিরুদ্ধে অবান্তর অভিযোগ না এনে বিএনপিকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে বললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এ সময় এই অদৃশ্য শক্তিকে মোকাবিলা করতে বিএনপিকে দোষারোপের রাজনীতি পরিহার করে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর রাজনীতি করতে আহ্বান জানান।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) সকালে ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক উপকমিটি আয়োজিত করোনা সুরক্ষাসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি দলের নেতাকর্মীদের স্মরণ করে দিয়ে বলেন, করোনা মোকাবিলায় মাস্ক সবচেয়ে বড় অস্ত্র। তাই সবাইকে শতভাগ মাস্ক পরিধান করার পাশাপাশি সারাদেশে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ঘরে ঘরে সচেতনতার দুর্গ গড়ে তুলতে বলেন। একই সঙ্গে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করতে গিয়ে কোনোভাবেই যেন বদনাম না হয় সেদিকে খেযাল রাখতে বলেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে ভারতে দ্বিতীয় ঢেউয়ের পর তৃতীয় ঢেউয়ের আঘাত আসতে পারে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তৃতীয় ঢেউ আরও ভয়াবহ হতে পারে, তাই যতই সীমাবদ্ধতা থাকনা কেন সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

নিউজ ট্যাগ: ওবায়দুল কাদের

আরও খবর



মঠবাড়িয়ায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কমিটি গঠন

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | ১৩৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের (বিএমএসএফ) এর মঠবাড়িয়া উপজেলার ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আজ সোমবার দুপুর ১২.২০ মিঃ সময় নবগঠিত কমিটির সাথে কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ আবু জাফর এক ভার্চুয়াল মিটিংয়ের মাধ্যমে এ কমিটির ঘোষনা দেন। ২১ সদস্য বিশিষ্ট ওই কমিটিতে সভাপতি মনোনীত হয়েছেন হারুন অর রশিদ (দৈনিক সকালের সময়) ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম  (দৈনিক আজকের দর্পণ)। ঘোষিত কমিটির অন্যান্যরা হলেন, সহ সভাপতি ফারুক হোসেন ( দৈনিক আজকের বরিশাল), সহ সভাপতি মোস্তফা কামাল বুলেট (দৈনিক যায়যায়দিন), সহ সভাপতি নাসির উদ্দিন (দৈনিক বর্তমান কথা), সহ সভাপতি আব্দুর রহমান নোমান (দৈনিক ভোরের চেতনা), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুম্মান হাওলাদার (দৈনিক ভোরের ডাক), সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রেজাউল ইসলাম (দৈনিক ভোরের দর্পণ, সহ সাংগঠনিক এজাজ উদ্দিন চৌধুরী (আমাদের কন্ঠ), কোষাধ্যক্ষ আবু জাফর (দৈনিক জনবাণী), দপ্তর সম্পাদক ইসমাইল হাসান ( সাপ্তাহিক জনতার দলিল), ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক তরিকুল ইসলাম তারেক (দৈনিক জনতা), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো: মিরাজ হোসেন (দৈনিক বিজয় বাংলাদেশ), সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মোস্তফা শহিদুল আলম নাসীর (দৈনিক একুশের বাণী), মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা শামিমা সুলতানা রোজী (প্রাইম সংবাদ), নির্বাহী সদস্য সাইদুর রহমান (দৈনিক আলোর জগত), সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন দৈনিক পর্যবেক্ষণের উপজেলা প্রতিনিধি রায়হান আহম্মেদ, দৈনিক বাংলাদেশ সমাচারের ফেরদৌস, দৈনিক বর্তমান সময়ের মাসুম ফরাজী, পল্লী টিভির হাসান খন্দকার এবং প্রতিদিনের সংবাদের মঠবাড়িয়া উপজেলা প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম শাকিল বাবু।

এছাড়াও বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের (বিএমএসএফ) এর মঠবাড়িয়া উপজেলা শাখার সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের স্বার্থে আইনী সহায়তা ও দিক নির্দেশনা মূলক উপদেষ্টা মন্ডলী পরিষদে রয়েছেন প্রবীন আইনজীবী এ্যাড.দিলীপ কুমার পাইক (আইন উপদেষ্টা), আলহাজ্ব ইউসুফ মাহমুদ ফরাজী, (উপদেষ্টা) এ্যাড. আব্দুস সালাম (আইন উপদেষ্টা), মজিবর রহমান (উপদেষ্টা), ফজলুল হক মনি (উপদেষ্টা)।

এ সময় কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ আবু জাফর বলেন, এ কমিটি মূলত গঠন করা হয়েছে শোষিত নিপীড়িত মফস্বল সংবাদকর্মীদের অধিকার আদায়ের লক্ষে অগ্রণী ভূমিকায় সকল অপশক্তির রক্ত চক্ষুকে উপেক্ষা করে সমাজে সত্যকে অপ্রতিরোধ্যরূপে উন্মোচন করা।


আরও খবর



আদালতে মামুনুল হক

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | ৯৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে (সিএমএম আদালত) নেওয়া হয়েছে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি মাওলানা মামুনুল হককে। আজ আদালতের কাছে তার বিরুদ্ধে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আজ সোমবার (১৯ এপ্রিল) কিছুক্ষণের মধ্যে তাকে আদালতে নেওয়া হয়েছে। এর আগে সকালে মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ জানিয়েছিলেন, আজ আদালতে হাজির করে এ রিমান্ড আবেদন করা হবে।

দীর্ঘদিন নজরদারিতে রাখার পর রবিবার ( ১৮ এপ্রিল) দুপুরে মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগ। এদিন গ্রেফতারের পর সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) হারুনুর রশিদ জানান, ২০২০ সালের মার্চে মোহাম্মদপুর এলাকায় ভাংচুরের মামলায় মামুনুল হককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি এ মামলার ৭ নম্বর আসামি। এছাড়া, রাজধানীর পল্টন, মতিঝিল, নারায়ণগঞ্জের কয়েকটি থানায় তার বিরুদ্ধে নাশকতা ও ভাঙচুরের অভিযোগে মামলা আছে। সেগুলো তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানা গেছে, ডিবির মতিঝিল বিভাগে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ৮ টি মামলা তদন্তাধীন আছে। এছাড়া লালবাগ বিভাগে দুটি, তেজগাঁও বিভাগে একটি এবং মতিঝিল ও পল্টন থানায় পৃথক চারটি মামলায় এজাহারনামীয় আসামি মামুনুল হক।

২০১৩ সালের ৫ মে রাতে মতিঝিলের শাপলা চত্বর এলাকায় অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর, সংঘর্ষ, লুটপাট ও নাশকতার অভিযোগে এসব মামলা হয়। মামুনুল হকের বিরুদ্ধে সর্বশেষ মামলাটি হয়েছে গত ৫ এপ্রিল। চলতি বছরের ২৬ মার্চ বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে জুমার নামাজের পর সংঘর্ষের ঘটনায় এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলাগুলোতে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় হেফাজত নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।


আরও খবর



হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | ৮৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হেফাজতে ইসলামের বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেছেন সংগঠনটির আমির আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। রবিবার রাত ১১টার দিকে ফেসবুক লাইভে এসে এ ঘোষণা দেন তিনি।

বাবুনগরী বলেন, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সবচেয়ে বড় অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতের ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতাদের পরামর্শক্রমে বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হল। ইনশাআল্লাহ, আগামীতে আহ্বায়ক কমিটির মাধমে আবার হেফাজতে ইসলামের কার্যক্রম শুরু হবে।

গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর ঘিরে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করেন হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা। সেই বিক্ষোভ সহিংসতায় রূপ নেয়।

ওই সংঘাতে প্রাণ হারান অন্তত ১৮ জন। সেসব ঘটনায় একাধিক মামলা হয়। মামলার আসামিদের ধরতে অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ পর্যন্ত হেফাজতের অন্তত এক ডজন শীর্ষস্থানীয় নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর মধ্যে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রয়্যাল রিসোর্টে নারীসহ জনতার হাতে ধরা পড়েন। এতে নতুন করে বিতর্কের মুখে পড়ে হেফাজত।

সরকারের কঠোর অবস্থানের কারণে কোণঠাসা হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতারা শুরু থেকেই সমঝোতার চেষ্টা করছেন। এরই ধারাবাহিকতায় তারা গোয়েন্দা সংস্থা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

গত সপ্তাহে হেফাজত ইসলামের মহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে মন্ত্রীর বাসায় দেখা করে দলের নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার না করার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। কিন্তু সরকারের কঠোর অবস্থানের কারণে শেষ পর্যন্ত বর্তমান কমিটি ভেঙে দিলেন হেফাজত নেতারা।


আরও খবর



খোঁজ মিললো ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিনের, বেঁচে নেই কেউ

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ এপ্রিল ২০২১ | ১৯২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বালির উপকূলে ডুবে যাওয়া ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিনের ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে। শনিবার ইন্দোনেশিয়ার নৌবাহিনীর চিফ অব স্টাফ অ্যাডমিরাল ইউদো মারগোনো এ কথা জানিয়েছেন। খবর আল জাজিরার।

বালি সাগরে ডুবে যাওয়া ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিনের ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে। শনিবার ইন্দোনেশিয়ার নৌবাহিনীর চিফ অব স্টাফ অ্যাডমিরাল ইউদো মারগোনো এ কথা জানিয়েছেন।

টর্পেডো মহড়ায় অংশ নিয়ে বুধবার নিখোঁজ হয় কেআরআই নাঙ্গগালা-৪০২ নামের ওই সাবমেরিনটি। সাবমেরিনটিতে ৭২ ঘণ্টার অক্সিজেন ছিল। তিনদিনের বেশি সময় পার হয়ে গেলেও সাবমেরিনটিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।

অবশেষে শনিবার ওই সাবমেরিনের ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে। উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, তারা সাবমেরিনের ভেতরে থাকা বিভিন্ন আইটেম যেমন স্পঞ্জেস, গ্রিজ বোতল এবং নামাজের জন্য ব্যবহৃত সামগ্রী পেয়েছেন। তবে ক্র সদস্যদের দেহ এখনও পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন অ্যাডমিরাল ইউদো।

জার্মানির তৈরি কেআরআই নাঙ্গগালা-৪০২ সাবমেরিনটি পানির ৫০০ মিটার নিচে চাপ সহ্য করার ক্ষমতা রয়েছে। তবে পানির ৮৫০ মিটার নিচে সাবমেরিনটির ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে। যা তার চাপ সহ্য করার ক্ষমতার চেয়েও অনেক বেশি নিচে।

ইন্দোনেশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার উদ্ধারকারীরা বেশ কয়েকদিন ধরে সাবমেরিনটির খোঁজ চালিয়ে যাচ্ছিল। তাদের হাতে সময় কম ছিল। কারণ সাবমেরিনটিতে তিনদিনের অক্সিজেন মজুদ ছিল। তবে শনিবার সকালই সেই সময়সীমা শেষ হয়ে যায়। এর কয়েক ঘণ্টা পর সাবমেরিনের ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেলো।


আরও খবর