আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

হজ প্যাকেজ ঘোষণা, ব্যয় বেড়েছে

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছর হজযাত্রীদের জন্য সরকারিভাবে দুটি প্যাকেজ এবং বেসরকারিভাবে একটি প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সরকার। আজ বুধবার সচিবালয়ে হজ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত নির্বাহী কমিটির সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান সাংবাদিকের এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারিভাবে হজে যেতে প্রস্তাবিত প্যাকেজ-১-এ পাঁচ লাখ ২৭ হাজার ৩৪০ এবং প্যাকেজ-২-এ চার লাখ ৬২ হাজার ১৫০ টাকা খরচ হবে। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে একটি প্যাকেজ এ খরচ ধরা হয়েছে চার লাখ ৫৬ হাজার ৬৩০ টাকা।

সবশেষ ২০১৯ সালে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন হজযাত্রীরা। তখন হজ পালনে প্যাকেজ-১-এ চার লাখ ১৮ হাজার ৫০০ এবং প্যাকেজ-২-এ খরচ ধরা হয়েছিল তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে ধর্মমন্ত্রী বলেন, আগামী ৮ জুলাই সৌদি আরবে পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। দ্বি-পাক্ষিক হজচুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশ থেকে এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৩ হাজার ৫৮৫ জনসহ সর্বমোট ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন হজযাত্রী পবিত্র হজ পালনের জন্য সৌদি আরব যাওয়ার সুযোগ পাবেন। হজযাত্রীর বিমান ভাড়া, সৌদি আরবের বাড়ি ভাড়া, সার্ভিস চার্জ, মুয়াল্লিম ফি, জমজমের পানি, খাবার খরচ এবং অন্যান্য ফি হিসাব করে ২০২২ সালের জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনার জন্য ২টি প্যাকেজ এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনার এজেন্সিগুলোর জন্য একটি প্যাকেজের প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়াও হজযাত্রীদের কোরবানি বাবদ প্যাকেজ মূল্যের অতিরিক্ত ৮১০ সৌদি রিয়াল বা ১৯ হাজার ৬৮৩ টাকা পরিশোধ করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালে সৌদি রিয়ালের বিনিময় হার ছিল ২৩ টাকা। আজ এই হারের পরিমাণ ২৪ টাকা ৩০ পয়সা। এটিও প্যাকেজ মূল্য বাড়ার অন্যতম কারণ। এছাড়া সৌদি আরবে সব খাতের উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট, সার্ভিস চার্জ, কর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মোয়াচ্ছাছা এর খরচ দ্বিগুণ হয়েছে। বাড়ি ভাড়া বেড়েছে।


আরও খবর



ইউক্রেনে বেড়েছে অপরিণত শিশুর জন্ম

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ২৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাশিয়ার সঙ্গে চলমান যুদ্ধে মানসিক চাপে রয়েছেন ইউক্রেনের গর্ভবতী নারীরা। ফলে দেশটিতে বাড়ছে সময়ের আগে জন্ম নেওয়া শিশুর সংখ্যা। লাভিভের একটি প্রসূতি হাসপাতালে এখন পর্যন্ত ২শর বেশি অপরিণত শিশু জন্ম নিয়েছে।

গ্যালিনা গোলেট নামে এক ইউক্রেনীয় নারী কিছুদিন আগে লাভিভের প্রসূতি হাসপাতালে সন্তান জন্ম দিয়েছেন। তিনি জানান, নির্ধারিত সময় অনুযায়ী তার সন্তান একমাস পর ভূমিষ্ঠ হওয়ার কথা ছিল। আমার সন্তানকে এখন টিউবের মাধ্যমে খাবার দিতে হচ্ছে। বোতল থেকে খাবার নেওয়ার মতো সামর্থ্য তার নেই। তবে সে নিজে নিজে শ্বাস নিতে পারছে। আশা করছি সে ধীরে ধীরে শক্তি পাবে। গর্ভকালে শেষ সময়টাতে যুদ্ধের ভয়াবহ মানসিক চাপ বহন করতে হয়েছে তাকে।

হাসপাতালের স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ মারিয়া মালাচিনস্কা বলেন, আমাদের হাসপাতালে এখন পর্যন্ত ২শর বেশি অপরিণত শিশু জন্ম নিয়েছে। নির্ধারিত সময়ের আগে জন্ম নেওয়া এত শিশু এর আগে দেখিনি। তবে যুদ্ধবিধ্বস্ত অঞ্চলগুলোতে এই পরিস্থিতি আরও প্রকট বলে জানা গেছে। স্থানীয় চিকিৎসকদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী- যুদ্ধের প্রথম সপ্তাহে খারকিভে জন্ম নেওয়া প্রতি দুই শিশুর একটি ছিল অপরিণত।

মারিয়া মালাচিনস্কা বলেন, যেকোনো মানসিক চাপ গর্ভাবস্থায় প্রভাব ফেলে। সেখানে যুদ্ধের সূচনা তাদের জন্য বিশাল এক ধাক্কার মতো। এখন ভবিষ্যৎ কোনদিকে যাবে তা নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি যুদ্ধ বিধ্বস্ত বিভিন্ন অঞ্চলে জন্ম নেওয়া শিশুরা রোগ সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে বলে জানান এই চিকিৎসক।

লাভিভের প্রসূতি হাসপাতালটিতে চিকিৎসা সরঞ্জামের তেমন সংকট নেই। যুদ্ধের আগেই সেখানে প্রয়োজনীয় সহায়তা পৌঁছেছে। এছাড়াও ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকেও সহযোগিতা পেয়েছে হাসপাতালটি। কিছুদিন আগেই সেখানে নতুন তিনটি ইনকিউবেটর এসে পৌঁছেছে। তবে সামনের দিনে কী হবে তা নিয়ে শঙ্কিত চিকিৎসক মালাচিনস্কা। তবে লাভিভের হাসপাতালটির মতো পরিস্থিতি সবগুলোর নয়। অনেক হাসপাতালে ইনকিউবেটর সংকট রয়েছে, যা অপরিণত শিশুদের বাঁচাতে অত্যাবশ্যকীয়। আর হাসপাতালে থাকলেও খুব একটা স্বস্তিতে নেই রোগী আর চিকিৎসকেরা। কেননা দেশটির চিকিৎসা স্থাপনাতেও হরহামেশা হামলার ঘটনা ঘটেছে। বার্তা সংস্থা এপির হিসাবে এই সংখ্যা ৪৯।

নিউজ ট্যাগ: ইউক্রেন

আরও খবর



নিউমার্কেটে হামলাকারী হেলমেটধারীরা সন্ত্রাসী: ডিবি

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর নিউ মার্কেটে ব্যবসায়ী ও শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের সময় হেলমেট মাথায় দিয়ে যারা হামলা করেছিল তারা সন্ত্রাসী বলে দাবি করেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি)।

ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম বলেছেন, হেলমেট মাথায় দিয়ে হামলায় অংশ নেওয়া সবাই সন্ত্রাসী। তাদের ধরে আইনের আওতায় আনা হবে।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজনৈতিক বিবেচনায় নয় হেলমেটধারীদের সন্ত্রাসী হিসেবেই গ্রেপ্তার করা হবে বলে উল্লেখ করেন মাহবুব আলম। তিনি বলেন, তাদের চিহ্নিত করা হয়েছে। গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে।

যুগ্ম কমিশনার আরও বলেন, নিউ মার্কেট এলাকায় দোকান কর্মচারী মুরসালিনের হত্যাকারীদের এখনও চিহ্নিত করা যায়নি। তার মৃত্যু ঘটেছে ইটের আঘাতে। যারা ইটপাটকেল ছুড়েছে তাদের থেকে হত্যাকারী চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। এছাড়া নাহিদ হত্যার ভিডিও ফুটেজ দেখে হত্যাকারী শনাক্তের কাজ অনেক দূর এগিয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে।

গ্রেপ্তারে বিলম্ব হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ঢাকা কলেজের হোস্টেল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেকেই বাড়ি চলে গেছেন অথবা আত্মগোপনে আছেন। তবে ডিবির একাধিক টিম তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। শিগগিরই এ বিষয়ে ভালো ফল জানানো হবে।

গত ১৮ এপ্রিল রাতে ও পরেরদিন নিউ মার্কেটের দোকানমালিক ও কর্মচারীদের সঙ্গে ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সংঘর্ষ হয়। এতে দুই জনের প্রাণহানি এবং অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হন।

এ সংঘর্ষের ঘটনায় সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের ওপর আক্রমণ, ইটপাটকেল নিক্ষেপ, ভাঙচুর ও জখম, হত্যার অভিযোগে নিউ মার্কেট থানায় মোট ৪টি মামলা করেছে পুলিশ। একটি মামলায় আসামিদের নাম উল্লেখ করা হলেও বাকিগুলোর আসামি অজ্ঞাত। এ ঘটনায় মকবুল হোসেন নামে এক বিএনপি নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়।


আরও খবর



নাইজেরিয়ায় তেল শোধনাগারে বিস্ফোরণে নিহত শতাধিক

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | ৪৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়ার রিভারস প্রদেশের একটি অবৈধ তেল শোধনাগারে বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডে শতাধিক মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে। শনিবার স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তা এবং বেসরকারি একটি সংস্থা তেল শোধনাগারে এই প্রাণহানি ঘটেছে বলে জানিয়েছে।

রিভারস প্রদেশের পেট্রোলিয়াম সম্পদবিষয়ক কমিশনার গুডলাক ওপিয়াহ বলেছেন, ‌প্রদেশের একটি অবৈধ তেল শোধনাগার স্থাপনায় আগুন ছড়িয়ে পড়েছে। এতে ১০০ জনের বেশি মানুষ মারা গেছেন। পুড়ে যাওয়ায় তাদের অনেকের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না।

চরম বেকারত্ব এবং দারিদ্র্যের কারণে নাইজারিয়ায় অবৈধ তেল পরিশোধন আকর্ষণীয় ব্যবসায় পরিণত হয়েছে। তবে মাঝে মাঝেই এসব অবৈধ শোধনাগারে বিস্ফোরণ এবং অগ্নিকাণ্ডে প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

দেশটির প্রধান প্রধান বিভিন্ন তেল কোম্পানির পাইপলাইন থেকে তেল চুরির পর সেগুলো অবৈধ স্থাপনায় পরিশোধন করা হয়। বিপজ্জনক এই প্রক্রিয়ার কারণে অনেক সময় মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটে।

চোরাকারবারী অবৈধ এই তেল শোধন প্রক্রিয়ার ফেলে দেশটির একটি অঞ্চল ভয়াবহ দূষণের শিকার হয়েছে। ইতোমধ্যে ওই এলাকার কৃষিজমি, নদীনালা এবং এবং উপহ্রদও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।


আরও খবর



ধোনি নেতৃত্বে আসতেই আসল রূপে চেন্নাই

প্রকাশিত:সোমবার ০২ মে 2০২2 | হালনাগাদ:সোমবার ০২ মে 2০২2 | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চেন্নাই সুপার কিংসের অধিনায়কত্বে ফিরেই বাজিমাত করলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। রবীন্দ্র জাদেজার অধীনে ৮ ম্যাচে মাত্র ২ জয় পাওয়া দলটি রোববার (১ মে) সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ১৩ রানে হারিয়ে জয়ে ফিরল।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ৪৬তম ম্যাচে পুনের মহারাস্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশান স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে রুতুরাজ গায়কোয়াড়ের ৯৯ রানের হার না মানা ইনিংসে ২০২ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় চেন্নাই। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যায় হায়দরাবাদ। তবে শেষদিকে ভালো রান তুলতে না পেরে ১৮৯ রানেই থামতে হয় তাদের।

বড় লক্ষ্য তাড়ায় দারুণ শুরু করেন হায়দরাবাদের দুই ওপেনার অভিষেক শর্মা ও কেন উইলিয়ামসন। ষষ্ঠ ওভারে ২৪ বলে ৩৯ রান করে অভিষেক বিদায় নিলে ব্যাট করতে নেমে ডাক মারেন রাহুল ত্রিপাঠি। এরপর রানের গতি কমে যায় হায়দরাবাদের। একপ্রান্তে থেকে উইলিয়ামসন লড়াই চালিয়ে গেলেও অপরপ্রান্তে ১৭ রান করে বিদায় নেন এইডেন মার্করাম। উইলিয়ামসনও আর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ডোয়াইন প্রিটোরিয়াসের বলে ১৫তম ওভারে উইকেট হারান তিনি। ৩৭ বলে ৪৭ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

উইলিয়ামসন বিদায় নিলেও লড়াই অব্যাহত রেখে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান নিকোলাস পুরান। কিন্তু ১৮তম ওভারে শশাঙ্ক সিং (১৫) ও ওয়াশিংটন সুন্দরকে (২) রানে বিদায় করে তা ভেস্তে দেন মুকেশ চৌধুরী। শেষ পর্যন্ত পুরান লড়ে গেলেও দল থামে ১৮৯ রানে। ৩৩ বলে ৬৪ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন ক্যারিবিয় এই ব্যাটার। চেন্নাইয়ের হয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট তুলে নেন মুকেশ।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ১০৭ বলে ১৮২ রানের বড় জুটি গড়েন চেন্নাইয়ের দুই ওপেনার রুতুরাজ ও ডেভন কনওয়ে। ১৮তম ওভারে এসে রুতুরাজকে বিদায় করে এই জুটি ভাঙেন নটরাজন। ১ রানের হতাশা নিয়ে ৯৯ রানে বিদায় নেন রুতুরাজ। ৬ ছক্কা ও ৬ চারে সাজানো ছিল তার ইনিংসটি। একপ্রান্ত আগলে রেখে শেষ পর্যন্ত লড়ে গিয়ে দলকে ২০২ রানের বিশাল সংগ্রহ এনে দেন কনওয়ে। ৫৫ বলে ৪ ছক্কা ও ৮ চারে ৮৫ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি।


আরও খবর



বেধড়ক মার, মুখে গুলির পর জীবন্ত পুঁতে দিয়েছিল

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গেট ভেঙে বাড়িতে ঢুকে পড়েছিল রুশ সেনারা। ঘরে ঢুকে একের পর এক জিনিস টেনে বাইরে আছড়ে আছড়ে ফেলছিল আর অশ্লীল ভাষায় গালাগালি দিচ্ছিল। তার পরই তিন ভাইকে বাড়ির বাইরে টেনেহিঁচড়ে এনে বন্দুকে নলের মুখে হাঁটু গেড়ে বসানো হল। তখনও তল্লাশি চলছিল ঘরের ভিতরে। হঠাৎই এক সেনা চিৎকার করে উঠলেন। তার পরই হাতে একটি সেনার পদক নিয়ে বেরিয়ে এলেন।

তার পরই শুরু হল তিন ভাইকে বেধড়ক মার। বলতে বলতে শিউরে উঠছিলেন ইউক্রেনের চেরনিহিভের ডোভজিকে গ্রামের বাসিন্দা মাইকোলা। দুই ভাই ইভেয়েন, দিমিত্রো এবং বোন ইরিনাকে নিয়ে থাকতেন মাইকোলা। ১৮ মার্চ সব কিছু ওলটপালট হয়ে যায় মাইকোলার জীবনে। ওই দিন ডোভজিক দখল করে নিয়েছিল রুশ সেনারা। তার আগেই রুশ সেনার একটি দলের উপর ইউক্রেনীয় সেনারা বোমা হামলা চালায় ওই গ্রামেই। তার পরই গ্রামবাসীদের ঘরে ঘরে ঢুকে লুটপাট, তাণ্ডব এমনকি অত্যাচার করে খুন করার অভিযোগ ওঠে।

মাইকোলার বাড়িতেও ঢুকেছিল রুশ সেনারা। তাঁদের হাত-পা বেঁধে নিজেদের সঙ্গে নিয়ে যায় রুশ সেনারা। তিন দিন ধরে লোহার রড দিয়ে তিন ভাইকে বেধড়ক মারধর করে তারা। যত ক্ষণ না জ্ঞান হারিয়েছিল, তত ক্ষণ পর্যন্ত পিটিয়ে যাওয়া হয়েছিল তিন জনকেই। তার পরেও রুশ সেনাদের অত্যাচার থামেনি। সেনা পরিবারের হওয়ায় মাইকোলাদের উপর অত্যাচারের মাত্রা আরও বহু গুণ বাড়িয়ে দিয়েছিল রুশ সেনারা। তিন দিন ধরে মারধরের পর চতুর্থ দিন তিন ভাইকে একটি গাড়ির পিছনে বেঁধে হেঁচড়াতে হেঁচড়াতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল একটি ফাঁকা জমিতে। সেখানে আগে থেকেই বড় গর্ত খুঁড়ে রাখা ছিল।

এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে মাইকোলা বলেন, আমাদের সকলের চোখই বাঁধা ছিল। ফলে কী হতে চলেছে কেউই বুঝতে পারছিলাম না। কিছু সময় পরেই বন্দুকের গুলির আওয়াজ পেলাম। আমার পাশেই মেজ ভাই দিমিত্রি ছিল। ধপ করে মাটিতে পড়ে যাওয়ার আওয়াজ পেলাম। তার পরই আবার গুলি। আমার বাঁ পাশে ছিল ছোট ভাই ইভেয়েন। ও মাটিতে পড়ে গেল। তত ক্ষণে আমার আর বোঝার কিছু বাকি ছিল না।

মাইকোলা আরও বলেন, দুই ভাইয়ের পর আমার পালা ছিল। অপেক্ষা করছিলাম কখন গুলি এসে মাথাটা ফুঁড়ে দেয়। গুলি ওরা ছুড়েছিল ঠিকই, কিন্তু সেই গুলি সৌভাগ্যবশত মাথা না ফুঁড়ে, আমার গাল ফুঁড়ে বেরিয়ে গিয়েছিল। মাটিতে পড়ে গিয়েছিলাম। ফিনকি দিয়ে রক্ত বেরোচ্ছিল। সেনারা ভেবেছিল মরে গিয়েছি। তার পর লাথি মেরে আমাদের তিন ভাইকে ওই বড় গর্তের মধ্যে ফেলে দিল। তার পর মাটিচাপা দিয়েছিল। তার পরই ওরা চলে যায়। সবার নীচে ছিল ইভেয়েনের দেহ। তার উপর আমাকে ফেলা হয়। আমার উপর ছিল দিমিত্রির দেহ।

মাইকোলা জানিয়েছেন, ক্রমে দমবন্ধ হয়ে আসছিল। কোনও রকমে দিমিত্রির দেহটাকে আমার উপর থেকে সরিয়েছিলাম। তাঁর কথায়, জানি না, কোথা থেকে বাঁচার এত জোর চলে এসেছিল। নিজেকে ঠেলে তুলেছিলাম গর্ত থেকে। তার পর টলতে টলতে মাঠ ধরে এক মহিলার বাড়িতে পৌঁছেছিলাম। রাতভর ওই বাড়িতে থেকে ভোরে নিজের বাড়িতে পৌঁছেছিলাম। তখন বাড়িতে ইরিনা আমাদের জন্য অপেক্ষা করছিল।

নিউজ ট্যাগ: মাইকোলা

আরও খবর