আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

হজমের সমস্যা তাড়াবে যে যোগব্যায়াম

প্রকাশিত:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মানুষের মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্য রক্ষায় যোগ ব্যায়াম সব থেকে উপকারি। যোগাসন মানসিক জড়তা ও অবসন্ন ভাব কাটাতে সাহায্য করে। এর জন্য কোন কঠোর পরিশ্রম করতে হয় না। শরীরের জন্য ঠিক যতটা প্রয়োজন আপনি ততটাই যোগ ব্যায়াম করবেন। যাদের নিয়মিত গ্যাস, অম্বল বা হজমের সমস্যা আছে তাদের ক্ষেত্রে পবনমুক্তাসন বা সুপ্ত বজ্রাসন খুব ভালো কাজে দেয়।

পদ্ধতি: চিৎ হয়ে শুয়ে পা লম্বা করে সামনের দিকে ছড়িয়ে দিন। পায়ের আঙ্গুলগুলো বাইরের দিকে ফেরানো থাকবে। হাত দুটো থাকবে গায়ের সঙ্গে লেগে। এবার আস্তে আস্তে ডান পা হাঁটু থেকে ভেঙ্গে হাঁটুটা বুকের উপর তুলুন। হাঁটুর দু ইঞ্চি নিচে হাত দুটো এমনভাবে রাখুন যেন ডান হাতের চেটো বাঁ হাতের কনুইয়ের উপর আর বাম হাতের চেটো ডান হাতের কঁনুইয়ের উপর থাকে। যদি অসুবিধা হয় তাহলে এক হাতের আঙ্গুল আর এক হাতের আঙ্গুলের ফাঁকে গলিয়ে দিয়ে হাঁটুর দুইঞ্চি নিচে রাখুন। এভাবে আস্তে আস্তে বুকের উপর চাপ প্রয়োগ করুন। এভাবে ৩০ সেকেন্ড অবস্থান করার পর একইভাবে বিপরীত পায়েও করতে হবে।

দুপা করা শেষে আপনার একসেট হবে। এভাবে আপনাকে ৫-৮ সেট করতে হবে বা তার থেকেও আর বেশি করতে পারেন।

হাঁটু যখন বুকে টেনে ধরবেন তখন মাথা সোজা রেখে চিবুক নামিয়ে বুকের কাছে আনবেন। বাঁ পায়ের গোড়ালি মাটিতে লেগে থাকবে, কিন্তু পা শক্ত হবে না একেবারে। গোটা মেরুদন্ড মাটি ছুঁয়ে থাকবে।এবার দুপা একসঙ্গে হাঁটু থেকে ভেঙ্গে আসনটা করুন। শ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক থাকবে। তারপর পা নামিয়ে একেবারে সোজা করে দিন, হাতও সোজা করে দুপাশে গায়ে ঠেকিয়ে রাখুন। তার মানে, একেবারে প্রথম যেমন ছিলেন সেই অবস্থায় ফিরে আসুন। তারপর শবাসনে ৩০ সেকেন্ড বিশ্রাম নিন। এরকম তিনবার করুন।


আরও খবর
আজকের ভালো মন্দ

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

আজ আপনার জন্মদিন হলে

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21




করোনায় একদিনে আরও ৬ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | ২২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় (১৯ অক্টোবর সকাল ৮টা থেকে ২০ অক্টোবর সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনাতে রোগী শনাক্তের হার এক দশমিক ৮০ শতাংশ। গতকাল দৈনিক শনাক্তের হার দুই দশমিক ২০ শতাংশ বলে জানিয়েছিল অধিদফতর।

এর আগে গত শনিবার চলতি বছরে প্রথম দিনের মতো দৈনিক শনাক্তের হার নেমে আসে দুই শতাংশের নিচে। তারপর থেকে টানা তিনদিন দৈনিক রোগী শনাক্তের হার দুই শতাংশের নিচে থাকলেও গতকাল জানানো হয়, তার আগের ২৪ ঘণ্টায় সেটা দুই শতাংশের ওপরে উঠে যায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে রোগী শনাক্তের হার কমার সঙ্গে সঙ্গে কমেছে শনাক্ত রোগী এবং মৃত্যুর সংখ্যাও।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৩৬৮ জন, যা গতকাল ছিল ৪৬৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ছয়জন, গতকাল সাতজনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর।

স্বাস্থ্যঅধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হওয়া ৩৬৮ জনকে নিয়ে দেশে এখনপর্যন্ত সরকারি হিসেবে করোনাতে মোট শনাক্ত হলেন ১৫ লাখ ৬৬ হাজার ৬৬৪ জন। আরমারা যাওয়া ছয়জনকে নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ২৭ হাজার ৭৯১ জন মারা গেলেন বলেজানাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিফতর।

করোনাতে আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪৮১ জন, তাদের নিয়ে দেশে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মোট সুস্থ হলেন ১৫ লাখ ২৯ হাজার ৫৪৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১৯ হাজার ৯৯৮টি আর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২০ হাজার ৩৯৩টি।

দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে এক কোটি এক লাখ ৫৫ হাজার ৪৩৫টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৭৪ লাখ ২২ হাজার ৮৮৫টি  আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ২৭ লাখ ৩২ হাজার ৫৫০টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনাতে রোগী শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৪৩ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৬৩ শতাংশ আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।


আরও খবর
২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত‌্যু

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

ডেঙ্গু: আরও ১২৩ জন হাসপাতালে

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১




মালদ্বীপের বিপক্ষে নেই দুই অভিজ্ঞ খেলোয়াড়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান ও র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে মালদ্বীপ। মাঠটাও তাদের। এদিকে লালকার্ড দেখে বাংলাদেশ দলের একাদশে নেই গুরুত্বপূর্ণ দুই খেলোয়াড় রাকিব হোসেন ও বিশ্বনাথ ঘোষ।

মালদ্বীপ ফুটবল দল র‌্যাংকিংয়ে এখন বাংলাদেশ থেকে ৩১ ধাপ এগিয়ে। সব মিলিয়ে অনেকটা পিছিয়ে থেকেই আজ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে মালদ্বীপের মুখোমুখি বাংলাদেশ।

অবশ্য দুদলের মুখোমুখি দেখায় এগিয়ে বাংলাদেশই। ১২ ম্যাচে বাংলাদেশের পাঁচ জয়ের বিপরীতে মালদ্বীপ জিতেছে চারটিতে। বাকি তিনটি ড্র।

কিন্তু সেই পরিসংখ্যানে তাকিয়ে ঘুমিয়ে থাকলে চলবে না। নব্বইয়ের দশকের পর ব্যাপক উন্নতি ঘটেছে দলটির।

২০০৩ সালে প্রথম এবং একমাত্র সাফ শিরোপা বাংলাদেশ জিতেছিল মালদ্বীপকে হারিয়ে। সাফে দুদলের সবশেষ দেখা হয়েছিল ২০১৫ সালে। সেবার ৩-১ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশ।

২০১৬ সালে প্রীতি ম্যাচে মালদ্বীপের কাছে ৫-০ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশ। আর সেসব কথা ভালোই জানা বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার।

তিনি বলেন, আমি আগেও বলেছি অতীতে কী হয়েছে এ নিয়ে পড়ে থাকতে চাই না। আমরা এখানে একটা নির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে এসেছি। ফাইনালে খেলার লক্ষ্য পূরণ করতে হলে আমাদের পরের দুই ম্যাচ জিততে হবে।

এদিকে দুই হলুদকার্ডে নিষিদ্ধ রাকিব হোসেন। লালকার্ড পাওয়া ডিফেন্ডার বিশ্বনাথ ঘোষও মাঠের বাইরে। 

অভিজ্ঞ দুই খেলোয়াড়ের অনুপস্থিতিতেও চিন্তিত নন বাংলাদেশ দলের কোচ অস্কার ব্রুজোন। বললেন, এটা ঠিক যে, আমরা দুজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়কে পাব না। তবে আমার কাছে তাদের বিকল্প আছে। মালদ্বীপের মাঠে খেলা বলে তারা কিন্তু এগিয়ে নেই। অবশ্যই আমরা জয়ের জন্য খেলব। আমি যে প্রতিশ্রুতি দিতে পারি, সেটি হচ্ছে কালকের (বৃহস্পতিবার) ম্যাচটি উন্মুক্ত ম্যাচ হবে। আমরা দুদলই জয়ের চেষ্টা করব। আমরা পরিকল্পনা করব জয়ের। আমাদের যে মোমেন্টাম রয়েছে, সেটি আমরা ধরে রাখতে চাই।  


আরও খবর



‘ডিমের দাম মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আনার পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে’

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | ১২৩০জন দেখেছেন
তাছনিম আদনান

Image
সমৃদ্ধ জাতি গড়তে হলে পরিপূর্ণ পুষ্টিসম্মত খাবার নিশ্চিত করতে হবে। পুষ্টিসম্মত খাবারের অন্যতম উপাদান ডিম। ডিমের প্রয়োজনীয়তা গ্রামে-গঞ্জেসহ সকল জায়গায় ছড়িয়ে দিতে হবে

সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে ডিমের দাম মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

শুক্রবার (৮ অক্টোবর) রাজধানীর একটি হোটেলে বিশ্ব ডিম ‍দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত অলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ পরিকল্পনার কথা জানান। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর, জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও), ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন-বাংলাদেশ শাখা এবং বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিল (বিপিআইসিসি) যৌথভাবে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

এ সময় মন্ত্রী জানান, সমৃদ্ধ জাতি গড়তে হলে পরিপূর্ণ পুষ্টিসম্মত খাবার নিশ্চিত করতে হবে। পুষ্টিসম্মত খাবারের অন্যতম উপাদান ডিম। ডিমের প্রয়োজনীয়তা গ্রামে-গঞ্জেসহ সকল জায়গায় ছড়িয়ে দিতে হবে। দেশের প্রতিটি মানুষ যেন অনুধাবন করতে পারে, খাবারের শ্রেষ্ঠতম একটা উপকরণ ডিম। এই খাদ্য উপাদান যেন ব্যয়বহুল না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। যতটুকু ব্যয় হয় সেটা কীভাবে কমানো যায় সেজন্য সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে যৌথ পরিকল্পনা নেয়া হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে ব্যয়ের কারণে ডিম যেন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে না যায়। ডিমের উৎপাদন বৃদ্ধি ও সহজলভ্য করার জন্য মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে, উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে হবে, স্বনির্ভর করতে হবে

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গুণগত উন্নয়নে বিশ্বাস করেন। ‍তিনি দেশের সকল কিছুতে টেকসই উন্নয়নের কথা বলেন। প্রতিবেশী দেশসমূহের তুলনায় বাংলাদেশের প্রাণিসম্পদ খাতের এগিয়ে যাওয়া বিস্ময়কর। এ খাতের উন্নয়নে শেখ হাসিনা সরকার ব্যাপক পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছে

মন্ত্রী আরো বলেন, পোল্ট্রি খাতের সমস্যা সমাধানে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় তৎপর রয়েছে। করোনার সময় পোল্ট্রি ও ডেইরি খাতের বিপর্যস্ত অবস্থা কাটিয়ে উঠার জন্য তাৎক্ষণিকভাবে সমস্যা সমাধান করা হয়েছে। বার্ড ফ্লু সংক্রমণ থেকে পোল্ট্রি খাতকে রক্ষার জন্য শেখ হাসিনা সরকার যেভাবে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে, সে ধারা বজায় রেখে এ খাতকে উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বর্তমানে পোল্ট্রি ও ফিশ ফিডের মূল্য বৃদ্ধি বন্ধ করার জন্য আমরা তৎপর রয়েছি। আমি আশ্বস্ত করতে চাই পোল্ট্রি খাতকে বিকশিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের পক্ষ থেকে যত প্রকার সহযোগিতা, পৃষ্ঠপোষকতা দরকার, সেটা দেওয়া হবে। যাতে বাংলাদেশে এ খাত পিছিয়ে না পড়ে”।

“পুষ্টি চাহিদা মেটাতে বেশি বেশি ডিম খেতে হবে। ডিম খাওয়া নিয়ে বিভ্রান্তির বেড়াজাল থেকে বেরিয়ে এসে মানুষকে সচেতন করতে হবে। পুষ্টি চাহিদা পূরণের মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারলে আমাদের আয়ুষ্কাল বাড়বে। আজ দেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে। মাতৃমৃত্যুর হার, শিশু মৃত্যুর হার অনেক কমে গেছে। এটা এমনি এমনি আসেনি। রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনা ও বেসরকারি উদ্যোক্তাদের সম্মিলিত প্রয়াসে চাহিদা অনুযায়ী খাদ্যের যোগান ও স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপনের কারণে এটা সম্ভব হয়েছে”-যোগ করেন মন্ত্রী।

বিপিআইসিসি’র সভাপতি মসিউর রহমানের সভাপতিত্বে অলোচনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ। সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ শেখ আজিজুর রহমান ও এফএও’র বাংলাদেশ প্রতিনিধি রবার্ট ডি সিম্পসন। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বিপিআইসিসি’র সহসভাপতি শামসুল আরেফিন খালেদ। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পোল্ট্রি সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. শওকত আলী এবং বারডেম হাসপাতালের প্রধান পুষ্টিবিদ শামসুন্নাহার নাহিদ মহুয়া। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, বিএলআরআই ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রাক্তন ও বর্তমান কর্মকর্তাবৃন্দ এবং পোল্ট্রি খাতের বিশেষজ্ঞ, বিপিআইসিসি, ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন-বাংলাদেশ শাখা ও এফএও’র প্রতিনিধিবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

ডিম খেতে সব বয়সের জনগণকে উৎসাহিত করার জন্য অনুষ্ঠানে প্রতিকী হিসেবে দুজন শিশু ও দুজন বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিকে ডিম খাওয়ান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব। উল্লেখ্য, আজ ৮ অক্টোবর প্রতিদিন ডিম খাই, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াই’-এ প্রতিপাদ্যে সারাদেশে বিশ্ব ডিম দিবস উদযাপন হচ্ছে।


আরও খবর



আজ শ্রী শ্রী লক্ষ্মীপূজা

প্রকাশিত:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম বৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান শ্রী শ্রী লক্ষ্মীপূজা আজ বুধবার (২০ অক্টোবর)। শারদীয় দূর্গা উৎসবের পর হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান ধর্মী উৎসব এই লক্ষ্মীপূজা।

লক্ষ্মী ধনসম্পদ তথা ঐশ্বর্যের দেবী হিসেবে পূজিত হন। এ ছাড়া উন্নতি (আধ্যাত্মিক ও পার্থিব), আলো, জ্ঞান, সৌভাগ্য, দানশীলতা, সাহস ও সৌন্দর্যের দেবীও তিনি। শারদীয় দুর্গোৎসব শেষ হওয়ার পরবর্তী পূর্ণিমা তিথিতে হিন্দু সম্প্রদায় লক্ষ্মীপূজা উদযাপন করে থাকে। হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম এই ধর্মীয় উৎসবটি কোজাগরি লক্ষ্মীপূজা নামেও পরিচিত।

রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির, রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠ মন্দির, রামসীতা মন্দির, পঞ্চানন্দ শিব মন্দির, গৌতম মন্দির, রাধা মাধব বিগ্রহ মন্দির, রাধা গোবিন্দ জিও ঠাকুর মন্দিরসহ বিভিন্ন মন্দির এবং পুরান ঢাকার শাঁখারীবাজার, তাঁতীবাজার, সূত্রাপুর, ফরাশগঞ্জ, লক্ষ্মীবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় লক্ষ্মীপূজার বিভিন্ন ধর্মীয় কর্মসূচি আয়োজন করা হয়েছে। 

শারদীয় দুর্গোৎসব এর মতো কিছু কিছু এলাকায় শ্রী শ্রী লক্ষ্মীপূজা আয়োজন করা হয়েছে। রাজধানী ঢাকার বাহিরে যেমন দোহার-নবাবগঞ্জ, মানিকগঞ্জের হরিরামপুর এলাকায় অনেক মন্দিরে শ্রী শ্রী লক্ষ্মীপূজা আয়োজন করা হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মনে করেন লক্ষ্মী ধনসম্পদের দেবী তথা ঐশ্বর্যের দেবী। তাই এই সব এলাকায় শ্রী শ্রী লক্ষ্মী দেবীর পূজা অনেক বড় উৎসবের মতো আয়োজন করা হয়। 

নিউজ ট্যাগ: লক্ষ্মীপূজা

আরও খবর
আজ শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21

আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21




৩৪ দিন আটকে রেখে কিশোরীকে গণধর্ষণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ৩৪ দিন আটকে রেখে এক কিশোরীকে গণর্ধষণের অভিযোগ উঠেছে। পরে ওই কিশোরীকে ভারত পাচারের উদ্যোগ নেয় পাচারকারী দলের সদস্যরা। সেখান থেকে কৌশলে পালিয়ে আসে সে।

পরবর্তীতে পরিবারের সদস্যদের কাছে সমস্ত ঘটনা খুলে বলে ওই কিশোরী। আর এ ঘটনায় ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে আল আমিনকে প্রধান আসামি করে ট্রাকচালক মাসুম, আসকর মল্লিক, নজরুল মল্লিকের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৫-৬ জনের বিরুদ্ধে রোববার টাঙ্গাইল আদালতে মামলা দায়ের করেন।

আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশকে (ডিবি) তদন্তের ভার দেয়। এছাড়া ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২ তারিখের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

কিশোরী ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ভূঞাপুরের একটি স্কুলের ৮ম শ্রেণিতে পড়াশুনা করে ওই কিশোরী। মোবাইলের মাধ্যমে তার পার্শ্ববর্তী ঘাটাইল উপজেলার গৌরিশ্বর গ্রামের আসকরের ছেলে আল আমিনের (২৫) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ২১ জুলাই কোরবানির ঈদের দিন বিকালে ওই কিশোরী তার মায়ের সঙ্গে নানার বাড়ি ভূঞাপুরে যায়। সেখান থেকে আল আমিনের টেলিফোন পেয়ে নানার বাড়ি থেকে পালিয়ে আল আমিনের সঙ্গে ঘাটাইল উপজেলার চেংটা গ্রামে যায়।

সে জানায়, আল আমিন তাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ওই বাড়িতে রেখে একটানা ২৫ দিন ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ১৫ আগস্ট সে তার আত্মীয়ের বাসায় নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বের হয়ে কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ডে আসে। বাসস্ট্যান্ডে আল আমিনের বন্ধু পাচার চক্রের সদস্য ট্রাক ড্রাইভার মাসুদের ট্রাকে তুলে দেয়।

১৬ আগস্ট ভোর ৫টার দিকে একটি ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ৩-৪ জন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে ৩-৪ জন লোকের আলাপচারিতায় মেয়েটি বুঝতে পারে যে তাকে ভারতে পাচার করার পরিকল্পনা করছে। পরের দিন সে বাথরুমে যাওয়ার কথা বলে ২৫ আগস্ট রাত ৮টার দিকে ওখান থেকে পালিয়ে রিকশাযোগে বেনাপোল বাসস্ট্যান্ড আসে। পরে সেখান থেকে ২৬ আগস্ট বাড়িতে চলে আসে।

মেয়ের মা বলেন, আমার মেয়েটি বাড়িতে আসার পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে পল্লী চিকিৎসক দ্বারা চিকিৎসা করে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের ঘটনা অবহিত করি। পরে আসামিদের নাম ও ঠিকানা সংগ্রহ করে গত ১০ সেপ্টেম্বর আমার মেয়েকে নিয়ে ভূঞাপুর থানায় একটি অভিযোগ করতে যাই। ভূঞাপুর থানা পুলিশ অভিযোগ শুনে মামলা গ্রহণ না করায় আমি আল আমিনকে প্রধান আসামি করে ট্রাকচালক মাসুম, আসকর মল্লিক, নজরুল মল্লিকের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৫-৬ জনের বিরুদ্ধে টাঙ্গাইল আদালতে মামলা দায়ের করি।

তবে ভূঞাপুর থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুল ওহাব জানান, এ বিষয়ে ভূঞাপুর থানায় কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেননি।

এদিকে বাদীপক্ষের আইনজীবী আকবর হোসেন রানা জানান, আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ডিবি টাঙ্গাইলকে তদন্তের নির্দেশ দেন। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২ তারিখের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলার বিষয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি উত্তর) ওসি মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, এ ধরনের কোনো মামলা এখনো হাতে আসেনি।

 


আরও খবর
টাঙ্গাইলে একাধিক গাড়ির সংঘর্ষ, নিহত ৩

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১