আজঃ মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ইবিতে অনার্স শেষের আগেই মাস্টার্স পাশ, সনদ বাতিল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

অনার্সে ফেল থাকা সত্ত্বেও মাস্টার্সে পাস করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক শিক্ষার্থীর অনার্স এবং মাস্টার্সের সনদ বাতিল করেছে প্রশাসন। পাশাপাশি বিশেষ ব্যবস্থায় আবার পরীক্ষা দিয়ে অনার্স এবং মাস্টার্সের পাস করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে তাকে।

গত রোববার (২৯ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২৬তম একাডেমিক কাউন্সিলে এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৫৮তম সিন্ডিকেট সভাতেও এটি পাস হয়। 

ভুক্তভোগী ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী শামীরুল ইসলাম। 

আরও পড়ুন: ১১ জুনের মধ্যে হতে পারে ৪৫তম বিসিএসের প্রিলির ফল প্রকাশ

সভা সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর অনার্স-মাস্টার্সের সনদপত্র বাতিল করা হয়েছে। সভায় সব শিক্ষকের মতামতের ভিত্তিতে ওই শিক্ষার্থীকে বিশেষ ব্যবস্থায় অনার্স চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। অনার্স পরীক্ষায় পাস করলে আবার মাস্টার্সে ভর্তি হতে পারবেন তিনি। 

আরও পড়ুন: জাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু ১৮ জুন

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৭ সালে ওই শিক্ষার্থীর স্নাতক শেষ বর্ষের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে তার রোল নম্বর ছিল ১৩২১০৩৭। ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে এমবিএ (মাস্টার্স) ভর্তির সুযোগ পান। এমনকি ২০১৮ সালে তিনি ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগ থেকে মাস্টার্সে উত্তীর্ণ হন। কিন্তু মূল সনদ তুলতে এসে বিপাকে পড়েন শামীরুল। চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি তিনি জানতে পারেন অনার্স শেষ বর্ষের ফলাফলে ৪১৫ নম্বর কোর্সে তিনি অকৃতকার্য হয়েছিলেন। 

এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমানকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করে কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছিলাম। সর্বশেষ একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় তার দুই সনদ বাতিল করা হয়েছে। মানবিক দিক বিবেচনা করে তাকে পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স পরীক্ষার আবেদন ফরম পূরণ শুরু

শামীরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, মূল কাগজপত্র উত্তোলন করতে গিয়ে এ বছরের ১৭ জানুয়ারি আমি জানতে পারি অনার্সে একটি বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছিলাম। তখন এ বিষয়টি আমাকে জানানো হয়নি। এমনকি বিভাগ থেকেও অকৃতকার্য বিষয়টি আমাকে অবহিত করা হয়নি। এর আগে আমি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের সাময়িক সনদপত্র উত্তোলন করি। সেখানে আমাকে কৃতকার্যই দেখানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আমাকে ডেকেছিল। আমি সব ডকুমেন্ট সেখানে উপস্থাপন করেছি।

নিউজ ট্যাগ: সনদ বাতিল

আরও খবর
আরও ৩ দিনের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




কোটা সংস্কারের দাবিতে আজ সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সরকারি চাকরিতে কোটাপ্রথা বাতিল করে জারি করা ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল রাখার দাবিতে শনিবার (৬ জুলাই) বিকেল ৩টায় সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল করবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার অনলাইন ও অফলাইনে এই কর্মসূচির পক্ষে প্রচারণা চালায় বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের কর্মীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা এই আন্দোলনে সমর্থন দিচ্ছে বলে সংগঠনটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক হাসনাত আবদুল্লাহ জানিয়েছেন, দাবি আদায় করে আমরা ঘরে ফিরব।

এ ছাড়া রোববার (৭ জুলাই) সব কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে ছাত্র ধর্মঘটের ঘোষণাও দিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

অন্যদিকে নতুন সর্বজনীন পেনশন স্কিম প্রত্যয়’ প্রত্যাহারের দাবিতে আগামীকাল রোববার থেকে আবারও সর্বাত্মক কর্মসূচি শুরু হবে। কোনো ক্লাস ও পরীক্ষা হবে না।

সর্বজনীন পেনশন প্রত্যয়’ স্কিমকে বৈষম্যমূলক আখ্যা দিয়ে এটি প্রত্যাহারের দাবিতে গত সোমবার থেকে সর্বাত্মক কর্মবিরতি শুরু করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের ৩৫টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। কর্মবিরতির ফলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কার্যত অচল হয়ে পড়ে।

এদিকে চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার জের ধরে সারজিস আলম নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক শিক্ষার্থীকে অমর একুশে আবাসিক হল থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ঢাবির কয়েক হাজার শিক্ষার্থী ওই হলের সামনে জড়ো হয়ে আন্দোলন শুরু করেন। পরে আলমকে হলে ফেরায় হল প্রশাসন।


আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




দুমকিতে আন্তঃজেলা চোর চক্রের তিন সদস্য আটক

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
পটুয়াখালী প্রতিনিধি

Image

পটুয়াখালীর দুমকিতে ২টি ছাগল ও চোরাই কালে ব্যবহৃত একটি সিএনজিসহ আন্তঃজেলা চোর চক্রের তিন সদস্যকে আটক করে পুলিশ।

শনিবার (১৩ জুলাই) দুপুরে উপজেলার আঠারগাছিয়া মাদ্রাসা ব্রীজ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো, বাউফলের কাছিপাড়া এলাকার ইউনুস প্যাদার ছেলে এলেন প্যাদা (৩৫), ঝালকাঠির কেওড়া ইউনিয়নের মৃত আব্দুর রব হাওলাদারের ছেলে সিএনজি ড্রাইভার রুবেল হাওলাদার (৩৪) এবং নলছিটির রফিক সিকদারের ছেলে সম্রাট সিকদার (৩৫)। এদের মধ্যে এলেন প্যাদার নামে বরিশাল বিএমপি বন্দর, ঝালকাঠির নলছিটি, পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলায় ৬টি মামলা রয়েছে।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ও এলাকাবাসীর সহযোগিতায় উপজেলার আঠারগাছিয়া মাদ্রাসা ব্রীজ এলাকা থেকে ২টি ছাগল ও চোরাইকাজে ব্যবহৃত ১টি সিএনজি সহ আন্তঃজেলা চোর চক্রের তিন সক্রিয় সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেক মোঃ আব্দুল হান্নান জানান, আটককৃত এলেন প্যাদার বিরুদ্ধে বরিশালের একাধিক থানায় মামলা রয়েছে। এছাড়া আটককৃত চোরদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।


আরও খবর



বাগেরহাটে দুই বাসের সংঘর্ষে ভারতীয় নাগরিক নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

Image

বাগেরহাটের ফকিরহাটে এক‌টি বাসের সাথে অপর এক‌টি যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষ শ্রীধর গাঙ্গুলী (৪৩) নামের এক যাত্রী নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছে অন্তত আরও ৭জন যাত্রী।

শনিবার সকালে খুলনা-ঢাকা মহাসড়কের বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার ফলতিতা এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শ্রীধর গাঙ্গুলী গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া উপজেলার দেবগ্রামের গিন গাঙ্গুলীর ছেলে। তিনি ভারতীয় নাগরিক বলে জানা গে‌ছে।

মোল্লাহাট হাইওয়ে ফা‌ড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অফিসার্স ইনচার্জ শেখ নুরুজ্জামান চানু জানান, সকালে সা‌রো‌দিয়া রা‌জিব নামের একটি যাত্রীবাহী বাস ধীর গ‌তি‌তে যা‌চ্ছিল। এ সময়ে বিপরীত থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী দ্রুতগামী দোলা নামের বাস সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে রাজিব নামের বাসের ৮ যাত্রী আহত হয়। এদের মধ্যে হাসপাতালে নেওয়ার পথে শ্রীধর গাঙ্গুলী নামের এক যাত্রী নিহত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী দোলা ও সা‌রো‌দিয়া রা‌জিব পরিবহনের চাল‌কের সুপার ভাইজাররা, ওই যাত্রীর মাথা ঘটনার সময় বাসের বাই‌রে ছিল। তি‌নি ভাগ্নির বি‌য়ে দি‌তে বাংলাদেশে আসছিলেন বলে তারা নিহতের পরিবারের বরাত গি‌য়ে তারা জানান। দোলা পরিবহনের চালক আবুল হাশেম জানান, হঠাৎ করে পাশের রাস্তা দিয়ে একটি অটোরিক্সা মহাসড়কে উঠে পড়ে। ওই অটোরিক্সাকে বাঁচাতে গিয়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে।


আরও খবর



ঢাবির আরও তিন হল থেকে ছাত্রলীগ নেতাদের বের করে দিলেন শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ঢাবি প্রতিনিধি

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বেশ কয়েকটি ছাত্রী হলের পর এবার ছাত্রদের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল এবং জিয়াউর রহমান হল থেকে ছাত্রলীগ নেতাদের মেরে বের করে দিয়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (১৭ জুলাই) ভোর ৫টার দিকে বঙ্গবন্ধু হল, সকাল সাড়ে ৬টার দিকে বঙ্গবন্ধু হল এবং সোয়া ৮টার দিকে জিয়াউর রহমান হল থেকে ছাত্রলীগ নেতাদের বের করে দেন শিক্ষার্থীরা।

নেতাদের বের করে দিয়ে তাদের রুমের সব জিনিসপত্র ভাঙচুর করতেও দেখা যায়। ছাত্রলীগ নেতাদের বের করে দিয়ে হলে বিজয়োল্লাস করতেও দেখা যায় শিক্ষার্থীদের।

জিয়াউর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. বিল্লাল হোসেনসহ ওই হলের আবাসিক শিক্ষকরা দীর্ঘক্ষণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে তাদের দাবি-দাওয়া নিয়ে কথা বললেও শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগকে খুনি আখ্যা দিয়ে তাদের সঙ্গে একই হলে না থাকার দাবিতে অনড় থাকেন। পরে তাদের নিরাপদে বের করে দেওয়ার শর্তে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেন প্রাধ্যক্ষ।

এছাড়াও শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলে শিক্ষার্থীদের চাপের মুখে তাদের ৫টি দাবি সম্বলিত একটি নির্দেশনায় স্বাক্ষর করেন ওই হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আব্দুর রহীম।

এদিকে বিজয় একাত্তর হলে সাধারণ শিক্ষার্থীরা জড়ো হওয়ার আগেই ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হল থেকে পালিয়ে যান।

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রোকেয়া হলের ছাত্রলীগের নেত্রীদের বের করে দেন কোটা আন্দোলনের শিক্ষার্থীরা। তাদের বের করে দেওয়ার সময় ভুয়া, ভুয়া স্লোগান দেন শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার গভীর রাতে প্রাধ্যক্ষ ও আবাসিক শিক্ষকদের প্রটোকলে হলে ঢোকার সময় তাদের বের করে দেন বিক্ষুব্ধ সাধারণ শিক্ষার্থীরা।


আরও খবর
ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




হজ চলাকালীন মারা গেছেন কমপক্ষে ১৩০১ জন: সৌদি আরব

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

চলতি বছর হজে গিয়ে তাপপ্রবাহ ও অসহনীয় গরমে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে এক হাজার ৩০১ জন হজযাত্রীর। মারা যাওয়া এসব মানুষের বেশিরভাগই ছিলেন অননুমোদিত হজযাত্রী। সোমবার (২৪ জুন) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছরে হজের সময় কমপক্ষে ১৩০১ জন মারা গেছেন বলে সৌদি আরব জানিয়েছে। মৃতদের বেশিরভাগই ছিলেন অননুমোদিত হজযাত্রী যারা তীব্র গরমে দীর্ঘ পথ পায়ে হেঁটেছিলেন।

মূলত তীব্র তাপপ্রবাহের মধ্যেই এবারের হজ অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং এসময় মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে তাপমাত্রা কখনো কখনো ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে গিয়েছিল।

সৌদির সরকারি বার্তাসংস্থা এসপিএ জানিয়েছে, যারা মারা গেছে তাদের তিন-চতুর্থাংশেরও সেখানে থাকার আনুষ্ঠানিক অনুমতি ছিল না এবং তারা পর্যাপ্ত আশ্রয় ও উপকরণ ছাড়াই সরাসরি সূর্যের তাপের মধ্যে হেঁটেছেন।

এছাড়া যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে কয়েকজন বয়স্ক বা দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থ ব্যক্তি ছিলেন বলেও বার্তাসংস্থাটি জানিয়েছে।

সৌদি আরবের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহাদ আল-জালাজেল বলেছেন, তীব্র তাপপ্রবাহের বিপদ এবং তাপ সম্পর্কিত চাপ হজযাত্রীরা কীভাবে প্রশমিত করতে পারেন সে সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর প্রচেষ্টা চালানো হয়েছিল।

তিনি বলেন, হজের সময় হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য অবকাঠামোগুলোতে প্রায় ৫ লাখ হজযাত্রীর চিকিৎসা করা হয়েছে, যার মধ্যে ১ লাখ ৪০ হাজারেরও বেশি হজযাত্রী রয়েছেন যাদের হজ করার পারমিট ছিল না। এমনকি অসুস্থ হয়ে পড়াদের কেউ কেউ এখনো তাপ ক্লান্তির জন্য হাসপাতালে রয়েছেন।

ফাহাদ আল-জালাজেল বলেন, আল্লাহ ক্ষমা করুন এবং মৃতদের প্রতি রহম করুন। তাদের পরিবারের প্রতি আমাদের আন্তরিক সমবেদনা জানাই।

বিবিসি বলছে, সৌদি আরব হজকে নিরাপদ করতে আরও পদক্ষেপ না নেওয়ার জন্য সমালোচিত হয়েছে, বিশেষ করে অনিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য যাদের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত তাঁবু এবং অফিসিয়াল হজ পরিবহনের মতো সুবিধা ব্যবহারের সুযোগ নেই।

সৌদি আরবের জাতীয় আবহাওয়া কেন্দ্রের তথ্য অনুসারে, হজের সময় মক্কায় তাপমাত্রা ৫১.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বেড়েছিল। এর মধ্যেই বিশ্বজুড়ে বহু দেশ তাদের নাগরিকদের মৃতের সংখ্যা সম্পর্কে আপডেট দিয়েছে, তবে সৌদি আরব রোববারের আগপর্যন্ত মৃত্যুর বিষয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করেনি বা মৃত্যুর সংখ্যা সম্পর্কে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো সংখ্যা প্রদান করেনি।

বার্তাসংস্থা এএফপি একজন আরব কূটনীতিকের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, এবারের হজে ৬৫৮ জন মিসরীয় মারা গেছেন। ইন্দোনেশিয়া বলেছে, তাদেরও ২০০ জনেরও বেশি নাগরিক প্রাণ হারিয়েছেন এবং ভারতও তাদের ৯৮ জন হাজির মৃত্যুর কথা জানিয়েছে।

এছাড়া পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, জর্ডান, ইরান, সেনেগাল, সুদান এবং ইরাকের স্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস্তান অঞ্চলও তাদের হাজিদের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।


আরও খবর
আজ নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিন!

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪