আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

ইসরায়েলের উপরে হামাসের রকেট হামলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৩৬৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে সংঘর্ষ যুদ্ধের পর্যায়ে পৌঁছেছে। স্থানীয় সময় বুধবার (১২ মে) থেকে ইসরায়েলি যুদ্ধ বিমানগুলো গাজা উপত্যকায় বিরামহীন বোমা হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। বিপরীতে হামাস প্রতিরোধ যোদ্ধারাও ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে রকেট ছুঁড়ছে। হামাসের ছোঁড়া এসব রকেট বেশিরভাগ কাতিউশা প্রকৃতির, হামলার লক্ষ্য নির্দিষ্ট করে দেওয়া সম্ভব হয় না।

ফিলিস্তিনের স্থানীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অব্যহত বোমা হামলায় ফিলিস্তিনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে অন্তত ৬৭ জনে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩৯০ জন। অপরদিকে, হামাসের হামলায় ইসরায়েলের অন্তত ৬ জন নিহত হয়েছে। এরমধ্যে দুই নারী ও এক শিশু রয়েছে।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, ইসরায়েলের বিভিন্ন লক্ষ্য করে হামাস অন্তত ১৫০০ রকেট ছুঁড়েছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার (১৩ মে) ভোরে আলজেরামাক ওয়েবসাইট সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করে। ভিডিওটিতে ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিবের পেটা তিভকা এলাকায় দুটি ভবন আগুনে জ্বলতে দেখা যায়। ফিলিস্তিনিদের রকেট আঘাত হানলে ভবন দুটিতে আগুন ধরে যায়। তবে ওই ঘটনায় কেউ হতাহত হয়েছে কিনা সেটি তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।


আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




করোনায় রাজশাহীতে আরও ১৩ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ | ৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক)গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও করোনার উপসর্গ নিয়ে ১৩ জন মারা গেছেন। সোমবার (২১ জুন) সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার (২২ জুন) সকাল ৮টার মধ্যে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে তাদের মৃত্যু হয়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যে ১৩ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে পাঁচজন করোনায় এবং আটজন করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। এরমধ্যে রাজশাহীর ১২ জন অন্যজন নাটোরের বাসিন্দা। করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে এসেছিলেন তারা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের দুই ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৩৮৫ জনের আর করোনা শনাক্ত হয়েছে ১২৯ জনের। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩৩.৫০ শতাংশ।

হাসপাতাল সূত্রে আরও জানা যায়, ৩০৯ শয্যার রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে শুক্রবার সকাল ৯টা পর্যন্ত রোগী ভর্তি রয়েছে ৩৯৩ জন। গত ২৪ ঘন্টায় ভর্তি হয়েছেন ৫৬ জন। আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ১৯ জন।

এদিকে জেলা প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী আজ ১২তম দিনের মতো চলছে রাজশাহী মহানগরীতে সর্বাত্মক লকডাউন। এ সর্বাত্মক লকডাউন দ্বিতীয় দফায় ২৪ তারিখ মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এর আগে প্রথম দফায় ১৭ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত লকডাউন ছিল।


আরও খবর



খুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৯ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২১ জুন 20২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২১ জুন 20২১ | ৫২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

খুলনায় দুটি হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। মারা যাওয়াদের মধ্যে চারজন ছিলেন করোনা পজিটিভ। এছাড়া একজনের করোনার উপসর্গ ছিল। এদিকে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে আরও চার জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে দুজন করোনা পজিটিভ ছিলেন এবং বাকি দুজনের করোনা উপসর্গ ছিল।

এদিকে খুমেকের পিসিআর ল্যাবে ১১১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা শনাক্তের হার ২৫.০৭ শতাংশ। আজ সকালে খুমেকের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ও করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া পাঁচ জনের মধ্যে চার জন করোনা পজিটিভ ছিলেন। বাকি একজনের করোনা উপসর্গ ছিল। তবে, তিনি করোনা পজিটিভ ছিলেন কিনা তা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

বর্তমানে খুমেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১৬১ জন রোগী ভর্তি আছেন। এর মধ্যে রেড জোনে ১০২, ইয়েলো জোনে ২০ জন, এইচডিইউ ১৯ জন এবং আইসিইউতে ২০ জন আছেন।


আরও খবর



‘আ.লীগ হীরার টুকরা, যতবার কেটেছে নতুন করে জ্যোতি ছড়িয়েছে’

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৩ জুন ২০২১ | ৪২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
দেশের রাজনৈতিক দল হিসেবে একমাত্র গণমানুষের দল আওয়ামী লীগ। একইসঙ্গে তিনি বলেন, সুশৃঙ্খল-শক্তিশালী দল রয়েছে বলেই তাঁর সরকার দেশের উন্নয়ন করতে পারছে

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ তো হীরার টুকরা। যতবার কেটেছে ততবার আরও নতুন করে জ্যোতি ছড়িয়েছে। কাজেই এ সংগঠনকে ধ্বংস করার যে যতই চেষ্টা করুক, সেটা পারেনি, পারবে না।

আজ বুধবার বিকেলে রাজধানীর ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশের রাজনৈতিক দল হিসেবে একমাত্র গণমানুষের দল আওয়ামী লীগ। একইসঙ্গে তিনি বলেন, সুশৃঙ্খল-শক্তিশালী দল রয়েছে বলেই তাঁর সরকার দেশের উন্নয়ন করতে পারছে। অগ্রাধিকার তালিকায় যারা দুই ডোজ করোনার টিকা নিয়েছেন তারাই এখন সমালোচনা করছেন।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের এ আলোচনা সভায় গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে শেখ হাসিনা জানান, দেশের সব সংগ্রাম আর উন্নয়ন-অগ্রগতিতে দলটির অবদানের কথা। বিশেষ করে বঙ্গবন্ধুর হাতে আওয়ামী লীগ কিভাবে সুসংগঠিত হয়ে ধীরে ধীরে দেশের স্বাধীনতার দিকে এগিয়ে যায় তা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, বরাবরই দেশের মানুষের জন্য কাজ করেছে তাঁর দল।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পর আওয়ামী লীগকে ঢেলে সাজানোর কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগের নেতারা তখন অনেকে জেলে, আবার বেইমানি করে অনেকে যোগ দেয় মোস্তাকের সাথে। কার সাথে যোগাযোগ করব? জেল থেকে বের হওয়ার পর অনেকে যোগাযোগ করে। তখন আমাদের প্রতিজ্ঞা ছিল, এ বাংলাদেশকে আমার বাবা যে স্বপ্ন নিয়ে স্বাধীন করে দিয়ে গিয়েছিলেন, তাঁর যে স্বপ্ন, তাঁর যে চিন্তা, তাঁর যে আদর্শ, এটা কখনো ব্যর্থ হতে পারে না। কিন্তু এটাকে ব্যর্থ করার চেষ্টা করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের নাম মুছতে চেষ্টা করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ যখন সৃষ্টি হয়েছে, মুসলিম লীগ তখন ধ্বংস করার চেষ্টা করেছে। আইয়ুব খান ক্ষমতায় এসেছে, সেও আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার চেষ্টা করেছে। ইয়াহিয়া খান ক্ষমতায় এসেছে, সেও আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার চেষ্টা করেছে।

জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা বলেন, যখন ৭১ সালে গণহত্যা চালায়, তখনো লক্ষ্য ছিল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী।  জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে সেও আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার চেষ্টা করেছে। জেনারেল এরশাদ এসেও একই পথ অনুসরণ করেছে। আর খালেদা জিয়া এসে তো আরও এক ধাপ ওপরে।

আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, ৯১ থেকে ৯৬ আর ২০০১ থেকে ২০০৬, কত মানুষকে তারা হত্যা করেছে! তাদের লক্ষ্য একটাই, আওয়ামী লীগকে শেষ করা। আবার যখন ইমার্জেন্সি দেওয়া হলো তখন আমাকেই অ্যারেস্ট করা হলো, কিন্তু কেন?

শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ স্বাধীনতা এনেছে,  আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে এ দেশে গরিব-দুঃখী মানুষ তারা পেটে ভাত পায়, তারা মাথা গোজার ঠাঁই পায়, ঘর পায়, লেখাপড়ার সুযোগ পায়, এটা মনে হয় কিছু শ্রেণির মানুষের পছন্দ হয় না। সে জন্য আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার চেষ্টা চালায়। কিন্তু আমি আগেই বলেছি এ সংগঠন মাটি ও মানুষের থেকে উঠে এসেছে। এটা কোনো ক্ষমতা দখলকারীর সংগঠন না। মুসলিম লীগ সরকারের অন্যায়ের প্রতিবাদ করে এ সংগঠন উঠে এসেছে মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য নিয়ে। যে সংগঠন মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্য নিয়ে গড়ে ওঠে, সেই সংগঠনকে এতো সহজে শেষ করে দেওয়া যায় না। হয়তো সাময়িক আঘাত আসে। আওয়ামী লীগের ওপর অনেক আঘাত আসছে। বহুবার আওয়ামী লীগ ভেঙে গেছে। আওয়ামী লীগের ভেতরের লোকেরাই তো আওয়ামী লীগকে ক্ষতি করার চেষ্টা করেছে। মওলানা ভাসানী প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, তিনি সবার আগে আওয়ামী লীগ ভেঙে চলে গেলেন ন্যাশনাল আওয়ামী লীগ পার্টি করতে। ঠিক এভাবে কত বার  আওয়ামী লীগ ভেঙেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৮১ সালে আমার অবর্তমানে সভাপতি নির্বাচিত করা হলো আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ রাখার জন্য। আমি প্রবাসে থাকতে যাকে বেশি সহযোগিতা করেছি তিনি আমাকে ছেড়ে সবার আগে চলে গেলেন, আমাদের আবদুর রাজ্জাক সাহেব। বারবার বললাম, আপনার যাওয়ার দরকার নাই, আপনি থাকেন। পার্টির সেক্রেটারি আপনি, থাকেন। না, সে পার্টি ভেঙে বাকশাল করল। এরপর ড. কামাল হোসেন যাকে আমরা রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন করালাম, তাঁর নাম-ডাক হলো, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বলে তাঁকে প্রচার করলাম। তখন তিনি বঙ্গবন্ধুর কেবিনেটের একজন মন্ত্রীর ছিলেন মাত্র, আমরা প্রচারের মাধ্যমেই তুলে ধরলাম তাঁকে, যিনি ভালো করে বাংলায় কথাও বলতে পারতেন না, তিনি ৯১ সালে পার্টি ভেঙে চলে গেলেন, আরেকটা পার্টি বানানোর চেষ্টা করলেন। প্রথমে আওয়ামী লীগেরই একটা করার চেষ্টা করলেন, পরে গণফোরাম করে চলে গেলেন। এভাবে বার বার আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত এসেছে। তবে আমি বলব, আওয়ামী লীগ তো হীরার টুকরা। যতবার কেটেছে, ততবার আরও নতুন করে জ্যোতি ছড়িয়েছে। কাজেই এ সংগঠনকে ধ্বংস করার যে যতই চেষ্টা করুক, সেটা পারেনি, পারবে না। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে বলেই আজ বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ সামাজিক-সাংস্কৃতিক সব ভাবে বিশ্বে একটা মর্যাদা পেয়েছে।


আরও খবর



বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত-মৃত্যু অনেক কমেছে

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৭ জুন ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সারা বিশ্বেই মহামারি করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েই চলছে। বিশ্বে ইতোমধ্যে করোনায় মারা গেছেন ৩৭ লাখের বেশি এবং আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে ১৭ কোটির উপরে। আজ সোমবার (৭ জুন) বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৮টায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যারিল্যান্ডে অবস্থিত জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনা ভাইরাস রিসোর্স সেন্টার এ তথ্য জানিয়েছে।

তাতে বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ কোটি ৩১ লাখ ৯৭ হাজার ৯৪৪ জন এবং মারা গেছেন ৩৭ লাখ ২৬ হাজার ১০৭ জন।

এতে আরও বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৩৩ লাখ ৬২ হাজার ৪৭১ জন এবং মারা গেছেন ৫ লাখ ৯৭ হাজার ৬২৭ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে শনাক্ত হয়েছেন ২ কোটি ৮৮ লাখ ৯ হাজার ৩৩৯ জন। মৃত্যুর দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৩ লাখ ৪৬ হাজার ৭৫৯ জন।মৃত্যুর দিক থেকে দ্বিতীয় ও সংক্রমণের দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে থাকা দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৬৯ লাখ ৪৭ হাজার ৬২ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৭৩ হাজার ৪০৪ জন।

এছাড়াও, জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টারের তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত বিশ্বে করোনার ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২১০ কোটি ৮১ লাখ ৭১ হাজার ২৩২ জন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৮ লাখ ১০ হাজার ৯৯০ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন ১২ হাজার ৮৩৯ জন।



আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




দুপুর থেকে ৮ ঘণ্টা বিঘ্ন ঘটতে পারে ইন্টারনেট সেবায়

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ মে ২০২১ | ১২৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারে ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবল রক্ষণাবেক্ষণের জন্য শুক্রবার (২৮ মে) ইন্টারনেট সেবায় বিঘ্ন ঘটতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল)।

বিএসসিসিএল এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, দুপুর ২টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত অর্থাৎ ৮ ঘণ্টা সময়ের মধ্যে ইন্টারনেট সেবায় ব্যাঘাত ঘটতে পারে বা ধীরগতি হতে পারে।

বিএসসিসিএল জানায়, কক্সবাজার সড়ক বিভাগ ও কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সড়ক উন্নয়ন কাজের পরিপ্রেক্ষিতে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশন থেকে বিচ ম্যানহোল পর্যন্ত বর্তমান ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবলের বিকল্প রুট হিসেবে নতুন একটি ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবল রুট স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। 

নতুন রুটে স্থাপিত অপটিক্যাল ফাইবার ও পাওয়ার ক্যাবলের সঙ্গে এসএমডব্লিউ-৪ সাবমেরিন ক্যাবলের সংযোগ দেওয়ার কার্যক্রমসহ টার্মিনেটেড সার্কিটের সব ট্রাফিক নতুন ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবল (বিচ ম্যানহোল থেকে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশন)-এ স্থানান্তরে ২৮ মে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত অর্থাৎ ৮ ঘণ্টা সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। 

উল্লেখিত সময়কালে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশনে টার্মিনেটেড সব সার্কিট বন্ধ থাকবে। তবে উক্ত সময়ে কুয়াকাটার সাবমেরিন ক্যাবল ও আইটিসি অপারেটরের সার্কিটগুলি চালু থাকবে। রক্ষণাবেক্ষণ কাজ চলাকালীন ইন্টারনেট গ্রাহকরা সাময়িকভাবে ইন্টারনেটের ধীরগতির সম্মুখীন হতে পারেন।

নিউজ ট্যাগ: ইন্টারনেট সেবা

আরও খবর