আজঃ বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

ইউপি চেয়ারম্যান পদে এবার তৃতীয় লিঙ্গের ঋতু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ৮৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার ত্রিলোচনপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় লিঙ্গ (হিজরা) নজরুল ইসলাম ঋতু চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। আনারস প্রতীক নিয়ে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থী হওয়ায় এলাকায় আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। আগামী ২৮ নভেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

কালীগঞ্জ উপজেলার দাদপুর গ্রামের বাসিন্দা নজরুল ইসলাম ঋতু ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে থাকেন। চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি তৃতীয়। মাঝে মধ্যে গ্রামে আসেন। কিছু সামাজিক কাজকর্ম করেন। আপদ বিপদে গ্রামের মানুষকে সাহায্য করেন। এভাবেই এলাকায় পরিচিত হয়ে উঠেন।

করোনায় আরও পাঁচজনের মৃত্যু, শনাক্ত  ২৪৪করোনায় আরও পাঁচজনের মৃত্যু, শনাক্ত  ২৪৪

নজরুল ইসলাম ঋতু জানান, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আনারস মার্কা নিয়ে লড়ছেন। ভোটার তালিকায় তার নাম আছে নজরুল হিজরা বলে। এ নামেই তিনি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। নির্বাচনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকার মার্কার প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত পাখা মার্কার প্রার্থী মো. মাহবুবুর রহমান।  বিজয়ী হলে তিনি এলাকার উন্নয়ন ও মানুষের  সেবা করবেন বলে জানান।

প্রতীক নিয়ে তিনি ভোটারদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন। ভোট চাচ্ছেন, দোয়া চাচ্ছেন। প্রচারে গেলে উৎসাহী ভোটাররা তার পাশে ভিড় করছেন।

নিউজ ট্যাগ: ইউপি চেয়ারম্যান

আরও খবর
চট্টগ্রামে পাট গুদামে ভয়াবহ আগুন

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১




কারাগারে বিএনপি নেতার মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | ৫৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
কারাগারে থাকা ফকির আহমদ নামের এক কয়েদির সকাল সোয়া ৮টার দিকে বুকে ব্যথা হলে প্রথমে কারা হাসপাতালে নেওয়া হয়

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে মিরসরাই পৌরসভা বিএনপির আহ্বায়ক ফকির আহমদের (৬০) মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) সকালে তার মৃত্যু হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম কারাগারের জেলার দেওয়ান মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম বলেন, কারাগারে থাকা ফকির আহমদ নামের এক কয়েদির সকাল সোয়া ৮টার দিকে বুকে ব্যথা হলে প্রথমে কারা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কারাগার সূত্রে জানা গেছে, ফকির আহম্মদের হাজতি নম্বর-১৭০৯৫/২১। ফকির আহম্মদ হাটহাজারী থানার মামলায় কারাগারে ছিলেন।

গত ১৮ অক্টোবর হাটহাজারীর মন্দির ভাঙচুর ও সহিংসতা মামলায় মিরসরাই পৌরসভা বিএনপির আহ্বায়ক ফকির আহমেদসহ তিন জনকে মিরসরাই থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে। এরপর থেকে ফকির আহমদ কারাগারে ছিলেন।

নিউজ ট্যাগ: বিএনপি

আরও খবর



কাঁচা নাকি ভাজা বাদামে উপকারিতা বেশি

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ | ২১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাদাম স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী, এটা হয়তো অনেকেরই জানা। কিন্তু কাঁচা নাকি ভাজা বাদাম খেলে বেশি উপকারিতা পাওয়া যাবে? এটা হয়তো জানা নেই সবার। বাদাম সহজলভ্য হওয়ায় অনেকেই সকালে পানিতে ভেজানো একমুঠো কাঁচা বাদাম খেয়ে থাকেন। কিন্তু চিনা বাদাম ভেজে খেলে কি একই উপকারিতা পাওয়া যাবে, বিষয়টিতে পুষ্টিবিদদের মত কী?

গবেষকদের মতে, যারা নিয়মিত কাঁচা বাদাম খান, তাদের শরীরে নানা পুষ্টিকর উপাদান প্রবেশ করে। তার প্রভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। কাঁচা বাদামের পুষ্টিগুণ হাড়ের জোর বাড়ায়। পাশাপাশি, মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়ায়, ক্যানসারের আশঙ্কাও দূরে রাখে।

কাঁচা বাদামে থাকে ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট, ভিটামিনের মতো নানা উপাদান। এসব মিলে কাজের ক্ষমতাও বাড়ায়। প্রতিদিন যদি অল্প করে কাঁচা বাদাম খাওয়া যায়, তাহলে কর্মক্ষমতা একবারে অনেকটা বেড়ে যেতে পারে।

গবেষকরা জানান, ভাজা বাদাম খেলেও মিলবে উপকারিতা। ভাজা বাদামে কোলেস্টেরল থাকে। এছাড়া থাকে প্রোটিন ও ফাইবার। তাই ভাজা বাদাম খেলে বদহজমের সমস্যা দূর হয়। রক্তের শর্করার মাত্রা এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। ভাজা বাদাম খেলে দাঁতের ক্ষয়ও কমে।

তবে কাঁচা বাদামে অনেক সময় ব্যাকটেরিয়া থাকে যেগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আবার ভাজা বাদাম হারিয়ে ফেলে কিছু পুষ্টিগুণ।


আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

আজ আপনার জন্মদিন হলে

বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১




কুয়েতে মানবপাচার মামলায় পাপুলের ৭ বছর কারাদণ্ড

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশের লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সাবেক এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে মানবপাচার মামলায় ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন কুয়েতের একটি আদালত। এর আগে কুয়েতের বহুল আলোচিত অর্থ ও ঘুষের মামলায় তাকে চার বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

একটি হাই প্রোফাইল মানব পাচার মামলায় সাবেক এই বাংলাদেশি এমপিকে সাত বছরের কারাদণ্ড এবং ২৭ লাখ কুয়েতি দিনার জরিমানা প্রদানের আদেশ দিয়েছেন কুয়েতের শীর্ষ আপিল আদালত।

পাপুল ছাড়াও কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডারসেক্রেটারি মেজর জেনারেল মাজেন আল-জাররাহ, জনশক্তি পরিচালক হাসান আল খিদরকেও ৭ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া কুয়েতের ওই সরকারি কর্মকর্তাদের ঘুষের মামলায় নিজ নিজ পদ থেকে বহিষ্কারেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কুয়েতের সাবেক এমপি সালাহ খুরশিদকেও সাত বছরের কারাদণ্ড এবং প্রায় সাড়ে সাত লাখ কুয়েতি দিনার জরিমানা করা হয়েছে।

গত ৬ জুন কুয়েতের অপরাধ তদন্ত বিভাগ পাপলুকে গ্রেফতার করে। সে সময় গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, পাপুলের বিরুদ্ধে কুয়েতের সরকারি কৌঁসুলিরা তিনটি অভিযোগ তুলেছেন। অভিযোগগুলো হলো- মানবপাচার, অবৈধ মুদ্রাপাচার এবং স্বদেশী কর্মীদের কাছে রেসিডেন্ট পারমিট বিক্রি।

পাঁচ বাংলাদেশি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলার পর পাপুলকে গ্রেফতার করা হয়। ওই বাংলাদেশিরা জানান, পাপুল তাদের কুয়েতে পাঠানোর জন্য প্রত্যেকের কাছে সোয়া আট লাখেরও বেশি করে টাকা নিয়েছেন। এছাড়া রেসিডেন্সি ভিসা নবায়নের জন্য প্রতি বছর পাপুলকে নতুন করে অর্থ প্রদান করতে হতো তাদের।

পাপুলের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলোর মধ্যে উল্লেখ করা হয়েছে যে, তিনি কুয়েতে সরকারি কর্মকর্তাদের ঘুষ হিসেবে পাঁচটি বিলাসবহুল গাড়ি সরবরাহ করেছিলেন, যাতে তিনি সেখানে যে সংস্থাটি চালাচ্ছিলেন তার চুক্তি পেতে পারেন।


আরও খবর
আবরার হত্যায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড

বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১




ভারতের 'ওমিক্রন ঝুঁকিপূর্ণ' দেশের তালিকায় বাংলাদেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের সংক্রমণ বাড়ায় বাংলাদেশকে ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় ফেলেছে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ভারতের মহারাষ্ট্রে ফিরে আসা এক ব্যক্তির দেহে করোনা পজিটিভ ধরা পরায় ভারত সরকার বাংলাদেশসহ বেশ কয়েকটি দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ উল্লেখ করে নির্দেশনা জারি করেছে। টাইমস অব ইন্ডিয়ার সোমবারের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

ভারতের তালিকায় ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলো হলো- যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, সিঙ্গাপুর, হংকং, চীন, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, মরিশাস, বতসোয়ানা ও ইসরায়েল।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ভারত সরকার বাংলাদেশকে ঝুঁকিপূর্ণহিসেবে উল্লেখ করে ভ্রমণে কড়াকড়ি আরোপ করেছে। পূর্ণ ডোজ টিকা নেওয়া ভ্রমণকারীদের যে ছাড় দেওয়া হয়েছিল সেটিও বাতিল করা হয়েছে।

অপরদিকে ভারতের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় তাদের নির্দেশনায় জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীদের শিডিউল ভ্রমণের আগে অনলাইন এয়ার সুবিধা পোর্টালে সেলফ ডিক্লারেশন ফরম পূরণ করতে হবে। এতে ভ্রমণের শেষ ১৪ দিনের বিস্তারিত জানাতে হবে। ভ্রমণ শুরুর ৭২ ঘণ্টা আগে আরটি-পিসিআর পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট আপলোড করতে হবে। আগামীকাল (১ ডিসেম্বর) থেকে এই নির্দেশনা কার্যকর হবে।


নিউজ ট্যাগ: করোনা ওমিক্রন

আরও খবর
করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত বেড়েছে

মঙ্গলবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২১




আমিনবাজারে ছয় ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা মামলার রায় ২ ডিসেম্বর

প্রকাশিত:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নয় বছর আগে শবে বরাতের রাতে ঢাকার সাভারের আমিনবাজারে ছয় ছাত্রকে ডাকাত সন্দেহে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় করা মামলার রায় ঘোষণার জন্য আগামী ২ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আজ সোমবার ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ইসমত জাহান রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন। মামলায় ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে বিভিন্ন সময় ৫৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে।

২০১১ সালের ১৭ জুলাই শবে বরাতের রাতে আমিনবাজারের বড়দেশি গ্রামের কেবলার চরে ডাকাত সন্দেহে ছয় ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। নিহতরা হলেন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ম্যাপললিফের এ লেভেলের ছাত্র শামস রহিম শামীম (১৮), মিরপুরের সরকারি বাঙলা কলেজের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র তৌহিদুর রহমান পলাশ (২০), একই কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ইব্রাহিম খলিল (২১), উচ্চ মাধ্যমিক প্রথম বর্ষের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র কামরুজ্জামান কান্ত (১৬), তেজগাঁও কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র টিপু সুলতান (১৯) ও বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজির (বিইউবিটি) বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র সিতাব জাবির মুনিব (২০)।

ঘটনার পর নিহতদের বিরুদ্ধেই ডাকাতির অভিযোগ এনে গ্রামবাসীর পক্ষে সাভার মডেল থানায় মামলা করেন আব্দুল মালেক নামের এক বালু ব্যবসায়ী। অন্যদিকে ছয় কলেজছাত্র হত্যায় ৬০০ গ্রামবাসীকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন।

২০১৩ সালের ৭ জানুয়ারি র‌্যাব সদর দপ্তরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরীফ উদ্দিন আহমেদ ৬০ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। ওই বছরের ৮ জুলাই মামলার ৬০ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. হেলালউদ্দিন।

অভিযোগপত্রভুক্ত ৬০ আসামি হলেন ডাকাতি মামলার বাদী আব্দুল মালেক, সাঈদ মেম্বার, আব্দুর রশিদ, ইসমাইল হোসেন রেফু, নিহর ওরফে জমশের আলী, মীর হোসেন, মজিবর রহমান, কবির হোসেন, আনোয়ার হোসেন, রজুর আলী সোহাগ, আলম, রানা, আ. হালিম, ছাব্বির আহম্মেদ, আলমগীর, আনোয়ার হোসেন আনু, মোবারক হোসেন, অখিল খন্দকার, বশির, রুবেল, নূর ইসলাম, আনিস, সালেহ আহমেদ, শাহাদাত হোসেন রুবেল, টুটুল, অখিল, মাসুদ, নিজামউদ্দিন, মোখলেছ, কালাম, আফজাল, বাদশা মিয়া, তোতন, সাইফুল, রহিম, শাহজাহান, সুলতান, সোহাগ, লেমন, সায়মন, এনায়েত, হায়দার, খালেদ, ইমান আলী, দুলাল, আলম, আসলাম মিয়া, শাহীন আহমেদ, ফরিদ খান, রাজীব হোসেন, হাতকাটা রহিম, মো. ওয়াসিম, সেলিম মোল্লা, সানোয়ার হোসেন, শামসুল হক ওরফে শামচু মেম্বার, রাশেদ, সাইফুল, সাত্তার, সেলিম ও মনির। আসামিদের মধ্যে কবির হোসেন ও রাশেদ মারা গেছেন।


আরও খবর
আবরার হত্যায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড

বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১