আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

জাতিসংঘের ত্রাণ বন্ধ, ইথিওপিয়ায় ক্ষুধায় অর্ধশতাধিকের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর 20২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর 20২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

খরা ও ক্ষুধায় ইথিওপিয়ার উত্তর টাইগ্রে ও আমহারা অঞ্চলে ৫০ জনেরও বেশি মানুষ এবং প্রায় চার হাজার গবাদি পশু মারা গেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও জাতিসংঘ ইথিওপিয়াকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া স্থগিত রাখার পর এ ঘটনা ঘটল। স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এা প্রতিবেদেনে এ তথ্য জানিয়েছে।

টাইগ্রের দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কার্যালয়ের মতে, ৪৬ জন বাস্তুচ্যুত মানুষ ইতিমধ্যে খরার কারণে বাড়ি ছাড়ার পর মারা গেছে। কার্যালয়ের প্রধান গেব্রেহিওত গেব্রেগজিয়াবার বলেছেন, ইয়েচিলা নামের একটি শহরে তাঁদের মৃত্যু হয়েছে।

টাইগ্রেতে দুই বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধ এক বছর আগে শেষ হয়েছে। এই অঞ্চলের মানুষেরা সবকিছু এখনো গুছিয়ে উঠতে পারেননি। এরই মধ্যে আমহারায় আরেকটি সংঘাত শুরু হয়েছে। 

আরও পড়ুন>> গাজায় শুক্রবার সকালে যুদ্ধবিরতি শুরু

অন্যদিকে ওয়াগ হেমরার পার্শ্ববর্তী আমহারা এলাকায় খরার কারণে খাদ্যসংকটে কমপক্ষে ছয়জন এবং চার হাজার গবাদি পশু মারা গেছে বলে একজন স্থানীয় কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

প্রতিবেদন অনুসারে, পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে ব্যাপক চুরির অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্র ও জাতিসংঘ ইথিওপিয়াকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া স্থগিত রেখেছে। এতে দেশটিতে মানবিক সংকট আরও চরম হয়েছে। যুদ্ধ ও চরম প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সেখানকার লাখ লাখ মানুষ সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল।

এ ছাড়া ইথিওপিয়ার উত্তরাঞ্চলের কিছু অংশ মারাত্মক খরার সম্মুখীন হলেও দেশটির দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে ভারি বৃষ্টিপাত বন্যা দেখা দিয়েছে। জাতিসংঘের মতে, সাম্প্রতিক সপ্তাহে বন্যা ও ভূমিধসের কারণে ৪০ জনেরও বেশি মানুষ মারা গেছে, যাদের অধিকাংশই পূর্ব সোমালি অঞ্চলের।


আরও খবর



বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে ৬ মুসল্লির মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
গাজীপুর প্রতিনিধি

Image

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়েছে। তিন দিনব্যাপী এই ইজতেমা শুরুর আগে ও পরে ছয় মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সায়েম এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, মৃতদের মধ্যে পাঁচজন বার্ধক্যজনিত কারণে মারা গেছেন। অপরজন ইজতেমা ময়দানে পৌঁছার সময় বাসের ধাক্কায় নিহত হন। তাদের মধ্যে চারজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। বিশ্ব ইজতেমার ময়দানেই তাদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। যাদের তথ্য ও ঠিকানা পাওয়া গেছে তাদের স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

মাওলানা জুবায়েরের অনুসারীরা ২, ৩ ও ৪ ফেব্রুয়ারি ইজতেমায় অংশগ্রহণ করেন। চার দিন বিরতির পর মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ইজতেমার কার্যক্রম শুরু করেছেন। রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে এবারের বিশ্ব ইজতেমা।


আরও খবর
খারাপ হয়েছে ঢাকার বায়ু

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪




১৭ ফেব্রুয়ারি : ইতিহাসে আজকের এই দিনে

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

আজ শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪। একনজরে দেখে নেওয়া যাক ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনাবলি:

১৪০৫ - মোঙ্গল সর্দার তৈমুরলঙের মৃত্যু।

১৬০০ - বৈজ্ঞানিক জোদার্নো ব্রুনোকে পোপের নির্দেশে পুড়িয়ে মারা হয়।

১৬১৮ - সম্রাট জাহাঙ্গীরের আমলের ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত টমাস রো ভারত ত্যাগ করেন।

১৮৫৯ - কবি বিহারীলাল চক্রবর্তীর মাসিক পত্রিকা পূণির্মা প্রথম প্রকাশিত হয়।

১৯১৫ - সন্ধ্যায় প্রচন্ড তুষার ঝড়ের কারণে ডেনমার্কের উপকুলস্থ নর্থসীতে জার্মানির জেপেলিন এল ফোর পতিত হয়।

১৯৩৪ - বেলজিয়ামের রাজা প্রথম আলবার্ট পর্বত আরোহণের সময় পড়ে নিহত।

১৯৪৪ - ব্রিটিশ জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত শ্বেতপত্র প্রকাশ।

১৯৪৮ - ইয়েমেনের বাদশা ইমাম ওয়াহিদকে হত্যা।

১৯৫২ - বৃটেনের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী উইস্টন চার্চিল ঘোষণা করেন, বৃটেন পরমাণু বোমা তৈরি করেছে।

১৯৯০ - পূর্ব জার্মানি বার্লিন প্রাচীরের ৬শ ফুট ভেঙে ফেলার ঘোষণা দেয়।

১৯৯৬ - ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে ৫৩ জন নিহত।

২০০৬ - দক্ষিণ ফিলিপাইনে প্রকাণ্ড ভূমিধসে কমপক্ষে ১,১২৬ জন নিহত হয়।

২০০৮ - কসভো স্বাধীন ঘোষণা হয়। কসোভো প্রজাতন্ত্র নামে দেশটির জন্ম হয়।

২০১৫ - হাইতিতে মারদি গ্রাস প্যারেডে পদদলিত হয়ে ১৮ জনের মৃত্যু হয় ও ৭৮ জন আহত হয়।

২০১৬ - তুরস্কের আংকারায় সেনাবাহিনীর একটি ব্যারাকে বিস্ফোরণ ঘটে ২৯ জনের প্রাণহাণি ও ৬১ জন আহত হয়।

জন্ম:

১৭৭৫ - বাংলায় ইংরেজী শিক্ষা প্রবর্তনের অন্যতম পথিকৃৎ ডেভিড হেয়ার জন্মগ্রহণ করেন।

১৮৫৬ - ছবি মুদ্রনের হাফটোন প্রক্রিয়ার আবিষ্কারক ফেডারিক ইউজেন আইভস জন্মগ্রহণ করেন।

১৮৯০ - বিখ্যাত পরিসংখ্যানবিদ রোনাল্ড ফিশার জন্মগ্রহণ করেন।

মৃত্যু:

১৬৭৩ - ফরাসি নাট্যকার মলিয়েরের মৃত্যু হয়।

১৮২৭ - সুইজারল্যান্ডের জ্ঞান তাপস, শিক্ষাবিদ, শিক্ষা সংস্কারক জন হেনির পেস্টাল€জি পরলোকগমন করেন।

১৮৫৬ - জার্মান কবি ও প্রাবন্ধিক হাইনরিখ হাইনের মৃত্যু হয়।

১৮৯০ - টাইপরাইটারের উদ্ভাবক ক্রিস্টোফার ল্যাথাম শোলসের মৃত্যু হয়।

১৯৬১ - শিক্ষাবিদ ও আইনজ্ঞ অতুলচন্দ্র গুপ্তের মৃত্যু হয়।

১৯৭০ - নোবেলজয়ী হিব্রু কথাশিল্পী শামুয়েল আগনোনের মৃত্যু হয়।

১৯৮৪ - বিচারপতি রমাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু হয়।


আরও খবর
নারীর জন্য প্রয়োজনীয় পাঁচ ভিটামিন

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

২৩ ফেব্রুয়ারি : ইতিহাসে আজকের এই দিনে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ধর্ষণের শিকার সেই তরুণীকে হাসপাতাল থেকে অপহরণ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
খুলনা প্রতিনিধি

Image

ধর্ষণের শিকার এক তরুণীকে (২৮) খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে ফিল্মি স্টাইলে তুলে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার (২৮ জানুয়ারি) বিকাল ৫টার দিকে হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি) থেকে ছাড়পত্র নেওয়ার পর দরজার সামনে অপেক্ষারত মা ও ভাইয়ের সামনে থেকে ২০-২৫ জন যুবক তাকে একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে দ্রুত চলে যায়।

এ সময় ওই মাইক্রোবাসকে পাহারা দিয়ে নিয়ে যায় আরও একটি প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেলে থাকা যুবকরা।

এদিকে, ভুক্তভোগী তরুণীকে তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় হাসপাতালের ভেতরে থাকা লোকজন অভিযুক্ত ডুমুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী এজাজ আহমদের চাচাতো ভাই রুদাঘরা ইউপি চেয়ারম্যান গাজী তৌহিদুজ্জামানকে আটক করে দায়িত্বরত পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকাল ৫টার দিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে পরীক্ষা শেষে ছাড়পত্র নিয়ে ভুক্তভোগী তরুণী ওসিসির সামনে অপেক্ষারত তার মা ও ভাইয়ের কাছে যাচ্ছিলেন। এ সময় ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠা ডুমুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী এজাজ আহমদের চাচাতো ভাই রুদাঘরা ইউপি চেয়ারম্যান গাজী তৌহিদুজ্জামানের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন যুবক ফিল্মি স্টাইলে ভুক্তভোগী ওই তরুণীকে একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে। এসময় ওই যুবকদের হাতে কয়েকজন সাংবাদিক লাঞ্ছিত হন। একপর্যায়ে হাসপাতালের ভেতরে থাকা লোকজন রুদাঘরা ইউপি চেয়ারম্যান গাজী তৌহিদুজ্জামানকে আটক করে। পরে তাকে দায়িত্বরত পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়।

ওসিসির কো-অর্ডিনেটর ডা. সুমন রায় বলেন, ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিকাল ৫টার দিকে তার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মা-ভাইয়ের হেফাজতে দেওয়া হয়েছে। এর আগে ডুমুরিয়া থানার ওসি-তদন্ত মেয়েটির জবানবন্দি নিয়েছেন। মেয়েটি জবানবন্দিতে বলেছে, সে থানায় মামলা করতে ইচ্ছুক নয়। সে থানার পরিবর্তে আদালতে মামলা করতে চায়। তার ধারণা, থানায় মামলা করলে বিচার পাবে না বলে তার সন্দেহ রয়েছে। তাকে বলা হয়েছে, তার ভয়ের কোনো কারণ নেই। তার ডকুমেন্ট ওসিসিতে রয়েছে। এরপর সে তার ভাই ও মায়ের সঙ্গে চলে গেছে। তবে বাইরে যাওয়ার পর কি হয়েছেসেটা আমি বলতে পারব না।

এ ব্যাপারে নগরীর সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ডিউটি অফিসার বলেন, ট্রিপল নাইন থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে অফিসার পাঠিয়েছিলাম। তারা এ ব্যাপারে ভালো বলতে পারবেন।

এর আগে গতকাল শনিবার রাতে ডুমুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গাজী এজাজ আহমেদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন ওই তরুণী। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে অনেক দিন ধরে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এ ঘটনায় শনিবার রাত সোয়া ১১টায় খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি হন ওই তরুণী।


আরও খবর



বৈদেশিক মুদ্রার সংকট কাটিয়ে উঠছে দেশ, ফিরে এসেছে ট্র্যাকে : অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দেশে বর্তমানে বৈদেশিক মুদ্রার সংকট থাকলেও তা কাটিয়ে উঠছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। একই সঙ্গে বাংলাদেশ যে সম্ভাবনার দেশ, সেই ট্র্যাকেই ফিরে এসেছে। আজ সোমবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিলের (আইএফএডি) আবাসিক প্রতিনিধির আর্নদ হেমিলিয়ারসের সঙ্গে বৈঠকের শেষে সাংবাদিকদের অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেন। 

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে সংকট আছে, কিন্তু আমরা ওভারকাম করছি। আস্তে আস্তে আমরা উন্নতি করছি। একই সঙ্গে বাংলাদেশ এখন ঊর্ধ্বমুখী। বাংলাদেশ যে সম্ভাবনার দেশ, সেই ট্র্যাকেই ফিরে এসেছি। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ নাকি দেউলিয়া হয়ে গেল? না বাংলাদেশ কোথায় দেউলিয়া? এত বড় একটা দেশ দেউলিয়া হতে পারে না। আমাদের রিজার্ভ উন্নতি করছে।

দেশের সংকট কেটে যাচ্ছে কি নাজানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, হ্যাঁ, সংকট অনগোয়িং। সংকট আছে। কিন্তু আমরা ওভারকাম করছি। আস্তে আস্তে আমরা উন্নতি করছি। যদি ধারণা করেননতুন মন্ত্রিসভা হলো, কালই সব ঠিক হয়ে যাবে, এমনটা হবে না। কিন্তু অন দ্য ওয়ে, আস্তে আস্তে করতে হবে।

আরও পড়ুন>> বাড়তে পারে মন্ত্রিসভার পরিধি: ওবায়দুল কাদের

অর্থমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিলের (আইএফএডি) প্রজেক্ট চালু আছে। সেখানে তাঁরা নতুন নতুন আইডিয়া নিয়ে আসছেন। সেগুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সুনির্দিষ্ট কোনো বিষয়ে জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে কি না এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, সেরকম কিছু না। তবে তারা আস্তে আস্তে উন্নয়ন করে। প্রতিবছরই উন্নয়নের বিষয়ে আলোচনা হয়। এ বছর উদ্ভাবনী বিষয়ে বাংলাদেশসহ অন্যান্য সবার সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।

দেশের বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, মার্কেটিং একটা সমস্যা। কৃষকের কাছ থেকে পণ্য ঢাকায় আসতে আসতে মধ্যস্বত্বভোগীদের হাতে চলে যায়। এটা একটা বড় সমস্যা। আমরা চিন্তাভাবনা করছি কীভাবে এটাকে পরিবর্তন করা যায়।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আইএফএডি এখানে সব সময় আমাদের সাহায্য করে। শুধু তাঁরা একা নয়, আমাদের অনেক পার্টনার আছে যেমন, জাপান, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক। এ ছাড়া আমাদের আরও ডেভেলপমেন্ট পার্টনার আছে তারা বিভিন্ন আইডিয়া নিয়ে আসে। তারপর মিলেমিশে আমরা একটা রাস্তা বের করে যেতে শুরু করি।

আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, আমরা কোনো নির্দিষ্ট দেশের ওপর নির্ভরশীল না। কিন্তু আমরা সবার সঙ্গে পরামর্শ করে কাজ করি, আইডিয়া গ্রহণ করি, সেটাকে বড় করি। আর্থিকভাবে বিভিন্ন পার্টনার সহায়তা করে। এভাবেই চলে।

এর আগে, সকালে এডিবি ও ফ্রান্সের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক করেছেন সেখানে কী আলোচনা হয়েছেতা জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ তো এখন ভালো করছে। তবে আমরা সমস্যা থেকে একেবারে বের হয়ে গেছি তা কিন্তু নয়।

এডিবি নতুন কোনো প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কি নাএমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, নিশ্চয়ই করেছে। তারা বাংলাদেশকে সাহায্য করছে। এটা চলমান থাকবে। একটা কথা অনেকেই বলে, বাংলাদেশ কি দেউলিয়া হয়ে গেল? না, বাংলাদেশ কোথায় দেউলিয়া? এত বড় একটা দেশে দেউলিয়া হতে পারে না। আমাদের রিজার্ভ উন্নতি করছে।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আজ বিশ্ব ডাল দিবস : জেনে নিন ডাল খাওয়ার উপকারিতা

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্ব ডাল দিবস আজ শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি)। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো ‌টেকসই আগামীর জন্য ডাল

বিশ্ব ডাল দিবস হলো একটি আন্তর্জাতিক দিবস যা জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) দ্বারা বিশ্বব্যাপী খাদ্য হিসেবে ডালের (শুকনো মটরশুঁটি, মসুর, শুকনো মটর, ছোলা, লুপিন) গুরুত্বকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য পালন করা হয়।

২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭০তম অধিবেশনে ডাল দিবস হিসেবে ২০১৯ সাল থেকে প্রতি বছর ১০ ফেব্রুয়ারিকে মনোনীত করা হয়েছে। তারিখটির লক্ষ্য বিশ্বব্যাপী ডাল বিভাগের সাথে যুক্ত কার্যকলাপ এবং তথ্যের প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ করা।

চলুন দেখে নেওয়া যাক প্রতিদিন ডাল খাওয়ার উপকারিতা

আপনি ডাল পচ্ছন্দ করুন আর না করুন বাঙ্গালি হলে আপনার পাতে ডাল থাকবেই। হোক তা দু একদিন পর পর। মসুর থেকে মুগ সব ডাল আমাদের পচ্ছন্দ। প্রোটিন ও ফাইবারের গুরুত্বপূর্ণ উৎস হলো ডাল। আর প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় আপনি যদি ডাল রাখেন তাহলে আপনার অনেক সমস্যায় সমাধান হয়ে যাবে।

ওজন নিয়ন্ত্রণ : ডাল প্রোটিন এবং ফাইবারে সমৃদ্ধ। এটি ওজন  কমাতেও ভূমিকা রাখে। এতে করে উচ্চ ফ্যাটযুক্ত উপাদানগুলো আলাদা হয়ে যায়। অতএব ডাল খাওয়া আপনাকে সঠিক পরিমাণে শক্তি ও পুষ্টি দিতে পারে।  আবার ডাল খেলে ক্ষুধাও কমে।

স্বাস্থ্যকর কোষ : ডালে প্রোটিন, আয়রন ও ফোলেট থাকায় নিয়মিত ডাল খাওয়াও নিশ্চিত করে যে আপনার কোষগুলো মেরামত-পুনর্নবীকরণ প্রক্রিয়ার জন্য পর্যাপ্ত সুস্থ আছে। আয়রন রক্তাল্পতা হওয়ার ঝুঁকিও হ্রাস করতে পারে। প্রতিদিন ডাল খেলে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকিও হ্রাস পায়।

হার্টের সুস্থতা : ডাল হৃৎপিণ্ডের জন্য অত্যন্ত উপকারী। ডাল কোলেস্টরেল কমাতে সাহায্য করে সেই সাথে রক্তচাপও কমায়। প্রতিদিন ডাল খেলে কার্ডিওভাসকুলার রোগ হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস পায়।

যা মনে রাখতে হবে : এটি সত্য যে ডাল অত্যন্ত পুষ্টিকর, তবে সেগুলোর সঠিক উপকারিতা আমরা পাচ্ছি কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, ডালে আপনার খুব বেশি তেল ব্যবহার করা এড়ানো উচিত বা অতিরিক্ত লবণ ব্যবহারও এড়ানো উচিত। তড়কার জন্য প্রয়োজনে জলপাই তেল বা ঘি ব্যবহার করুন। স্বাদ বাড়াতে আপনি কিছু সবুজ মরিচ বা কালো মরিচ যোগ করতে পারেন। মূল কথা স্বাদ ও স্বাস্থ্যের মধ্যে ভারসাম্য করা।

২০১৯ সাল থেকে প্রতিবছর ১০ ফেব্রুয়ারি বিশ্বব্যাপী এ দিবস পালন করা হচ্ছে। তবে বাংলাদেশে গত বছর থেকে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে কৃষি মন্ত্রণালয় শোভাযাত্রা ও সেমিনারের আয়োজন করেছে।

বিশ্ব ডাল দিবস খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টির লক্ষ্যে টেকসই খাদ্য উৎপাদনের অংশ হিসেবে ডালের পুষ্টিগত উপকারিতা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির সুযোগ প্রদান করার জন্য পালন হবে।

নিউজ ট্যাগ: বিশ্ব ডাল দিবস

আরও খবর
আজ বিশ্ব প্রতিশ্রুতি দিবস

সোমবার ০১ জানুয়ারী ২০২৪