আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

ঝিনাইদহে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঝিনাইদহের ঝিনাইদহের শৈলকুপায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় মসজিদের ইমাম ও কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। বুধবার (১১ মে) বিকেলে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কের আসান্নগর এলাকায় পৃথক এ দুর্ঘটনা দুটি ঘটে।

নিহতরা হলেন, শৈলকুপা উপজেলার ব্রাহিমপুর আফছার উদ্দীনের ছেলে গোলাম রহমান (৫৫) ও একই উপজেলার মহেশপুর গ্রামের ডাবলু জোয়ারদারের ছেলে অংকোন জোয়ারদারের (১৯)।

স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে আসান্নগর গ্রাম থেকে ইমাম গোলাম রহমান বাইসাইকেলে মহাসড়কে উঠছিলেন। তখন কুষ্টিয়াগামী একটি যাত্রীবাহী বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

সংবাদকর্মী সজিবুল ইসলাম জানান, একই উপজেলার মহেশপুর গ্রাম থেকে মোটরসাইকেলে অঙ্কন নামে এক কলেজছাত্র ঝিনাইদহ শহরে আসছিলেন। তখন কুষ্টিয়াগামী একটি ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ফরিদপুর নেওয়ার পথে মাগুরায় তিনি মারা যান।

ঝিনাইদহ হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, বাস ও ট্রাকটি আটক করা যায়নি।


আরও খবর



জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক ভর্তির আবেদন শুরু ২২ মে

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রম শুরু আগামী ২২ মে। অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন চলবে ৯ জুন পর্যন্ত। বুধবার (২৭ এপ্রিল) দুপুরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরিচালনা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রার্থীদের প্রাথমিক আবেদন ফরম ১১ জুনের মধ্যে আবেদন করা কলেজে জমা দেওয়া এবং ১২ জুনের মধ্যে এ সকল আবেদন সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃক নিশ্চয়নের সিদ্ধান্ত হয়। উল্লিখিত শিক্ষাবর্ষে ভর্তি শিক্ষার্থীদের ক্লাস ৩ জুলাই থেকে শুরু হবে।

২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) প্রফেশনাল ভর্তি কার্যক্রমের অনলাইন আবেদনের তারিখ পরে জানানো হবে।

উল্লেখ্য, ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতক (সম্মান) প্রফেশনাল ভর্তি কার্যক্রমের বিস্তারিত বিজ্ঞপ্তি ও ভর্তি নির্দেশিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (www.nu.ac.bd/admissions) প্রকাশ করা হবে।


আরও খবর



জাকাতের হিসাব করবেন কীভাবে

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নবীজির (সা.) ঘোষণা অনুযায়ী, রমজানে একটি নফল ইবাদতে একটি ফরজের সমান সওয়াব পাওয়া যায়। আর একটি ফরজ ইবাদতে মেলে সত্তর গুণ সওয়াব। জাকাত যেহেতু ফরজ ইবাদত, তাই এক হাজার টাকা জাকাত হিসেবে আদায় করা হলে সত্তর হাজার টাকা জাকাত আদায়ের সওয়াব পাওয়া যায় রমজানে। এ কারণে অনেকেই জাকাত আদায়ের জন্য বেছে নেন পবিত্র রমজান মাস।

যেসব ক্ষেত্রে জাকাত দিতে হয় :

জাকাত দিতে হয় স্বর্ণের, রুপার, নগদ সম্পদের, ব্যবসায়িক সম্পদের, জমাকৃত সম্পদের, উৎপাদিত কৃষি ফসলের। চারণভূমিতে চড়ে বেড়ায় এমন গরু, ছাগল, উট, দুম্বা যখন জাকাত ফরজ হওয়ার পরিমাণে হবে তখনও জাকাত দিতে হবে। ব্যাংকে জমাকৃত যেকোনো ধরনের টাকা জাকাতের সম্পদ হিসাবে গণনায় আসবে। এমনকি ফিক্সড ডিপোজিট হলেও মূল জমাকৃত টাকার জাকাত দিতে হবে। হজের জন্য জমাকৃত টাকার জাকাত দিতে হবে। তবে হজ কর্তৃপক্ষ বা হজ এজেন্টের কাছে টাকা জমা দেওয়া হয়ে গেলে অফেরতযোগ্য টাকার জাকাত লাগবে না।

যারা শেয়ার ব্যবসা করেন তারা শেয়ারের মার্কেট ভ্যালুর ওপর জাকাত দেবেন। বীমা থেকে যখন অর্থ পাওয়া যাবে তখন বিগত বছরসহ জাকাত আদায় করতে হবে। হারিয়ে যাওয়া, চুরি বা ছিনতাই হয়ে যাওয়া সম্পদে জাকাত নেই। ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা নেই এমন ঋণেরও জাকাত নেই। তবে এসব ফেরত পেলে শুধু সংশ্লিষ্ট বছরের জাকাত দিতে হবে। বিগত বছরের জাকাত দিতে হবে না।

বাড়িওয়ালার কাছে অগ্রিম ভাড়া হিসাবে জমাকৃত টাকার, দোকানের জন্য জামানতের টাকার জাকাত দিতে হবে। ব্যবসার সম্পদের ক্ষেত্রে জাকাত গণনায় কারখানা বা দোকানের মেশিনারিজের মূল্য ধরা হয় না। এমনিভাবে দোকান বা অফিস ডেকোরেশনের জিনিসপত্রের মূল্য জাকাতের হিসাবে আসে না। এসব ক্ষেত্রে শুধু কোম্পানি, কারখানা বা দোকানের আয় জাকাতের সম্পদ হিসেবে গণ্য হবে। কারখানার কাঁচামাল যেমন প্রেসের কালি, বস্ত্রকলের তুলা-সুতার মূল্যের জাকাত দিতে হবে।

বাড়ি ভাড়া দিলে শুধু ভাড়া থেকে আয়ের ওপর জাকাত দিতে হবে। বাড়ির মূল্যের ওপর জাকাত নেই। গাড়ি ভাড়ার ব্যবসায়ীরা গাড়ি থেকে আয়ের ওপর জাকাত দেবেন। গাড়ির মূল্যের ওপর জাকাত নেই। তবে যারা গাড়ি বিক্রির ব্যবসা করেন তারা গাড়ির মূল্যের ওপর জাকাত দেবেন। এমনিভাবে ফ্ল্যাট ও প্লট ব্যবসায়ীরাও ফ্ল্যাট ও প্লটের মূল্যের ওপর জাকাত দেবেন। নিজে ব্যবহারের জন্য প্লট কেনার জন্য টাকা জমা করলে বা কিস্তি দিলে যেহেতু তখনও সেই টাকার মালিক নিজেই থাকে তাই তা জাকাতের সম্পদ হিসেবে গণ্য হবে। তবে জমি ক্রয় চূড়ান্ত হয়ে গেলে সেই জমির মূল্যের জাকাত দিতে হবে না।

মুরগির ফার্ম থেকে ডিম উৎপাদন উদ্দেশ্য হলে ডিমের মূল্যের জাকাত দিতে হবে। মুরগির মূল্যের জাকাত দিতে হবে না। মুরগি এ ক্ষেত্রে কারখানার মেশিনারিজের মতো গণ্য হবে। তবে বয়লার ফার্ম হলে যাতে মুরগির বাচ্চা বড় করা হয় তাতে উৎপাদিত-পালিত মুরগির বাচ্চার মূল্যের জাকাত দিতে হবে। ফিসারিজের জন্য ভাড়াকৃত বা ক্রয়কৃত জমি বা পুকুরের মূল্যের জাকাত দিতে হবে না। তবে বিক্রিত মাছের মূল্যের ওপর জাকাত আসবে।

যেসব ক্ষেত্রে জাকাত দিতে হয় না :

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস, ব্যবহৃত কাপড়, ঘরোয়া ইলেকট্রনিক জিনিসপত্র যেমন ফ্রিজ, এসি, ফ্যান, কম্পিউটার, ওভেন, ওয়াশিং মেশিন ইত্যাদি, থাকার জন্য বাড়ি, আগামী ফসল না পাওয়া পর্যন্ত পারিবারিক খাবারের জন্য জমাকৃত ধান, গম, চাল, লেখাপড়ার জন্য বইপত্র এবং কৃষি সরঞ্জামাদি যেমন ট্রাক্টর, মাড়াই মেশিন ইত্যাদিতে জাকাত ফরজ হয় না।

জাকাতের সম্পদ থেকে যা বিয়োগ হবে :

ঋণের টাকায় জাকাত ওয়াজিব হয় না। বরং জাকাতের হিসাব করার সময় জাকাতযোগ্য সম্পদের হিসাব থেকে ঋণের টাকা বা সম্পদ বিয়োগ হবে। তবে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ হলে শুধু আগামী এক বছরে প্রদেয় ঋণের টাকা বিয়োগ হবে। ব্যবসার সম্পদে জাকাত হিসাব করার সময় মহাজন বা মাল সরববাহকারীকে প্রদেয় টাকা বা সম্পদ বাদ যাবে। ডায়মন্ডের অলঙ্কার ব্যবহার করলে জাকাত দিতে হয় না। তবে ডায়মন্ডের ব্যবসায়ীরা ডায়মন্ডের মূল্যের জাকাত দেবেন।

ব্যবসায়িক সম্পদে ২.৫ ভাগ জাকাত দিতে হয়। ব্যবসার উদ্দেশ্যে কোনো বস্তু ক্রয় করার পর তা ব্যক্তিগত ব্যবহারে নিলে তার জাকাত দিতে হবে না। আবার ব্যক্তিগত ব্যবহারের ইচ্ছায় ক্রয়কৃত কোনো বস্তু নিয়ে ব্যবসা করার ইচ্ছা করলেই তা ব্যবসায়িক বস্তু হবে না। যখন তা বিক্রি করবে তখনই তা ব্যবসায়িক বস্তু হিসেবে গণ্য হবে। কোনো বস্তু বা অলঙ্কার বন্ধক রেখে টাকা উঠালে বন্ধকি বস্তু জাকাতের হিসাবে আসবে না। প্রভিডেন্ট ফান্ডে যা বাধ্যতামূলকভাবে কেটে নেওয়া হয়, এর জাকাত দিতে হয় না। যদি নিজের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত টাকা কাটানো হয় বা জমা রাখা হয় তাহলে অতিরিক্তের ওপর জাকাত আসবে।

মোট জাকাতযোগ্য সম্পদ থেকে যা বিয়োগ দেওয়ার থাকে তা বিয়োগ করে মোট প্রদেয় জাকাতের সম্পদের ৪০ ভাগের ১ ভাগ বা ২.৫ ভাগ টাকা বা সম্পদ সারা বছরে জাকাত দিতে হবে।


আরও খবর



শিমুলিয়া-বাংলাবাজার-মাঝিরকান্দি নৌরুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বৈরী আবহাওয়ার কারণে অভ্যন্তরীণ নৌপথে সন্ধ্যা ৭টা থেকে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে ঈদে ঘরমুখো হাজারো যাত্রী।

শিমুলিয়া ঘাটের বিআইডব্লিউটিএর  কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন জানান, অভ্যন্তরীণ নৌপথে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত বলবৎ থাকা ও কালবৈশাখী ঝড়ের আশঙ্কায় সক ধরনের লঞ্চ চলাচল সন্ধ্যা ৭টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।ঘাটে দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশনাক্রমে যাত্রীদের ফেরিতে পারাপারের জন্য মাইকিং করা হচ্ছে।

ঈদকে সামনে রেখে দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ঘরমুখো মানুষ ও যানবাহনের ঢল নামে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে। শনিবার (৩০ এপ্রিল) সকাল থেকে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ও মাঝিকান্দি নৌরুটে পদ্মা পাড়ি দিয়ে গন্তব্যে পৌঁছতে ঘাটে আসছেন হাজার হাজার যাত্রী। মোটরসাইকেল ও যাত্রী পারাপারে হিমশিম অবস্থায় ঘাট কর্তৃপক্ষ। ফেরির পাশাপাশি লঞ্চ ও স্পিডবোট ঘাটেও যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড়। এর মধ্যে বৈরী আবহাওয়ার কারণে লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছে হাজারো যাত্রী। 


আরও খবর



মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে দোষীদের শাস্তির দাবি রানা প্লাজায় নিহতের স্বজনদের

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আসাদুজ্জামান খাইরুল, সাভার প্রতিনিধি:

সাভারে রানা প্লাজা ধসের মর্মান্তিক সেই দিনকে প্রতিবছর ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে নিহত শ্রমিকদের স্মরণে, আহত শ্রমিক ও বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনগুলো নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পালন করে থাকে। রানা প্লাজার সামনে অবস্থিত অস্থায়ী বেদীতে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও দোষীদের শাস্তির দাবি করলেন নিহতের স্বজনরা।

শনিবার ২৩ এপ্রিল সন্ধ্যা থেকেই রানা প্লাজায় নিহত শ্রমিকদের স্বরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে নিহত শ্রমিকদের স্মরণে, আগামী ২৪ এপ্রিল ভয়াবহ রানা প্লাজা ট্রাজেডি দিবস উদযাপনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করলেন, নিহতদের স্বজন ও শ্রমিক সংগঠনের নেতারা। এসময় নিহত শ্রমিকদের স্বরণে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। শনিবার সন্ধ্যায় সাভারের রানা প্লাজার সামনে অবস্থিত অস্থায়ী বেদিতে এই মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি পালন করা হয়।

জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন সহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনগুলো রানা প্লাজা ট্রাজেডি দিবস উপলক্ষে ২৪ এপ্রিল সকাল ১০ টা থেকে রানা প্লাজার সামনে নিহত শ্রমিকদের স্মরণে অবস্থিত অস্থায়ী বেদিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ কর্মসূচি সহ শ্রমিক সমাবেশের আয়োজন করেছে।

 এসময় উপস্থিত নিহত শ্রমিকদের পরিবার ও শ্রমিক সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে প্রতিবছরের ন্যায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনার পাশাপাশি রানা প্লাজার ট্রাজেডির সাথে জড়িত সকল অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের দাবিতে সমাবেশ করবে তারা।

বাংলাদেশ গার্মেন্টস এন্ড শিল্প শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম সুজন বলেন, প্রতি বছর এই দিনে আমরা নিহতদের স্বরণে বিভিন্ন কর্মৃসূচি পালন করে থাকি। একইসাথে কিছূ দাবি আমরা তুলে ধরি। এবছরও আমরা একইভাবে কিছু দাবি তুলে ধরেছি যার মধ্যে রয়েছে  ২৪ শে এপ্রিলকে জাতীয়ভাবে শ্রমিক শোক দিবস হিসাবে ঘোষণা করা, স্থায়ীভাবে রানা প্লাজার সামনে স্মৃতিস্তম্ভ তৈরী করা, রানা প্লাজার জমি অধিগ্রহন করে ক্ষতিগ্রস্থ্য ও আহত শ্রমিকদের পূনর্বাসনের ব্যবস্থা করা, দোষিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা, এবং আহত শ্রমিকদের এক জীবনের আয়ের সমপরিমান ক্ষতিপূরণ প্রদান করা। এছাড়া নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদান করা।

কিন্তু দূর্ভা্গ্যজনক হলেও সত্য যে দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন দাবি আমরা তুলে ধরলেও তার কোনটাই এখনো বাস্তবায়ন করা হয়নি।

মোমবাতি প্রজ্জ্বলন শেষে রানা প্লাজায় নিহত শ্রমিক রাব্বির মা রাহেলা খাতুন বলেন, ছেলে হারানোর ৯ বছর পূর্ন হলো কিন্তু আমারা বিচার পেলাম না।

দোষিদের বিচার এখনো নিশ্চিত করতে পারেনি সরকার।দোষিদের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁশির দাবি জানাই বলেই কান্নায় ভেঙ্গে পরেন রাহেলা খাতুন।

উল্লেখ্য ২০১৩ সালের ২৪শে এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে নিহত হন ১১৩৮ জন শ্রমিক এছাড়া আহত হন ২৪৩৮জন শ্রমিক।


আরও খবর



ক্ষমতা কমলো পরিকল্পনামন্ত্রীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রকল্প অনুমোদনের ক্ষেত্রে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের ক্ষমতা কমিয়ে পরিকল্পনা কমিশনের নতুন পরিপত্রের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলার (১৭ মে) অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় এ অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী ও এনইসি চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।

সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান পরিকল্পনা সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী।

তিনি বলেন, পরিকল্পনামন্ত্রী কারিগরি ও উন্নয়ন প্রকল্পে ৫০ কোটি টাকার বেশি অনুমোদন দিতে পারবেন না। আগে কারিগরি প্রকল্পে অনুমোদনের ক্ষেত্রে কোনো বাধা ছিল না। এখন থেকে ৫০ কোটি টাকার বেশি প্রকল্পে একনেকের অনুমোদন লাগবে।

সচিবের এ বক্তব্যে পরে হাসির ছলে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমার ডানা কাটা হলো।

এদিন এনইসি সভায় আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য দুই লাখ ৪৬ হাজার ৬৬ কোটি টাকার মূল বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) প্রস্তাব চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (এনইসি)। এর সঙ্গে স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা অথবা করপোরেশনের নিজস্ব অর্থায়ন থেকে পাওয়া যাবে ৯ হাজার ৯৩৭ কোটি টাকা।


আরও খবর