আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

জিআই অনুমোদন পেল আরও ৪ পণ্য

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

আরও চারটি পণ্যকে বাংলাদেশের ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) পণ্য হিসেবে অনুমোদন দিয়ে জার্নাল প্রকাশিত হয়েছে। পণ্য চারটি হলো- রংপুরের হাঁড়িভাঙ্গা আম, মৌলভীবাজারের আগর, মৌলভীবাজারের আগর আতর ও মুক্তাগাছার মন্ডা। এ নিয়ে বাংলাদেশে অনুমোদিত জিআই পণ্যের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৮টি। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) শিল্প মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

২০০৩ সালে বাংলাদেশে এ কাজের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেড মার্কস অধিদপ্তর (ডিপিডিটি) যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে একে পেটেন্ট, শিল্প-নকশা ও ট্রেড মার্কস অধিদপ্তর (ডিপিডিটি) নামে অভিহিত করা হয়। শিল্প মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগের ফলে ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য (নিবন্ধন ও সুরক্ষা) আইন, ২০১৩ পাস হয়। এর দুই বছর পর ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য বিধিমালা, ২০১৫ প্রণয়ন করা হয়। ২০১৬ সালে জামদানি শাড়িকে বাংলাদেশে প্রথম জিআই পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। এরপর স্বীকৃতি পায় আরও ২০টি পণ্য।

সেগুলো হলো- বাংলাদেশের ইলিশ, চাঁপাইনবাবগঞ্জের খিরসাপাত আম, বিজয়পুরের সাদা মাটি, দিনাজপুর কাটারীভোগ, বাংলাদেশ কালিজিরা, রংপুরের শতরঞ্জি, রাজশাহী সিল্ক, ঢাকাই মসলিন, রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জের ফজলি আম, বাংলাদেশের বাগদা চিংড়ি, বাংলাদেশের শীতল পাটি, বগুড়ার দই, শেরপুরের তুলশীমালা ধান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ল্যাংড়া আম, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আশ্বিনা আম, নাটোরের কাঁচাগোল্লা, বাংলাদেশের ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল, টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ির চমচম, কুমিল্লার রসমালাই ও কুষ্টিয়ার তিলের খাজা।

সম্প্রতি অনুমোদিত তিনটি পণ্য টাঙ্গাইল শাড়ি, নরসিংদীর অমৃতসাগর কলা ও গোপালগঞ্জের রসগোল্লার অনুমোদনের কপি ও জার্নাল গতকাল রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাকিয়া সুলতানা। এতে জিআই পণ্যের সংখ্যা হয় ২৪টি। আজ ৪টি জিআই পণ্যের জার্নাল প্রকাশিত হওয়ায় মোট অনুমোদিত জিআই পণ্যের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৮টি।

এছাড়া আরও দুটি পণ্য জিআই পণ্য হিসেবে অনুমোদনের জন্য প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সেগুলো হলো- জামালপুরের নকশিকাঁথা এবং যশোরের খেজুর গুড়। আগামী সপ্তাহে এই দুটি পণ্যের জার্নাল প্রকাশিত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।


আরও খবর
এক মাসে রিজার্ভ বাড়ল ৬৩ কোটি ডলার

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




একুশে ফেব্রুয়ারিতেও চলবে মেট্রোরেল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

নিয়মিত সময়সূচি অনুযায়ী মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসেও (২১ ফেব্রুয়ারি) মেট্রোরেল চলাচল করবে।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড থেকে বলা হয়, কেবল শুক্রবার মেট্রোরেল বন্ধ থাকে। এদিন মেট্রোরেলের সাপ্তাহিক বন্ধ। এছাড়া অন্যান্য যেকোনো সরকারি ছুটি ও অনুষ্ঠানের দিন মেট্রোরেল চলাচল করবে।এর আগেও দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনসহ সরকারি বিভিন্ন ছুটির দিনেও মেট্রোরেল চলাচল করেছে।

বর্তমানে মেট্রোরেল উত্তরা উত্তর থেকে মতিঝিল পর্যন্ত চলাচল করছে। সকাল ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেট্রোরেল চলাচল করছে। ১৬টি স্টেশনে থেকে যাত্রীরা মেট্রোরেলে ওঠা-নামা করতে পারেন। ভাড়া কাছের দূরত্বে সর্বনিম্ন ২০ টাকা থেকে দূরের দূরত্বে ১০০ টাকা পর্যন্ত।


আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




জয়পুরহাটে চাষ হচ্ছে বেগুনী ফুলকপি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সুজন কুমার মন্ডল, জয়পুরহাট

Image

জয়পুরহাট জেলায় প্রচুর পরিমানে পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ সবজি বেগুনী ফুলকপির বাণিজ্যিকভাবে চাষ করছে এক কৃষক। সদর উপজেলার ভাদসা ইউনিয়নের কৃষক আমেদ আলী বেগুনী ফুলকপির চাষ করে বাম্পার ফলনের পাশাপাশি লাভবান হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন ।

অন্যান্য ফুলকপির মতোই এ বেগুনী জাতের ফুলকপির চাষ পদ্ধতি। স্বল্প সময়ের ফসল হিসেবে নতুন জাতের এ ফুলকপি চাষে আমেদ আলীর সফলতা দেখে এলাকায় এখন অনেকেই এই বেগুনি ফুলকপি চাষে আগ্রহী হচ্ছেন।

জানা যায়, কৃষক আমেদ আলী জয়পুরহাট সদর উপজেলার ভাদসা ইউনিয়নের গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা হলেও বেগুনী ফুলকপি চাষ করে এলাকায় তাক লাগিয়েছেন।

আমেদ আলী জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ১৫ শতাংশ জমিতে বেগুনি ফুলকপির চাষ করছেন। গত বছরের মতো এবারও বেগুনী ফুলকপি চাষে তিনি সফলতার পাশাপাশি দাম ভালো পেয়ে খুশি বলেও জানান তিনি । বর্তমান বাজারে অন্য কপির চেয়ে বেগুনী ফুল কপির চাহিদা বেশি প্রতি পিস বেগুনী ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা।

নিউজ ট্যাগ: জয়পুরহাট

আরও খবর



ভারতীয় কূটনীতিকদের কানাডায় ‘হুমকি ও ভয়’ দেখানো হয়েছে: জয়শঙ্কর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

কানাডায় ভারতীয় কূটনীতিকদের হুমকি ও ভয় দেখানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রহ্মণ্যম জয়শঙ্কর। এছাড়া লন্ডনে ভারতীয় হাইকমিশনে এবং সান ফ্রান্সিসকোতে ভারতীয় কনস্যুলেটে হামলায় জড়িতদের ভারত শাস্তি চায় বলেও জানিয়েছেন তিনি।

খালিস্তানপন্থি নেতা হরদীপ সিং নিজ্জারকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় ভারতের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলার পর গত বছর নয়াদিল্লির সঙ্গে কানাডার সম্পর্কের অবনতি হয়েছিল এবং সেই বিষয়েই ফের সরব হলেন সুব্রহ্মণ্যম জয়শঙ্কর।

ভারতীয় বার্তাসংস্থা পিটিআইয়ের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারত গত বছর লন্ডনের হাইকমিশনে এবং সান ফ্রান্সিসকোর কনস্যুলেটে হামলায় জড়িত দোষীদের বিরুদ্ধে এবং কানাডায় ভারতীয় কূটনীতিকদের হুমকি দেওয়ার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ আশা করে বলে সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) জানিয়েছেন ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রহ্মণ্যম জয়শঙ্কর।

তিনি দাবি করেছেন, ভারতকে কানাডার নাগরিকদের ভিসা প্রদান স্থগিত করতে হয়েছিল কারণ ভারতীয় কূটনীতিকদের বারবার বিভিন্ন উপায়ে হুমকি ও ভয় দেখানো হয়েছিল এবং আমরা সেই সময়ে কানাডার পক্ষ থেকে খুব কম স্বস্তির খবর পেয়েছিলাম

মূলত গত বছরের জুন মাসে কানাডায় শিখ বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা এবং কানাডিয়ান নাগরিক হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যায় ভারতীয় সরকারের এজেন্টদের ভূমিকা ছিল বলে কানাডীয় প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো অভিযোগ সামনে আনার পর ভারত ও কানাডার মধ্যে সম্পর্ক গুরুতরভাবে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

নিহত নিজ্জার নয়াদিল্লির চোখে সন্ত্রাসী হলেও তার হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগকে অযৌক্তিক বলে উড়িয়ে দেয় ভারত। এই পরিস্থিতিতে গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় সপ্তাহে কানাডিয়ান নাগরিকদের জন্য ভিসা ইস্যু করা স্থগিত করে ভারত। যদিও এর কয়েক সপ্তাহ পরই কানাডিয়ান নাগরিকদের জন্য আবার ভিসা ইস্যু করা শুরু করে নয়াদিল্লি।

ভারতের একটি টিভি নেটওয়ার্ক আয়োজিত এক সম্মেলনে সোমবার জয়শঙ্কর বলেন, আমরা আশা করি সান ফ্রান্সিসকোতে আমাদের কনস্যুলেটে হামলায় জড়িত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে, লন্ডনে আমাদের হাইকমিশনে যারা হামলা চালিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশাও আমরা করছি এবং যারা আমাদের কূটনীতিকদের (কানাডায়) হুমকি দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার প্রত্যাশা করছি আমরা।

গত বছরের ১৯ মার্চ লন্ডনে ভারতীয় হাইকমিশনে খালিস্তানপন্থিরা আক্রমণ করেছিল। আর জুলাই মাসে সান ফ্রান্সিসকোতে ভারতীয় কনস্যুলেটে অগ্নিসংযোগের চেষ্টা হয়েছিল। আর একই বছরের সেপ্টেম্বরে কানাডায় হুমকির মুখে পড়েন ভারতীয় কূটনীতিকরা।

জয়শঙ্কর দাবি করেন, আমাদের কানাডায় ভিসা প্রদান স্থগিত করতে হয়েছিল কারণ আমাদের কূটনীতিকরা নিরাপদে কাজ করতে পারছিল না। আমাদের কূটনীতিকদের বারবার হুমকি দেওয়া হয়েছিল। তাদের বিভিন্ন উপায়ে ভয় দেখানো হয়েছিল এবং আমরা সেই সময়ে কানাডিয়ান সিস্টেম থেকে খুব কম সান্ত্বনা পেয়েছিলাম।

ভারতের এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের রাষ্ট্রদূতদের হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। তাদের প্রাণহানির ঝুঁকি ছিল। তাই আমরা কানাডার নাগরিকদের ভিসা প্রদান করা বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছিলাম। এখন অবশ্য ভিসা প্রদান ব্যবস্থা প্রায় স্বাভাবিক হয়ে গেছে।

তার দাবি, আসলে বাক স্বাধীনতার নামে কূটনীতিকদের ভয় দেখানো যায় না। এটা বাক স্বাধীনতার অপব্যবহার বলে মনে করি আমি। হাই কমিশনারদের ওপর হামলা করা হচ্ছে। তাদের কোনও নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে না। ভারতের পতাকা নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আমার প্রশ্ন হলো, এটাকে কী বাক স্বাধীনতা বলা যায়? আমেরিকাতেও একই ধরনের হামলা হয়েছিল। সেই দেশে এই ঘটনার তদন্ত চলছে। যদি কানাডা কোনও পদক্ষেপ না নেয়, তবে সেটাকেও একটা বার্তা হিসেবেই নিতে হবে।

অবশ্য এরপর থেকে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে বলে জানান জয়শঙ্কর। তবে তার দাবি, এই ধরনের হামলার সাথে জড়িত দোষীদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনতে হবে।

তিনি বলেন, যুক্তরাজ্যে, আমরা আসলে আমাদের হাইকমিশনকে জনতার আক্রোষের শিকার হতে দেখেছি এবং সত্যই আমরা যে ধরনের নিরাপত্তা পাওয়ার আশা করেছিলাম, তা পাইনি। যুক্তরাজ্যে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। আমরা আজ অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রে অনেক দৃঢ় প্রতিক্রিয়া দেখতে পাচ্ছি।

প্রসঙ্গত, গত বছর কানাডার শিখ নেতা হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যার ঘটনায় ভারত সরকারের দিকে সরাসরি অভিযোগের আঙুল তোলেন কানাডীয় প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। সেসময় পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, কানাডার গোয়েন্দা সংস্থা শিখ নেতা নিজ্জারের হত্যার সাথে ভারত সরকারের সংশ্লিষ্টতার বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ খুঁজে পেয়েছে।

কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়া প্রদেশের একটি শিখ মন্দিরের বাইরে গত বছরের ১৮ জুন গুলি করে হত্যা করা হয় ৪৫ বছর বয়সী হরদীপ সিং নিজ্জারকে। হাউস অব কমন্সের সভায় প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো বলেন, কানাডার মাটিতে শিখ বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাকে হত্যার পেছনে ভারতীয় এজেন্টরা জড়িত থাকতে পারে বলে বিশ্বাস করার মতো বিশ্বাসযোগ্য কারণ রয়েছে।

ভারত অবশ্য দীর্ঘদিন ধরে কানাডার শিখ সম্প্রদায়ের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে। এছাড়া ভারত ২০২০ সালে নিজ্জারকে সন্ত্রাসী হিসাবে ঘোষণা করে এবং নিজ্জারকে হত্যায় জড়িত থাকার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোর আনা অভিযোগটিকে অযৌক্তিক আখ্যা দিয়ে প্রত্যাখ্যান করে নয়াদিল্লি।


আরও খবর



রমজানে পুরো মাস বন্ধ থাকবে মাদরাসা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আসন্ন রমজানে স্কুল-কলেজ ১৫ দিন ও প্রাথমিক স্কুল ১০ দিন খোলা থাকলেও পুরো মাস বন্ধ থাকবে মাদরাসা। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশোধিত শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী, পুরো রমজান মাস বন্ধ থাকবে সরকারি ও বেসরকারি (স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি, দাখিল, আলিম, ফাজিল ও কামিল) মাদরাসা। মন্ত্রণালয়ের মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের উপসচিব হাসিনা আক্তার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে ২০২৪ শিক্ষাবর্ষের সংশোধিত ছুটির তালিকা ও শিক্ষাপঞ্জি প্রকাশ করা হয়।

মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. শাহীনুর ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়নের তাগিদ দেয়া হয়েছে। এতে বলা হয়, আসন্ন রমজানে সরকারি-বেসরকারি মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং সরকারি ও বেসরকারি কলেজগুলোতেও শ্রেণি কার্যক্রম সচল রাখার নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ। তবে পুরো রমজান ছুটি পাচ্ছেন মাদরাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

প্রজ্ঞাপনে ৭ মার্চ থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত টানা ৩০ দিন ছুটির কথা উল্লেখ রয়েছে। সে অনুযায়ী, পুরো রমজান মাস ছুটি পাচ্ছে মাদরাসা শিক্ষার্থীরা।

এর আগে বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় ছাড়াও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, আসন্ন রমজানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আংশিক খোলা থাকবে। এরমধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল-কলেজ ও সরকারি-বেসরকারি উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক পর্যায়ের কলেজগুলো রমজানের প্রথম ১৫ দিন এবং প্রাথমিক পর্যায়ের স্কুল রমজানের প্রথম ১০ দিন খোলা থাকবে।


আরও খবর
জাবির ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বাগেরহাটে নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

Image

বাগেরহাটের চিতলমারীতে পূজা বিশ্বাস (১৮) নামে এক নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারী) সকালে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

পূজা বিশ্বাস চিতলমারী উপজেলার হিজলা ইউনিয়নের মাঝিপাড়া এলাকার গৌতম প্রাত্রের (২৫) স্ত্রী ও কলাতলা ইউনিয়নের মেলারকুল গ্রামের ভবানী বিশ্বাসের মেয়ে। মাত্র পাঁচ দিন আগে তার বিয়ে হয়েছিল।

পূজা বিশ্বাসের ভাই বিপ্লব বিশ্বাস জানান, গত ১২ এপ্রিল রাতে হিন্দুধর্মীয় মতে হিজলা ইউনিয়নের মাঝিপাড়া এলাকার অর্জুন পাত্রের ছেলে গৌতম পাত্রের সাথে তার ছোট বোন পূজা বিশ্বাসের বিয়ে হয়। রীতি অনুযায়ী ১৫ ফেব্রুয়ারী তাদের বাড়ি বোন ও ভগ্নিপতি বেড়াতে যায়। ১৬ ফেব্রুয়ারী রাতের খাবার খেয়ে পূজা ও তার স্বামী ঘুমিয়ে পড়ে। এদিন রাত ১২ টার পর ভগ্নিপতি গৌতম পাত্র ঘুম ভেঙ্গে গেলে দেখেন পূজা ঘরে নেই। বিষয়টি তাদের পরিবারের লোকজনদের জানালে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বাড়ির পিছনে আম গাছের ডালে পরণের শাড়ি দিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার বোনের মরদেহ পাওয়া যায়। পরে পুলিশ এসে তার মরহে উদ্ধার করে।

চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ইকরাম হোসেন জানান, মৃত্যুর আসল কারণ জানার জন্য নববধূর মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।


আরও খবর