আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

জিআই পণ্যের মর্যাদা পেল বগুড়ার দই

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুলাই ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জুলাই ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
বগুড়া প্রতিনিধি

Image

ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) হিসেবে স্বীকৃতি পেল বগুড়ার দই। এ নিয়ে দেশের ১৫টি পণ্য জিআই স্বীকৃতি পেল। গত ২৬ জুন শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন প্রতিষ্ঠান পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তরের সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়। ওই দিন বগুড়ার দই ছাড়া জিআই স্বীকৃতি পাওয়া অন্য পণ্যগুলো হলো শেরপুর জেলার তুলসীমালা ধান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ল্যাংড়া ও আশ্বিনা আম।

আরও পড়ুন: আমরা ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণের দিকে ধাবিত হচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী

ডিপিডিটির ডেপুটি রেজিস্ট্রার মো. জিল্লুর রহমান বলেন, বগুড়া রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির আবেদন পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও যাচাই-বাছাই শেষে ২৬ জুন দই ছাড়াও তিনটিকে জিআই পণ্য হিসেবে চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

জিল্লুর রহমান বলেন, কোনো পণ্যের জিআই স্বীকৃতির আবেদন এলে তা যাচাই-বাছাই করে গেজেট আকারে প্রকাশ করা হয়। এরপর দুই মাস সময় দেওয়া, এ নিয়ে কারও কোনো আপত্তি আছে কি না। আপত্তি না থাকলে ওই পণ্যের স্বীকৃতি দিয়ে দেওয়া হয়। বগুড়ার দইয়ের ক্ষেত্রেও কেউ কোনো আপত্তি তোলেনি। তাই এর স্বীকৃতি মিলেছে। আরও কয়েকটি পণ্য প্রক্রিয়াধীন। শিগগিরই এগুলোর স্বীকৃতি দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

২০১৭ সালের ২৬ ডিসেম্বর ডিপিডিটিতে বগুড়ার দইকে জিআই পণ্য করার জন্য আবেদন করে জেলা রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি। আবেদনের প্রায় সাড়ে চার বছর পর স্বীকৃতি পাওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসান আলী আলাল।

আরও পড়ুন: সেন্ট্রাল হাসপাতালের ডা. মিলিকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের

কোনো একটি দেশের নির্দিষ্ট ভূখণ্ডের মাটি, পানি, আবহাওয়ার প্রেক্ষাপটে সেখানকার জনগোষ্ঠীর সংস্কৃতি যদি কোনো একটি পণ্য উৎপাদনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, তাহলে সেটিকে সেই দেশের জিআই পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। দেশের প্রথম ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) পণ্য হিসেবে নিবন্ধন পায় জামদানি।

ডিপিডিটি সূত্রে জানা গেছে, অন্তত ২৪টি পণ্যের জিআই স্বীকৃতির আবেদন প্রক্রিয়াধীন। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো নাটোরের কাঁচাগোল্লা, বাংলাদেশ ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল, রংপুরের হাঁড়িভাঙা আম, কুষ্টিয়ার তিলেখাজা, কুমিল্লার রসমালাই, টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ীর চমচম, নোয়াখালীর মহিষের দুধের দই, লতিরাজ কচু, সোনালি মুরগি, সাবিত্রী রসকদম, চাচুরি বিলের কৈ মাছ, নাক ফজলি আম, সুন্দরবনের মধু, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ছানামুখী মিষ্টি, জামালপুরের নকশিকাঁথা, ফুটি কার্পাস তুলা প্রভৃতি।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




হালান্ডের সমালোচকদের এক হাত নিলেন গার্দিওয়ালা

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

গত ম্যাচে চেলসির বিপক্ষে নয় বার চেষ্টা করে একটিও গোল করতে পারেননি ম্যানসিটির প্রাণভোমরা আর্লিং হালান্ড। এতে ১-১ গোলে ড্র করেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। যার ফলে ব্যাপক সমালোচনার শিকার হতে হয়। তবে পরের ম্যাচে দুর্দান্ত এক গোল করে দল জিতিয়েছেন হালান্ড। এমন নৈপুণ্যের পরই সিটি কোচ পেপ গার্দিওয়ালা বলেছেন যে, সমালোচকদের মুখ বন্ধ করে দিয়েছেন হালান্ড।

মঙ্গলবার ( ২০ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতে ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে নরওয়েজিয়ান স্ট্রাইকারের এক মাত্র গোলে ভর করে ১-০ ব্যবধানের দারুণ এক জয় পেয়েছে ম্যানসিটি। ব্রেন্টফোর্ডকে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে উঠে এসেছে সিটি। ২৫ ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট দলটির। সমান ম্যাচে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে লিভারপুল।

এই জয়ের পর সিটি কোচ পেপ গার্দিওলা পাল্টা তোপ দাগলেন হলান্ডের সমালোচকদের দিকে। স্প্যানিশ কোচ হালান্ডের সমালোচনার আগে দুবার ভাবতে বললেন সবাইকে। সাংবাদিকদেরও একহাত নিয়েছেন গার্দিওলা। 

আরও পড়ুন>> ক্রিকইনফোর বর্ষসেরা বোলিং পারফর্মার মারুফা আক্তার

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন কোচ গার্দিওয়ালা। তিনি বলেন, আমি তো সাংবাদিক ছিলাম না, তবু আমার এক বন্ধু বলেছিল। বড় মাপের স্ট্রাইকাররা অনেক অনেক গোল করে। বেশি সমালোচনা করো না, সে তোমাকে মুখ বন্ধ করতে বাধ্য করবে।

তিনি বলেন, আমি জানতাম আজ হোক, কাল হোক, সে নিজেকে ফিরে পাবেই। (গোল করার জন্য) আপনি যদি আমাকে একজন খেলোয়াড়কে বেছে নিতে বলেন, তবে আমি ওকেই নেব।

চেলসির বিপক্ষে ম্যাচে খারাপ খেলার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে গার্দিওয়ালা জানালেন হলান্ডের দাদির মৃত্যুর খবর, সে গত দুই মাস চোটের কারণে বাইরে ছিল। শারীরিকভাবে নিজেকে পুরোপুরি ফিরেও পায়নি সে। আর তার জন্য খুবই কঠিন গেছে সপ্তাহটা, তার দাদি মারা গেছে। একজন মানুষের জন্য খুব সহজ নয় বিষয়টা।

কেন সাংবাদিক হওয়ার চেষ্টা করেননি এমন প্রশ্নের জবাবে ম্যানসিটি কোচ, আমি তো ম্যানেজার (কোচ)। আমার জীবন তো আপনাদের চেয়ে উন্নত। আপনাদের সঙ্গে কিন্তু আমার ব্যক্তিগত কোনো বিরোধ নেই।


আরও খবর
হাথুরুসিংহেকে ‘শোকজ’ করবেন পাপন!

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ঘরে বসেই জাল টাকা বানাতেন কলেজছাত্র জিসান

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঘরে বসেই জাল টাকা বানাতেন কলেজছাত্র জিসান। রাজধানীর কদমতলী এলাকায় বাবা-মা ও ভাইদের সঙ্গে থাকতেন তিনি। পরিবারের সদস্যদের অগোচরে নিজের ঘরে গড়ে তুলেছিলেন নকল টাকা তৈরির সব আয়োজন। কম্পিউটার প্রিন্টারসহ সেই আয়োজনে রয়েছে নানা সরঞ্জাম।

শুক্রবার সকালে র‌্যাব-১০ এর কোম্পানি কমান্ডার মহিউদ্দিন মাহমুদ সোহেল এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, গত এক বছরে ১০ টাকা থেকে শুরু করে ১ হাজার টাকার নোট ছেপেছেন জিসান। অভাব-অনটনের পরিবারে পড়াশোনার পাশাপাশি এই অবৈধ কাজে তাকে সহযোগিতা করেছে জাল টাকা তৈরির একটি বড় চক্র।

র‌্যাব জানায়, বৃহস্পতিবার রাজধানীর কদমতলীর বাসা থেকে তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে র‍্যাবের জালে ধরা পড়েন জিসান। তাৎক্ষণিকভাবে ২ লাখ ৩০ হাজার জাল টাকা, কম্পিউটার, জাল টাকার ছাপা মেশিনসহ নানা সরঞ্জাম তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। এখন পর্যন্ত ঢাকা দক্ষিণের বিভিন্ন এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রায় দুই কোটি টাকা ছড়িয়েছেন এই কলেজছাত্র।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম যেমন- ফেসবুক মেসেঞ্জার গ্রুপ ও টেলিগ্রামে বিভিন্ন চক্রের সঙ্গে যোগাযোগ করতেন জিসান। একইভাবে টাকা বিক্রির জন্য অনলাইনকেই বেছে নিয়েছিলেন তিনি।

র‌্যাব কর্মকর্তা মহিউদ্দিন মাহমুদ বলেন, জিসানের পরিবারের আর্থিক সমস্যা রয়েছে। তিনি একজন মাদকসেবী। মাদক সেবনের টাকা জোগাড়ের জন্য তিনি মূলত এ কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়। জিসান নিজেই টাকা তৈরি করে বিভিন্ন ক্লাইয়েন্টকে জাল টাকা সরবরাহ করে আসছিলেন।

জাল টাকা তৈরি চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-১০ এর কোম্পানি কমান্ডার।


আরও খবর
ছুটির দিনেও ঢাকার বায়ু ‌‘অস্বাস্থ্যকর’

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




শিশু আয়ানের মৃত্যু : ৫ সদস্যের নতুন তদন্ত কমিটি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাড্ডার সাতারকুলের ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিশু আয়ান আহমেদের মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে নতুন কমিটি গঠন করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদালত বলেছেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কমিটির রিপোর্ট আমাদের মনঃপূত হয়নি। আমরা ৫ সদস্যের নতুন কমিটি করে দিচ্ছি। মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

কমিটিতে তিনজন চিকিৎসক, দুইজন সিভিল সোসাইটির ব্যক্তি ও একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপককে রাখা হয়েছে। কমিটি এক মাসের মধ্যে আয়ানের মৃত্যুর পুরো ঘটনা তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করবে।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ ডিসেম্বর বাড্ডা মাদানী অ্যাভিনিউয়ের ইউনাইটেড মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আসেন শিশু আয়ানের বাবা শামীম আহমেদ। সেখানে তাকে অস্ত্রোপচার পূর্ববর্তী এনেসথেসিয়া দেওয়া হয়।

তবে গত ৭ জানুয়ারি দিবাগত রাত ১১টা ২০ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করে। এই হাসপাতালের পিআইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিল শিশু আয়ান।

জানা গেছে, শিশুটিকে এনেসথেসিয়া প্রয়োগ করেন ডা. সাব্বির আহমেদ। আর সার্জারি করেছেন ডা. মেহজাবীন।


আরও খবর



আদভানিকে ‘ভারতরত্ন’ প্রদান আমার জন্য খুবই আবেগপূর্ণ মুহূর্ত: মোদি

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদভানি সর্বোচ্চ বেসামরিক পদক ভারতরত্ন সম্মাননা পাচ্ছেন। শনিবার সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্স হ্যান্ডেলে অফিসিয়াল অ্যাকাউন্টে এ ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

তিনি লিখেছেন, আদভানিকে ভারতের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার ভারতরত্ন দেওয়া হবে। এই সম্মান প্রদানের কথা জানাতে সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী আদভানির সঙ্গে কথাও বলেছি। এই সম্মানে ভূষিত হওয়ার জন্য তাঁকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছি।


নরেন্দ্র মোদি লিখেছেন, তাঁকে (লালকৃষ্ণ আদভানি) ভারতরত্ন পদক প্রদান আমার জন্য খুবই আবেগপূর্ণ মুহূর্ত। নরেন্দ্র মোদি আদভানির সঙ্গে দুটি ছবিও ট্যাগ করেছেন পোস্টে।

ভারতীয় জনতা পার্টির ৯৭ বছর বয়সী প্রবীণ রাজনীতিবিদ আদভানির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী আরও লিখেছেন, তিনি আমাদের সময়ের সবচেয়ে সম্মানিত রাষ্ট্রনায়কদের একজন। ভারতের উন্নয়নে তাঁর অবদান স্মরণীয়। তাঁর এমন একটি জীবন যিনি তৃণমূলে কাজ করা থেকে শুরু করে দেশের উপ-প্রধানমন্ত্রী হিসেবে জাতির সেবা করেছেন।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, তিনি আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং আইএন্ডবি মন্ত্রী হিসেবেও নিজেকে আলাদা হিসেবে প্রমাণ করেছেন। তাঁর সংসদীয় ভূমিকা সবসময়ই অনুকরণীয়, তিনি অন্তর্দৃষ্টিতে পূর্ণ সমৃদ্ধ।

তিনি বলেছেন, জনজীবনে আদভানি স্বচ্ছতা ও সততার প্রতি অটল ছিলেন যা রাজনৈতিক নীতিশাস্ত্রে একটি অনুকরণীয় মান স্থাপন করেছে। জাতীয় ঐক্য ও সাংস্কৃতিক পুনরুত্থানের জন্য তিনি অতুলনীয় চেষ্টা চালিয়ে গেছেন। তাঁকে ভারতরত্ন প্রদান আমার জন্য খুবই আবেগঘন মুহূর্ত। আমি সবসময় এটিকে আমার বিশেষত্ব হিসেবে বিবেচনা করব যে, আমি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার এবং তাঁর কাছ থেকে শেখার অগণিত সুযোগ পেয়েছি।


আরও খবর



রাজধানীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর দক্ষিণখান আশকোনা এলাকায় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন, ওমর ফারুক (১৮), রবিউল ইসলাম ও জুনায়েদ।

দক্ষিনখান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সিদ্দিকুর রহমান জানান, শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাত আনুমানিক পৌনে ৮টার দিকে দক্ষিণখান আশকোনা আশিয়ান সিটি এলাকায় একটি মোটরসাইকেল এর চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ছিটকে পড়ে। এতে মোটরসাইকেলে থাকা ৩ জন মারা যান।

তিনি জানান, এতে রবিউল ইসলাম ঘটনাস্থলে মারা যায়। জুনায়েদ মারা গেছে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে। আর ওমর ফারুক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

নিহত ওমর ফারুকের বাবার পরিচিত মোহাম্মদ হোসেন জানান, ওমর আশকোনার একটি মাদ্রাসায় কিতাব বিভাগের ছাত্র ছিল। তার বাবার নাম রাজন। বাড়ি নারায়ণগঞ্জের রুপসি। ওই মাদ্রাসায় থেকেই পড়ালেখা করতো।


আরও খবর
ছুটির দিনেও ঢাকার বায়ু ‌‘অস্বাস্থ্যকর’

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪