আজঃ বুধবার ২১ এপ্রিল 20২১
শিরোনাম

জনপদের সংবাদ | পাবনাতে চলছে স্বাস্থ্য সহকারী এসোসিয়েশন ও স্বাস্থ্য পরিদর্শক সমিতির কর্মবিরতি

প্রকাশিত:সোমবার ৩০ নভেম্বর ২০২০ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ২৩০জন দেখেছেন



আরও খবর



রান্নার ছোট ছোট ভুল আপনাকে ধেয়ে নিচ্ছে মৃত্যুর দিকে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | ১০৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কেবল ডায়েট অনুসরণ করার জন্য নয়, ছোট থেকে বড় বড় বিভিন্ন অসুখ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্যও রান্নার সঠিক পদ্ধতি জানা দরকার। রান্নার ছোট ছোট ভুল থেকেই মৃত্যুর দিকে ধেয়ে নিয়ে যাওয়ার মতো রোগের সৃষ্টি হয়ে থাকে। বিশেষজ্ঞদের মতে কোন তেল, ভাজা-পোড়ায় কত তাপমাত্রা, কতক্ষণ খাবার গরম রাখা উচিতসহ অন্যান্য যাবতীয় রান্নায় কিছু সাধারণ নিয়ম মেনে চলা উচিত। সে সবের উপর নির্ভর করে সুস্বাস্থ্য।

রান্নার নিয়ম যেমন হওয়া উচিত : সেদ্ধ খাবার ক্রমশ খেতে থাকলে মুখে উঠবে না। আবার ভুল পদ্ধতিতে রান্না করার জন্য খাবারে কোনো পুষ্টি থাকবে না। শাক-সবজি ও মাংস রান্নার ক্ষেত্রে প্রথমে সেদ্ধ করে তারপর কষানো হলে এতে খাদ্যগুণ বজায় থাকে। এছাড়া কম সময় নিয়ে ঢেকে রান্না করলে পুষ্টি বজায় থাকে। তবে সাবধান, কষানোর সময় খাবারের পানি ফেলে দিলে ভিটামিন-বি, সি ও অন্যান্য উপকারী খনিজ উপাদানের প্রায় ৬০-৭০ শতাংশ বেরিয়ে যাবে। ভাতের ক্ষেত্রে একই রকম এই বিষয়টি। ভাতের মাড় বা ফ্যান ফেলে দিলে এর সঙ্গে পুষ্টি বের হয়ে যায়। তাই ভাত রান্নার সময় পরিমাণ করে পানি দিতে হয় যেন রান্না শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পানিও শেষ হয়। এছাড়া সবজি-মাংস তরকারির ঝুলে ব্যবহার করুন।

কম আঁচে রান্না : কম আঁচে রান্না করতে হয়। ভাপে রান্নার ফলে পুষ্টির প্রায় সবটুকু বজায় থাকে। এতে স্বাদও ঠিক থাকে। কখনো কখনো ভাপের সময় স্বাদ বৃদ্ধি করতে ঢাকনা দিয়ে হালকা করে ঢেকে কষিয়ে নিতে পারেন। এছাড়া যারা মাছ প্রিয় তারা ডিম পোচের মতো মাছও পোচ করে খেতে পারেন। এজন্য গরম কড়াইতে অল্প পানি দিয়ে হালকা লবণ, মরিচ ও লেবু দিয়ে ঢেকে রান্না করলে পুষ্টি বজায় থাকে।

ভাজার সমস্যা ও সমাধান : ছাঁকা তেলে কিছু ভাজলে খাবারের ভিটামিন ও প্রোটিন কমে যায়। এতে অপুষ্টি, ক্যালোরি বৃদ্ধি পায়, ওজন বেড়ে যায় ও ট্রান্স ফ্যাটের সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও অ্যালডিহাইড নামে জৈব রাসায়নিকের জন্য ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও পার্কিনসনিজমের আশঙ্কাও থাকে।

গ্রিলের নিয়ম : গ্রিল করা খাবার খাওয়া ভালো। এই খাবার পুষ্টিকর ও এতে ক্যালোরিও কম। তবে সাবধান, গ্রিলের পোড়া খাবার খাওয়ার ফলে প্যানক্রিয়াস ও ব্রেস্ট ক্যানসারের শঙ্কা থাকে। এছাড়া উচ্চ তাপের জন্য মাংসের ফ্যাট ও প্রোটিনে রাসায়নিক বিক্রিয়া হয়ে বিষাক্ত পদার্থ তৈরির সম্ভাবনা থাকে। যা থেকে হৃদরোগ ও ডায়াবেটিসের আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়।


আরও খবর



রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুনে মৃত ৭, সহস্রাধিক ঘর পুড়ে ছাই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ মার্চ ২০২১ | ১১২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালীর চারটি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের অগ্নিকাণ্ডে নারী ও শিশুসহ ৭ জন মারা গেছেন। নিহতদের মধ্যে একজন নারী, দুই জন শিশু ও চার জন বৃদ্ধ রয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো অন্তত ২ হাজার।

সোমবার (২২ মার্চ) বিকেল ৩টায় উখিয়ার বালুখালী ৮-ডব্লিউ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এ ঘটনা ঘটে। রাত ১১টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও অন্তত সহস্রাধিক বসত ঘর পুড়ে গেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহত সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি।

আগুনে ঘরহারা রোহিঙ্গাদের অনেকে বর্তমানে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছেন। অনেকে আশ্রয় নিয়েছেন নিকটবর্তী রোহিঙ্গা শিবিরে। অনেক স্বজনদের খুঁজছেন দিগ্বিদিক।

কক্সবাজারস্থ অতিরিক্ত ত্রাণ ও শরণার্থী প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামছু-দৌজা নয়ন মঙ্গলবার জানিয়েছেন, সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় উখিয়ার বালুখালী ৮-ডব্লিউ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। পরে আগুন ক্যাম্পটির লাগোয়া ৮-এইচ, ৯ ও ১০ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ছড়িয়ে পড়ে। তবে আগুনের কারণ এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সামছু-দৌজা বলেন, সোমবার বিকেলে উখিয়ার বালুখালীর ৮-ডব্লিউ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। বাতাসের গতিবেগ বেশি হওয়ায় আগুন দ্রুত পার্শ্ববতী ক্যাম্পগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ক্যাম্পটির লাগোয়া আরো তিনটি ক্যাম্পে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকাণ্ডে অন্তত সহস্রাধিক বসত ঘর সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। আগুন লাগার সাথে সাথে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক কর্মী ও স্থানীয়রা মিলে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরাও আগুন নিয়ন্ত্রণ যোগ দেন।

ফায়ার সার্ভিসের কক্সবাজার জোনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. শাহাদাত হোসেন জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, বিমানবাহিনী, বিজিবি ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা কাজ করে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এ পর্যন্ত সহস্রাধিক বসতঘর পুড়ে গেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট। কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী ৯ ও ৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে লাগা আগুন এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি।

রোহিঙ্গা নেতা মো. রফিক বলেন, বিকেলে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এসময় স্থানীয়ভাবে আগুন নেভানোর চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি খবর দেওয়া হয় ফায়ার সার্ভিসকে। পরে ফায়ার সার্ভিসের টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে।

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজাম উদ্দিন আহমেদ জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনীর একটি টিম কাজ করছে। লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সড়কের উপর ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গা ও স্থানীয়রা অপেক্ষা করার কারণে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে।


আরও খবর



হরতালে মাদারীপুরে গণপরিবহন চলাচল স্বাভাবিক

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | ১০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিবিরোধী বিক্ষোভে সংর্ঘষে হতাহতের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলামের ডাকা রোববারের সকাল-সন্ধ্যা হরতালে মাদারীপুরে গণপরিবহন চললেও অন্য দিনের চেয়ে কম যাত্রীরা চলাচল করছে। তবে হরতালের সমর্থনে কোন ধরণের পিকেটিং দেখা যায়নি। কোনরকম ঢিলেঢালাভাবে চলছে হরতাল।

সকাল থেকেই শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে অন্যদিনের মতো অভ্যন্তরীণ রুটে সব ধরণের যাত্রীবাহি পরিবহন ছেড়ে যায়। দূরপাল্লার পরিবহনও ছেড়ে যাচ্ছে। তবে অন্যদিনের চেয়ে কিছুটা যাত্রী কম দেখা যাচ্ছে। ইঞ্জিত চালিক রিক্সা, অটোরিক্সা, ইজিবাইকেও যাত্রী সংখ্যা কিছুটা কম। তবে হরকালের সমর্থনে কোন ধরণের পিকেটিং করেনি হেফাজতের কর্মীরা। তবে মাদারীপুর-শরীফতপুর আঞ্চলিক সড়ক, ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে পাঞ্জাবি-টুপি পরিহিত অনেককে দাড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। এদিকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গুরুত্বপূর্ণ সড়ক-সহাসড়ক ও স্থানে টহল দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান হাওলাদার বলেন, অন্যদিনের মতো আমাদের সব ধরণের পরিবহন চলছে। হরতালের কোন প্রভাব পরিবহনে পড়েনি।

পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল জানান, সিভিল সার্জন অফিস, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, জেলা পরিষদসহ শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ মোতায়ন রাখা আছে। এছাড়া তিনটি স্টাইকিং ফোর্স করে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে রাউন্ড দেয়া হচ্ছে। জেলা পুলিশ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে সোচ্চার আছে। যে কোন ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সক্ষম।

নিউজ ট্যাগ: হরতাল

আরও খবর



করোনায় দেশে সর্বোচ্চ মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ১০৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সর্বাত্মক লকডাউনর পঞ্চম দিন রোববার (১৮ এপ্রিল) দেশে করোনায় সর্বোচ্চ ১০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০ হাজার ৩৮৫ জনে। এর আগে শনিবার (১৭ এপ্রিল) একদিনে সর্বোচ্চ ১০১ জনের মৃত্যু হয়।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩ হাজার ৬৯৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এতে দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ১৮ হাজার ৯৫০ জনে।

করোনাভাইরাস নিয়ে রোববার (১৮ এপ্রিল) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, রোববার (১৮ এপ্রিল) সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে মারা গেছেন ১১ হাজার ৮০৬ জন এবং নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ লাখ ৮৯ হাজার ১১৩ জন। এ নিয়ে বিশ্বে মোট করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩০ লাখ ২৩ হাজার ৮১৩ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ কোটি ১৩ লাখ ৫৩৮ জন। এ ছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১১ কোটি ৯৯ লাখ ১৪ হাজার ৭৮৭ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ২৩ লাখ ৭২ হাজার ১১৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৮০ হাজার ৭৫৬ জনের।

আক্রান্তে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন এক কোটি ৪৭ লাখ ৮২ হাজার ৪৬১ জন এবং মারা গেছেন এক লাখ ৭৭ হাজার ১৬৮ জন।

আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনায় এক কোটি ৩৯ লাখ ১৩৪ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৭১ হাজার ৮৮৯ জনের।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২ লাখ ৬০ হাজার ১৮২ জন। ভাইরাসটিতে মারা গেছেন এক লাখ ৫৯৩ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে রাশিয়া রয়েছে পঞ্চম স্থানে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪৬ লাখ ৯৩ হাজার ৪৬৯ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন এক লাখ ৫ হাজার ১৯৩ জন।

এদিকে আক্রান্তের তালিকায় যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ, তুরস্ক সপ্তম, ইতালি অষ্টম, স্পেন নবম এবং জার্মানি দশম স্থানে রয়েছে। এই তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩তম।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।


আরও খবর



রাশিফল: আজকের দিনটি কেমন যাবে?

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | ৯৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পুরনো জ্যোতিষশাস্ত্রের এমন একটি ধরন, যার মাধ্যমে বিভিন্ন সময়কাল নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। যেমন দৈনিক রাশিফল প্রতিদিনের ঘটনার ভবিষ্যকথন করে, তেমন সাপ্তাহিক, মাসিক তথা বার্ষিক রাশিফল যথাক্রমে সপ্তাহ, মাস এবং বছরের ভবিষ্যদ্বাণী করে। বৈদিক জ্যোতিষে ১২টি রাশি- মেষ, বৃষ, মিথুন, কর্কট, সিংহ, কন্যা, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর, কুম্ভ ও মীন-এর ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। একই রকমভাবে ২৩টি নক্ষত্রেরও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়ে থাকে।

মেষ: জনসংযোগ ও প্রচারমূলক কাজে অগ্রগতি। কোনো ইতিবাচক সংবাদে উত্ফুল্ল হবেন। অন্যের ওপর আবেগপ্রসূতভাবে নির্ভর করবেন না। জীবন সম্পর্কে আশাবাদী দৃষ্টিভঙ্গি অব্যাহত রাখুন।

বৃষ: বেকারদের কাজের যোগাযোগ আসতে পারে। ভুল তথ্যের কারণে বিভ্রান্ত হতে পারেন। সিদ্ধান্তে স্থির থাকতে পারবেন না। সঠিক প্রচেষ্টায় পরিবর্তন সম্ভব। মনকে প্রফুল্ল রাখুন।

মিথুন: আকস্মিক প্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে। কর্মসূত্রে উন্নতির যোগ। প্রেমের বাধা মিটবে। প্রতিকূল পরিস্থিতি হঠাৎ পরিবর্তনের ইঙ্গিত রয়েছে। আর্থিক ব্যাপারে সচেতন থাকুন।

কর্কট: জমি ও আবাসনসংক্রান্ত আলোচনায় অগ্রগতি। আর্থিক অবস্থা গতানুগতিক। কোনো কিছু নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগতে পারেন। দাম্পত্য জীবন শুভ। সময়ের সঠিক ব্যবহার করুন।

সিংহ: কর্মক্ষেত্রে যোগাযোগ বৃদ্ধি ও অর্থোন্নতির ক্ষেত্রে অনুকূল দিন। অযাচিত কিছু অর্থ হাতে আসতে পারে। আত্মীয়ের ব্যাপারে দুশ্চিন্তা বাড়বে। স্বাস্থ্য রক্ষায় মনোযোগ দিন। ভ্রমণ শুভ।

কন্যা: কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব বাড়বে। আর্থিক অবস্থার উন্নতি। ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় অন্যের সহযোগিতা পাবেন। ব্যবসায় জটিলতা কাটবে। নতুন অভিজ্ঞতা দূর ভবিষ্যতে পুরস্কৃত করবে।

তুলা: বিশেষ প্রচেষ্টায় সাফল্যের যোগ। নিজের ওপর আস্থা বাড়বে। আয় কমবেশি বাড়বে। কাজে বাধা থাকলেও দীর্ঘস্থায়ী হবে না। নতুন পরিকল্পনার অগ্রগতি হবে।

বৃশ্চিক: কাজের চাপ থাকবে। কোনো কিছু নিয়ে অনিশ্চয়তায় থাকতে পারেন। ব্যয় বাড়বে। কর্মপরিবেশ মাঝেমধ্যে প্রতিকূল হতে পারে। সময়ের সঠিক ব্যবহার করুন। সুস্থ থাকুন।

ধনু: কোনো আশা পূরণ হতে পারে। আয়ের নতুন কোনো উৎস খুঁজে পাবেন। বন্ধুর সহযোগিতার আশ্বাস পাবেন। পুরনো সমস্যা কিছুটা মিটবে। শরীরের যত্ন নেবেন। ভালো থাকবেন।

মকর: কোনো লাভজনক কাজের সুযোগ আসতে পারে। কর্মক্ষেত্রে সম্মান বৃদ্ধি। প্রেমে হতাশা, নতুন ধ্যান-ধারণা জন্ম নেবে। পাওনা আদায়ে অগ্রগতি। সুযোগের সদ্ব্যবহার করুন।

কুম্ভ: কোনো প্রচেষ্টার ফল পেতে পারেন। নতুন কিছু করার সুযোগ আসবে। কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব বৃদ্ধি। ব্যবসায়ীদের বাড়তি আয়ের সম্ভাবনা। গঠনমূলক চিন্তা করুন, ভালো থাকুন।

মীন: সামাজিক যোগাযোগ বাড়বে। কোনো সুযোগ হাতছাড়া হতে পারে। প্রত্যাশিত অর্থাগমে বাধা। স্বার্থের পরিপন্থীতে কারো অনুরোধ রক্ষা। মতবিরোধ আছে এমন মানুষ এড়িয়ে চলুন।


আরও খবর