আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

কালবৈশাখীর আঘাতে ৫ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | ২১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ ও পলাশবাড়ী উপজেলায় কালবৈশাখী ঝড়ে ২ নারীসহ ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার (৪ এপ্রিল) বেলা ৩ টার দিকে গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন উপজেলায় হঠাৎ শুরু হওয়া ঝড়ে ঘরবাড়ি-গাছপালা ভেঙে পড়লে তারা নিহত হন। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক আবদুল মতিন।

নিহত হলেন, পলাশবাড়ী উপজেলার বেতকাপা ইউনিয়নের মোস্তাফুর গ্রামের গোফফার রহমান এবং ডাকেরপাড়া গ্রামের জাহানারা বেগম। আর সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের দোয়ারা গ্রামের ছোলায়মান মিয়ার স্ত্রী ময়না বেগম (৪০)। অন্য দুই নিহত ব্যক্তির নাম জানা যায়নি।

ঝড়ে বিভিন্ন সড়কে ভেঙে পড়া গাছ অপসারণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ করছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানাতে পারেননি তারা।

নিউজ ট্যাগ: কালবৈশাখী ঝড়

আরও খবর



আজ রাজধানীর যেসব এলাকায় বন্ধ থাকবে যান চলাচল

প্রকাশিত:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | ১২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে আজ সোমবার (২২ মার্চ) একাধিক ভিভিআইপি চলাচলের কারণে রাজধানীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও ভিআইপি সড়ক কিছু সময়ের জন্য বন্ধ থাকবে।

ডিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সোমবার একাধিক ভিভিআইপি চলাচলের কারণে বেলা ১১টা থেকে বিকেল পর্যন্ত বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও ভিআইপি সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে এবং কিছু সময়ের জন্য বন্ধ থাকবে।

জানা গেছে, সোমবার সকাল ১০টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরনে অবতরণ করবেন নেপালের রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভান্ডারী। নেপালের কোনো রাষ্ট্রপতির এটিই প্রথম বাংলাদেশ সফর। বিমানবন্দরে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তাকে অভ্যর্ত্থনা জানাবেন। পাশাপাশি তাকে গার্ড অব অনারও দেয়া হবে।

এরপর বেলা ১১টায় নেপালের রাষ্ট্রপতি সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। বেলা ১২টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে তিনি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করবেন।

এরপর জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে বিকেল ৪টা থেকে মুজিব চিরন্তন প্রতিপাদ্যে আয়োজিত ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার ষষ্ঠ দিনে বাংলার মাটি আমার মাটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থাকবেন।


আরও খবর



এ আর রহমানের চেন্নাইয়ের বাড়িটিই যেন একটি পিয়ানো

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | ১০৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাত্র চার বছর বয়সে কিবোর্ড বাজানো শিখেছিলেন সঙ্গীতের জাদুকর এ আর রহমান। তখন থেকেই সুরের জগতের প্রতি আকৃষ্ট হন তিনি। নয় বছর বয়সে বাবার মৃত্যুর পর তার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। সেই বয়সেই পরিবারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন অস্কারজয়ী এই সংগীতশিল্পী।

পরবর্তীকালে রুটস নামে একটি গানের ব্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত হন এ আর রহমান। সেখানে কিবোর্ড বাজিয়ে যা উপার্জন করতেন তা দিয়েই সংসার চালাতেন। দীর্ঘ কঠোর পরিশ্রমে নিজের স্বপ্নপূরণ করেছেন। ২০০৮ সালে স্লামডগ মিলিয়নিয়র এর সৌজন্যে অস্কার প্রাপ্তির পর ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছে যান তিনি।

চেন্নাই এবং মুম্বইয়ে একটি করে বাড়ি রয়েছে তার। তবে গানের জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশ, বিভিন্ন শহরে ছুটে বেড়ান তিনি। সবচেয়ে বেশি যাতায়াত করেন লস অ্যাঞ্জেলসে। তাই সেখানেও নিজের একটি বাড়ি কিনেছেন এই গায়ক।

কোনও গানে সুর দেওয়ার আগে প্রচণ্ড মনোযোগের প্রয়োজন হয়। এদিক থেকে চেন্নাইয়ের বাড়ির অন্দরমহল তার জন্য উপযুক্ত। এই বাড়ির মধ্যে মিউজিক স্টুডিও গড়ে তুলেছেন তিনি। এ আর রহমানের চেন্নাইয়ের বাড়িটিই যেন একটি পিয়ানো। যার সামনে আবার বসার ব্যবস্থাও রয়েছে। এছাড়া তার লস অ্যাঞ্জেলসের বাড়িতেও রয়েছে একটি স্টুডিও। 


আরও খবর



মাগুরার শালিখাতে দৃশ্যমান উন্নয়নে এলজিইডি-র ভূমিকাই শীর্ষে

প্রকাশিত:সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ | ১২২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাগুরা থেকে নওয়াব আলীঃ

মাগুরার শালিখাতে দৃশ্যমান উন্নয়নে এলজিইডি এর ভূমিকায় শীর্ষে। উন্নয়নের বেশীর ভাগ জায়গায় এলজিইডির অবদান রয়েছে। শালিখার গুরুত্বপূর্ণ প্রায় সকল সড়ক পাকাকরা হয়েছে।

মাঠ থেকে ফসল আনা, গ্রামের মানুষের প্রধান সড়কে উঠা অনেক সড়ক ইতিমধ্যে পাকা করা হয়েছে। ইমারত নির্মাণে স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদরাসা, মন্দির, জিও-এনজিওসহ নিচু থেকে বহুতল ভবন নির্মাণে অনেক ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে এলজিইডির হস্তক্ষেপ রয়েছে। ব্রীজ, কালভাট, ড্রেন, ওয়াশ ব্লক তাদের অবদান রয়েছে।

শালিখা পার্ক সকল কাজ প্রায় এলজিইডির করা। ইমার্জেন্সি সড়ক মেরামত তাদের নতুন সংযোজন।

এ ছাড়া আর এমপি নারী শ্রমিক সারা বছর সড়কের পাশে মাটি দিয়ে মেরামত করে রাখে। এ ব্যপারে শালিখা উপজেলা প্রকৌশলী(অঃদাঃ) মোঃ আব্দুল্লাহ আল কবির বলেন শালিখাতে ১৯৯ কি.মি পাকা সড়ক রয়েছে। বরইল- সিমাখালী ভায়া বুনাগাতী সড়কের প্রায় ২৪ কোটি, সিমাখালী - সিংড়া ভায়া চতুর বাড়ীয়া সড়কে প্রায় ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সংস্কারের কাজ চলছে।

পিইডিপি প্রকল্প (৪) আওতায় ১৮ টি, এনএনজিপিএস প্রকল্পের আওতায় ৭টি ও জিপিএস প্রকল্পের আওতায় ৮ টি সরকারি প্রাইমারি স্কুলের নির্মাণ কাজ চলছে। পিইডিপি (৪) প্রকল্পের আওতায় ৯১ টি সরকারি প্রাইমারি স্কুলের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ প্রক্রিয়াধীন। শরুশুনা খেওয়া ঘাটের ৯০ মিটার ব্রীজের কাজ শেষের দিকে।

সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক এলজিইডির কর্মীবাহিনী সারাক্ষণ কাজ করে যাচ্ছে।

নিউজ ট্যাগ: মাগুরা এলজিইডি

আরও খবর
মাগুরায় হত্যা মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন

মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১

শহীদ মিনার ভেঙে ফেললো দুর্বৃত্তরা

রবিবার ২১ ফেব্রুয়ারী 20২১




১৬ কোটি বার হিট মুভমেন্ট পাসের ওয়েবসাইটে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লকডাউনে ঘরের বাইরে বের হওয়ার জন্য মুভমেন্ট পাস পেতে এ সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে প্রায় ১৬ কোটি বার হিট করা হয়েছে। এর মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করতে পেরেছেন চার লাখ ৯৭৭ জন। রেজিস্ট্রেশনকারীদের মধ্য থেকে তিন লাখ ১৬ হাজার ৮০১টি পাস ইস্যু করা হয়েছে।

পুলিশ সদর দফতরের জনসংযোগ বিভাগের এআইজি মো. সোহেল রানা জানান, ১৩ এপ্রিল বেলা ১১টা থেকে ১৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ১৫ কোটি ৯৯ লাখ ২২ হাজার বার মুভমেন্ট পাসের ওয়েবসাইটে হিট করা হয়েছে। প্রতি মিনিটে ১৪ হাজার ২৬ জন ওয়েব সাইটে প্রবেশ করছেন। তবে চার লাখ ৯৭৭ জন রেজিস্ট্রেশন করতে সক্ষম হয়েছেন।

সোহেল রানা জানান, তিন লাখ ১৬ হাজার ৮০১টি পাস ইস্যু করা হয় এই সময়ে। তিন লাখ ১৬ হাজার ৭৫৪টি পাস গ্রহণ করা হয়।

যাদের পাস লাগবে না

সেসব পেশার সঙ্গে সম্পৃক্ত পেশাজীবীদের পরিচয়পত্র দেখালেই চলবে সেগুলো হচ্ছে- চিকিৎসা, ব্যাংকিং, গণমাধ্যম, শিল্প কারখানা, গার্মেন্টস ও উৎপাদন, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও জ্বালানি সেবা। টেলিফোন, ইন্টারনেট ও ডাকবিভাগের সরকারি কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও ফায়ার সার্ভিস, বন্দর সংশ্লিষ্ট কর্মচারীদেরও মুভমেন্ট পাস লাগবে না।


আরও খবর



পদ্মা সেতু প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ছে আরো দুই বছর

প্রকাশিত:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | ১২২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ (দ্বিতীয় সংশোধিত) প্রকল্পের মেয়াদ ২ বছর বাড়িয়ে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত অনুমোদন দিতে যাচ্ছে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি)। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ইতোমধ্যে চারবার পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি পেয়েছে। এবার পঞ্চমবারের মতো এই প্রকল্পের মেয়াদ বাড়তে যাচ্ছে। তবে এবার মেয়াদ বাড়লেও বাড়ছে না ব্যয়।

সোমবার (২২ মার্চ) এ বিষয়ে আইএমইডি সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী গণমাধ্যমকে বলেন, কদিনের মধ্যে মেয়াদ বাড়িয়ে দেব। আমরা মেয়াদ বাড়ানোর পক্ষে। কিন্তু কতটুকু মেয়াদ বাড়াবো, সেটা এনালাইসিস করে জানিয়ে দেব। এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয় নাই।

সূত্র জানায়, প্রকল্পটির মূলসেতু ও নদীশাসন কাজসহ অবশিষ্ট কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য ২০২২ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ১ বছর এবং দরপত্রের শর্ত অনুযায়ী রক্ষণাবেক্ষণ কাজ ও ঠিকাদারদের দেনাপাওনা মিটিয়ে দেয়ার জন্য আরো ১ বছরসহ সুপারিশ ও মতামত প্রতিপালন সাপেক্ষে প্রকল্পটির ব্যয় বৃদ্ধি ব্যতিরেকে মেয়াদ (তৃতীয়বার) ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত নির্ধারণ করা যেতে পারে বলে আইএমডি মত দিয়েছে।

আইএমডি সুপারিশ করেছে, বিভিন্ন অঙ্গভিত্তিক কাজ নির্ধারিত মেয়াদে সমাপ্ত করার লক্ষ্যে সময়াবদ্ধ কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন এবং নিয়মিত ফলোআপ সভা করে বাস্তবায়ন অগ্রগতি মূল্যায়ন করা প্রয়োজন। পুনর্বাসন কার্যক্রমের আওতায় গৃহীত আয়বর্ধকমূলক কর্মসূচির যথাযথ বাস্তবায়ন নিশ্চিত করাসহ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ব্যক্তিবর্গ যাতে কর্মসংস্থানের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হতে পারে সে লক্ষ্যে জব প্লেসমেন্টের বিষয়ে গুরুত্ব প্রদান করা যেতে পারে। প্রকল্পের কারিগরি ব্যবস্থাপনা এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনার বর্তমান কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে হবে। এসব বিষয়ের আলোকে গৃহীত ব্যবস্থার তথ্যাদি আগামী ১ মাসের মধ্যে আইএমইডিকে অবহিত করতে হবে।

২০০৭ সালের জুলাইয়ে পদ্মা সেতু প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৫ সালের জুনে। প্রথম সংশোধনী এনে প্রকল্পের মেয়াদ ২০১৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত করা হয়। দ্বিতীয় সংশোধনীতে প্রকল্পের মেয়াদ আরো ৩ বছর বাড়িয়ে করা হয় ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত।

তারপর ব্যয় বৃদ্ধি ব্যতিরেকে পদ্মা সেতুর মেয়াদ দুইবার বাড়ানো হয়েছে। প্রথমবার বাড়িয়ে করা হয় ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। দ্বিতীয়বার করা হয়, ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত। এবার ব্যয় বৃদ্ধি ব্যতিরেকে প্রকল্পের মেয়াদ আরও ২ বছর বাড়িয়ে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হচ্ছে, যা চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

পদ্মা সেতু প্রকল্পের ব্যয়ও বৃদ্ধি পেয়েছে তিনবার। প্রকল্পটির মূল ব্যয় ছিল ১০ লাখ ১৬ হাজার ১৭৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা। প্রথম সংশোধনীতে ব্যয় দ্বিগুণ বাড়িয়ে করা হয় ২০ লাখ ৫০ হাজার ৭২০ কোটি ১৬ লাখ টাকা। আর তৃতীয়বার মেয়াদ বৃদ্ধি করে করা হয় ৩০ লাখ ১৯ হাজার ৩৩৮ কোটি ৭৬ লাখ টাকা।

এই প্রকল্পের প্রধান প্রধান কাজগুলো হলো ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার মূল সেতু, ১৪ কিলোমিটার নদীশাসন, ১২ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক ও সার্ভিস এরিয়া নির্মাণ এবং ২ হাজার ৬৯৩ দশমিক ২১ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণ করা।

২০২১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত ক্রমপুঞ্জিত অগ্রগতি ২৪ হাজার ৫৩২ কোটি ৪৮ লাখ টাকা, যা শতাংশের হিসাবে ৮১ দশমিক ২৫ শতাংশ। আর বাস্তব অগ্রগতি ৮৪ শতাংশ।

পদ্মা সেতুর মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে ৪ ফেব্রুয়ারি সেতু বিভাগ আবেদনে বলেছে, পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের মেয়াদ আগামী ৩০ জুন শেষ হবে। বর্তমানে এই প্রকল্পের বাস্তব কাজ ৮৩ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। অবশিষ্ট বাস্তব কাজ সমাপ্ত করতে ব্যয় বৃদ্ধি ব্যতিরেকে এবং ১ বছর ডিফেক্ট নটিফিকেশন পিরিয়ডসহ ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত মেয়াদ বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। এ অবস্থায় পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের পরিচালকের প্রস্তাব অনুযায়ী ব্যয় বৃদ্ধি ব্যতিরেকে প্রকল্পের মেয়াদ ২০২৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত বৃদ্ধির প্রস্তাবটি পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রেরণ করা হলো।


আরও খবর