আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

কাশিমপুর কারাগারের জেল সুপার ও জেলার প্রত্যাহার

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ জানুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬৬৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বন্দি হলমার্ক কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত জিএম তুষার আহমেদকে কারাগারে নারী সঙ্গীর ব্যবস্থা করে দেয়ার অভিযোগে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার পার্ট-১ এর সিনিয়র জেল সুপার রত্না রায় ও জেলার নুর মোহাম্মদ মৃধাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ নিয়ে এ ঘটনায় পাঁচজনকে প্রত্যাহার করা হলো।

রোববার সাকলে তাদের প্রত্যাহার করা হয়। তাদের কারা অধিদফতরে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জানান কারা অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক কর্নেল আবরার হোসেন।

তিনি জানান, পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত কাশিমপুর কারাগার পার্ট-১ এর সিনিয়র জেল সুপার রত্না রায় ও জেলার নুর মোহাম্মদ মৃধাকে কারা অধিদফতরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার সহকারী কারা মহাপরিদর্শক (প্রশাসন) মাইন উদ্দিন ভূইয়া তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়। তারা হলেন- কাশিমপুর কারাগার পার্ট-১ এর ডেপুটি জেলার গোলাম সাকলাইন, সার্জেন্ট ইন্সট্রাক্টর মো. আব্দুল বারী ও সহকারী প্রধান কারারক্ষী মো. খলিলুর রহমান।

তাদের কাশিমপুর কারাগার পার্ট-১ থেকে প্রত্যাহার করে কারা অধিদপ্তরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দেশের আর্থিক খাতের অন্যতম কেলেঙ্কারি হলমার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মাহমুদের ভায়রা ও হলমার্কের মহাব্যবস্থাপক তুষার আহমদকে কারা কর্মকর্তাদের কক্ষে নারীসঙ্গের ব্যবস্থা করে দেয়ার অভিযোগ উঠে।

এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক আবরার হোসেনকে প্রধান করে উপসচিব (সুরক্ষা বিভাগ) আবু সাঈদ মোল্লাহ ও ডিআইজি (ময়মনসিংহ বিভাগ) জাহাঙ্গীর কবিরকে সদস্য করে একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।

এছাড়া একই ঘটনায় গত ১২ জানুয়ারি গাজীপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিএম) আবুল কালামকে প্রধান করে গাজীপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উম্মে হাবিবা ফারজানা ও ওয়াসিউজ্জামান চৌধুরীকে নিয়ে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

কারাগারের সিসি ফুটেজে দেখা গেছে, গত ৬ জানুয়ারি কারাগারে প্রবেশের মাঝে কর্মকর্তাদের অফিস এলাকায় কালো রংয়ের জামাকাপড় পরে স্বাচ্ছন্দ্যে ঘোরাফেরা করছেন হলমার্ক কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত হলমার্কের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) তুষার আহমেদ। তিনি আসার কিছু সময় পর বাইরে থেকে বেগুনি রংয়ের সালোয়ার কামিজ পরা এক নারী সেখানে প্রবেশ করেন।

কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার রত্না রায় ও ডেপুটি জেলার সাকলাইনের উপস্থিতিতেই ওই নারীকে সেখানে দেখা যায়। তাদের সহযোগিতার বিষয়টিও সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে। দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটে কারাগারের দুই যুবকের সঙ্গে ওই নারী কারাগারের কর্মকর্তাদের কক্ষ এলাকায় প্রবেশ করে।

তাকে সেখানে রিসিভ করেন খোদ ডেপুটি জেলার সাকলায়েন। ওই নারী সেখানে প্রবেশ করার পর অফিস থেকে বেরিয়ে যান ডেপুটি জেলার সাকলায়েন। প্রায় ১০ মিনিট পর কারাগারে বন্দি হলমার্কের জিএম তুষার আহমদকে নিয়ে আসেন।

গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিএম) আবুল কালাম বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে।

Share

আরও খবর



মুক্তিযোদ্ধার খসড়া তালিকা প্রকাশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | ৬৮৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সারা দেশে ১ লাখ ৮০ হাজার মুক্তিযোদ্ধার খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। খসড়া তালিকায় কারও নাম নিয়ে আপত্তি থাকলে তা যাচাই-বাছাই শেষে চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করবে মন্ত্রণালয়টি।

মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এবারের তালিকায় যেন ভুল না হয়, সেজন্য আগেভাগেই যাচাই-বাছাইয়ের জন্য অনলাইনে মুক্তিযোদ্ধার খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এখানে কোনো বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম ভারতীয় তালিকা বা লাল মুক্তিবার্তা বা মন্ত্রণালয়ের স্বীকৃত ৩৩ ধরনের প্রমাণে অন্তর্ভুক্ত থাকলে তিনি এই যাচাই-বাছাইয়ের আওতার বাইরে থাকবেন। তবে নতুন করে যাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তারাই মূলত যাচাই-বাছাইয়ের মধ্যে থাকবেন।

এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এর আগে বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের খসড়া তালিকা আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি এবং চূড়ান্ত তালিকা ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে প্রকাশ করা হবে। অনলাইনে ১ লাখ ৪০ হাজার মুক্তিযোদ্ধার তালিকাভুক্তি শেষে উপজেলা পর্যায়ে যাচাই-বাছাইয়ের প্রক্রিয়া চলছে। এবার শহীদ, যুদ্ধাহত, খেতাবপ্রাপ্ত, বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধাসহ আরও ১৫ হাজারের মতো বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। প্রকৃত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রকাশের অংশ হিসেবে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) অনুমোদন ছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রকাশিত বেসামরিক গেজেট যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

Share

আরও খবর



নবজাতকের পা ধরে টেনে ছিড়ে আনল আয়া, মাথা মায়ের পেটে

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬২জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যশোর থেকে ইয়ানূর রহমান

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে সন্তান প্রসবের সময় নবজাতকের পা ধরে টেনে ছিড়ে এনেছেন এক মোমেনা নামে এক আয়া। এসময় শিশুর মাথা থেকে যায় মায়ের পেটের মধ্যে। শনিবার রাতে আন্না (২৫) নামে এক গৃহবধূর সন্তান প্রসবের সময় এ ঘটনাটি ঘটে।

স্বজনদের অভিযোগ, সন্তান প্রসবের সময় সেখানে দায়িত্বরত সেবিকা ও চিকিৎসক কেউ উপস্থিত ছিলেন না। ঘটনার পর ওই আয়া ওয়ার্ড থেকে পালিয়ে যান। কর্তৃপক্ষ বলছেন, গর্ভের নবজাতক মৃত অবস্থায় ছিলো।

যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানার গাজীপুর গ্রামের ইয়াকুব আলীর স্ত্রী আন্না বেগমকে শুক্রবার রাত আড়াইটার দিকে প্রসব কালিন ব্যাথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার সকালে ওয়ার্ড ডা. তানজিলা আখতার একবার রোগীকে দেখে আল্ট্রাসনো করতে বলেন। আল্ট্রাসনো রিপোর্টে ২০ সপ্তাহের বাচ্চার উপস্থিতি মেলে। তার ওজন ছিলো ৩৩৯ গ্রাম। চিকিৎসকের পরামর্শে জরায়ুর মুখ খোলার ওষুধ দেয়া হয়। যাতে করে মৃত বাচ্চাটি নরমালে প্রসব হয়। শনিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে আন্নার গর্ভে থাকা ছেলের দুই পা বেরিয়ে আসলে ওই ওয়ার্ডে দায়িত্বরত আয়া মোমেনা রোগী আন্নাকে ওটিতে নিয়ে যান। চিকিৎসক সেবিকার অনুপস্থিতিতে আয়া মোমেনা নবজাতকের  দুই পা ধরে টানাটানি করার সময় গলা থেকে ছিড়ে চলে আসে। বাকী অংশ অর্থাৎ মাথা গৃহবধূর পেটের মধ্যে থেকে যায়। এরপর রোগীকে ফেলে ভয়ে তিনি পালিয়ে যান। রোগীর চিৎকারে স্বজনরা গিয়ে এই অবস্থা দেখে চেচামেচি শুরু করেন। তখন সেবিকারা গিয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য জানান। আয়ার কান্ডে বাক শক্তি হারিয়ে ফেলেন আন্না ও তার পরিবারের লোকজন।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ আহমেদ জানান, আয়ার বাড়াবাড়িতে এমনটা হয়েছে। চিকিৎসক সেবিকার অনুপস্থিতিতে তিনি এই কাজ করতে পারেন না। তিনি আরো জানান, গৃহবধূর পেটে নবজাতকটি আগেই মারা গিয়েছিলো। বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজ ট্যাগ: যশোর নবজাতক
Share

আরও খবর
গুলি করে ইউপি সদস্যকে হত্যা

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১




টাঙ্গাইলে রেল লাইনে ফাটল

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮৭জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টাঙ্গাইলের কালিহাতীর মসিন্দা এলাকায় রেল লাইনে ফাটল দেখা দিয়েছে। এতে করে রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭টা থেকে সাড়ে ৮টা পর্যন্ত দেড় ঘণ্টা ওই লাইন দিয়ে ঢাকার সঙ্গে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে।

টাঙ্গাইলের সহকারী স্টেশন মাস্টার মো. শাহীন মিয়া বিষয়টি জানিয়েছেন।

মসিন্দা রেলক্রসিংয়ের গেটম্যান রুবেল রানা জানান, সকাল ৬টায় ডিউটিতে আসার পর তিনি বিষয়টি দেখতে পান। এরপর তা কর্তৃপক্ষকে অবগত করেন।

মো. শাহীন মিয়া জানান, কালিহাতীর মসিন্দা এলাকায় রেল লাইনে ৬ ইঞ্চি ফাটল দেখা দিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত রেললাইনের মেরামত কাজ চলমান থাকলেও ওই স্থান দিয়ে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেন চলাচলের নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে ১০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেন চলাচল করছে।

নিউজ ট্যাগ: টাঙ্গাইল ট্রেন
Share

আরও খবর
সালমা হলেন মির্জাপুরবাসী নগরমাতা

শনিবার ৩০ জানুয়ারী ২০২১




মুজিববর্ষে ঢাকায় আসবেন মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম মোহামেদ সলিহ ঢাকা সফর করবেন বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) ঢাকায় মালদ্বীপের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল্লা শহীদের সঙ্গে আলোচনার পর তিনি একথা বলেন।

মোমেন বলেন, আমরা অনেকগুলো বিষয়ে একমত হয়েছি। এর মধ্যে ম্যানপাওয়ার চুক্তি ও দুই দেশের ফরেন সার্ভিস একাডেমির মধ্যে সমঝোতা চুক্তি রয়েছে। বাণিজ্য বৃদ্ধি, কানেকটিভিটি, শিপিং লাইনসহ অন্যান্য সহযোগিতার বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

আব্দুল্লা শহীদ কোভিড মহামারির মধ্যে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশের কর্মীরা মালদ্বীপে অবদান রাখছে। মালদ্বীপে যেসব বাংলাদেশি অনিবন্ধিত আছে তাদের নিবন্ধিত করা এবং যারা ফেরত আসতে চায় তাদের ফেরত আনার জন্য সহযোগিতা করা হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেনের আমন্ত্রণে মালদ্বীপের পররাষ্ট্রমন্ত্রী চার দিনের সফরে সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা এসেছেন।

Share

আরও খবর



করোনায় বিশ্বে মৃতের সংখ্যা সাড়ে ২৪ লাখ ছাড়ালো

প্রকাশিত:শনিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০21 | ৮৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ১২ লাখ ৩৪ হাজার ৩৬৫ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৪ লাখ ৬২ হাজার ৭০৩ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৮ কোটি ৬১ লাখ ১১ হাজার ৪২৮ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে এই তথ্য জানা যায়।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ৭ হাজার ৭৪৬ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এই পর্যন্ত ২ কোটি ৮৬ লাখ ৩ হাজার ৮১৩ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর মৃত্যু বিবেচনায় করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হচ্ছে ব্রাজিল। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৮১ হাজার ৬৯৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৪৪ হাজার ৯৫৫ জনের। তবে মৃত্যু বিবেচনায় মেক্সিকোর অবস্থান তৃতীয়।

আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ভারত মৃত্যু বিবেচনায় আছে চতুর্থ অবস্থানে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৯ লাখ ৭৬ হাজার ৭৭৬ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৫৬ হাজার ২৪০ জনের।

Share

আরও খবর