আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

খাবারের আশায় ছেলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | ৬৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নওগাঁর নিয়ামতপুরে শুধু দুমুঠো ডাল-ভাত খেয়ে বেঁচে থাকার আশায় ছেলের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ময়েজ উদ্দীন (৮০) নামে এক অসহায় বাবা।

সোমবার ওই বৃদ্ধ তার ছেলে মুনছের আলী (৩৫) ও পুত্রবধূ সুলতানা বেগমের (৩০) বিরুদ্ধে নিয়ামতপুর থানায় এ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাঁড়ইল ইউনিয়নের দিঘীপাড়া (পশ্চিম পাহাড়) গ্রামের বাসিন্দা ময়েজ উদ্দীন বার্ধক্যজনিত কারণে বর্তমানে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। কিন্তু ছেলে ভরণপোষণ না দেওয়ায় এ বয়সে শুধু বাঁচার তাগিদে নিজেকেই নিজের খাবার রান্না করে খেতে হয়।

স্থানীয়রা জানান, ওই বৃদ্ধ বাবার প্রতি তার ছেলে খুবই উদাসীন। কোনো খোঁজখবর রাখে না তার। বৃদ্ধ বাবার সঙ্গে মাঝেমধ্যেই ছোটখাটো বিষয় নিয়ে তুমুল ঝগড়া করে ছেলে। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশও হয়েছে। তবে প্রতিকার হয়নি। অবশেষে নিরুপায় হয়ে ভরণপোষণের দাবিতে আইনের আশ্রয় প্রার্থনা করেছেন তিনি।

ভুক্তভোগী বাবা ময়েজ উদ্দীন ছেলের প্রতি আক্ষেপ করে জানান, যোগ্য কর্মক্ষম ছেলে থাকলেও না খেয়ে দিন কাটে তার। বয়সের ভারে কিছুই করতে পারেন না তিনি। সম্প্রতি তার ভরণপোষণও বন্ধ করে দিয়েছে ছেলে। পুত্রবধূর প্রতি কিছুটা ভরসা করলেও সেও তার ছেলের মতোই আচরণ শুরু করেছে এখন। যেদিন শরীর খুব খারাপ থাকে রান্না হয় না তার। উপোস থাকতে হয় সারাদিন। পাড়া-প্রতিবেশীরা খোঁজ নিয়ে কিছু দিলে পেটে যায় তার। সব মিলিয়ে অর্ধহারে-অনাহারে দিন কাটছে এখন। অসুখ-বিসুখ, চিকিৎসার কথা বলতেই দুই চোখ বেয়ে অশ্রু নামে তার।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, শুনেছি সরকার নাকি বৃদ্ধ পিতা-মাতার ভরণপোষণ নিশ্চিত করতে আইন করেছে। সেই ভরসায় শুধু দুমুঠো ডাল-ভাত খেয়ে বেঁচে থাকার আশায় ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছি।

নিউজ ট্যাগ: থানায় অভিযোগ

আরও খবর



দিল্লির আদালতে গোলাগুলি, গ্যাংস্টারসহ নিহত ৪

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের দিল্লিতে আদালতের ভেতর গোলাগুলির ঘটনায় এক গ্যাংস্টারসহ চারজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন কয়েকজন। ভারতের একাধিক সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানিয়েছে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিল্লির রোহিণী আদালতে নিয়ে আসা হয়েছিল কুখ্যাত গ্যাংস্টার জিতেন্দ্র ওরফে গোগীকে। তাকে লক্ষ্য করে আগে থেকেই সেখানে হাজির ছিল তার প্রতিদ্বন্দ্বী একটি গ্যাংয়ের সদস্যরা।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গোগীকে নিয়ে যখন আদালত চত্বরে ঢোকে পুলিশ। তখনই তার উপর হামলা চালায় দুইজন। এলোপাথাড়ি গুলির মধ্যে পড়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় গোগীর। পাল্টা পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে দুই হামলাকারী।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঘটনার ফুটেজে গোলাগুলির শব্দ শোনা যায়। পুলিশ সদস্য ও আইনজীবীদের হুড়াহুড়ি করতে দেখা গেছে।

গোলাগুলিতে নিহত চারজনের মধ্যে দুই হামলাকারীও রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তারা নিরাপত্তাকর্মীদের হাতে নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, বেশ কিছু অপরাধে জড়িত কুখ্যাত গ্যাংস্টার জিতেন্দর গোগী দিল্লির তিহার কারাগারে ছিলেন। তাকে রোহিনীর আদালতে তোলার সময় প্রতিদ্বন্দ্বী তিল্লু গ্যাংয়ের সদস্যরা সেখানে উপস্থিত হয়। হামলাকারীরা আইনজীবীর পোশাকে প্রকাশ্যে গুলি চালায়।


আরও খবর



'ই-কমার্সে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের দায় নেবে না সরকার'

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ই-কমার্সে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের দায়ভার সরকার নেবে না জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, সারা দেশে প্রায় ২০ হাজার ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর সঙ্গে অনেকেই জড়িত। গ্রাহকরা যখন ১ লাখ টাকার পণ্য অর্ধেক মূল্যে কেনার জন্য ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোতে লগ্নি করেছে তখন তারা সরকারকে কি জানিয়েছে?

তিনি বলেন, কম মূল্যে পণ্য কিনতে গিয়ে অনেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তারা কমে পণ্য কিনতে তো সরকারকে জানায়নি। গ্রাহকদের ক্ষতির দায় সরকার নেবে কেন? তবে যেসব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম দুর্নীতি রয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে সরকার কাজ করছে। অনেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া শুরু হয়েছে।

শুক্রবার বিকালে রংপুর নগরীর জাহাজ কোম্পানির মোড়ে ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড নামে একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সরকার চায় ই-কমার্স ব্যবসা ভালো করুক। এখন পর্যন্ত ১০-১২টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে।

হঠাৎ করে দেশের বাজারগুলোতে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি এ সংক্রান্ত প্রশ্ন তুললে সাংবাদিকদের বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ভারতে অনেক এলাকায় বন্যা ও বৃষ্টির কারণে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। সেই দেশে দাম বাড়ায় আমাদের দেশেও পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। ভারতে দাম কমলে এখানেও কমে আসবে। তবে বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে। এছাড়া বিশ্ব বাজারে দাম বেশি হওয়ায় দেশে এর প্রভাব পড়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ, রংপুর চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়ার রহমান সফি প্রমুখ।


আরও খবর
নাটকীয় উত্থানে ঘুরে দাঁড়াল পুঁজিবাজার

বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১

নাটকীয় উত্থানে ঘুরে দাঁড়াল পুঁজিবাজার

বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১




বাংলাদেশের টিকা সনদের স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাজ্য

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশের করোনা টিকার সনদকে স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাজ্য। দেশটির অনুমোদিত কোভিড-১৯ টিকার তালিকা ও সনদ স্বীকৃতিতে বাংলাদেশকে যুক্ত করা হয়েছে। আগামী সোমবার (১১ অক্টোবর) থেকে স্বীকৃতির এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

শুক্রবার (৮ অক্টোবর) যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশ হাইকমিশন জানিয়েছে, যুক্তরাজ্যের অনুমোদিত কোভিড-১৯ টিকার তালিকা ও সনদ স্বীকৃতিতে বাংলাদেশকে যুক্ত করা হয়েছে বলে জানায় দেশটির পরিবহন বিভাগ।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন শুক্রবার (৮ অক্টোবর) ভোররাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বার্তায় তিনি জানান, বাংলাদেশের ভ্যাকসিন সার্টিফিকেশন এখন ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক স্বীকৃত। আমাদের মিশন তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে আমাদের প্রক্রিয়া বর্ণনা করেছে এবং এখন তারা আমাদের ভ্যাকসিন সার্টিফিকেশনকে স্বীকৃতি দিয়েছে। সোমবার ভোর ৪টা থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

এই সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে উষ্ণ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রতিফলন বলে উল্লেখ করেছেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম। তিনি বলেন, এটি দুই দেশের মধ্যে ব্যবসা ও ভ্রমণের ক্ষেত্রে অবশিষ্ট বাধা দূর করার জন্য হাইকমিশনের স্থায়ী কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফল।

এর ফলে আগামী সোমবার ভোর ৪টা থেকে যারা যুক্তরাজ্য-অনুমোদিত টিকার সম্পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেছেন বা করবেন তাদের আর ১০ দিনের হোটেল বা হোম কোয়ারেন্টাইন অথবা কোভিড-১৯ প্রি-প্রস্থান পরীক্ষার প্রয়োজন পড়বে না। আর যারা যুক্তরাজ্য অনুমোদিত টিকার পূর্ণ ডোজ সম্পন্ন করেননি তাদের ১০দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে এবং একইসময়ে তাদের দ্বিতীয় ও অষ্টম দিন কোভিড-১৯ পরীক্ষা করতে হবে।


আরও খবর



সে সময় নায়িকা মানেই তাঁকে কুমারী হতে হত : মহিমা

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | ২০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সম্প্রতি মুখ খুললেন মহিমা চৌধুরী। সুভাষ ঘাইয়ের পরদেশ ছবির নায়িকা স্পষ্টভাষী। বলিউড সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাম্প্রতিক এক সাক্ষাৎকারে তাঁর দাবি, আগে ধারণা ছিল, নায়িকা মানেই কুমারী হতে হবে। কোনও পুরুষ তাঁকে ছুঁতে পারবে না। তবেই বলিউড তাঁকে নায়কের বিপরীতে অভিনয়ের সুযোগ দেবে। পুরনো বলিউড এতটাই গোঁড়া ছিল! দুই যুগ পেরিয়ে সেই বলিউডের পালেও নাকি আধুনিকতার হাওয়া! মহিমার কথায়, এখন নায়িকারা জোরালো চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পাচ্ছেন। পাশাপাশি, নানা সংস্থার প্রচার মুখও হতে পারছেন। বলিউডে প্রচুর পরিবর্তন। তিনি খুশি।

নায়িকাদের কথা প্রসঙ্গে স্বাভাবিক ভাবেই উঠে এসেছে ইন্ডাস্ট্রিতে নায়কদের অবস্থানও। ধড়কন ছবির শীতল-এর কটাক্ষ, নায়কেরা বিবাহিত কিনা, দর্শকেরা খোঁজই রাখেন না! উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন কয়ামত সে কয়ামত তক-এর কথা। প্রথম ছবিতে নায়কের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল বিবাহিত আমির খানকে! অভিনেতার অনুরাগীরা দীর্ঘদিন বিষয়টি জানতেনই না। অথচ, এক জন নায়িকা কারওর সঙ্গে ডেট করলেই তাঁর প্রতি আগ্রহ হারাত বলিউড। বিয়ে করে মা হলে কথাই নেই। টিনসেল টাউন মুখের উপরে দরজা বন্ধ করে দিত।

এখন নায়কদের প্রায় কাছাকাছি পারিশ্রমিক পান নায়িকারা। কোনও কোনও ছবিতে তাঁদের পারিশ্রমিক ছাপিয়ে যায় পুরুষ অভিনেতাদের পারিশ্রমিককে। ফলে, তাঁদের পায়ের তলার মাটি শক্ত হচ্ছে। তাঁরাও তাঁদের ইচ্ছে-অনিচ্ছের কথা জানাতে পারছেন। পাশাপাশি, নায়িকা তকমা সরেছে। ইদানিং সবাই অভিনেত্রী। মহিমার মতে, এই পদক্ষেপ অত্যন্ত ইতিবাচক। এতে কাউকে আর কোনও নির্দিষ্ট গণ্ডিতে বেঁধে দেওয়া হচ্ছে না।

 

নিউজ ট্যাগ: মহিমা চৌধুরী

আরও খবর



অষ্টমীর দিনে কুমারী দুর্গা সাহেবা খাতুন

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ১৯২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অষ্টমীর দিন ধর্মীয় ভেদাভেদ ঘুচে গেল! মৃন্ময়ী মাতৃমূর্তির সামনে চিন্ময়ী রূপে পুজো পেল পাঁচ বছরের সাহেবা খাতুন। বুধবার হুগলির চুঁচুড়ার এক আশ্রমে ছোট্ট সাহেবার কুমারী মায়ের রূপ ধূসর করে দিল সাম্প্রদায়িক বিভেদকে।

এই প্রথম নয়, চুঁচুড়ায় ঝিঙেপাড়ার সারদা রামকৃষ্ণ সেবাশ্রমে এর আগেও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের শিশুকন্যাকে কুমারী হিসাবে পুজো করা হয়েছে। সাহেবার আগে গত চার বছর ধরে কুমারীর আসনে বসেছে তারই দিদি। আশ্রমের তরফে স্বামী দুর্গাত্মানন্দ মহারাজ জানিয়েছেন, রামকৃষ্ণের মতাদর্শে চালিত এই মঠ ভেদাভেদে বিশ্বাসী নয়। তাঁর কথায়, আমরা রামকৃষ্ণের মতে পুজো করি। তাই ধর্মের বিভেদ করি না।

তিনি জানিয়েছেন, সনাতন শাস্ত্র মতে কুমারীর মধ্যে দুর্গা বসত করেন। মুনিঋষিরা সেই কুমারীর মধ্যে প্রকৃতি হিসাবে আরাধনা করতেন। প্রকৃতি অর্থাৎ নারী। সেই কুমারীর মধ্যেই মা দুর্গার আবির্ভাব হয়, বিশ্বাস অনেকের। মহারাজের কথায়, অষ্টমী-নবমীর সন্ধিক্ষণে মহিষাসুর বিজয়ের পর দেবতারা মা দুর্গার বন্দনা করেছিলেন।

দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের আশ্রমে কুমারীদের সেই মা দুর্গার কল্পনাতেই পুজো করা হয়। আমরা শ্রীরামকৃষ্ণের তত্ত্বের অনুসারী। ফলে কোনও ধর্মীয় ভেদাভেদ মেনে চলি না। আমাদের মঠে হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে কাজ করা হয়। এই কুমারী আজ আমাদের কাছে মা দুর্গা। অর্থাৎ মৃন্ময়ী প্রতিমার চিন্ময়ী রূপ।

নিউজ ট্যাগ: কুমারী দুর্গা

আরও খবর