আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

করোনা নেগেটিভ সাকিব, খেলতে পারেন প্রথম টেস্ট

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরে গত ১০ মে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এজন্য শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে তার খেলা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়। তবে স্বস্তির খবর হচ্ছে, করোনা নেগেটিভ এসেছে সাকিবের। এজন্য আগামী ১৫ মে শুরু হতে যাওয়া চট্টগ্রাম টেস্টে পাওয়া যাবে তাকে।

নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন বলেন, সাকিবের গতকাল (বৃহস্পতিবার) কোভিড টেস্ট হয়েছে। নেগেটিভ এসেছে। এখন মেডিকেল প্রটোকল অনুযায়ী যদি সম্ভব হয়, তাহলে প্রথম টেস্টে খেলবে সে।’

দুই ম্যাচের একটি টেস্ট সিরিজ খেলতে গত ৮ মে বাংলাদেশে এসেছে শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দল। আগামী ১৫ মে হবে সিরিজের প্রথম ম্যাচ, দ্বিতীয় ও শেষটি শুরু হবে আগামী ২৩ মে। এই সিরিজের প্রথম ম্যাচের জন্য গত ৮ মে থেকে চট্টগ্রামে অনুশীলন শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। তবে ছুটিতে থাকায় সাকিবের দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার কথা ছিল ১১ মে।

ছুটি কাটিয়ে সাকিব দেশে ফেরেন গত ১০ মে। প্রটোকল অনুযায়ী দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার আগে তার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়। সেই পরীক্ষায় ফল পজিটিভি আসে এই বাঁহাতি অলরাউন্ডারের। এতে চট্টগ্রাম টেস্টে তার খেলা অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে যায়। কিন্তু গতকাল অর্থাৎ ১২ মে আবার পরীক্ষা করা হলে সেই পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে।

বোর্ডের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী শারীরিকভাবে সুস্থ থাকলে ১৫ মে প্রথম টেস্টেই পাওয়া যাবে সাকিব আল হাসানকে।


আরও খবর



রাশিয়ার হুমকি উপেক্ষা করে নেটোতে ফিনল্যান্ড, সুইডেন

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ১৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাশিয়ার হুমকি উপেক্ষা করে নেটোতে যোগ দিল ইউরোপের দুই দেশ ফিনল্যান্ড এবং সুইডেন। নেটো প্রধান জেন্স স্টোল্টেনবার্গের হাতে বুধবার আবেদনপত্র তুলে দেন দুই দেশের রাষ্ট্রদূত। এই সিদ্ধান্তকে ঐতিহাসিক পদক্ষেপ বলে বর্ণনা করেন নেটো প্রধান।

তবে নেটো সদস্য তুরস্ক এই যোগদানের বিরোধিতা করেছে। তাদের অভিযোগ প্রতিবেশী এই দুই দেশ তুরস্কের বিদ্রোহী গোষ্ঠীকে আশ্রয় দিচ্ছে। যদিও নেটো প্রধান বলেছেন, সদস্য দেশগুলির নিরাপত্তার স্বার্থে আমাদের এক সঙ্গে কাজ করতে হবে এবং এই কাজ করতে গিয়ে অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে। তবে সেগুলিও সমাধান করতে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

নেটোর বহর বাড়ার আত্মবিশ্বাসী স্টোল্টেনবার্গ জানিয়েছেন, নেটোকে আরও মজবুত করতে সব সদস্য দেশই সহমত পোষণ করেছে। তবে তুরস্কের আপত্তির বিষয়টি নিয়ে সদস্য দেশগুলি আশাপ্রকাশ করেছে যে, খুব দ্রুত এই সমস্যাও কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে।

ইউক্রেনের পর পরই যখন ফিনল্যান্ড এবং সুইডেন নেটোতে যোগদানের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছিল, মস্কো হুমকি দিয়েছিল এর ফল ভুগতে হবে। ইউক্রেনের মতো পরিস্থিতি হতে পারে বলেও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন জানিয়ে দিয়েছিলেন, রাশিয়ার হুমকিতে তাঁরা ভয় পান না। এমনকি পরমাণু হুমকিতেও নয়।

গত ৯ মে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন হুমকি দিয়েছিলেন, সদস্য বাড়ানোর কাজ বন্ধ করুক নেটো। এমনকি হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, এই দুই দেশ যদি নেটোতে যোগ দেয়, তা হলে সামরিক এবং প্রযুক্তিগত দিক থেকে উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে। তার মধ্যেই ফিনল্যান্ড এবং সুইডেনের আকাশসীমায় রুশ সামরিক বিমান উড়তে দেখা যায়। তার পরই জল্পনা শুরু হয়, তা হলে কি এ বার ফিনল্যান্ড এবং সুইডেনেও সামরিক অভিযানেকর ছক কষছে রাশিয়া।


আরও খবর



ইলিয়াস আলীর গুম নিয়ে নেত্র নিউজের তথ্য ভিত্তিহীন: র‌্যাব

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২১ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২১ এপ্রিল ২০২২ | ৪৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সুইডেন ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম নেত্র নিউজে খবর প্রকাশিত হয়, ইলিয়াস আলীর গুমের সঙ্গে র‌্যাবের কর্মকর্তারা জড়িত’—এই খবর ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) রাজধানীর কাওরান বাজার মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ দাবি করেন।

র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, নেত্র নিউজে যেভাবে তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে, র‌্যাব মনে করে, এটি সম্পূর্ণভাবে ভিত্তিহীন। আমরা বলবো, ইলিয়াস আলীকে যখন থেকে পাওয়া যাচ্ছিল না, তার স্ত্রী আমাদের কাছে এসেছিলেন, তাকে আমরা সর্বোচ্চ আইনি সহায়তা দিয়েছি। তিনি যখন যে সন্দেহ পোষণ করেছেন, যখনই কোনও তথ্য দিয়েছেন; আমরা অভিযান পরিচালনা করেছি। আমরা তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। এখনও উনার স্ত্রীকে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছি।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, নেত্র নিউজে যে তথ্য দেওয়া হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। এখানে তারা যেভাবে ডকুমেন্টেশন দেখিয়েছে, বিষয়টি সে রকম নয়। আমাদের যারাই তথ্য দিয়েছে, সেই অনুযায়ী আমরা অভিযান পরিচালনা করেছি। কারণ এটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি দায়িত্ব। আমরাও চেষ্টা করছি, ইলিয়াস আলীকে খুঁজে বের করার।

নিউজ ট্যাগ: ইলিয়াস আলী

আরও খবর



কৃষ্ণসাগর উপকূলে মৃত ডলফিনের ঝাঁক, নেপথ্যে ইউক্রেন?

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই কৃষ্ণসাগর উপকূলে ভেসে আসছে মৃত ডলফিন। প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে বিজ্ঞানীরা ভেবেছিলেন, রুশ-ইউক্রেন নৌবাহিনীর সংঘাতে সমুদ্রের পানিতে ধারাবাহিক বিস্ফোরণ ও দূষণের কারণেই তারা মারা যাচ্ছে। কিন্তু ডলফিনের গণমৃত্যুর কারণ হিসেবে সামনে আসছে অন্য তত্ত্বও। কৃষ্ণসাগরে যেসব রুশ নৌঘাঁটি রয়েছে সেগুলোর পাহারাদার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডলফিনগুলোকে ইউক্রেন বাহিনী পরিকল্পিত ভাবে খুন করছে কিনা, সে প্রশ্ন উঠেছে।

এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহে ইউক্রেন সেনার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় কৃষ্ণসাগরে মোতায়েন রুশ রণতরী মস্কোভার সলিল সমাধি ঘটেছিল। তারপরেই ক্রাইমিয়ার সেভাস্তিপোলসহ কৃষ্ণসাগরের কয়েকটি রুশ নৌঘাঁটির নিরাপত্তায় বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডলফিন বাহিনী নিয়োগ করেছিল মস্কো। গত দুসপ্তাহে সেখানকার উপকূলবর্তী এলাকায় শতাধিক ডলফিনের দেহ দেখা গিয়েছে। যদিও তাদের দেহে কোনো আঘাতের চিহ্ন মেলেনি বলে তুরস্কের একটি গবেষণা সংস্থার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন।

সামরিক কাজে অতীতেও ডলফিনের ব্যবহার করেছে রাশিয়া। ২০১৮ সালে সিরিয়ার যুদ্ধের সময় টারটাস নৌঘাঁটিতে ডলফিন বাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছিল। উপগ্রহচিত্রে সেই ছবি ধরাও পড়েছিল। বস্তুত, ষাটের দশকে সোভিয়েত জমানাতেই এই বুদ্ধিমান প্রাণীগুলোকে সামরিক কাজের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হয়েছিল। ক্রাইমিয়ার সেভাস্তিপোলেই ছিল সেই প্রশিক্ষণকেন্দ্র। শত্রুপক্ষের ডুবুরিকে চিহ্নিত করা বা সমুদ্রের নীচে বিস্ফোরক চিহ্নিত করা এবং তা উদ্ধার করে নিয়ে আসার কাজে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় ডলফিনগুলোকে। এমনকি, সমুদ্র্রের তলায় বিস্ফোরক বসানোর জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় তাদের।

২০১৪ পর্যন্ত ক্রাইমিয়া ছিল ইউক্রেনের নিয়ন্ত্রণে। ফলে ডলফিন প্রশিক্ষণকেন্দ্রের কথা কিভের অজ্ঞাত নয়। গত সপ্তাহের গোড়া থেকে স্নেক আইল্যান্ডসহ কৃষ্ণসাগরের কয়েকটি রুশ নৌঘাঁটি দখলের জন্য অভিযান শুরু করেছে ভলোদিমির জেলেনস্কির অনুগত বাহিনী। ঘটনাচক্রে তখন থেকেই বাড়াতে শুরু করেছে ডলফিনের মৃত্যুর হার।

নিউজ ট্যাগ: ডলফিন

আরও খবর



আজ বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ২৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস আজ (১৭ মে)। দিবসটিকে ঘিরে এবারের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে সঠিকভাবে রক্তচাপ মাপুন, নিয়ন্ত্রণে রাখুন এবং দীর্ঘজীবী হোন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নন-কমিউনিকেবল ডিজিজ কন্ট্রোল প্রোগ্রামের (এনসিডিসি) তথ্যমতে, অসংক্রামক রোগে বিশ্বে ৭১ শতাংশ এবং বাংলাদেশে ৬৭ শতাংশ মানুষের মৃত্যু হয়। এছাড়া দেশে প্রতি পাঁচ জনে একজন উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন। এ অবস্থায় উচ্চ রক্তচাপ প্রতিরোধে সবাইকে খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তনের পাশাপাশি সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এনসিডি কান্ট্রি প্রোফাইল ২০১৮ অনুসারে, বাংলাদেশে প্রতি বছর মোট মৃত্যুর ৬৭ শতাংশের পেছনে দায়ী নানা অসংক্রামক রোগ। দিন দিন এসব রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বাংলাদেশে বর্তমানে উচ্চ রক্তচাপ খুব সাধারণ রোগ হিসেবে দেখা দিয়েছে।

এনসিডি রিস্ক ফ্যাক্টর সার্ভে (স্টেপস ২০১৮) অনুসারে, দেশে প্রতি পাঁচ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের মধ্যে একজন (২১%) উচ্চ রক্তচাপে (সিস্টোলিক ব্লাড প্রেশার ১৪০ মিমি মার্কারি) আক্রান্ত। এর বাইরে এখনো বিপুল সংখ্যক মানুষ তাদের রক্তচাপ জানেন না। হৃদরোগ, স্ট্রোক, কিডনি রোগ, পক্ষাঘাত, অন্ধত্বসহ নানাবিধ জটিল অসুখের জন্য উচ্চ রক্তচাপ একটি মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ উপাদান।


আরও খবর



সার কারখানার পানি খেয়ে ১৩ মহিষের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | ৪৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের আনোয়ারা থানাধীন রাঙ্গাদিয়া এলাকায় চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার কোম্পানির (সিইউএফএল) বর্জ্যের বিষাক্ত পানি খেয়ে ১৩ মহিষের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

রোববার (২৪ এপ্রিল) সিইউএফএল কারখানার পশ্চিমে মাঝের চর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর আগেও গত ১৪ এপ্রিল একইভাবে আরও দুটি গরুর মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা ঘটনা তদন্ত করে ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে সিইউএফএল কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিইউএফএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জসিম উদ্দীন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার বারশত ইউনিয়নের মাঝের চরে এলাকায় সিইউএফএলের সার কারখানার পশ্চিমে খালের বিষাক্ত বর্জ্যের পানি পান করে স্থানীয় পারকি এলাকার বাসিন্দা ইব্রাহিম, ইছহাক, নূর মোহাম্মদ ও ইলিয়াসের ১৩টি মহিষ মারা যায়। মহিষগুলোর আনুমানিক মূল্য ২২ লাখ টাকা বলে দাবি করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

তাদের অভিযোগ, শনিবার রাতে সিইউএফএল কারখানা কর্তৃপক্ষ কোনো ধরনের ঘোষণা ছাড়াই বিষাক্ত বর্জ্য খালে অপসারণ করে। এতে খালের পানি বিষাক্ত হয়ে পড়ে। ওই পানি পান করে ১৩ মহিষের মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে এলাকাবাসী রোববার দুপুরে মৃত মহিষগুলো উদ্ধার করে সিইউএলএফ কারখানা গেটের সামনে নিয়ে আসেন। পরে ক্ষতিগ্রস্তরা সার কারখানায় এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।

মহিষের মালিক মো. ইলিয়াছ সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, সিইউএফএল কর্তৃপক্ষ স্থানীয়দের কোনো ধরনের অবহিত না করে বিষাক্ত বর্জ্য খালে ছেড়ে দেয়। ওই পানি খেয়ে আমাদের গরু মহিষ মারা যাচ্ছে। বার বার এধরনের ঘটনা ঘটলেও আমরা ঠিকমত ক্ষতিপূরণ পাই না। তিনি আরও বলেন, প্রতি বছর কয়েক দফা এ ধরনের ঘটনা ঘটলেও কারখানা কর্তৃপক্ষকে টনক নড়ে না।

সিইউএফএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আখতারুজ্জামান স্থানীয়দের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বর্তমানে সিইউএফএল কারখানায় উৎপাদন চলমান আছে। আর কারখানা উৎপাদন চলাকালীন কোনো ধরনের বর্জ্য অপসারণ করা হয় না। গত ১৪ এপ্রিল যে দুটি গরু মারা গেছে সে ঘটনায় আমরা পানির নমুনা পরীক্ষা করে দেখেছি, এসব বর্জ্য মিশ্রিত পানি সিইউএফএল সার কারখানার ছিল না। এসব বর্জ্য ডিএপি সার কারখানার।

নিউজ ট্যাগ: মহিষের মৃত্যু

আরও খবর