আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

কুমিল্লায় মাছ শিকারে গিয়ে প্রাণ গেল ৩ জনের

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | ৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলায় গোমতি নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। রবিবার সকাল ৯টায় কুমিল্লা-বুড়িচং-ব্রাক্ষণপাড়া সড়কের পাশে কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার আড়াইওড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন সদর উপজেলার চাঁনপুর এলাকার মৃত হুরুন মিয়ার ছেলে আবদুল কাদের সাওদাগর (৭৫), মৃত মুকুল হোসেনের ছেলে মতি মিয়া (৭৩) এবং ফুল মিয়ার ছেলে হেলাল মিয়া (৫৫)।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন মান্নান মিয়া (৭০), ওয়াদুদ মিয়া (৭০) ও রুক মিয়া (৭০)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ৯টায় আড়াইওড়া এলাকায় বেপরোয়া গতির একটি ট্রাক বিপরীত থেকে আসা একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাকে চাপা দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলেই তিনজন মারা যায়।

আহতদের উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



মাওবাদী হামলায় ২২ ভারতীয় জওয়ান নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের মধ্যাঞ্চলীয় রাজ্যে মাওবাদীদের হামলায় ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর অন্তত ২২ সদস্য নিহত হয়েছে। শনিবার ছত্তিশগড়ে মাওবাদীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার সময় এই হামলার ঘটনা ঘটে। রবিবার ভারতীয় কর্মকর্তারা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এখবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, এই বছরে এখন পর্যন্ত এটিই মাওবাদীদের সবচেয়ে বড় হামলার ঘটনা।

সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের এলিট কোবরা ইউনিট, ডিস্ট্রিক্ট রিজার্ভ গার্ড ও স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের সমন্বয়ে গঠিত নিরাপত্তাবাহিনীকে লক্ষ্য করে হামলা চালায় মাওবাদীরা। উপজাতি অধ্যুষিত মাওবাদী দমন অভিযান পরিচালনার সময় শনিবার এই হামলা হয়।

খনিজ সম্পদে ভরপুর ছত্তিশগড়ের রাজধানী রায়পুরের এক সিনিয়র সরকারি কর্মকর্তা জানান, মাওবাদী যোদ্ধাদের হামলায় ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনীর ২২ জন জওয়ান নিহত হয়েছে।

এর আগে শনিবার মাওবাদীদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ৫ ভারতীয় জওয়ান নিহত ও ১৮ জন নিখোঁজ বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছিল। হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছিল, ছত্তিশগড় পুলিশের মহাপরিচালক ডিএম অবস্থি শনিবার পাঁচ জন নিহতের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সুকমা ও বিজাপুর জেলার সীমানায় মাওবাদীদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছিলেন নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরা। তখনই তাদের ওপর হামলা চালায় মাওবাদীরা। পাল্টা জবাব দেয় বাহিনীও। তখন উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে পাঁচ জওয়ান নিহত হয়।

রবিবার সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, হামলাস্থলে আরও ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ফলে মোট নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২জনে।

এর আগে গত মার্চে ছত্তিশগড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের বহনকারী একটি বাসে হামলা চালায় মাওবাদী বিদ্রোহীরা। ৪০ সদস্যকে বহনকারী বাসটিতে বিস্ফোরণ ঘটানো হলে অন্তত পাঁচ জন নিহত এবং আরও অন্তত ১৫ জন আহত হয়।

উল্লেখ্য, চীনা বিপ্লবের নেতা মাও সেতুং-এর অনুপ্রেরণায় চার দশকের বেশি সময় ধরে ভারত সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে আসছে মাওবাদীরা। বর্গা চাষী, দরিদ্র ও আদিবাসী সম্প্রদায়ের জন্য জমি ও কাজের দাবিতে তাদের এই সশস্ত্র লড়াই। ভারতের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার জন্য মাওবাদীদের সবচেয়ে বড় হুমকি হিসেবে ঘোষণা করেছে দিল্লি। অন্যদিকে কয়েক হাজার সশস্ত্র যোদ্ধা নিয়ে ছত্তিশগড়ের বিশাল পাহাড়ি এলাকা নিয়ন্ত্রণ করে আসছে তারা।

নিউজ ট্যাগ: ভারত নিহত

আরও খবর



রাজবাড়ীতে ট্রেন ও ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ মার্চ ২০২১ | ১২৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বিকেল সোয়া ৩টার দিকে বসন্তপুর স্টেশন বাজার সংলগ্ন কামাল মিয়ার ইটভাটার সামনে রেল লাইন পার হচ্ছিলো ইটভাটার মাটিবাহী ড্রাম ট্রাকটি। এ সময় ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে রাজশাহীগামী মধুমতি

রাজবাড়ীতে ট্রেন ও ইট ভাটার ড্রাম ট্রাকের সংঘর্ষে চালক পলাশ শেখ (৩৫) ও হেলপার মিলন হোসেন (৪০) নিহত হয়েছে। এসময় একজন পথচারী গুরুতর আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) বিকেল সোয়া ৩টার দিকে রাজবাড়ী সদর উপজেলার বসন্তপুর স্টেশন বাজার সংলগ্ন কামাল মিয়ার ইটভাটার সামনে রেল লাইনে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। দুর্ঘটনায় ট্রেনের ইঞ্জিন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় এই রেল রুটে সোয়া তিন ঘন্টা ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিলো।

নিহত ড্রাম ট্রাক চালক পলাশ শেখ খানখানাপুর ইউনিয়নের চরখানখানাপুর গ্রামের ইউসুব শেখে ছেলে এবং হেলপার মিলন হোসেন একই ইউনিয়নের সরদারপাড়া গ্রামের আলী হোসেন (দুলাল)র ছেলে। আহত বাবলু মোল্লা বসন্তপুর ইউনিয়নের বড় ভবানীপুর গ্রামের মৃত আনছের মোল্লার ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল সোয়া ৩টার দিকে বসন্তপুর স্টেশন বাজার সংলগ্ন কামাল মিয়ার ইটভাটার সামনে রেল লাইন পার হচ্ছিলো ইটভাটার মাটিবাহী ড্রাম ট্রাকটি। এ সময় ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে রাজশাহীগামী মধুমতি ট্রেনটি ওই স্থানে এলে রেল লাইনের মাঝখানে থাকা ট্রাকের সঙ্গে ট্রেনের সংঘর্ষ হয়। ট্রাকটি দুমড়ে-মুচড়ে ছিটকে এসে রেল লাইনের পাশের রাস্তা দিয়ে হেটে যাওয়া পথচারী বাবলু মোল্লার উপর এসে পড়ে।

স্থানীয়রা ট্রাকের চালক পলাশ, হেলপার মিলন ও পথচারী বাবলু মোল্লাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নেওয়ার পর পলাশ ও মিলন মারা যান। বাবলু মোল্লা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে রাজবাড়ী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ আলম জানান, দুর্ঘটনায় ট্রেনের ইঞ্জন ও সামনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রেল কর্তৃপক্ষ বাদী হয়ে ট্রাকের মালিক ও ইটভাটা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবে। মরদেহ দুটি ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে থাকায় সেখানকার থানা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। পরবর্তী আইনি কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: রাজবাড়ী

আরও খবর



কোম্পানীগঞ্জে আবারও পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণা

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ মার্চ ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আবারও পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষ।

মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) সন্ধ্যায় উপজেলা আওয়ামী লীগের কর্মসূচি ঘোষণা করেন। হঠাৎ করে বুধবার (২৪ মার্চ) সকালে একই কর্মসূচি ঘোষণা করেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

আবদুল কাদের মির্জা কাদের ঘোষিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুল ও সাধারণ সম্পাদক মো. ইউনুস স্বাক্ষরিত কর্মসূচি বলা হয়, ২৫ মার্চ সকাল ১০টায় ১৬ নম্বর স্লুইচ গেট সংলগ্ন শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও দোয়া, উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সম্প্রচার। ২৬ মার্চ সকাল থেকে প্রত্যেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ১০টায় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল এবং শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ, বিকেল ৩টায় পৌর মিলনায়তনে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

অন্যদিকে কোম্পানিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান ও সাধারণ সম্পাদক নুরন্নবী স্বাক্ষরিত কর্মসূচিতে বলা হয়েছে, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ২৫ মার্চ রাতে উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সম্প্রচার, ২৬ মার্চ সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ও শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, সকালে প্রত্যেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, বিকেল ৩টায় উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের আয়োজনে শহীদ নুরুল হক বীর উত্তম অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা পালিত হবে। সকল কর্মসূচি পালনে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে দলীয় সকল নেতাকর্মীদের অনুরোধ করা হয়েছে।

এই বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির বিষয়ে প্রশাসন অবগত আছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



মধ্যযুগীয় কায়দায় হাত-পা বেঁধে ব্যবসায়ীকে নির্যাতন (ভিডিও)

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ মার্চ ২০২১ | ১০৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

মধ্যযুগীয় কায়দায় হাত-পা বেঁধে আল-আমীন (৩১) নামে এক কাঠ ব্যবায়ীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে স্থানীয় বখাটেরা। ঘটনাটি ঘটেছে পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী থানার পত্তাশী গ্রামে। নির্যাতনের পরও খ্যান্ত হননি তারা। এ ঘটনা জানজানি হলে উপয়ন্ত না দেখে, ঘটনা ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করার জন্য ওই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটা মামলা দায়ের করে।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদর চেয়ারম্যান এর সাথে পূর্ব শত্রুতা এবং চলমান ইউপি নির্বাচনে তার বিরোধীতা করায় পরিকল্পিত ভাবে ব্যবসায়ীকে নির্যাতন করা হয়। রবিবার রাতে এ বর্বরাচিত হামলার ঘটনায় ব্যবসায়ী মামলা করার কথা জানালে ইন্দুরকানী থানা পুলিশ তা আমলে নেয়নি।

বর্তমান পুলিশ প্রহরায় হ্যান্ডকাফ পরা অবস্থায় পিরাজপুর জেলা হাসপাতাল নির্যাতিত আল আমীনর চিকিৎসা চলছে। নির্যাতিত আল আমীন ওই গ্রামর মাঃ আলী আকবার এর ছেলে।

হাসপাতাল চিকিৎসাধীন আলী আমীন জানায়, রবিবার রাত স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় মাহফিল শুনে স্থানীয় এক যুবকের সাথ বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পত্তাশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জম হোসেন হাওলাদারর সমর্থিত ১০-১২ জন যুবক তার উপর অতর্কিত হামলা করে। এরপর তাদের সাথে আরও ১৫-২০ জন যোগ দেয় । এসময় সন্ত্রাসীরা তাক মাটিতে ফেলে হাত পা পিঠমোড়া দিয়ে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। এ সময় ওই ইউনিয়ন পরিষদের স্থানীয় গ্রাম পুলিশ মাঃ রিয়াজ উপস্থিত থাকলেও, সবাই নিরব ভূমিকা পালন করে।

আল আমীনর অভিযাগ ইউপি চেয়ারম্যান মায়াজ্জম এর সমর্থক থাকলেও, বর্তমান তার সাথে দূরত্ব রয়েছে । এজন্যই তার উপর ক্ষিপ্ত এই ইউপি চেয়ারম্যান। তার নির্দেশে বর্বরাচিত নির্যাতন করা হয়। নির্যাতনর এক পর্যায় অজ্ঞান হয় পড়ে। খবর পেয়ে ইদুরকানী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয় যায়। এরপর সেখান থেকে তাকে পুলিশ প্রহরায় পিরাজপুর জলা হাসপাতাল ভর্তি করা হয়। আল-আমীন অভিযোগ করেন, মারধারর ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া এবং তাকে ফাঁসানার জন্য এ মামলা দেয়া হয়।

গ্রামপুলিশ রিয়াজ জানান, আল আমীনকে ব্যাপকভাবে মারধার করা হয় ।

এ বিষয় ইউপি চয়ারম্যান মোয়াজ্জেম জানান,আল আমীনক মারধারর খবর শুনে স্থানীয় চকিদার রিয়াজকে ঘটনাস্থেল পাঠিয়ে উদ্ধার করে। এরপর বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাব ইদুরকানী থানায় জানানা হয়। তবে এ ঘটনায় নিজেকে জড়িত থাকার কথা অম্বীকার করে বলেন, যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপার ইদুরকানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাঃ হুমায়ুন কবির জানান, একটি মেয়েকে শ্লীলতাহানির অভিযাগে আল আমীনক আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ইদুরকানী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরআগে তাকে মারধার করা হয়। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। অপরাধিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লখ্য, এর আগ গত বছরর ৪ নভম্বর একটি কর্মী সভায় ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন হাওলাদার এর সমালাচনা করায় রঞ্জন কুমার মজুমদার নাম ওয়ার্ড আওয়ামী লীগর এক সাধারণ সম্পাদকক পিটিয় পা ভেংগে দেয় তার সমর্থকরা। আসন ইউপি নির্বাচনক কেদ্র করে প্রতিদ্বন্ধীদের দমনের জন্য বিভিন্ন ভাবে নির্যাতনের অভিযাগ রয়েছে এই ইউপি চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে।


আরও খবর



নির্ধারিত সময়ে হচ্ছে না এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | ১২৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছরের জুন মাসে ২০২১ সালের এসএসসি, জুলাই-আগস্ট মাসে এইচএসসি পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও সেটি হচ্ছে না। করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খোলায় এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে হবে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ২২ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের পাঠদান কার্যক্রম পিছিয়ে যাবে। আগামী সেপ্টেম্বরে এসএসসি ও ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা আয়োজনের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যখনই খোলা হোক না কেন শিক্ষার্থীদের সশরীরে পাঠদানের পরই পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। এবার আর অটোপাসের সুযোগ নেই।

সূত্র জানায়, শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী এ বছর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস তৈরি করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। এনসিটিবির সিলেবাসয় অনুযায়ী এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ৬০ কর্ম দিবস ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ৮০ কর্ম দিবসের পাঠ পরিকল্পনা প্রস্তুত করা হয়েছে। এই সিলেবাস অনুযায়ী পরীক্ষা নেওয়া হবে।

ঈদের পর যথা সময়ে স্কুল কলেজ খোলা সম্ভব হলে সেপ্টেম্বরে এসএসসি পরীক্ষা ও ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। তবে করোনা পরিস্থিতি যদি খারাপ থাকে তাহলে সেটি পরিবর্তন হতে পারে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যখনই খোলা হোক না কেন, ক্লাস নিয়ে পরীক্ষার আয়োজন করা হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আন্ত:শিক্ষা সমন্বয় বোর্ড সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নেহাল আহমেদ সোমবার (২৯ মার্চ) বলেন, করোনা সংক্রমণ বাড়ায় সবকিছুই পিছিয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থায় চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। যেহেতু ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, সেক্ষেত্রে হয়তো দেখা যাবে সেপ্টেম্বরে এসএসসি ও ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যখনই খোলা হবে, তখন ক্লাস নিয়েই পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। ক্লাস না করিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হবে না।  অনলাইনে ক্লাস চলমান থাকলেও অনেক শিক্ষার্থী সেই ক্লাসে অংশ নিতে পারেনি। ফলে ক্লাস না করিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হবে না।

অটোপাসের সুযোগ নেই জানিয়ে প্রফেসর নেহাল আহমেদ বলেন, আমরা আর অটোপাসে যেতে চাই না। পরীক্ষার মাধ্যমেই শিক্ষার্থীদের সার্টিফিকেট দিতে চাই। এক্ষেত্রে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যখনই খোলা হবে, তখন এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ৬০ দিন আর এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ৮০ দিন ক্লাস করিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হবে। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর।  করোনা পরিস্থিতি যেভাবে খারাপের দিকে যাচ্ছে, তাতে যেকোনো সিদ্ধান্তই হতে পারে।

নিউজ ট্যাগ: এইচএসসি এসএসসি

আরও খবর