আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

কুমিল্লায় 'কোরআন উদ্ধার'কে ঘিরে উত্তেজনা : পূজামণ্ডপে হামলা

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৩৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুমিল্লায় শহরের একটি পূজামণ্ডপ থেকে পবিত্র 'কোরআন উদ্ধার'-ঘটনার পর বেশ কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সেখানকার পূজা উদযাপন কমিটির সম্পাদক নির্মল পাল।

তিনি বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছে, শহরের নানুয়ারদীঘি এলাকার একটি পূজামণ্ডপের প্রতিমায় কোরআন রাখার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর পুলিশ গিয়ে তা উদ্ধার করে এবং এরপর পরই একদল ব্যক্তি বেশ কিছু পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা চালায়।

"পূজা বানচালের জন্য পরিকল্পিতভাবে কোরআন রেখে এ ঘটনা ঘটিয়ে তারাই এখন শহরজুড়ে পূজাবিরোধী বিক্ষোভ করছে। কয়েকটি মণ্ডপে হামলার চেষ্টা হয়েছে কিন্তু পুলিশের বাধায় ভেতরে ঢুকতে না পারলেও গেইট বা সামনের স্থাপনা ভাংচুর করেছে," বলে জানিয়েছেন তিনি।

জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বিবিসি বাংলাকে বলেছেন তারা এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন। "আমরা টহল দিচ্ছি। আগে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করি। কয়টি মণ্ডপে হামলার চেষ্টা হয়েছে এ মূহুর্তে বলতে পারছি না। পরিস্থিতি ঠিক হলে আমরা বিস্তারিত জানাবো," বেলা চারটার দিকে সংবাদমাধ্যম বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যবসায়ী সংবাদমাধ্যম বিবিসি বাংলাকে বলেছেন বেলা এগারটার দিকে হঠাৎ কোরআন অবমাননা হয়েছে, এমন খবর ছড়িয়ে পড়ে শহর জুড়ে।

তিনি বলেন দশটার পর নানুয়ারদীঘির মণ্ডপে কোরআন নজরে পড়লে দ্রুত পুলিশকে জানানো হয় এবং পুলিশ তখনি এসে কোরআনটি সরিয়ে নেয়।

"কিন্তু খবরটি খুব দ্রুত ছড়ানো হয় এবং কয়েকটি মাদ্রাসার লোকজন ছাড়াও স্থানীয় অনেকে প্রতিবাদ করতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে সেখান থেকে মণ্ডপ গুলোতে হামলা করা শুরু হলে পুলিশ ব্যবস্থা নেয়"।

তিনি বলেন কয়েকটি গুলির শব্দ শোনা গেলেও সেগুলো কোথায় হয়েছে তা বোঝা যায়নি।

এদিকে ঘটনার পরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোরআন অবমাননা করা হয়েছে দাবি করে ব্যাপক প্রচার শুরু হয় এবং অনেকে প্রতিবাদ বিক্ষোভ অনেকে ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচার করেন।

প্রসঙ্গত, বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায় এখন তাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব পালন করছে।

তথ্য সূত্র: বিবিসি বাংলা


আরও খবর



১৬ বছরের হোল্ডিং ট্যাক্স বাকি বাফুফের

প্রকাশিত:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | ৪৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বকেয়া গৃহকর (হোল্ডিং ট্যাক্স) আদায়ে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) ভবনে অভিযান চালিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে বাফুফে ভবনে এ অভিযান শুরু হয়ে চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

রাজস্ব আদায়ে পরিচালিত এ অভিযানের নেতৃত্ব দেন করপোরেশনের সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মুনিরুজ্জামান।

অভিযান চালিয়েও বকেয়া আদায় করতে পারেনি ডিএসসিসি। বাফুফে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সময় নিয়েছে। এ জন্য তারা ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে লিখিত অঙ্গীকার করেছে।

বাফুফে আবেদনে বলেছে, ডিএসসিসির প্রাপ্য বকেয়া গৃহকরের মধ্যে ১০ লাখ টাকা পরিশোধ করা হবে। অভিযানের শুরু থেকে দেনদরবার করতে থাকা বাফুফে কর্তারা দক্ষিণ সিটির ভ্রাম্যমাণ আদালতের অনড় মনোভাবে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে লিখিত এই প্রতিশ্রুতি দেন।

সেখানে উপস্থিত বাফুফে কর্তারা জানান, বাফুফের ব্যয়িত সব অর্থের দস্তখতকারী (সিগনেটরি) তিনজন। এর মধ্যে একজন দস্তখতকারী ঢাকার বাইরে অবস্থান করায় এই মুহূর্তে বকেয়া পরিশোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। আমরা আগামী বৃহস্পতিবার ১০ লাখ টাকা দেবো। বাকি টাকা মেয়রের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে কিস্তি হিসেবে পরিশোধের সুযোগ চাইবো।

২০০৫-০৬ অর্থবছরের তৃতীয় কিস্তি থেকে ২০২১-২২ অর্থবছরের চতুর্থ কিস্তি পর্যন্ত বাফুফের কাছে গৃহকর বাবদ দক্ষিণ সিটির ১ কোটি ৫৩ লাখ টাকার বেশি পাওনা রয়েছে।

অভিযান প্রসঙ্গে করপোরেশনের সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মুনিরুজ্জামান বলেন, করপোরেশনের বকেয়া আদায়ের লক্ষ্যে পরিচালিত অভিযানের অংশ হিসেবে আজ আমরা বাফুফে ভবনে অভিযান পরিচালনা করেছি।

বাফুফের কাছে বিগত ১৬ বছরের গৃহকর বাবদ ১ কোটি ৫৩ লাখ ৯০৪ টাকা বকেয়া পাওনা রয়েছে। অভিযানকালে বাফুফে তাৎক্ষণিকভাবে সমুদয় বকেয়া পরিশোধ না করলেও আংশিক অর্থ এই সপ্তাহে পরিশোধ করা হবে মর্মে লিখিতভাবে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বাকি অর্থ মেয়র মহোদয়ের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে পরিশোধ করা হবে বলে অবগত করেছেন।

করপোরেশনের প্রাপ্য বকেয়া পরিশোধ করতে গত ৬ জুন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে ক্রোকের নোটিশ প্রদান করা হয় এবং গত ১৩ সেপ্টেম্বর তাগিদ পত্র দেওয়া হয়।

অভিযানকালে অন্যান্যের মধ্যে করপোরেশনের অঞ্চল-২ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা সোয়ে মেন জো, করপোরেশনের উপ-প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা শাহজাহান আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



করোনা: আরও সাড়ে চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ৮৮৩ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ২৫ হাজার ৭৮১ জন

চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ফের বেড়েছে। একইসঙ্গে আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাড়ে ৪ হাজারের বেশি মানুষ। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩ লাখ ২৩ হাজার।

সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। অন্যদিকে দৈনিক মৃত্যুতে শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। এরপরই রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-ভারত। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৩ কোটি ৬১ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪৮ লাখ ২১ হাজার।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৩৮ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে অর্ধশতাধিক। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৪৮ লাখ ২১ হাজার ৯৬২ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ২৩ হাজার ৮৬৯ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ২৩ হাজারের বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ৬১ লাখ ১৪ হাজার ১১০ জনে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ হাজার ৬১ জন এবং মারা গেছেন ৫৫৪ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণ-প্রাণহানি বেড়েছে দ্বিগুণের অধিক। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪ কোটি ৪৬ লাখ ৫৪ হাজার ২৭০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৭ লাখ ২২ হাজার ৩১ জন মারা গেছেন।

অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ৮৮৩ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ২৫ হাজার ৭৮১ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭৬ লাখ ১২ হাজার ৩১৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ১০ হাজার ৮০১ জনের।

লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৯৯ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১০ হাজার ৪২৫ জন। অপরদিকে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ১৪ লাখ ৭৮ হাজার ৫৪৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৯৮ হাজার ১৮৫ জনের।

এদিকে করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৫৪ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ৭৬২ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ৩৮ লাখ ৫১ হাজার ৫ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৪৯ হাজার ২৮৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ইরানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৩৮ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৬০৭ জন। অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মেক্সিকোতে মারা গেছেন ২১১ জন। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত উত্তর আমেরিকার এই দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৭৮ হাজার ৮০১ জনের।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর
২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত‌্যু

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

ডেঙ্গু: আরও ১২৩ জন হাসপাতালে

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১




এ বছর হচ্ছে না জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা : শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এ বছর অষ্টম শ্রেণির জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও মাদ্রাসার জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্তের পর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হলেও অষ্টম শ্রেণির জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও মাদ্রাসার জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা নিয়ে এতোদিন কোনো সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি। ফলে শিক্ষাবোর্ডগুলোও এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা পায়নি। তবে আজ এ বিষয়ে নিজেদের সিদ্ধান্তের কথা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী।

সাধারণত জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা বছরের নভেম্বর মাসে হয়ে থাকে। আর স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষাগুলো হয় ডিসেম্বর মাসে। করোনা সংক্রমণের দেড় বছর বন্ধের পর ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়। আগামী ১৪ নভেম্বর এসএসসি ও ২ ডিসেম্বর এইচএসসি পরীক্ষার তারিখ চূড়ান্ত করে গত ২৭ সেপ্টেম্বর রুটিন অনুমোদনও দেওয়া হয়।

পরীক্ষার সূচির বিশেষ নির্দশনায় বলা হয়, কোডিড-১৯ অতিমারির কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষার সময় দেড় ঘণ্টা। এমসিকিউ অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না।


আরও খবর



আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ‍শুরু করতে চায় তালেবান

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানের তালেবান সরকার দেশটিতে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট শুরু করার আহ্বান জানিয়েছে। এয়ার লাইনসগুলোকে তারা সর্বাত্মক সহায়তা করতে প্রস্তুত বলেও অঙ্গীকার করেছে গোষ্ঠীটি। খবর রয়টার্সের।

খবরে বলা হয়েছে, অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করার পর তালেবান দেশের অর্থনীতিসহ সব কিছু সচল করার উদ্যোগ নিয়েছে। এ ছাড়া তারা আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জনেরও চেষ্টা করছে।

রোববার তালেবান সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, কাবুল বিমানবন্দরের সমস্যা সমাধান করা হয়েছে।

১৫ আগস্ট তালেবান কাবুল নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর রাজধানীতে অবস্থিত হামিদ কারজাই বিমানবন্দর থেকে আন্তর্জাতিক ও বাণিজ্যিক ফ্লাইট স্থগিত করা হয়।

এরপর গত ৩ সেপ্টেম্বর কাতার ও তুরস্কের সহায়তায় আফগানিস্তানে অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচলের ঘোষণা দেয় রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন আরিয়ানা আফগান এয়ারলাইনস।

আফগানিস্তানে বর্তমান স্বল্প সংখ্যক আন্তর্জাতিক ফ্লাইট যাত্রী ও খাদ্যসহ অন্যান্য সহযোগিতা সামগ্রী বহন করছে। কিন্তু স্বাভাবিক বাণিজ্যিক ফ্লাইট এখনও শুরু হয়নি।

তালেবান সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল কাহার বালখি বলেন, আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু না থাকার কারণে আফগানিস্তানে বহু নাগরিক বিদেশে আটকা পড়েছে। তা ছাড়া মানুষজন পড়ালেখা ও চাকরির জন্যও বিদেশে যেতে পারছে না।

আব্দুল কাহার বালখি বলেন, কাবুল বিমানবন্দর এখন অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের জন্য পূর্ণ প্রস্তুত। সব এয়ারলাইনসকে ইসলামিক আমিরাত অব আফগানিস্তান সহায়তা করতে প্রস্তুত।


আরও খবর



ব্যায়াম না করেও বার্ন করুন ক্যালরি

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এমন অনেক কাজই আছে যেগুলো করলে ক্যালরি বার্ন হতে পারে অনেকটাই।  আর পাশাপাশি এসব কাজ করলে আপনার ভালো লাগবে এবং আপনার ঘরের দৈনন্দিন কাজও সম্পন্ন হবে।

আপনি ১৫০ মিনিট মাঝারিভাবে জিম করে যে পরিমাণ ক্যালরি বার্ন করতে পারবেন, প্রায় সেই পরিমাণ ক্যালরি বার্ন করতে পারেন আপনি এসব কাজ করে। এ ছাড়া এসব কাজ আপনার শক্তি বৃদ্ধি করবে, রক্তচাপ কমাবে, টাইপ-২ ডায়াবেটিস, হার্টঅ্যাটাক, স্ট্রোক এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাবে, বাতের ব্যথা কমাবে, অস্টিওপরোসিসের ঝুঁকি কমাবে এমনকি উদ্বেগ ও হতাশার লক্ষণগুলো কমাতে পারে।

১. বাগান করা

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় শখের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে গার্ডেনিং বা বাগান করা।  আপনার বাগানের বিভিন্ন কাজ আপনি নিজে করলেই তা কমাতে পারে অনেকটা ক্যালরি। এটি আপনার ভালোলাগার পাশাপাশি শরীরের জন্যও অনেকটা উপকারী হতে পারে।  বাগানে কাজ করে ১ ঘণ্টায় ২৩৮ ক্যালরি পর্যন্ত বার্ন করতে পারেন আপনি।

২. ঘাস কাটা

অনেকেরই বাগানে বা বাসার বাইরে ঘাস হতে দেখা যায়। আর আপনি যদি নিজে এই ঘাস কাটেন তবে এটি আপনার ক্যালরি অনেকটাই কমিয়ে দেবে। এ জন্য মানুষ বসে নিড়ানি বা র্যাগ দিয়ে ঘাস কাটার মাধ্যমে ২৪৪-৩০৬ ক্যালরি বার্ন হতে পারে ঘণ্টায়।

৩. বাজার করা

শপিং বা বাজার করতে কে না পছন্দ করে? কিন্তু আপনি হয়তো জানেন না যে আপনার এ পছন্দের কাজটি করেও অনেকটা ক্যালরি বার্ন করতে পারেন।  প্রায় ৭০ কেজি ওজনের একজন ব্যক্তি যদি কোনো শপিংমলে বা বাজারে কেনাকাটা করার সময় দুই মাইল হেঁটে থাকে, তা হলে তার ২০০ ক্যালরি পর্যন্ত বার্ন হতে পারে। এভাবে ৩ ঘণ্টায় ৫০০-৬০০ ক্যালরি পর্যন্ত বার্ন হতে পারে।

৪. জানালার কাচ ও মেঝে পরিষ্কার করা

অনেক বাসাতেই এখন জানালায় থাই গ্লাস বা কাচের জানালা লাগানো হয়। আপনার ঘরের এসব জানালা সাবান পানি দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করলেও কিন্তু আপনার অনেকটা ক্যালরি বার্ন হবে। আর আপনি যদি আপনার ঘরের মেঝে বসে মোছেন, তা হলে তা মাত্র ৩০ মিনিটে ১৫৩ ক্যালরি পর্যন্ত কমাতে পারে। ৩ ঘণ্টায় প্রায় ৬০০ ক্যালরি পর্যন্ত বার্ন হতে পারে এভাবে।

৫. ঘর রঙ করা

অনেকেই ঘরের রঙ নিজেরাই পছন্দ করেন। আর আপনার ঘর রঙ করা প্রয়োজন হলে তা নিজেরাই করে বার্ন করে ফেলতে পারেন।  এই কাজে ৩ ঘণ্টায় ১০২৬ ক্যালরি পর্যন্ত বার্ন হতে পারে।

৬. ঘরের বাইরে বা আশপাশ পরিষ্কার করা

ঘরের বাইরে বিভিন্ন ময়লা-আবর্জনা ও গাছের পাতার ময়লা পড়ে থাকে। এসব ময়লা পরিষ্কার করার মাধ্যমেও আপনি কমাতে পারেন অনেকটা। এতে আপনার ও আপনার বাসার আশপাশে পরিষ্কার করাও হবে আবার পাশাপাশি ক্যালরিও বার্ন হবে।  এভাবে ৪ ঘণ্টায় ১৮০০ ক্যালরি পর্যন্ত বার্ন করতে পারেন।


আরও খবর
আজকের ভালো মন্দ

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

আজ আপনার জন্মদিন হলে

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21