আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

কুড়িয়ানায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা প্রদানের অভিযোগ

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | ৩৬১জন দেখেছেন
হযরত আলী হিরু, স্বরূপকাঠি

Image
কুড়িয়ানা বাজারে মিঠুনের ব্যক্তিগত অফিসের সামনে নৌকার প্রার্থীর ছোট ভাই শংকর সিকদার, রতন সিকদারসহ তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা তাকে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ ও হুমকি প্রদান করে

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠির আটঘর-কুড়িয়ানা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শেখর কুমার সিকদারের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মিঠুন হালদারের পোষ্টার ছিড়ে ফেলাসহ নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় বাধা প্রদানের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী মিঠুন হালদার এ বিষয়ে নেছারাবাদ থানায় একটি সাধারণ ডায়রী এবং বুধবার রিটানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছেন।

অভিযোগে মিঠুন হালদার উল্লেখ করেন, নির্বাচনের শুরু থেকেই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শেখর কুমার সিকাদর বিভিন্ন সময়ে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে।  মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) বিকাল আনুমানিক ৫ টার সময় আটঘর গোবিন্দ মন্দিরের সামনে বসে চেয়ারম্যান শেখর প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মিঠুন ও তার নেতাকর্মী, সমর্থকদের অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে এবং মিঠুনকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। শেখর নির্বাচনের আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে ২৫ থেকে ৩০ টি মটরসাইকেল সহযোগে মহড়া দিয়ে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে।

কুড়িয়ানা বাজারে মিঠুনের ব্যক্তিগত অফিসের সামনে নৌকার প্রার্থীর ছোট ভাই শংকর সিকদার, রতন সিকদারসহ তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা তাকে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ ও হুমকি প্রদান করে। শেখর কুমার সিকদারের বাড়ীর পাশের রাস্তা, আটঘর ও আদাবাড়ীর রাস্তা, সাবেক চেয়াম্যান জাকির হোসেন নান্টু বাড়ি থেকে খায়েরকাঠী পর্যন্ত রাস্তাসহ ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে ঝুলন্ত মিঠুনের আনারস প্রতীকের সব পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে রিটানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার ইউসুফ হারুন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি জেলায় সংশ্লিষ্ট উধর্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগটি প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর



মধ্যরাতে জেএসএস’র সামরিক কমান্ডাকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | ৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাঙামাটি থেকে শহিদুল ইসলাম হৃদয়

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে নিজদলীয় বন্ধুবেশি গুপ্তচরের গুলিতে সংস্কারপন্থী জেএসএস এর এক সামরিক কমান্ডার নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার সময় বাঘাইছড়ির বাবুপাড়া এলাকায় সশস্ত্র অবস্থায় দায়িত্ব পালনের সময় সামরিক কমান্ডার বিশ্ব চাকমা ওরফে যুদ্ধ চাকমাকে কাছে থেকেই গুলি করে হত্যা করেছে তার সাথেই দায়িত্ব পালনরত সুজন চাকমা।

জেএসএস এমএন লারমা গ্রুপের উপজেলার দায়িত্বে থাকা প্রথম সারির একজন নেতা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ঘাতক সুজন চাকমা যুদ্ধকে হত্যা করে তার সাথে থাকা একটি অত্যাধুনিক এম ফোর রাইফেল ও একটি একে-৪৭ রাইফেল নিয়ে পালিয়ে গেলে বলে দলীয় সূত্রে জানাগেছে।

এদিকে এই ঘটনার পরপরই নিহতের মরদেহ উদ্ধারে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে রাত সাড়ে তিনটার সময় জানাগেছে।

সংস্কারপন্থী জেএসএস এর দলীয় দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, নিহত যুদ্ধ চাকমা বিগত চার বছর আগে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস থেকে অস্ত্র নিয়ে পালিয়ে এসে সংস্কারপন্থী জেএসএস এমএন লারমা দলে যোগদান করে। পরবর্তীতে তাকে সংগঠনটির বাবু পাড়া এলাকার সামরিক কমান্ডারের দায়িত্ব দেওয়া হয়। প্রতিদিন রাতে তার নেতৃত্বেই এলাকায় সামরিক টহল দিতো একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী।

তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার রাতে সশস্ত্র অবস্থায় ডিউটিতে থাকাকালীন সময়ে তার সাথে থাকা ছদ্মবেশি সহকর্মী সুজন চাকমা গভীর রাত আড়াইটার সময় গুলি করে যুদ্ধ চাকমাকে হত্যা করে। দলীয় সূত্র জানিয়েছে, একটি একে-৪৭ ও একটি এম ফোর অস্ত্রনিয়ে সুজন চাকমা জেএসএস মূল দলে যোগদানের উদ্দেশ্যে যুদ্ধকে হত্যা করে পালিয়ে গেছে।

নিউজ ট্যাগ: জেএসএস হত্যা

আরও খবর



পয়লা বৈশাখে জনসমাগম করা যাবে না

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ১০৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গত ২১ মার্চ অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভার সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলা নববর্ষ ১৪২৮ উদযাপন সংক্রান্ত গৃহীত কর্মসূচির বিষয়ে জানানো যাচ্ছে যে, বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক জারি

বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতে পয়লা বৈশাখে কোনো অবস্থাতেই জনসমাগম করা যাবে না বলে জানিয়েছে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আ স ম হাসান আল আমিন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল বুধবার এই নির্দেশনা দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সম্ভব হলে অনলাইনে বাংলা নববর্ষ পালন করতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২১ মার্চ অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভার সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলা নববর্ষ ১৪২৮ উদযাপন সংক্রান্ত গৃহীত কর্মসূচির বিষয়ে জানানো যাচ্ছে যে, বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক জারি করা নির্দেশনা অনুসরণ করে জনসমাগম হয় এমন অনুষ্ঠান পরিহার করে সম্ভব হলে অনলাইন বা ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য অনুরোধ জানানো হলো। কোনো অবস্থাতেই জনসমাগম করা যাবে না।

গত বছরও করোনা পরিস্থিতির জন্য ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান ও মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়নি। ওই সময় বিভিন্ন সংগঠন ভার্চুয়ালি বর্ষবরণের আয়োজন করে।


আরও খবর
অগ্নি স্নানে শুচি হোক ধরা

বুধবার ১৪ এপ্রিল ২০২১




এবার কোম্পানীগঞ্জ যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদত্যাগের ঘোষণা

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | ১০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আমি শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক কারণে বিপর্যস্ত। তাই দলের কোনো ধরনের দায়িত্ব পালন করা সম্ভব নয়। বিধায় দলের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করলাম। যথাযথ কর্তৃপক্ষকে পদত্যাগপত্র পেশ করব

এবার নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক গোলাম ছারওয়ার যুবলীগ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি মির্জা কাদেরের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

শুক্রবার (২ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে তিনি তার ফেসবুক আইডি থেকে এক স্ট্যাটাসে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন। তার এ পদত্যাগের ঘোষণায় উপজেলা আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের বিবদমান পাল্টাপাল্টি হামলা মামলা নিয়ে নতুন করে চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা।

তিনি স্ট্যাটাসে উল্লেখ করেন, আমি শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক কারণে বিপর্যস্ত। তাই দলের কোনো ধরনের দায়িত্ব পালন করা সম্ভব নয়। বিধায় দলের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করলাম। যথাযথ কর্তৃপক্ষকে পদত্যাগপত্র পেশ করব।

এ বিষয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি স্ট্যাটাসের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমি মানসিকভাবে সিন্ধান্ত নিয়েছি আমি আর রাজনীতি করব না। শনিবার তিনি সকলের সাথে আলাপ করে তার পদত্যাগপত্র যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে দেবেন।

এর আগে বুধবার (৩১ মার্চ) দুপুর পৌনে ১২টায় ফেসবুক লাইভে এসে আওয়ামী লীগ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই ও বসুরহাট পৌরসভার আলোচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। 


আরও খবর



দেশে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত, মৃত্যু ৫২

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | ১০৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও পাঁচ হাজার ৩৫৮ জন। করোনাকালে বাংলাদেশে এটাই একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। তাদের নিয়ে দেশে করোনায় সরকারি হিসেবে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলেন ছয় লাখ ১১ হাজার ২৯৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৫২ জন। তাদের নিয়ে সরকারি হিসাবে মারা গেলেন মোট ৯ হাজার ৪৬ জন।

আজ বুধবার (৩১ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতর করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

গত ২৯ মার্চ করোনাকালের সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড হয় বাংলাদেশে। সেদিন একদিনে শনাক্ত হন পাঁচ হাজার ১৮১ জন। গতকাল ৩০ মার্চ শনাক্ত হন পাঁচ হাজার ৪২ জন। এ নিয়ে দেশে তৃতীয়দিনের মতো টানা শনাক্ত পাঁচ হাজারের ওপরে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৫২ জন। এর আগে গত বছরের ২৬ আগস্ট মারা যান ৫৪ জন। সে হিসেবে গত সাত মাসের মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যর খবর জানালো স্বাস্থ্য অধিদফতর।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ২১৯ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন পাঁচ লাখ ৪২ হাজার ৩৯৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৯০ শতাংশ। আর এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক শূন্য ৯। শনাক্ত হার বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৮ দশমিক ৭৩ শতাংশ। আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৪৮ শতাংশ।


আরও খবর



এক হাজার শয্যার করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ৬২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
এটি দেশের সবচেয়ে বড় করোনা চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলছি। এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করে আনা হয়েছে। এখানে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সর্বোচ্চ সেবার সুযোগ রাখা হচ্ছে

আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হলো করোনা রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় বেড ও আইসিইউ সুবিধাসম্বলিত দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল। আজ রবিবার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) উদ্যোগে নির্মিত এ হাসপাতালটির উদ্বোধন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আগামীকাল সোমবার থেকে এখানে রোগী ভর্তি শুরু হবে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, এই হাসপাতাল দেশের সবচেয়ে বড় করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল। এখানে থাকছে ১০০টি আইসিইউ বেড, ১১২টি এইচডিইউসহ মোট ১০০০ বেড।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, এটি দেশের সবচেয়ে বড় করোনা চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলছি। এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করে আনা হয়েছে। এখানে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সর্বোচ্চ সেবার সুযোগ রাখা হচ্ছে। যারা উপসর্গ নিয়ে আসবে তাদেরও রাখা হবে, যাদের আইসিইউ প্রয়োজন তাদেরও রাখা হবে। সবার জন্য আলাদা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এরই মধ্যে এই হাসপাতালে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফসহ প্রয়োজনীয় ওষুধ ও যন্ত্রপাতি প্রস্তুত রাখা হয়েছে। করোনা রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় প্রায় সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষাও এখানে করা যাবে।


আরও খবর