আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

কুশিয়ারায় জেলের জালে আড়াই মণের বাঘাইড়

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিলেটের কুশিয়ারায় জেলের জালে আড়াই মণ ওজনের একটি বাঘাইড় মাছ ধরা পড়েছে। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ভোরে ফেঞ্চুগঞ্জের কুশিয়ারা নদীতে জেলেদের জালে মাছটি ধরা পড়ে। মাছটি বিক্রির জন্য দাম হাঁকানো হচ্ছে দেড় লাখ টাকা।

মাছের বিক্রেতা মো. আলাউদ্দিন জানান, বিশালাকারের ১০০ কেজি ওজনের বাঘাইড় মাছটি ফেঞ্চুগঞ্জের জেলেদের কাছে থেকে ৬০ হাজর টাকায় বিক্রির জন্য তিনি সিলেট নগরের লালবাজারে নিয়ে আসেন। এককভাবে কেউ না নিলে মাছটি কেটে কেজি দরে বিক্রি করা হবে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিশালাকারের বাঘাইড় মাছটি দেখতে লোকজন বাজারে ভিড় করেছেন। অনেকে মাছটি একবার ছুঁয়েও দেখছেন।

সিলেট নগরের সুবিদবাজার থেকে মাছ কিনতে লালবাজারে আসা রওনক জামান বলেন, 'বাজারে এত বড় মাছ কম উঠে। লোকমুখে বড় বাঘাইড় বাজারে উঠেছে শুনে তিনি কিনতে এসেছেন। কিন্তু দাম বেশি চাওয়া হচ্ছে। তবে কেজিতে বিক্রি করা হলে কেনার আগ্রহ আছে।'

মাছের বিক্রেতা মো. আলাউদ্দিন বলেন, মাছটি বিক্রির জন্য তিনি দেড় লাখ টাকা দাম চাচ্ছেন। অবশ্যই ৮০ বা ৯০ হাজার টাকা পেলে বিক্রি করে দেবেন। একত্রে মাছটি বিক্রি করতে না পারলে মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় মাছটি কেটে বিক্রি করবেন। সেক্ষেত্রে কেজিপ্রতি দাম পড়বে দেড় থেকে ২ হাজার টাকা। কেজি দরে মাছ নিতে এরইমধ্যে ৮ জন নাম লিখিয়েছেন বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



ভারতে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৬

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | ২৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের কেরালা রাজ্যে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬ জন। এদের মধ্যে অন্তত ছয়টি শিশু রয়েছে। এখনো অনেক মানুষ নিখোঁজ থাকায় হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। খবর বিবিসির।

গত কয়েকদিনের প্রবল বৃষ্টিপাতে কেরালায় বন্যার পাশাপশি ভয়াবহ ভূমিধস দেখা দিয়েছে। এতে ভেসে গেছে বহু ঘরবাড়ি। পানিবন্দি হয়ে হয়ে পড়েছেন রাজ্যের কোট্টায়াম শহরের অসংখ্য মানুষ।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ছবি ও ভিডিওতে বন্যার ভয়াবহ ধ্বংসলীলা চোখে পড়ে। ভিডিওতে দেখা যায়, বন্যার পানি ঢুকে পড়া একটি বাসের ভেতর থেকে যাত্রীদের উদ্ধার করা হচ্ছে।

বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের খবর অনুসারে, কোট্টায়ামে বন্যায় তোড়ে একটি বাড়ি ভেসে গেলে এতে একই পরিবারের ছয় সদস্য প্রাণ হারান। এদের মধ্যে ৭৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা ও তিনটি শিশুও ছিল। এছাড়া রাজ্যের ইদুক্কি জেলায় চার, সাত ও আট বছরের তিনটি শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে নিখোঁজ রয়েছেন আরও অন্তত পাঁচজন।

রাজ্যটিতে দুর্গত মানুষদের উদ্ধারে স্থানীয়দের সঙ্গে যোগ দিয়েছে ভারতীয় সামরিক বাহিনী। আটকেপড়া লোকদের কাছে খাবার ও ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছাতে ব্যবহার করা হচ্ছে হেলিকপ্টার। রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় খোলা হয়েছে অস্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্র।

অতিরিক্ত নগরায়নের প্রভাব পড়া কেরালায় বন্যার হানা নতুন কিছু নয়। ২০১৮ সালে রাজ্যটিতে শতাব্দীর সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় প্রায় ৪০০ জন নিহত ও ১০ লাখের বেশি মানুষ ঘরছাড়া হয়েছিলেন।



আরও খবর



আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুদকের দায়ের করা মামলায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশের আদালতে আত্মসমর্পণ করে আবুল কালাম আজাদ জামিন আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে এর বিরোধিতা করা হয়। পরে শুনানি শেষে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে ৬ অক্টোবর একই আদালতে আবুল কালাম আজাদ জামিনের জন্য আবেদন করেন। কিন্তু সেদিন বিচারক অন্য মামলা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় তাকে অন্য কোনোদিন আসতে বলেন।

৩০ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচারক ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারি।

চার্জশিটভুক্ত অপর পাঁচ আসামি হলেন-রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক পরিচালক আমিনুল হাসান, উপ-পরিচালক (হাসপাতাল-১) ডা. মো. ইউনুস আলী, সহকারী পরিচালক (হাসপাতাল-১) ডা. মো. শফিউর রহমান এবং গবেষণা কর্মকর্তা ডা. মো. দিদারুল ইসলাম।

গত বছরের ২৩ সেপ্টেম্বর পাঁচ জনকে আসামি করে মামলাটি করেন দুদকের উপ-পরিচালক মো. ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী। দীর্ঘ একবছর পর এ মামলার তদন্ত শেষে অভিযোগপত্র অনুমোদন চেয়ে কমিশনে প্রতিবেদন দেন তদন্ত কর্মকর্তা।

মামলার এজাহারে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে লাইসেন্স নবায়নবিহীন বন্ধ রিজেন্ট হাসপাতালকে ডেডিকেটেড কোভিড হাসপাতালে রূপান্তর, মেমোর‌্যান্ডাম অব আন্ডারস্ট্যান্ডিং সম্পাদন ও সরকারি প্রতিষ্ঠান নিপসমের ল্যাবে তিন হাজার ৯৩৯ জন কোভিড রোগীর নমুনা বিনামূল্যে পরীক্ষা করিয়েছেন।

এতে আরও বলা হয়, যেখান থেকে অবৈধ পারিতোষিক বাবদ রোগীপ্রতি সাড়ে তিন হাজার টাকা হিসেবে এক কোটি ৩৭ লাখ ৮৬ হাজার ৫০০ টাকা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া রিজেন্ট হাসপাতালের মিরপুর ও উত্তরা শাখার চিকিৎসক, নার্স, ওয়ার্ডবয় ও অন্য কর্মকর্তাদের খাবার খরচ বরাদ্দের বিষয়ে এক কোটি ৯৬ লাখ ২০ হাজার টাকার মাসিক চাহিদা তুলে ধরেছেন।


আরও খবর



দিল্লিকে হারাল কোহলির বেঙ্গালুরু

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শেষ বলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর প্রয়োজন ছিল ৫ রান, চার হলে ম্যাচ গড়াতো সুপার ওভারে। সেই অবস্থা থেকে স্রিকার ভারত মারলেন ছক্কা, দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে রুদ্ধশ্বাস এক জয় নিয়েই বিরাট কোহলির বেঙ্গালুরু পাড়ি জমায় আইপিএলের শেষ চারে।

গ্রুপ পর্বের শীর্ষস্থান আগেই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল দিল্লি ক্যাপিটালসের। এদিকে বেঙ্গালুরুরও শেষ চার নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। দুইয়ে থাকা চেন্নাই সুপার কিংসের সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধানটা ঘোচানো ছিল প্রায় অসম্ভব, আর নিচ থেকে কলকাতা বা মুম্বাইয়ের কারোই শেষ মুহূর্তে কোহলিদের টপকে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল না। ফলে শেষ ম্যাচটা কার্যত পরিণত হয়েছিল ডেড রাবারে। সেই ম্যাচটাই কিনা দেখল এত রোমাঞ্চ!

বেঙ্গালুরুর সঙ্গে চেন্নাইয়ের নেট রান রেটের ব্যবধানটা ছিল প্রায় .৬০০ এর। ফলে চেন্নাইকে টপকে কোয়ালিফায়ারে সুবিধাজনক অবস্থানে থাকার সুযোগ পেতে হলে দলটিকে জিততে হতো প্রায় ১৬০ এর কাছাকাছি রানে। তবে দিল্লি শুরুতে ব্যাট করে সে সম্ভাবনাও শেষ করে দেয় কোহলিদের।

শুরুতে ব্যাট করে এভিন লুইসের অর্ধশতক আর পৃথ্বী শর ৪৮ এ ভর করে বেঙ্গালুরু সামনে দিল্লি ছুঁড়ে দেয় ১৬৪ রানের চ্যালেঞ্জ। জবাবে শুরুতেই দেবদূত পাড়িক্কল ও বিরাট কোহলিকে হারায় বেঙ্গালুরু। এরপর ইনিংস মেরামতের চেষ্টায় ২৬ বলে ২৬ রান করে বিদায় নেন এবি ডি ভিলিয়ার্সও।

এরপরই ম্যাক্সওয়েলকে নিয়ে শুরু স্রিকারের প্রতিরোধের। ১১১ রানের জুটি গড়ে দলকে পৌঁছে দেন জয়ের বন্দরে। যার শেষটায় ছিল শেষ বলে ছক্কার সেই অবিস্মরণীয় কীর্তিটি।

এই জয়ের পরও কোহলির বেঙ্গালুরু রয়ে গেছে তালিকার তিনেই। ফলে চারে থাকা কলকাতা নাইট রাইডার্সের মুখোমুখি হবে দলটি। আর কোয়ালিফায়ারে খেলবে শীর্ষ দুই দল দিল্লি ক্যাপিটালস ও চেন্নাই সুপার কিংস।

নিউজ ট্যাগ: বেঙ্গালুরু

আরও খবর



ফেসবুকের ১৫০ কোটি গ্রাহকের তথ্য বিক্রি!

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বজুড়ে বেশ জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। অভিযোগ উঠেছে জনপ্রিয় এই মাধ্যমটির ১৫০ কোটি গ্রাহকের তথ্য বিক্রি হয়ে গেছে। গ্রাহকদের এসব তথ্য কিনেছে একটি হ্যাকার ফোরাম। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) রোমানিয়াভিত্তিক সাইবার নিরাপত্তা গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রাইভেসি অ্যাফেয়ার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

তবে এই তথ্য বিক্রির সঙ্গে সোমবার (৪ অক্টোবর) ফেসবুক বিপর্যয়ের কোনো সম্পর্ক নেই। এ ঘটনা ঘটেছে সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে। তবে ফেসবুকের সমস্যার সময় ব্যবহারকারীদের ডাটা চুরির কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে জানান ফেসবুকের একজন মুখপাত্র।

তিনি বলেন, ব্যাকবোন রাউটারের কনফিগারেশনে পরিবর্তন আনার সময় কারিগরি ত্রুটির কারণে গত সোমবার রাতে বন্ধ হয়ে যায় ফেসবুক, ম্যাসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রামের সেবা। ত্রুটি কাটিয়ে প্রায় ছয় ঘণ্টা চেষ্টার পর সেবা চালু করতে সক্ষম হন প্রকৌশলীরা।

এদিকে প্রাইভেসি অ্যাফেয়ার্স তাদের প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ওয়েব স্ক্র্যাপারসনামের একটি ওয়েবসাইট থেকে তথ্য চুরিতে নিয়োজিত একটি গ্রুপের মাধ্যমে তারা জানতে পেরেছে, ফেসবুকের প্রায় ১৫০ কোটি গ্রাহকের তথ্য একটি হ্যাকার ফোরামের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। ওয়েব স্ক্র্যাপাররা কিছু প্রমাণ সংযুক্ত করে সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে এই তথ্য বিক্রি করেছে। ক্রেতা হ্যাকার ফোরাম প্রতি এক মিলিয়ন বা ১০ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্যের জন্য পাঁচ হাজার ডলার মূল্য পরিশোধ করেছে। এতে ফেসবুকের দেড়শ কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য কিনতে তাদের গুণতে হয়েছে ৭ লাখ ৫০ হাজার ডলার বা প্রায় ৬৫ কোটি টাকা।

ওয়েব স্ক্র্যাপারস ও হ্যাকারদের ই-মেইল বার্তার কিছু স্ক্রিনশটও প্রকাশ করা হয়েছে প্রাইভেসি অ্যাফেয়ার্সের ওই প্রতিবেদনে। তবে বিপুল পরিমাণ এই তথ্য কোন হ্যাকার গ্রুপ কিনে নিয়েছে, সেটা প্রকাশ করেনি প্রাইভেসি অ্যাফেয়ার্স।

সূত্রে জানা গেছে, ফেসবুক, ম্যাসেঞ্জার, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপের মধ্যে একটি কমন সুইচ প্ল্যাটফর্ম তৈরির জন্য রাউটারে নতুন কনফিগারেশনটি চলছিল। মূলত ফেসবুক ও এর অন্তর্ভুক্ত মাধ্যমগুলোর মাঝে সহজে ডাটা আদান-প্রদান করার জন্যই এই প্রক্রিয়াটি চলছিল।


আরও খবর



ভান্ডারিয়ায় স্ত্রীর পরকীয়ার বলি স্বামী, স্ত্রীসহ গ্রেপ্তার ২

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | ৬১১০জন দেখেছেন
Image

ভান্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি:

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলা ভিটাবাড়িয়া গ্রামে বৈমাত ভাইয়ের (মায়ের দ্বিতীয় স্বামীর ছেলে) সঙ্গে স্ত্রীর পরকিয়া হাতে নাতে ধরা পড়ায় স্বামী বেল্লাল সরদার (২৭) নামে এক যুবক বিষপান করে আত্মহত্যা করেছে।

সে দক্ষিণ ভিটাবাড়িয়া গ্রামের জলিল সরদারের ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ নিহত বেল্লালে স্ত্রী সোনিয়া বেগম এবং পরকীয়া প্রেমিক বৈমাত ভাই রাজুকে গ্রেপ্তার করেছে।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার ভিটাবাড়িয়া ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডে দক্ষিণ ভিটাবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা জলিল সরদারে ছেলে বেল্লালে সঙ্গে প্রায় ১৪ বছর পূর্বে ভান্ডারিয়া পৌর শহরের বাসিন্দা মো. জামালের

প্রথম স্ত্রীর মেয়ে সোনিয়ার সাথে ইসলামিয়া শরিয়া মোতাবেক সাথে বিবাহ হয়। সে ঘরে মো. ঈসা নামের ৯ বছরের একটি পুত্র সন্তান

রয়েছে। নিহত বেল্লাল ইটভাটায় শ্রমিকের কাজ করে সংসার চালাত।

নিহত বেল্লালের চাচী রানী বেগম জানান, সোনিয়ার মায়ের দ্বিতীয় স্বামীর ছেলে মো. রাজু বৈমাত বোন সোনিয়ার বাড়িতে বেড়াতে এসে সৎ বোনের সঙ্গে পরকীয়া জড়িয়ে পরে। এ ঘটনা জানাজানি হলে বেল্লাল ভান্ডারিয়া  পৌর শহরের ভুবনেশ্বর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় বাসা ভাড়া করে চলে যায় এবং প্রায় দের বছর বসবাস করে আর্থিক সংকটে পড়ে পুনঃরায় পৈত্রিক বাড়িতে বসবাস ফিরে আসে।

এদিকে স্ত্রীর এ ধরনের ঘটনা এলাকাবাসীর মুখে শোনা ছাড়াও নিজের হাতেনাতে ধরা পড়ায় স্বামীর স্ত্রী সঙ্গে তুমুল ঝগড়া হয়। ক্ষোভে ঘৃণায় গত ৫ অক্টোবর দুপুরে বেল্লাল বিষপান করে। পরে তাকে জ্বর,পাতলা পায়খানার রোগী বলে অচেতন অবস্থায় ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

বিষয়টি চিকিৎসকদের সন্দেহ হলে বেল্লালকে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে বৃহস্পতিবার বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বেল্লাল।

এ ঘটনায় নিহত বেল্লালের বাবা মো. জলিল সরদার বাদী হয়ে পুত্রবধূ সোনিয়া, তার বৈমাত ভাই রাজু এবং শ্বশুর জামালকে আসামি করে আত্মহত্যার প্ররোচনায় মামলা দায়ের করেছে।

ভান্ডারিয়া  থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. বজলুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ভান্ডারিয়া থানায় ৩০৬ ধরার আত্মহত্যার প্ররোচনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার আসামী বেল্লালের স্ত্রী সোনিয়া বেগম এবং তার বৈমাতভাই (মায়ের দ্বিতীয় স্বামীর ছেলে) রাজুকে গ্রেপ্তার করে গতকাল শুক্রবার সকালে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর