আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

কয়রায় টিবি কার্যক্রমের উপর ব্র্যাকের ওরিয়েন্টশন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
তারিক লিটু, কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধি

Image

খুলনার কয়রায় টিবি, ম্যালেরিয়া, এইচআইবি ও কোভিড ১৯ কার্যক্রমের উপর ব্র্যাকের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার কয়রা উপজেলার বিআরডিবি অফিস হল রুমে দিনব্যাপী জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি ব্র্যাকের আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সুন্দরবন বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মো. খায়রুল আলম।

অনুষ্ঠানর টিবি, ম্যালেরিয়া, এইচআইভি এবং কোভিড-১৯ কার্যক্রমের উপর এবং সচেতনাতা তৈরি উপর বিস্তার আলোচনা করেন  নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচীর ব্র্যাক এর কর্মসূচী প্রোগাম অফিসার সুশান্ত রায়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন, যক্ষা নিয়ন্ত্রন কর্মসুচির ব্র্যাক এর কর্মসুচী সংগঠক জি.এম. ইন্তাজ আলী।

ওরিয়েন্টশন সভায় পল্লী চিকিৎসক, জনপ্রতিনিধি, মসজিদের ইমাম, সাংবাদিক, স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ অংশগ্রহণ করেন।

সভায় বিভিন্ন বক্তারা বলেন, দেশে এখনো বড় এক স্বাস্থ্য সমস্যা যক্ষা। এ রোগে শুধু যে নিম্ন আয়ের মানুষেরাই আক্রান্ত হচ্ছে, তা কিন্তু নয়, যে কারোরই হতে পারে যক্ষা। করোনার চেয়ে বেশি ভয় যক্ষা, এইচআইভি, ম্যালেরিয়ায়। কোভিড-১৯ বৈশ্বিক স্বাস্থ্যব্যবস্থার চিত্র বদলে দিয়েছে। কিন্তু করোনার চেয়েও বড় উদ্বেগের কারণ হতে পারে আরেকটি রোগ, যার নাম যক্ষা। ওরিয়েন্টশন সভায় বলা হয়েছে, বিশ্বে প্রতিদিন যক্ষায় মারা যান ৪ হাজার ১০০ জনের বেশি মানুষ। বিশ্বে যক্ষায় আক্রান্ত মোট রোগীর দুই-তৃতীয়াংশ যে আটটি দেশে আছে, তারই একটি বাংলাদেশ। বাংলাদেশে প্রতিবছর গড়ে ৩ লাখ মানুষ যক্ষায় আক্রান্ত হন এবং এর মধ্যে ৭০ হাজার রোগী মারা যান।

যক্ষ্মার লক্ষণ, হাঁচি, কাঁশি ও জ্বর দেখা দিলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ব্র্যাকের যক্ষা বিভাগে যোগযোগ করে চিকিৎসা নেওয়ার আহ্বান জানান। সরকার বিনামূলে যক্ষ্মারোগীদের চিকিৎসা সেবা ও ঔষুধ প্রধান করে আসছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কয়রা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি তারিক লিটু, সিএনআরএস জিসিএ প্রকল্পের ম্যানেজার সরোয়ার হোসেন, কয়রা ওয়ার্ল্ড ভিশনের অপারেশন ম্যানেজার মনোতোষ কুমার মধূ, ফেইথ ইন একশন প্রোজেক্ট ম্যানেজার যাকোব টিটু, কয়রা মদিনাবাদ সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুচিত্র কুমার, এ্যাড.আনিছুর রহমান, পল্লী চিকিৎসক জিয়াউল হাসান জিল্লুর, সাংবাদিক মো. গোলাম মোস্তফা, ইউনুস বাবু প্রমুখ।


আরও খবর



বাংলাদেশের নির্বাচন কর্মকর্তাদের ওপর মিয়ানমার থেকে গুলি বর্ষণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মোহাম্মদ ফারুক, কক্সবাজার

Image

সেন্টমার্টিন থেকে নৌ-পথে ফেরার সময় মিয়ানমার সীমান্ত থেকে নির্বাচন কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কেউ আহত হয়নি বলে জানা গেছে। বুধবার (৫ জুন) সন্ধ্যা ৬টার দিকে সেন্টমার্টিন দ্বীপে স্থগিত থাকা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষে টেকনাফে ফেরার পথে সাগরে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, স্থগিত থাকা টেকনাফ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সেন্টমার্টিন দ্বীপের একটি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ভোটগ্রহণ শেষে স্পিডবোটযোগে সেন্টমার্টিন থেকে টেকনাফ ফেরার পথে সাগরের মাঝপথে নির্বাচন কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে মিয়ানমার সীমান্ত থেকে গুলি চালানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, সেন্টমার্টিন থেকে নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শেষে শাহপরীর দ্বীপের কাছাকাছি এলে মিয়ানমার অংশ থেকে অন্তত ২৫-৩০ রাউন্ড গুলি ছোঁড়া হয়। এ ছোঁড়া গুলি এসে পড়ে আমাদের বহনকারী স্পিডবোটে। তবে এ ঘটনায় কেউ আহত হননি।’

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনি সরঞ্জাম বহনকারী স্পিডবোটে টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি), প্রিসাইডিং কর্মকর্তা, পুলিং অফিসারসহ দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশের একটি টিমও ছিল। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে তারা নিরাপদে টেকনাফে পৌঁছেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা গুলি ছুড়েছে।

এ বিষয়ে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, গুলি চালানোর ঘটনায় বিজিবির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদলিপি পাঠানো হবে।’


আরও খবর



বিএনপি নেতা ইশরাকের ১০ দিনের রিমান্ড চায় ডিবি

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

বাইডেনের ভুয়া উপদেষ্টাকাণ্ডে রাষ্ট্রদোহীর অভিযোগে রাজধানীর পল্টন থানার মামলায় বিএনপি নেতা ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেনের দশ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। বুধবার (২৯ মে) মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ডিবি পুলিশ পরিদর্শক মো. কবির হোসেন হাওলাদার এ তথ্য জানিয়েছেন।

জানা গেছে, গত ১৯ মে ইশরাকের বিরুদ্ধে হওয়া ১২ মামলায় জামিন চেয়ে আবেদন করেন তার আইনজীবী মো. তাহেরুল ইসলাম তৌহিদ। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন ১১ টি মামলায় জামিন দিলেও পল্টন থানার রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় নামঞ্জুর করেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। কারাগারে থাকা অবস্থায় গত ২৬ মে মামলার ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনসহ আরো কোন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি জড়িত আছে কি না তাদের তথ্য সংগ্রহসহ গ্রেপ্তারের জন্য আসামীর দশ দিনের পুলিশ রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। এ বিষয়ে আগামীকাল বৃহস্পতিবার আসামি ইশরাকের উপস্থিতিতে রিমান্ড শুনানির জন্য দিন ধার্য রয়েছে।

মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করতে রাষ্ট্রদ্রোহীতার অভিযোগে গত ২৯ অক্টোবর মহিউদ্দিন শিকদার নামে এক ব্যক্তি বাদী হয়ে রাজধানীর পল্টন থানায় মামলা করেন। মামলায় মিয়ান আরেফিসহ অবসরপ্রাপ্ত লে. জেনারেল হাসান সারওয়ার্দী এবং বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেনকে আসামি করা হয়েছে। এ মামলায় গ্রেপ্তারের পর গত ৩০ অক্টোবর মিয়ান আরেফিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।গত ৩১ অক্টোবর সাভার থেকে হাসান সারওয়ার্দী গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৮ অক্টোবর বিএনপির পূর্বঘোষিত মহাসমাবেশ উপলক্ষে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যলয়ে সারাদেশ থেকে বিএনপির নেতা কর্মীরা জড়ো হতে শুরু করে। বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে বিক্ষুদ্ধ বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে শুরু করে। একপর্যায়ে বিক্ষুদ্ধ নেতা কর্মীরা কাকরাইল মোড় থেকে আরামবাগ মোড় পর্যন্ত পুলিশের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয় এবং বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রধান বিচারপতি বাসভবনসহ সরকারী স্থাপনা, ও সরকারী গাড়ীসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অগ্নি সংযোগ করে। সংঘর্ষের ফলে পুলিশের ৪১ জন সদস্য আহতসহ একজন পুলিশ সদস্য নিহত হয়। একপর্যায়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ৩ টার সময় মহাসমাবেশ স্থগিত ঘোষণা করে।

এরপর পূর্বপরিকল্পনা মতে এজাহারনামীয় আসামী ইশরাকের যোগসাজসে মিয়ান আরেফি নিজেকে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের উপদেষ্টা পরিচয় দিয়ে বিএনপির নয়াপল্টনস্থ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে।

পরবর্তীতে বাংলাদেশের আমেরিকান দূতাবাস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান যে প্রেসিডেন্টের জো বাইডেনের উপদেষ্টা পরিচয়দানকারী ব্যক্তি মিয়ান আরাফী আমেরিকান নাগরিক হলেও সে জো বাইডেনের কোন উপদেষ্টা নয় এবং সে আমেরিকান সরকারের কেউ নয়। আসামি মিয়ান আরেফি, আসামি হাসান সারওয়ার্দী এবং আসামী মো. ইশরাফ হোসেনসহ পরস্পর যোগসাজসে প্রতারণা করে আসামিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের উপদেষ্টা পরিচয় প্রদান করে সহায়তা করে। আসামি ইশরাকের বিরুদ্ধে মামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রাথমিকভাবে সাক্ষ্য প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে।


আরও খবর



আমতলীতে মুগডালের ফলন ভালো না হলেও দামে খুশি কৃষকরা

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
Image

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:

অনাবৃষ্টির কারণে এ বছর উপজেলার আমতলীতে মুগডালের ফলন ভালো হয়নি। ফসল ভালো না হওয়ায় দুচিন্তায় থাকলেও বাজারে দাম ভালো থাকায় খুশি কৃষকরা। ভালো দামে বিক্রি করে লোকসান কাটিয়ে উঠার আশা করছেন তারা।

আমতলী উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, উপজেলায় এ বছর ৮ হাজার ৩০০ হেক্টর জমিতে মুগডাল চাষ হয়েছে। কৃষক বিগত বছরের মত এ বছর ভালো লাভের স্বপ্ন দেখলেও সেই স্বপ্ন অনাবৃষ্টিতে ফিকে হয়ে গেছে। অনাবৃষ্টির কারণে মুগ ডালের তেমন ভালো ফলন হয়নি। লাভতো দুরের কথা লোকসান কাটিয়ে উঠার চিন্তায় বিভোর কৃষকরা। কিন্তু বাজারে ডালের দাম ভালো থাকায় লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারবে বলে দাবি করেন কৃষকরা। মৌসুম শুরুতে ডালের দাম অনেক ভালো। প্রকার ভেদে এক মণ মুগডাল বাজারে তিন হাজার ৮০০শ থেকে এবং চার হাজার ৫০০শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রবিবার আমতলী শাখারিয়া বাজার ও আমতলী বাঁধঘাট এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কৃষকদের কাছ থেকে ফরিয়ারা চল্লিশ কেজি তিন হাজার ৮শ এবং সাড়ে ছে-চল্লিশ কেজি মুগডাল ৪ হাজার ৫০০ বিক্রি হচ্ছে।

চাওড়া কাউনিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুল রাজ্জাক মোল্লা, আউয়াল সিকদার, মোহাম্মদ হাওলাদার, জিয়া উদ্দিন জুয়েল বলেন, বৃষ্টি না হওয়ায় ফলন তেমন হয়নি। তারা আরো বলেন, বাজারে দাম ভালো থাকায় মনে হয় লোকসান গুনতে হবে না।

চন্দ্র পাতাকাটা গ্রামের  দুলাল মোল্লা বলেন, মুগডাল ভালো হয়নি। বাজারে দাম বেশি তাতে যদি লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারবো।

আমতলী ব্যবসায়ী জাকির হোসেন বলেন, বাজারে মুগডালের দাম অনেক বেশি। কৃষকরা এতে ভালোই লাভবান হবে।

আমতলী উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবীদ ঈশা ইকবাল বলেন, এ বছর বৃষ্টি না হওয়ায় মুগডালের ফলন খারাপ। কিন্তু বাজারে দাম ভালো থাকায় কৃষকদের লোকসান গুনতে হবে না।


আরও খবর



পাথরঘাটায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর ওপর হামলার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

বরগুনার পাথরঘাটায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এনামুল হোসাইনের (দোয়াত-কলম মার্কা) ওপর হামলা হয়েছে। এরপর তার পক্ষে প্রেসক্লাবে সাংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার (১ জুন) বরগুনা প্রেসক্লাব হলরুমে বিকেল ৫টায় এনামুল হোসেনের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তার ফুফাতো ভাই মো. নিজাম উদ্দিন খান (পান্না) এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

এ সময়ে এনামুলের ফুফাতো ভাই সাংবাদিকদের বলেন, ৩০ মে রাতে দোয়াত-কলম মার্কার প্রার্থী জনাব এনামুল হোসাইন তার নির্বাচনী গণসংযোগ চলানোর সময় কাপ-পিরিচ মার্কার সমর্থকরা কাকাচিড়া এলাকায় ঢুকতে দিবে না বলে বাধার সৃষ্টি করে এবং অতর্কিতভাবে এনামুল ও তার সমর্থকদের ওপর হামলা করে। এ সময় দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে কাপ-পিরিচ মার্কার সন্ত্রাসীরা এনামুল হোসাইনের মাথায় কোপ দিয়ে গুরুতর জখম করে ও সন্ত্রাসীদের লাঠির আঘাতে তার ডান হাতের কবজির ওপর আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

মো. নিজাম উদ্দিন খান (পান্না) জানান, বর্তমানে দোয়াত কলম মার্কার প্রার্থী এনামুল হোসাইন মাথায় গুরুতর আঘাত নিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এছাড়া সন্ত্রাসী হা্মলায় আহত এনামুলের ১৫-১৬ জন নেতা-কর্মী মারাত্বকভাবে আহত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য জাতির প্রতি যে অঙ্গীকার করেছেন তার প্রতি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না। সন্ত্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে একতরফা নির্বাচন করার পাঁয়তারা করা হচ্ছে। আমরা এ বর্বরোচিত হামলার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।


আরও খবর



সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তার ২৭টি ব্যাংক অ্যাকাউন্টসহ আর্থিক লেনদেনকারী মোট ৩৩টি অ্যাকাউন্ট জব্দ থাকবে। দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালত গোপালগঞ্জে তার ৮৩টি দলিলের সম্পদ জব্দের আদেশ দেন।

সম্প্রতি দেশের এক জাতীয় দৈনিকে দাবি করা হয়, পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ও র‌্যাবের সাবেক মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদের বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের খোঁজ মিলেছে। এরপর থেকেই বেশ আলোচনায় পুলিশের সাবেক এই আইজিপি।

জাতীয় ওই দৈনিকে বেনজীরের ঘরে আলাদীনের চেরাগ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়, যেখানে তার নানা অর্থ-সম্পদের বিবরণ তুলে ধরা হয়। বেনজীরের বিপুল সম্পদের মধ্যে রয়েছে গোপালগঞ্জের সাহাপুর ইউনিয়নে সাভানা ইকো রিসোর্ট নামের এক অভিজাত ও দৃষ্টিনন্দন পর্যটনকেন্দ্র। এ ছাড়াও তার স্ত্রী ও দুই মেয়ের নামে দেশের বিভিন্ন এলাকায় অন্তত ছয়টি কোম্পানির খোঁজ পাওয়া গেছে। পাঁচটি প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগের পরিমাণ ৫০০ কোটি টাকার বেশি হতে পারে।

প্রতিবেদনে আরও দাবি করা হয়, ঢাকার অভিজাত এলাকাগুলোতে বেনজীর আহমেদের দামি ফ্ল্যাট, বাড়ি আর ঢাকার কাছের এলাকায় বিঘার পর বিঘা জমি রয়েছে। দুই মেয়ের নামে বেস্ট হোল্ডিংস ও পাঁচতারা হোটেল লা মেরিডিয়ানে রয়েছে দুই লাখ শেয়ার। এ ছাড়া পূর্বাচলে রয়েছে ৪০ কাঠার সুবিশাল জায়গাজুড়ে ডুপ্লেক্স বাড়ি, যার আনুমানিক মূল্য কমপক্ষে ৪৫ কোটি টাকা। একই এলাকায় আছে ২২ কোটি টাকা মূল্যের আরও ১০ বিঘা জমি।

অথচ, ৩৪ বছর সাত মাসের দীর্ঘ চাকরিজীবনে বেনজীর আহমেদ বেতন-ভাতা বাবদ মোট আয় এক কোটি ৮৪ লাখ ৮৯ হাজার ২০০ টাকার মতো হওয়ার কথা। বেনজীর আহমেদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অনুসন্ধানে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) চিঠি দেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

চিঠিতে বলা হয়, বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ ৩৪ বছর ৭ মাস চাকরি করে গত ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ সালে অবসরে যান। অবসর গ্রহণের পর দেখা যায়, বেনজীর আহমেদের স্ত্রী ও কন্যাদের নামে বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি রয়েছে, যা তার আয়ের তুলনায় অসম।

বেনজীর আহমেদ তার পদের অপব্যবহার করে তার আয়ের তুলনায় প্রতিবেদনে উল্লিখিত সম্পত্তিগুলো অধিগ্রহণ করেছেন বলে বিশ্বাস করার যথেষ্ট কারণ রয়েছে বলেও চিঠিতে জানান ব্যারিস্টার সুমন। এমন পরিস্থিতিতে, বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ, তার স্ত্রী, বড় মেয়ে এবং ছোট মেয়ের বিরুদ্ধে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ সংগ্রহের জন্য তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দুদককে অনুরোধ করেন তিনি।


আরও খবর