আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

মামুনুল হকের সমর্থকদের হামলায় আ.লীগ নেতার মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | ১২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
নারায়ণগঞ্জের একটি রিসোর্টে কথিত স্ত্রীসহ হেফাজত ইসলামের নেতা যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক অবরুদ্ধ হন। এ ঘটনা জানাজানির পর মামুনুলের সমর্থনে বের হওয়া মিছিল থেকে রাঙ্গুনিয়ার কোদালা ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়াতে হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের সমর্থকদের হামলায় আহত এক আওয়ামী লীগ নেতা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) দিবাগত রাত ১টার দিকে নগরীর বেসরকারি পার্কভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই নেতার মারা যান। তিনি আহত হওয়ার পর ৪ দিন ধরে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

নিহত মো. মুহিবুল্লাহ (৪৬) রাঙ্গুনিয়ার কোদালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি। এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে গুজব ছড়িয়ে বিএনপি-জামায়াত ও হেফাজতের নেতাকর্মীরা এ হামলার ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগ করেছে আওয়ামী লীগ।

গত শনিবার (৩ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জের একটি রিসোর্টে কথিত স্ত্রীসহ হেফাজত ইসলামের নেতা যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক অবরুদ্ধ হন। এ ঘটনা জানাজানির পর মামুনুলের সমর্থনে বের হওয়া মিছিল থেকে রাঙ্গুনিয়ার কোদালা ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া এলাকায় মুহিবুল্লাহসহ ৩ জনের ওপর হামলা হয়। আহত বাকি ২ জন হলেন, কোদালা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার এবং সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিটন।

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। ঘটনাস্থলে এবং গ্রামে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আমরা সতর্ক আছি। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।

এই ঘটনার বিষয়ে রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মিল্কি বলেন, সংবাদ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। হামলাকারীদের ধাওয়া করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। এ ঘটনায় ২ টি মামলা দায়ের হয়েছে। একটি আহত জব্বার বাদি হয়ে ও আরেকটি পুলিশের এসআই খোরশেদ আলম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। উভয় মামলায় ৬৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ১০০ থেকে ১৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে।


আরও খবর



ইতালিতে সব অঞ্চলই এখন ‘রেড জোন’

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে প্রথম ভয়াবহ ক্ষতির মুখে পড়ে ইতালি। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশটি অন্যান্য দেশের তুলনায় ক্ষতি কিছুটা কমাতে

করোনাভাইরাসের তৃতীয় ঢেউয়ে ইতালিতে ফের সংক্রমণ বেড়েছে। দেশটির সব অঞ্চলই এখন রেড জোন। করোনায় ইউরোপে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে প্রথম সারিতে থাকা দেশটির প্রশাসন সীমাবদ্ধতার মধ্যেই সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে চলছে। তবে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের সবচেয়ে পুরোনো ধর্মীয় অনুষ্ঠান ইস্টার ঘিরে জনসমাগম ঠেকাতে এবার তিন দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। অপ্রয়োজনে বাইরে ঘোরাঘুরি পুরোপুরি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে এ ধর্মীয় অনুষ্ঠান বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে উদ্যাপনে কোনো বাধা নেই।

এদিকে লকডাউন চললেও চার্চগুলো খোলা থাকছে। কিন্তু উপাসকরা ইস্টার অনুষ্ঠানে গণহারে মানুষের যোগ দিতে নিরুত্সাহিত করছেন। ফলে গত বছরের মতো এবারও পোপ ফ্রান্সিস জনশূন্য সেন্ট পিটার্স স্কয়ারে ইস্টার-এর বক্তৃতা করবেন।

চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে প্রথম ভয়াবহ ক্ষতির মুখে পড়ে ইতালি। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশটি অন্যান্য দেশের তুলনায় ক্ষতি কিছুটা কমাতে সক্ষম হলেও তৃতীয় ঢেউ নিয়ে এখন চিন্তিত ইতালি সরকার। ফলে সংক্রমণ ঠেকাতে ঘোষিত লকডাউন কঠোরভাবে পালনে জনসাধারণকে বাধ্য করা হচ্ছে। নিত্যপণ্য ও ওষুধের দোকান ছাড়া সব ধরনের দোকানপাট বন্ধ রাখা হচ্ছে। তবে রেস্টুরেন্টগুলো থেকে অনলাইনে খাবার কেনার সুযোগ রয়েছে।

রেড জোন ঘোষিত এলাকায় সব ধরনের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। তবে ইস্টার উপলক্ষ্যে একই এলাকায় বসবাস করা মানুষ তাদের আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে যেতে পারবে। ইতালির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুসিয়ানা ল্যামোরগেস বলেছেন, কোনোভাবেই লকডাউন ভঙ্গ করা উচিত হবে না। এখনই সময় ইতালিয়ানদের দায়বদ্ধতা দেখানোর। ভ্যাকসিন আসছে এবং মানুষ গ্রহণ করছেন। সবাই যখন ভ্যাকসিনের আওতায় আসবেন, তখন আমরা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে পারব।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক লাখ ১০ হাজার ৩২৮ জন মারা গেছেন। আর এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ লাখ ২৯ হাজার মানুষ। এখনো প্রতিদিন অন্তত ২০ হাজার নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছেন।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ এপ্রিল 2০২1 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ এপ্রিল 2০২1 | ১১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির মধ্যে শুরু হয়েছে মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা। শুক্রবার (২ এপ্রিল) সকাল ১০টায় দেশের ৫৫টি কেন্দ্রে একযোগে পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

করোনা সংক্রমণরোধে প্রতিটি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করেছে কর্তৃপক্ষ। কেন্দ্রে প্রবেশের কড়াকড়ি থাকলেও বাইরে দেখা গেছে ভিন্নচিত্র।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, টিচার্স ট্রেনিং কলেজ, গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ কেন্দ্রে নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই শিক্ষার্থীরা স্ব-স্ব পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে উপস্থিত হয়েছেন। নির্দেশনা অনুযায়ী পরীক্ষা শুরু হওয়ার দুই ঘণ্টা পূর্বে পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশ করছেন পরীক্ষার্থীরা।

কেন্দ্রে প্রবেশের সময় শিক্ষার্থীদের তাপমাত্রা পরিমাপ ও হাতে স্যানটাইজার দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু বাইরে পরীক্ষার্থীর অভিভাবকরা গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে আছেন। মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। উপেক্ষিত থাকছে স্বাস্থ্যবিধিও।

ঢাকা কলেজ কেন্দ্রের পরীক্ষাবিষয়ক কর্মকর্তা অধ্যাপক আনোয়ার মাহমুদ বলেন, সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি এবং কঠোর যাচাই-বাছাই ও পরীক্ষণ শেষে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। কেন্দ্রের ভেতরে যেন শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেন সে বিষয়টিও তদারকি করা হচ্ছে।


আরও খবর



গোপন বৈঠকের সময় জামায়াতের আমিরসহ গ্রেপ্তার ৯

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | ১০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নে গোপন বৈঠকের সময় জামায়াতের আমিরসহ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) রাতে ওই ইউনিয়নের একটি বাড়ি থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নের কাশিরাম গ্রামের মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে তুষভান্ডার ইউনিয়ন জামায়াতের আমির মোজাম্মেল হক (৫৩), একই গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে শাহীন মিয়া (৩৫), মৃত নজমুদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলাম (৫৭), মৃত উসমান আলীর ছেলে আবু বক্কর (৭০), মৃত ফয়জার উদ্দিনের ছেলে ফুয়াদ হোসেন (৪০), বৈরাতি গ্রামের ফজলে রহমানের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৪০), একই গ্রামের ইমান আলীর ছেলে ফরিদুল ইসলাম (৩০) ও জামির বাড়ি গ্রামের বেলাল মোস্তফার ছেলে আবু সাঈদ (২৬), মৃত নজরুল হকের ছেলে সাবু মিয়া (৫০)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কালীগঞ্জ উপজেলার কাশিরাম মুন্সির বাজার এলাকার আবু বক্কর নামে এক জামায়াত কর্মীর বাড়িতে গোপন বৈঠক করছেন জামায়াতের কিছু নেতাকর্মী। এমন একটি গোপন খবরের ভিত্তিতে পুলিশ মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) রাতে ওই বাড়িতে অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেয়ে সবাই পালিয়ে গেলেও তুষভান্ডার ইউনিয়ন জামায়াতের আমির মোজাম্মেল হকসহ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে কিছু জিহাদি বই, লিফলেট ও চাঁদা আদায়ের রশিদ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

এই ঘটনার বিষয়ে কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর



লকডাউন বাড়বে কিনা সিদ্ধান্ত বৃহস্পতিবার

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আজ থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। করোনার সংক্রমণ রোধে সরকারের পক্ষ থেকে রবিবার সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়। যা শর্ত সাপেক্ষে চলাচল এবং কার্যক্রম নিয়ে বিধি-নিষেধ রয়েছে

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানিয়েছেন, চলমান লকডাউন আর বাড়বে কিনা, এ সপ্তাহ দেখে আগামী বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সিদ্ধান্ত হবে।

 

আজ সোমবার (৫ এপ্রিল) ভার্চ্যুয়াল মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব একথা জানান।

 

আজ থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। করোনার সংক্রমণ রোধে সরকারের পক্ষ থেকে রবিবার সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়। যা শর্ত সাপেক্ষে চলাচল এবং কার্যক্রম নিয়ে বিধি-নিষেধ রয়েছে।

 

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আমরা দেখি কী হয়। মানুষকে কো-অপারেট করতে হবে। আপনারা তো বার বার বলছেন। কিন্তু এখনো পুরোপুরি কো-অপারেশন। সবাই যদি মাস্ক ব্যবহার করে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে তাহলে তো অসুবিধা হওয়ার কথা না।

 

বর্তমানে যে পরিস্থিতি আছে, এমনটা থাকলে লকডাউন বাড়ানো হবে কিনা প্রশ্নে তিনি বলেন, দেখি আমরা, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অপেক্ষা করছি।


আরও খবর



সব সবজির দাম ঊর্ধ্বমুখী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নিত্যপণ্যের বাজারে দামের উত্তাপ এখনও থামেনি। লকডাউন ও রোজা শুরুর পর থেকে কাঁচাবাজারে নানা পণ্যের দাম বেড়ে চলছে। বেগুন, শসা, টমেটো ও লেবুর দাম দ্বিগুণ বেড়েছে। এর মধ্যে বেগুন ও শসার কেজি এবং লেবুর হালির দামে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। কম দামি টমেটোর দামও হাফসেঞ্চুরি করেছে। ইফতারের উপকরণ হিসেবে এগুলোর কদর থাকায় ব্যবসায়ীরা দাম বাড়ানোর সুযোগ নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন ক্রেতারা।

বুধবার থেকে রোজা ও কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। এই সুযোগে সবজির বাজারে দাম বাড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ক্রেতারা অভিযোগ করেন, গত সোমবার রাজধানীর বাজারে ক্রেতারা বেগুন ও শসা ৪০ থেকে ৫০ টাকায় কিনেছেন। এখন ৯০ থেকে ১০০ টাকা গুনতে হচ্ছে। বাজারে সবচেয়ে কম দামি সবজি টমেটোর কেজিও ৫০ টাকায় পৌঁছেছে।

রোজার প্রথম দিনেই অস্বাভাবিক দাম বেড়েছে এসব সবজির। গতকাল বৃহস্পতিবারও একই দাম ছিল। গত দু'দিনে দাম দ্বিগুণ হয়েছে। এখন শসার কেজি প্রায় ১০০ টাকা। এক সপ্তাহের ব্যবধানে চার গুণ দাম বেড়েছে লেবুর। গত বুধবার প্রতি হালি লেবু ২০ থেকে ২৫ টাকা ছিল। এখন তা ৮০ থেকে ১০০ টাকায় উঠেছে। রাজধানীর তালতলা বাজারে ১২০ টাকায়ও হালি বিক্রি হয়েছে। মঙ্গলবারও ৪০ টাকা হালি ছিল এই বাজারে। এখন পাকা টমেটো ৫০ টাকা ও বেগুনের দামও ৮০ থেকে ১০০ টাকা। গত সপ্তাহে পাকা টমেটো ১৫ থেকে ২০ টাকা কেজি বিক্রি হয়েছে। দু'সপ্তাহ আগে কৃষকরা টমেটো ফেলে দিয়েছেন। তখন ক্ষেতে দুই টাকায় কেজি বিক্রি করেছেন তারা। বাজারে এখন আলু ও পেঁপে ছাড়া বেশিরভাগ সবজি ৭০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা আগের সপ্তাহে ৪০ থেকে ৫০ টাকা ছিল। আলুর দামও কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে ২০ থেকে ২৫ টাকা এবং পেঁপে ৩৫-৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, মাছ, মাংসসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম বেশি থাকায় সবজির চাহিদা বেশি। এ কারণে এবার পাইকারি মোকামে সবজির দামও বেশি। তাছাড়া করোনা মহামারির কারণে লকডাউনে কড়াকড়ি আরোপ করায় বাজারে সবজির সরবরাহ কম। এতেও দাম বাড়ছে। বিশেষ করে করলার কেজি দ্বিগুণ বেড়ে ১০০ টাকা হয়েছে। অন্যান্য সবজির মধ্যে বরবটি, ঢেঁড়স ও পটোলের কেজি ৭০ থেকে ৮০ টাকা হয়েছে। কাঁচাবাজারে এসব পণ্যের নির্ধারিত দর না থাকায় তদারকিতে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারছে না বাজার মনিটরিং টিম। তবে সরকার যেসব পণ্যের মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে, সেসব পণ্যও অনেক বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে জরিমানা করা হলেও ব্যবসায়ীরা বাড়তি দাম নিচ্ছেন।

বাজারে শুধু গরুর মাংস বেঁধে দেওয়া দাম প্রতি কেজি ৬০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। নির্ধারিত দাম অনুয়ায়ী খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ সর্বোচ্চ ৪০ টাকা, চিনি ৬৭ থেকে ৬৮ টাকা, ছোলা ৬৩ থেকে ৬৭ টাকা, মসুর ডাল উন্নতমানের হলে দাম হবে ৯৭ থেকে ১০৩ টাকা ও সাধারণ মোটা মসুর হলে ৬১ থেকে ৬৫ টাকা, খেজুর সাধারণ মানের ৮০ থেকে ১০০ টাকা এবং মধ্যম মানের ২০০ থেকে ২৫০ টাকা এবং সয়াবিন তেল লিটারে ১৩৯ টাকা। এসব পণ্যই নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দামে বাজারে বিক্রি হচ্ছে। কোথাও কোথাও পেঁয়াজ ও গরুর মাংস নির্ধারিত দামে পাওয়া যাচ্ছে। অন্য সব পণ্যে বেশি দাম গুনতে হচ্ছে।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সোম ও মঙ্গলবারের তুলনায় গত দু'দিন বাজারে ক্রেতাদের ভিড় কিছুটা কম ছিল। কঠোর লকডাউনের মধ্যে বাজারে এলেও ক্রেতারা মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি। অনেকের মুখে ছিল না মাস্ক। আবার কারও কারও কাছে মাস্ক থাকলেও তা থুতনিতে ছিল।


আরও খবর