আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা ৯ ফেব্রুয়ারি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস (মেডিকেল) ভর্তি পরীক্ষা। বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরে ভর্তি কমিটির সভায় এমন সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় অংশ নেওয়া স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

ভর্তি কমিটির সভায় স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলসহ (বিএমডিসি) ভর্তি পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট সব অংশীজন অংশ নেয়।

গত ২৬ নভেম্বর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। সাধারণত এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশের এক-দেড় মাসের মাথায় এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, দ্রুততম সময়ে নীতিমালা সম্বলিত ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবে।


আরও খবর



গৃহবধূ হত্যা: স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়ি ও দেবর গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
Image

তালতলী(বরগুনা)প্রতিনিধি:

বরগুনার তালতলীতে নিখোঁজের দুইদিন পরে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর মা বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়ি ও দেবরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার(৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর আড়াইটার দিকে আসামীদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে গতকাল রাতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের থানায় নেওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার সাথে সম্পৃক্ত থাকায় পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার দেখায়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেনস্বামী হাসান (২১), শশুর সাইফুল সরদার (৪৫), শাশুড়ি ময়না বেগম(৪০) ও স্বামীর ফুফাত ভাই আবদুল(৩০)।

জানা যায়, গত ৩১ জানুয়ারি সন্ধ্যার পরে উপজেলার ছোটবগী ইউনিয়নের চরপাড়া এলাকার শশুর বাড়ির কাজ শেষে গৃহবধূ সুখি (২০) নিজ কক্ষে চলে যায়। এরপর তার আর কোন সন্ধ্যান পাওয়া যায়নি। সকালে পরিবারের লোকজন আত্মীয় স্বজনদের কাছে খোঁজ করেও তার কোন সন্ধ্যান পায়নি। দুইদিন পরে গতকাল শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১ টার দিকে নিহতের শশুর বাড়ির অদুরে ওয়াপদা রাস্তার পাশে মরদেহটি পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বেলা ১২ টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। নিহতের শরীরে আঘাতের বেশ কয়েকটি চিহ্ন পাওয়া গেছে এবং নাক-মুখ দিয়ে রক্ত বের হয়েছে বলে জানান পুলিশ। পরে শুক্রবার রাতেই গৃহবধূর মা ফাতেমা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এর পরে স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়ি ও দেবরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। পরে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে প্রাথমিকভাবে এই হত্যার সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকায় শনিবার দুপুরে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম খান বলেন, গৃহবধুর মা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেন। সেখানে কোন আসামিদের নাম উল্লেখ করেনি। পরে সন্দেহভাজন হিসেবে স্বামী শ্বশুর-শাশুড়ি ও দেবরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে এই হত্যাকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ততা থাকায় ঐ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



খুলনায় শীতের মধ্যে বৃষ্টি বাড়াল দুর্ভোগ

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
খুলনা প্রতিনিধি

Image

খুলনায় শৈত্যপ্রবাহের পর মানুষের মাঝে কিছুটা স্বস্তি আসলেও বুধবার (৩১ জানুয়ারি) ভোর থেকে খুলনায় শুরু হয়েছে বৃষ্টি। এমন পরিস্থিতিতে জবুথবু হয়ে পড়েছে খুলনার জনজীবন। ভোগান্তিতে পড়েছে নিম্ন আয়ের মানুষ। আজ বুধবার (৩১ জানুয়ারি) খুলনা বিভাগে দিনের অন্যান্য সময়েও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

ভোর ৪টার দিকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বৃষ্টি কিছুটা কমলেও কিছুক্ষণ পরই আবার শুরু হয় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। গত কয়েক দিনে খুলনায় সূর্যের দেখা মেলেনি, ঘনকুয়াশায় ঢেকে ছিল খুলনার আকাশ, সেই সঙ্গে ছিল উত্তরের হিমেল হাওয়ায় মৃদ্য শৈত্যপ্রবাহ।

খুলনা আবহাওয়া কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ মো. আমিরুল আজাদ বলেন, মৌসুমি লঘুচাপের কারণে খুলনায় সকাল ৯টার পর হালকা বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এই বৃষ্টি কয়েক ঘণ্টা থাকতে পারে।

নগরীর সোনাডাঙ্গা এলাকার ইজিবাইক চালক কামাল বলেন বলেন, গত কয়েক দিন শীতের জন্য রাস্তায় লোক অনেক কম ছিল। কিন্তু আজকের এই বৃষ্টিতে লো নেই বললেই চলে।


আরও খবর



বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দেবে না সরকার: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দেবে না সরকার। তবে আন্দোলনের সহিংসতার উপাদান যুক্ত হলে বাধা আসবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বাধা দেওয়ার মত সহিংস তৎপরতা, সন্ত্রাস, অগ্নিসন্ত্রাস- এসব উপাদান যদি আন্দোলনে যুক্ত হয়, তাহলে বাধা আসবে। তারা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দিলে আমরা বাধা দিব কেন?

বিএনপির বর্তমান রাজনৈতিক কর্মসূচি নিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে বিরোধী দলের যে রাজনীতি, মুল ইস্যুই হচ্ছে যত দোষ নন্দ ঘোষ সরকার। সরকারই সব অপরাধে অপরাধী। তারা নালিশ করতে যায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। বিএনপি নেতা মঈন খান মার্কিন দূতাবাসে গিয়ে নালিশ করেছেন দেশে মানবাধিকার নেই, গণতন্ত্র নেই। এ হচ্ছে বিএনপির অবস্থা। 

আরও পড়ুন>> আমদানির খবরে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম

তিনি বলেন, বিএনপি নেতাদের কাছে জানতে চাই, ৫৪ দলের সরকার, বিরোধী যে ঐক্য জোট, এ জোটের শরিকরা কোথায়? সেই ঐক্য কোথায়? জগাখিচুড়ি ঐক্যজোট কোথায়? এখন সরকারের ওপর দোষ দিয়ে পার পাওয়া যাবে?

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ হেরেছে, বিএনপি জিতেছে- বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সবাই জানে নির্বাচনে কারা জিতেছে। নির্বাচনে অংশ না নিয়েই বিএনপি জিতে গেল? এটা পাগলের প্রলাপ ছাড়া আর কি?

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ব্যবস্থা হচ্ছে, নতুন করে চিন্তাভাবনা করছি। দলে সিদ্ধান্ত হয়েছে, এসব ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে যত কঠোর হওয়া দরকার হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, এসএম কামাল হোসেন, মির্জা আজম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনসহ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতারা।


আরও খবর



বহুভাষার সংস্কৃতির মেলবন্ধন শান্তির পৃথিবী গড়বে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ সকল ভাষা সংরক্ষণের প্রেরণা। আর বহুভাষার সংস্কৃতির মেলবন্ধন পৃথিবীতে শান্তি, সৌহার্দ্য প্রতিষ্ঠায় বড় ভূমিকা রাখতে পারে।

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আজ বুধবার (২১শে ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর বেইলি রোডে ফরেন সার্ভিস একাডেমি মিলনায়তনে বহুভাষায় শিক্ষা: শেখা এবং প্রজন্মান্তরের শিক্ষার সোপান প্রতিপাদ্য নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করে মন্ত্রী ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষার দাবিতে শহিদ সালাম, বরকত, রফিক, জব্বার, শফিউরসহ সকল ভাষা শহিদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের ইতিহাস তুলে ধরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তখনকার তরুণ নেতা শেখ মুজিবুর রহমান সেই সময় ভাষার দাবিতে আন্দোলনের কারণেই জেলে বন্দি ছিলেন। জেলখানায় বসে সহযোগীদের সঙ্গে সভা করে তিনি সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন ২১ ফেব্রুয়ারি প্রতিবাদ দিবস পালিত হবে।

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে জাতিসংঘে স্বীকৃত হওয়ার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে ড. হাছান বলেন, কানাডা প্রবাসী দুজন বাঙালি রফিক ও সালামের উদ্যোগ এবং বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ত্বরিৎ সিদ্ধান্তে জাতিসংঘে প্রস্তাব পাঠানোর পর ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ইউনেস্কোর এক ঘোষণায় ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি পায়। 

আরও পড়ুন>> বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা করতে হবে : পরিবেশমন্ত্রী

এর মধ্য দিয়ে বাঙালির সেই আত্মত্যাগের দিনটি বিশ্বের প্রতিটি মানুষের মায়ের ভাষার অধিকার রক্ষার দিন হিসেবে স্বীকৃত হয়েছে এবং মানুষ বহুভাষাকে সযত্ন ধারণের প্রেরণা পেয়েছে, বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, সামুদ্রিক বিষয় ইউনিট সচিব রিয়ার এডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলম, অতিরিক্ত পররাষ্ট্র সচিব ড. মুহ. নজরুল ইসলামসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা ও বিদেশি কূটনীতিক এবং তাদের পরিবারবর্গ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। পররাষ্ট্র সচিব তার বক্তৃতায় মাতৃভাষা দিবসটিকে বিভিন্ন ভাষাভাষীর সম্প্রীতির দিন হিসেবে বর্ণনা করেন। ফরেন সার্ভিস একাডেমির রেক্টর মাশ্‌ফী বিন্তে শাম্‌স্ স্বাগত বক্তব্য দেন।

বহুভাষা নির্ভর এ অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উত্তর আমেরিকা অণুবিভাগের পরিচালক সামিয়া ইসরাত রনির পরিচালনায় কর্মকর্তা-শিল্পীবৃন্দের পাশাপাশি ইন্দোনেশিয়া, রাশিয়া ও ফ্রান্স দূতাবাসের শিল্পীরা গান ও কবিতাসহ নানা সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপস্থাপন করে। আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি গানটি বাংলা, পর্তুগিজ ও আরবিতে পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

এর আগে সকালে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে এবং এরপর বিদেশি কূটনীতিকরা ও তাদের পরিবারের সদস্যরা ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে স্থাপিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে অমর শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ইসরায়েলের বিমানঘাঁটি লক্ষ্যবস্তু করে ইরানের প্রতীকী হামলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইসরায়েলের প্রধান প্রধান বিমানঘাঁটিতে প্রতীকী হামলা করে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি নৌ সক্ষমতা প্রদর্শন করেছে।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত ফুটেজে দেখা গেছে, আইআরজিসি জাহাজ ও সাবমেরিন থেকে বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে।

গাজার বিরুদ্ধে ইসরায়েলের যুদ্ধ বৃদ্ধি এবং অঞ্চলজুড়ে উত্তেজনা বাড়ার সাথে সাথে এই মহড়া একটি স্পষ্ট বার্তা বলে মনে হচ্ছে।

ফুটেজে দেখা যায়, আইআরজিসি ইসরায়েলের পালমাচিম বিমানঘাঁটিতে দুটি স্থান থেকে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। ঘাঁটিটি গাজা যুদ্ধের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অপারেশন কেন্দ্র। সেখানে একাধিক হ্যাঙ্গারে যুদ্ধবিমান রয়েছে এবং আহত ইসরায়েলি সেনাদের চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু গত মাসে পালমাচিমে ঘোষণা দেন, তেল আবিব ইরানে হামলা চালাতে দ্বিধা করবে না।

ইরানের মহড়ায় ইমাদ ও কদর নামের অন্তত দুটি দূরপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ ও লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে দেখা গেছে।

এর আগে গতকাল ইরানের ইসলামী বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি সফলতার সঙ্গে তাদের একটি যুদ্ধজাহাজ থেকে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে। বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল হোসেইন সালামি এই তথ্য জানিয়েছেন।

ইরানের জেনারেল বলেন, এই সফলতা অর্জনের অর্থ হচ্ছে এখন থেকে আইআরজিসি বিশ্বের যে কোনো লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে পারবে কারণ ইরানের সমুদ্রগামী যুদ্ধজাহাজগুলো পৃথিবীর যে কোনো জায়গায় চলাচল করতে পারে।

জেনারেল সালামির বরাত দিয়ে ইরানের আধা সরকারি বার্তা সংস্থা তাসনিম নিউজ জানিয়েছে, আইআরজিসির নৌ শাখা এবং অ্যারোস্পেস ডিভিশনের যৌথ সহায়তায় দীর্ঘ পাল্লার এ ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের সফলতা অর্জন করা সম্ভব হয়েছে।


আরও খবর