আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

মেহেরপুরে জামায়াত তিন রোকন আটক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ অক্টোবর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ অক্টোবর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আব্দুল আলিম, মেহেরপুর

Image

মেহেরপুরে জামাতের তিন রোকন আটক সদর থানা পুলিশ। আজ মঙ্গলবার দুপুরে  সদর উপজেলার রায়পুর খন্দকারপাড়া থেকে গোপন বৈঠক চলাকালে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলো সদর উপজেলার বন্দর গ্রামের মৃত তিলক শেখের ছেলে আব্দুল জাব্বার, রাধাকান্তপুরের মৃত শিহাব উদ্দিনের ছেলে আব্দুল রউফ, শহরের মন্ডলপাড়ার মৃত মিজানুর রহমানের ছেলে ইকবাল হোসেন।

মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম জানান, গোপন বৈঠক হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে এস আই জহুরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি টিম সদর উপজেলার রায়পুর খন্দকারপাড়ার রুহুলের বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে জামায়াতের ৩জন রোকনকে আটক করা হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ির মালিক ও জামায়াতের রোকন রুহুল পালিয়ে যায়। আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

নিউজ ট্যাগ: মেহেরপুর

আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সংরক্ষিত নারী আসনে ৪৮ প্রার্থী দেবে আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে ৪৮ জনকে মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র মিলে সংরক্ষিত ৫০ আসনের মধ্যে ৪৮ জনকে মনোনয়ন দেবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) সকালে নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশনে চিঠির মাধ্যমে এই তথ্য জানান তিনি।

হুইপ আবু সাঈদ স্বপন বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীরা সংরক্ষিত আসনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার হাতে ছেড়ে দিয়েছেন। সেই হিসেবে আওয়ামী লীগ তাদের ও স্বতন্ত্র মিলে ৫০ আসনের মধ্য ৪৮ আসনে প্রার্থী দেবে। বাকি দুই জন জাতীয় পার্টির।

হুইপ বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তানদের বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে। ৬২ জন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের সমর্থনে আওয়ামী লীগের ৪৮ জন নারী নতুন করে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হতে পারেন। আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান, মহিলা আওয়ামী লীগ, সহযোগী সংগঠন ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নারী নেত্রীরা এক্ষেত্রে বেশি গুরুত্ব পাবেন।


আরও খবর



মিরসরাইয়ে স্কোয়াশ চাষে সফল কৃষক মুসলিম

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ফিরোজ মাহমুদ, মিরসরাই (চট্টগ্রাম)

Image

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে স্কোয়াশ চাষে সফল হয়েছেন কৃষক মুসলিম উদ্দিন। উপজেলার কাটাছড়া ইউনিয়নে বাড়ির পাশে প্রথমবারের মতো পরীক্ষামূলক ১০ শতক জমিতে স্কোয়াশ চাষ করেছেন তিনি। দুএকদিন পর পর জমি থেকে ফলন তুলে স্থানীয় বাজারে বিক্রি করছেন। অনেকে এসে জমি থেকে কিনে নিয়ে যাচ্ছেন।

মুসলিম উদ্দিন মিরসরাই উপজেলার কাটাছড়া ইউনিয়নের পূর্ব কাটাছড়া গ্রামের মরহুম মৌলভী মাঈন উদ্দিনের ছেলে। এইচএসসি পাস করার পর তিনি কৃষিকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন।

সরেজমিনে জানা গেছে, ১০ শতক জমিতে আবাদকৃত স্কোয়াশ গাছে ফলন এসেছে। প্রতি পিস ফলনের ওজন ৫০০ গ্রাম থেকে দেড় কেজি পর্যন্ত। দুজন শ্রমিক নিয়ে জমিতে পরিচর্যা করছেন তিনি। পাশের জমিতে চাষ করেছেন টমেটো, কাঁচা মরিচ, ফুলকপি, বাঁধাকপি ও বেগুনসহ নানা ধরনের শীতকালীন সবজি।

কৃষক মুসলিম উদ্দিন জানান, ৬ বছর ধরে কৃষি কাজ করছি। কৃষিকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছি। এবার প্রথমবারের মতো ১০ শতক জমিতে পরীক্ষামূলক স্কোয়াশ চাষ করেছি। মিঠাছড়া বাজার থেকে ১৮০ পিস বীজ নিয়ে বপন করেছি। প্রথমবারই সফল হয়েছি। জমিতে আগে থেকে মালচিং করা ছিল। তাই তেমন খরচ হয়নি। মাত্র ৩ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। এরই মধ্যে ২৫ হাজার টাকা বিক্রি করেছি। আরও ৪০ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারবো।

তিনি আরো বলেন, একটি গাছে ১০-২০ কেজি পর্যন্ত ফলন হয়। ঢাকার কয়েকটি সুপার শপের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তারা আগামীতে আমার কাছ থেকে স্কোয়াশ কিনে নেবেন। তাই আগামীতে সিদ্ধান্ত নিয়েছি চাষের পরিধি আরও বাড়াবো। এছাড়া ৬ বছর ধরে আগাম সবজি চাষ করে যাচ্ছি। প্রথমে ৫ শতক জায়গায় আগাম টমেটো চাষ শুরু করি। এখন ৮৫ শতক জমিতে টমেটো চাষ করেছি। এ বছর প্রায় ২ লাখ টাকার টমেটো বিক্রি করেছি। আরও ৩০ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারবো।

মিরসরাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা প্রতাপ চন্দ্র রায় বলেন, উপজেলার কাটাছড়া ইউনিয়নের মুসলিম খুবই পরিশ্রমী একজন কৃষক। তিনি সব সময় আগাম সবজি চাষ করে ভালো লাভবান হয়ে থাকেন। এবার স্কোয়াশ চাষ করে সফল হয়েছেন। তাকে সব সময় কৃষি অফিস থেকে পরামর্শসহ বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: স্কোয়াশ চাষ

আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




গৃহকর্মী নিয়োগে নতুন নিয়ম কার্যকর করল সৌদি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গৃহকর্মী নিয়োগের নতুন চুক্তিতে বাধ্যতামূলক বিমা করার নিয়ম কার্যকর করেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব। দেশটির শ্রম বাজার নিয়ন্ত্রণের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার থেকে নতুন এই নিয়ম কার্যকর করা হয়েছে।

সৌদির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, নতুন এই নিয়ম গৃহকর্মী নিয়োগ চুক্তির প্রথম দুই বছরের জন্য প্রযোজ্য হবে। চুক্তির দুই বছর পর নিয়োগকর্তার জন্য বীমা কার্যকরের বিষয়টি ঐচ্ছিক হবে।

নতুন নিয়ম কিছু ক্ষেত্রে গৃহকর্মী এবং নিয়োগকর্তার জন্য ক্ষতিপূরণ সুরক্ষিত করতে সহায়ক হবে। দেশটির মন্ত্রণালয় বলেছে, নিয়োগকর্তা গৃহকর্মীর অনুপস্থিতি, পলায়ন, মৃত্যু বা পঙ্গুজনিত রোগের কারণে শারীরিক অক্ষমতার ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার অধিকারী হবেন।

দেশটির সরকারি একটি প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে গৃহকর্মীদের বিমা সংক্রান্ত কার্যক্রম তত্ত্বাবধান করা হবে। দুর্ঘটনার ফলে সম্পূর্ণ বা আংশিক শারীরিক অক্ষমতার জন্য ক্ষতিপূরণ বা নিয়োগকর্তার মৃত্যুর কারণে মজুরি এবং অন্যান্য আর্থিক পাওনা পরিশোধে নিয়োগকর্তার ব্যর্থতার ক্ষেত্রে গৃহকর্মীর অধিকার রক্ষাই এই পরিষেবার লক্ষ্য।

সম্প্রতি অভ্যন্তরীণ শ্রমবাজার নিয়ন্ত্রণে বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সৌদি আরবের শ্রম কর্তৃপক্ষ। এই লক্ষ্যে দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় নিয়োগের আবেদন এবং নিয়োগকর্তা ও শ্রমিকের মধ্যে চুক্তিভিত্তিক সম্পর্কসহ গৃহকর্মীদের অধিকার, কর্তব্য ও ভিসাপ্রাপ্তি সম্পর্কে জানতে সাহায্য করার জন্য মুসানেদ নামের একটি প্ল্যাটফর্ম চালু করেছে।

দেশটির এই মন্ত্রণালয় বলেছে, সরকারি নিয়োগের প্ল্যাটফর্ম হওয়ায় মুসানেদের মাধ্যমে গৃহকর্মী নিয়োগের চুক্তির কাজ সম্পন্ন করতে হবে।

এর আগে, গত বছরের অক্টোবরে সৌদি আরবের কর্তৃপক্ষ অধিকার সংরক্ষণ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে গৃহকর্মীদের নিয়োগের ক্ষেত্রে নতুন কিছু শর্ত যুক্ত করে। এতে গৃহকর্মীর সর্বনিম্ন বয়স ২১ বছর নির্ধারণ করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: সৌদি আরব

আরও খবর



গাজায় নিহত বেড়ে ২৮ হাজার ৬৬৩

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

দখলদার ইসরায়েলি বাহিনীর অব্যাহত হামলায় ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় নিহতের সংখ্যা ২৮ হাজার ৬৬৩ জনে দাঁড়িয়েছে। একই সঙ্গে আহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৮ হাজার ৩৯৫ জন। বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ডেইলি সাবাহ।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে প্রতিবেদনে বলা হয়, গাজায় ইসরায়েলি হামলায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৮৭ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। একই সময়ে আহত হয়েছেন ১০৪ জন। অনেক মানুষ এখনও ধ্বংসস্তূপের নিচে এবং রাস্তায় আটকে আছেন এবং উদ্ধারকারীরা তাদের কাছে পৌঁছাতে পারছেন না।

ইসরায়েলের অব্যাহত হামলায় গাজার ৬০ শতাংশ অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত বা ধ্বংস হয়ে গেছে। উপত্যকাটিতে হাজার হাজার মানুষ কোনো ধরনের আশ্রয় ছাড়াই বসবাস করছে এবং প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম ত্রাণবাহী ট্রাক সেখানে প্রবেশ করছে। গত মাসে আন্তর্জাতিক বিচার আদালত গাজায় হামলা বন্ধ করতে ইসরায়েলকে নির্দেশ দিলেও তারা সেটি মানছেন না। 

আরও পড়ুন>> বিশ্বের শীর্ষ ১০ ধনী দেশের তালিকা জানাল আইএমএফ

জাতিসংঘের মতে, ইসরায়েলের হামলায় গাজার প্রায় ৮৫ শতাংশ ফিলিস্তিনি বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। আর খাদ্য, বিশুদ্ধ পানি এবং ওষুধের তীব্র সংকটের মধ্যে গাজার সকলেই এখন খাদ্য নিরাপত্তাহীন অবস্থার মধ্যে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর হামাসের নজিরবিহীন রকেট হামলার পর থেকে ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় অবিরাম বিমান ও স্থল হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। ইসরায়েলি এই হামলায় হাসপাতাল, স্কুল, শরণার্থী শিবির, মসজিদ, গির্জাসহ হাজার হাজার ভবন ক্ষতিগ্রস্ত বা ধ্বংস হয়ে গেছে। মাঝে এক সপ্তাহ মানবিক বিরতির পর গত ডিসেম্বরের শুরু থেকে ফের হামলা শুরু করে ইসরায়েল।


আরও খবর



অনুমতি ছাড়া বিদেশ যেতে পারবেন না ড. ইউনূস : হাইকোর্ট

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

হাইকোর্টের অনুমতি ছাড়া বিদেশ যেতে পারবেন না ড. ইউনূস। তাকে বিদেশ যেতে হলে আদালতকে জানাতে হবে। সোমবার (৫ জানুয়ারি) হাইকোর্ট এ নির্দেশ দেন।

এদিকে ড. ইউনূসের ৬ মাসের সাজা স্থগিত কেন অবৈধ নয় জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।  বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

এর আগে রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় ড. মুহাম্মদ ইউনূসের সাজা স্থগিত করে শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালে ৬ মাস সাজা স্থগিতের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তর। বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে এ আবেদন করা হয়।

এছাড়া আদালতের অনুমতি ছাড়া যাতে বিদেশ যেতে না পারেন এবং শ্রম আপিল আদালতে ড. ইউনূসের মামলা ৬ মাসে নিষ্পত্তি যেন হয় হাইকোর্টে এমন আবেদনও করা হয়।

গত ২৮ জানুয়ারি শ্রম আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে দায়ের করা মামলার রায় চ্যালেঞ্জ করে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ চারজনকে জামিন দেন শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেছেন আদালত। সেদিন শ্রম আদালতের দেয়া সাজাও স্থগিত করেন শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনাল।

এর আগে শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালে জামিন চেয়েছিলেন তিনি। সেই সঙ্গে শ্রম আইন লঙ্ঘন মামলার রায়ে ৬ মাসের সাজার বিরুদ্ধে ২৫টি যুক্তি দেখিয়ে খালাস চেয়ে আপিলও করেছিলেন। ওইদিন সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে আপিল করেন ড. ইউনূস।


আরও খবর