আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

মহাকালের ‘শিখণ্ডী কথা’র ৩ মঞ্চায়ন

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশে প্রথম হিজড়া সমাজের মানুষের সুখ-দুঃখ কথামালায় গাঁথা গবেষণালব্ধ নাটক c। মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের মানবিক জনপ্রিয় নাটকটির ৩টি মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নাটকটির ১৭৯ ও ১৮০তম মঞ্চায়ন মহিলা সমিতির ড. নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে ১৩ ও ১৪ মে এবং ১৫ মে ১৮১তম মঞ্চায়ন শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে অনুষ্ঠিত হবে।  নাটকটির ২০০তম প্রদর্শনীকে দ্বারপ্রান্তে রেখে এই মঞ্চায়নগুলো করা হচ্ছে। আনন জামানের রচনায় এর নির্দেশক রশীদ হারুন। 

নাটকটিতে অভিনয় করবেন- পলি বিশ্বাস, রিপন রনি, সম্রাট, সুরেলা নাজিম, মো. শাহনেওয়াজ, কানিজ ফাতেমা লিসা, সৈয়দ ফেরদৌস ইকরাম, শিবলী সরকার, কামরুজ্জামান সবুজ, বাহার সরকার, আনন জামান, ফারুক আহমেদ সেন্টু, বিথুন আহমেদ, সামিউল জীবন, শাহরিয়ার পলিন, স্বপ্নীল, সোহেল আহমেদ, ইকবাল চৌধুরী, রাসেল আহমেদ, তারক দাস, মো. আহাদ, নাবিল হাসান, রাকিব হাসান, মায়া, কোনাল আলী সাথী, শান্ত, নওশাদ, মনিরুল আলম কাজল ও মীর জাহিদ হাসান।

নাটকটির প্রথম প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয় ২০০২ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর মহিলা সমিতি মঞ্চে। এ নাটকের শততম মঞ্চায়ন হয়েছে ১৩ মার্চ, ২০১০ সালে। নাকটি নিয়ে মহাকাল ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে ৩টি প্রদর্শনী এবং কলকাতায় ৩টি প্রদর্শনী করেছে।            

নাটকের কাহিনীতে দেখা যাবে, যাকে নিয়ে নাট্যকাহিনী, যার সুখ-দুঃখ কথা ফুল হয়ে ফুটে উঠে নটনটীদের অঙ্গে উপাঙ্গে শাখা প্রশাখায়, যার বেদনা গীত হয়, সে এখন মায়ের গর্ভে বাঁকানো ত্বকের ছইয়ের নীচে ছোট্ট ভ্রূণ। এই ভ্রূণ জানেনা কৈশোরে সে পরিবার থেকে বিতাড়িত হবে, যৌবনে তার কামনা বাসনা পচবে গলবে নিজের ভেতরে, এক ভয়ানক বেদনায় নিজেকেই নিজে খুন করবার জন্য উন্মাদ হয়ে উঠবে, জীবন যন্ত্রণায় দগ্ধ হয়ে এ ভ্রূণ একদিন ঈশ্বরের মুখোমুখি দাঁড়াবে। এছাড়া সে সমাজের সভ্যজনদের সমবেত করে পরনের কাপড় টুকরো টুকরো করে ছিঁড়বে এই জনমেই। এই লিঙ্গ বৈষম্য মানুষের সুখ দুঃখ নিয়েই নাটক শিখণ্ডী কথা। তারা নারী না হোক, পুরুষ না হোক একজন স্বাভাবিক মানুষের সম্মান যেন পায়, এই অভিপ্রায় সামনে রেখেই মহাকাল প্রযোজনা শিখণ্ডী কথা বলে জানান এর নির্দেশক।

নিউজ ট্যাগ: শিখণ্ডী কথা

আরও খবর



পাথরঘাটায় এগিয়ে চলছে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর নির্মাণ কাজ

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন

Image

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি:

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় তৃতীয় পর্যায়ে সেমিপাকা ঘরের নির্মাণ কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ভূমিহীন পরিবারকে বিনামূল্যে জমি ও রঙিন টিন দিয়ে আধাপাকা ঘর করে দিচ্ছে সরকার। উপহারের ঘর গুলোতে থাকছে ২টি থাকার কক্ষ, ১টি রান্না ঘর, ১টি উন্নত টয়লেট ও ১টি বারান্দা। দেয়া হবে ঘরের জমি, বিদ্যুৎ। প্রতিটি ঘর ঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। উপহারের এ ঘর গুলো নির্মাণকাজ চলমান রয়েছে। কিছুদিনের মধ্যেই সেগুলো সুবিধাভোগীদের মধ্যে হস্তান্তর করা হবে।

সরেজমিনে দেখাযায়, পাথরঘাটা পৌর শহরের স্বাস্থ্য কম্পেলেক্সের পিছনে দুই সারিতে ৫১টি ঘরের নির্মাণ কাজ চলছে। ঘর গুলোর প্রায় ৯০ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করার জন্য উপজেলা প্রশাসনের তদারকিতে ব্যস্ততা নির্মাণ কর্মীদের।

পাথরঘাটা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের তথ্যানুযায়ী উপজেলায় প্রথম পর্যায়ে ২১টি ঘর বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রতিটি ঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছিল ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা, ২য় পর্যায়ে ৭৬টি ঘর বরাদ্ধ করা হয়েছে। এর মধ্য ৩১টি বাস্তবায়ন করা হয়েছে, ৪৫টি ঘরের কাজ প্রক্রিয়াধীন। ঘর গুলোর নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১লাখ ৯০ হাজার টাকা। তৃতীয় পর্যায়ে বরাদ্ধের ২১৫টি নির্মাণাধীন ঘরের প্রতিটি ঘরের ব্যয় ধরা হয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা।

পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ বলেন, তৃতীয় পর্যায়ের ঘরের নির্মাণ কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়নের জন্য সর্বদা সচেষ্ট। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষে প্রকৃত গৃহহীনদের মাঝে ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হবে।


আরও খবর



সাগরেই বিলীন হতে পারে ঘূর্ণিঝড় অশনি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৬০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঘূর্ণিঝড় নিয়ে আগেভাগে কিছু বলা যায় না। বঙ্গোপসাগর ফানেল আকৃতির হওয়ায় ঘূণিঝড়ের পূর্বাভাসের সমীকরণ মেলানো আরও জটিল। আর এই জটিলতার কারণে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর বিগত কয়েক বছর ধরে পর্যবেক্ষণ করে পূর্বাভাস দিয়ে আসছে এবং শেষ পর্যন্ত মিলছেও। ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর ও উইন্ডি সফটওয়্যারসহ অনেক মডেলকে ভুল প্রমাণ করে ভারতের বিশাখাপত্তম উপকূলের কাছে এসে ডান দিকে টার্ন নিচ্ছে অশনি। আর এতে তা সোজা বাংলাদেশের সাতক্ষীরা-খুলনা উপকূলের দিকে ধাবিত হওয়ার কথা। কিন্তু শক্তি হারিয়ে ফেলে তা ভুবনেশ্বরের কাছে এসেই দুর্বল হয়ে নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে।

ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তরের উপাত্ত অনুযায়ী, মঙ্গলবার ভোরে বিশাখাপত্তম উপকূলে এসে পৌঁছানোর পর তা ডান দিকে টার্ন নিয়ে সোজা উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হওয়ার কথা। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরও এমন গতিপথ দেখিয়েছে অশনির। ঘূর্ণিঝড়টি শক্তি হারিয়ে মঙ্গলবার মধ্যরাতের শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় থেকে ঘূর্ণিঝড় ঝড়ে রূপ নিতে পারে। দুর্বল হয়ে ঘূর্ণিঝড়টি উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে বুধবার গভীর নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে এবং বৃহস্পতিবার ভুবনেশ্বর উপকূলে আসার আগেই তা নিম্নচাপে পরিণত হয়ে সাগরে বিলীন হতে পারে। এবিষয়ে কথা হয় আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদের সঙ্গে। তিনি বলেন, যেহেতু মঙ্গলবার সকালে ঘূর্ণিঝড়টি দুর্বল হয়ে ডান দিকে বাঁক নেবে তখন সংকেত বাড়িয়ে তিন নম্বর করা হতে পারে। পরবর্তীতে ঝড়টি সাগরে যে কয়েকদিন থাকবে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত বহাল রাখা হতে পারে।

বাংলাদেশ উপকূলে বৃষ্টি ঝরাবে অশনি:

কিন্তু ডান দিকে বাঁক নিয়ে বাংলাদেশ উপকূলে কোনো প্রভাব পড়বে কিনা জানতে চাইলে বজলুর রশিদ বলেন, বাংলাদেশ উপকূল পর্যন্ত আসার শক্তি থাকবে না। তবে এর প্রভাবে দেশের দক্ষিণাঞ্চল সাতক্ষীরা, খুলনা ও বাগেরহাট উপকূলীয় ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া চট্টগ্রামসহ দেশের সমগ্র উপকূলীয় বৃষ্টি হতে পারে।

এবিষয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তর পতেঙ্গা কার্যালয়ের বিশ্বজিৎ চৌধুরী বলেন, ঝড়টি ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে যাচ্ছে। সে হিসেবে বিশাখাপত্তম ও ভুবনেশ্বরের মধ্যবর্তী এলাকায় তা বিলীন হয়ে যাওয়ার কথা। তবে এর প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় বৃষ্টি হতে পারে।

বৃষ্টি কতোদিন থাকতে পারে জানতে চাইলে বিশ্বজিৎ চৌধুরী বলেন, ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী নিম্নচাপ পর্যন্ত যতোদিন থাকবে ততোদিন থেমে থেমে বৃষ্টি হতে পারে। এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সোমবার সকালের পর থেকেই থেমে থেমে বৃষ্টি হয়েছে নগরীতে। এরমধ্যে বিকেলের পর আবার মুষলধারে বৃষ্টিও হয়েছে। আকাশে প্রচুর মেঘ।

ব্যতিক্রমী ঘূর্ণিঝড় অশনি:

৭ মে ভারত মহাসাগরের আন্দামান সাগরে সৃষ্ট হওয়া লঘুচাপটি দ্রুত সুস্পষ্ট লঘুচাপ, নিম্নচাপ, গভীর নিম্নচাপের পর ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। কিন্তু প্রথম দিকে যতো বড় আয়তন নিয়ে তা তৈরি হচ্ছিল শেষ পর্যন্ত তা আর থাকেনি। আর একারণে এর পূর্বাভাস গতিপথ নিয়ে আবহাওয়াবিদদের সমস্যায় পড়তে হয়েছে।

এ বিষয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রের আবহাওয়াবিদ শাহীনুল ইসলাম বলেন, ঝড়টি যেমন ভাবা হয়েছিল তেমন হয়নি। একারণে এর গতিপথ আবহাওয়াবিষয়ক একেক মডেলে একেক রকম আসছে। মঙ্গলবার সকালে হয়তো চূড়ান্তভাবে বলা যাবে তা কোনদিকে যাচ্ছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের ১০ নম্বর বিশেষ বুলেটিনের তথ্যমতে, ঘূর্ণিঝড় অশনি গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ১১০০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার থেকে ১০৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা থেকে ৯৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা থেকে ৯৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরো ঘনীভূত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশের উপকূলীয় এলাকার বন্দরগুলোকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। একইসাথে মাছ ধরার সকল নৌকা ও ট্রলারসমূহে উপকূলের কাছাকাছি নিরাপদে থাকতে বলা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ঘূর্ণিঝড় অশনি

আরও খবর



আসামির দায়ের কোপে পুলিশ কনস্টেবলের হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৫৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় পলাতক আসামিকে ধরতে গিয়ে তারই দায়ের কোপে হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এক পুলিশ কনস্টেবলের। রোববার সকাল ১০টার দিকে লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের লালারখিল এলাকায় এ ঘটনায় আরেক পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছেন।

কবজি বিচ্ছিন্ন হওয়া মো. জনি খান লোহাগাড়া থানায় কর্মরত। তাকে প্রথমে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলেও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলার পুলিশ সুপার এস এম রাশিদুল হক বলেন, সকালে লোহাগাড়া থানার একটি দল লালারখিল এলাকায় পলাতক আসামি ধরতে যায়। এ সময় আসামি কবির আহমদ পুলিশ সদস্যদের ওপর ধারালো দা দিয়ে হামলা করে পালিয়ে যায়। দায়ের আঘাতে কনস্টেবল জনির বাম হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয় এবং অপর একজন আহত হয়।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, পলাতক আসামি কবিরকে ধরতে ওই এলাকায় অভিযান চলছে। আহত অপর কনস্টেবল শাহাদাত হোসেন স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছেন।


আরও খবর



‘দাদাগিরি’র মঞ্চে জাহ্নবী, নাচলেন সৌরভের সঙ্গে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় রিয়ালিটি শো দাদাগিরি’। সঞ্চালনায় রয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সাবেক তারকা ক্রিকেটার সৌরভ গঙ্গুলি। প্রতি শনিবার এবং রবিবার রাতে জি বাংলার পর্দায় চোখ আটকায় অসংখ্য দর্শকের। রিয়ালিটি শো দাদাগিরি’ মানেই কোনো না কোনো বিশেষ চমক।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, সম্প্রতি জি বাংলার ইউটিউব চ্যানেলে আগামী পর্বের নতুন প্রোমো শেয়ার করা হয়েছে। আগামী ১৫ মে দাদাগিরি’র মঞ্চে হাজির হবেন বলিউড অভিনেত্রী জাহ্নবী কাপুর। দাদাগিরি’র এই বিশেষ পর্বে হাজির থাকবেন শ্রীদেবী কন্যা। সবুজ শাড়িতে দেখা যাবে তাকে। সৌরভ গঙ্গুলির সঙ্গে জাহ্নবীকে তার প্রথম ছবি ধড়ক’ এর গানে পা মেলাতে দেখা যাবে।

প্রমোতো দেখা যায়, সৌরভ গাঙ্গুলি মনে করিয়ে দেন এই মঞ্চে একসময় এসেছিলেন জাহ্নবীর বাবা তথা প্রযোজক বনি কাপুর। তার প্রয়াত মা তথা বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীদেবীও একসময় এই মঞ্চে এসেছিলেন। এবার মেয়ে এসে পুরো চক্রটা পরিপূর্ণ করলেন।

তবে শ্রীদেবী কন্যা কী একটুও বাংলা বলতে পারেন? দাদার প্রশ্নের উত্তরে জাহ্নবী বলেন, আমি শুধুমাত্র একটা লাইন বলতে পারি, তাহলো তাড়াতাড়ি করো।’ সঙ্গে সঙ্গে সৌরভ গাঙ্গুলি হাসি হাসি মুখে বলে ওঠেন, এই লাইনটাই সবাই বলতে পারে।


আরও খবর



সবাই ভাবত খারাপ কাজ করি: এনা সাহা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টলিউডের তরুণ অভিনেত্রী এনা সাহা। ছোটবেলা থেকেই শুরু করেছিলেন অভিনয়। বড় হওয়ার পর বেশ কয়েকটি সফল সিনেমায় কাজ করেছেন। কিছুদিন আগে শুরু করেছেন প্রযোজনাও। অল্প বয়সেই তিনি নিজেকে নানাবিধ পরিচয়ে মেলে ধরছেন। এনার বর্তমান অবস্থা দেখে অনুপ্রাণিত আরও অনেকে। কিন্তু তার ফেলে আসা দিনগুলো সহজ ছিল না। যখন অভিনয় শুরু করেছিলেন, তখন অনেকেই ভাবত তিনি খারাপ কাজ করেন। এজন্য তার সঙ্গে মিশতে চাইত না।

সম্প্রতি দিদি নাম্বার ওয়ান অনুষ্ঠানে এসে এনা সাহা নিজেই এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, খুব ছোট থেকেই অভিনয়ে। অভিভাবকেরা বুঝতে পারতেন না, এটা আমার পেশা। ভাবতেন, খারাপ কোনও কাজ করছি। তাই তাদের মেয়েদের মিশতে দিতেন না আমার সঙ্গে।

এ কারণে ছোটবেলায় এনার কোনো বন্ধু ছিল না। সে সময় একমাত্র পরিবারই তার পাশে ছিল। বিশেষ করে মায়ের শতভাগ সমর্থন পেয়েছিলেন অভিনেত্রী।

দিদি নাম্বার ওয়ানে এনার মা বনানী সাহা জানান, ছোটবেলা থেকে তার বড় মেয়ে নাচের অনুষ্ঠান করত। সেখান থেকেই ইন্ডাস্ট্রির নজরে আসে এনা। প্রযোজকরা বনানীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন এনাকে অভিনয়ে আনার জন্য। ২০১১ সালে সিনেমায় কাজ শুরু করেছিলেন এনা। তবে পরিচিতি পান ২০১২ সালের বোঝে না সে বোঝে না সিনেমায় অভিনয় করে। এরপর তার ঝুলিতে যুক্ত হয়েছে চিরদিনই তুমি যে আমার ২, রাজকাহিনী, ভূত চতুর্দশী, এসওএস কলকাতার মতো জনপ্রিয় সিনেমাগুলো। একসময় তার কোনো বন্ধু না থাকলেও এখন অনেকেই তার বন্ধু হতে চান, প্রেমিক হতে চান। ভালোবাসা দিবসে নাকি তাকে একসঙ্গে ১৪ হাজার ছেলে ভালোবাসি বলেছিল। অভিনেত্রীর ভাষ্য, যা হয়, তা ভালোর জন্যই হয়।

সম্প্রতি এনা অভিনয় করেছেন চিনে বাদাম নামের একটি সিনেমায়। এতে তার নায়ক যশ দাশগুপ্ত। সিনেমাটি প্রযোজনাও করছেন এনা। এছাড়া মাস্টার মশাই আপনি কিছু দেখেননি নামে আরেকটি সিনেমাও প্রযোজনা করছেন অভিনেত্রী।

নিউজ ট্যাগ: এনা সাহা

আরও খবর