আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

মিয়ানমারে সামরিক বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ১২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১০ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১০ জুন ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মিয়ানমারের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মানডালার নিকটবর্তী এলাকায় একটি সামরিক বিমান বিধ্বস্ত হয়ে অন্তত ১২ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকালে মানডালা সিটি ফায়ার সার্ভিস সামাজিকমাধ্যমে এক পোস্টের মাধ্যমে দুর্ঘটনাটির খবর দেয়। খবর রয়টার্সের।

মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর মালিকানাধীন মায়াওয়াদির প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, বিমানটি রাজধানী নাইপিদো থেকে পাইন ওও লুইন যাচ্ছিল। মানডালা শহরের পাশ্ববর্তী একটি স্টিল প্ল্যান্টের ৩০০ মিটার দূরে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। তবে এ ঘটনায় ওই এলাকার বেসামরিক কোনো বা স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্থ হয়নি বলে জানা গেছে। 

বিমানটিতে ছয়জন সামরিক কর্মকর্তা ছিলেন বাকিরা ক্রু। এসব কর্মকর্তরা একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পাইন ওও লুইনের প্রধান বৌদ্ধ মন্দিরে যাচ্ছিলেন।

বিমানটির ধ্বংসাবশেষ থেকে বেঁচে যাওয়া একজন পাইলট একজন যাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রা। পরে তাদেরকে সামরিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। 

প্রসঙ্গত, বিশ্বে দুর্বল বিমান নিরাপত্তার অন্যতম দেশ মিয়ানমার। দেশটিতে বিমান চলাচলে প্রায়ই ছোটখাট দুর্ঘটনা ঘটে।

চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি মাসে অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করেছে দেশটির সামরিক বাহিনী। সেই থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গণতন্ত্রপন্থিদের সংঘাত চলছে। এসব সংঘাতে এপ্রিল মাস পর্যন্ত অন্তত সাড়ে সাতশ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। 



আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




যুদ্ধে সৈনিক হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে শিশুদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ | ৪৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রায় আট হাজার ৫০০-এর বেশি শিশুকে ২০২০ সালে বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় চলমান যুদ্ধে সৈনিক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে এবং নিহত হয়েছে দুই হাজার ৬৭৪ জন।

সোমবার জাতিসংঘ থেকে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। অ্যান্তনিও গুতেরেস নিরাপত্তা পরিষদে শিশুবিষয়ক বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরেন।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২১টি যুদ্ধে ১৯ হাজার ৩৭৯ শিশুর অধিকার লঙ্ঘন করার ঘটনা ঘটেছে। আর এমন ঘটনা সবচেয়ে বেশি ঘটেছে সোমালিয়া, ডেমোক্র্যাটিক রিপাবলিক অব কঙ্গো, আফগানিস্তান, সিরিয়া ও ইয়েমেনে।

প্রতিবেদনে নিশ্চিত করা হয় আট হাজার ৫২১ শিশুকে ২০২০ সালে শিশু সৈনিক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে নিহত হয়েছে দুই হাজার ৬৭৪ শিশু। এ ছাড়া বিভিন্ন যুদ্ধে আহত হয়েছে পাঁচ হাজার ৭৪৮ শিশু।

প্রতিবেদনে একটি কালো তালিকা রাখা হয়েছে। যেখানে রয়েছে শিশু অধিকার ক্ষুণ্ন করছে যুদ্ধরত এমন গোষ্ঠী বা সংস্থার নাম। সে তালিকায় কখনও ইসরাইলের নাম না থাকায় বিতর্ক দেখা দেওয়াটাই স্বভাবিক। হয়েছেও তাই। অপরদিকে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোটকে ইয়েমেন যুদ্ধে শিশুদের অধিকার লঙ্ঘন করায় তালিকায় রাখা হয়েছিল। কিন্তু ২০২০ সালের কালো তালিকা থেকে জোটকে বাদ দেওয়া হয়।

এ ছাড়া তালিকায় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী এবং সিরিয়ার সরকারি বাহিনীকে শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় কালো তালিকায় স্থান দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




সিলেটে আবারও ভূমিকম্প অনুভূত

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ৩০ মে ২০২১ | ১২৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিলেটে আবারও মৃদু ভূমিকম্পন অনুভূত হয়েছে। রোববার (৩০ মে) রাত ৪. ৩৫ মিনিটে এ কম্পন অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে কতমাত্রা ছিলো এখনো জানা যায়নি

এর আগে, গতকাল শনিবার (২৯ মে) সকাল ১০টা ৩৬ মিনিট, ১০টা ৫১ মিনিট এবং বেলা সাড়ে ১১টায় তিনবার ভূকম্পন অনুভূত হয়। ঢাকার আবহাওয়া অফিস বলছে, প্রথম ভূমিকম্পের পর বাকিগুলো আফটার শক হয়েছে।

সিলেট আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, চারবার ভূকম্পন হয়েছে। এর উৎপত্তিস্থল সিলেট। এখানে রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের সর্বোচ্চ মাত্রা ছিল ৪ দশমিক ১। সর্বশেষ বেলা ২টায় ভূকম্পন অনুভূত হয়।

সিলেট আবহাওয়া অধিদফতরের প্রধান আবহাওয়াবিদ সাঈদ চৌধুরী বলেন, সিলেটে ৩ বার ভূমিকম্প হয়েছে। অনেকেই চারবার দাবি করলে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেছে, তিনবার ভূমিকম্প হয়েছে। ভূমিকম্পগুলোর উৎপত্তিস্থল সিলেট। এখানে রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের সর্বোচ্চ মাত্রা ছিল ৪ দশমিক ১।


নিউজ ট্যাগ: সিলেটে ভূকম্পন

আরও খবর



বলিউড অভিনেত্রী রিয়া সেন মানেই শরীরী অভিব্যক্তি

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৭৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বলিউড অভিনেত্রী রিয়া সেন মানেই শরীরী অভিব্যক্তি! তবে না, তারও মন রয়েছে। যে যত রকম ছবিই পোস্ট করুক না কেন সেক্সি তকমা যেন শুধু রিয়া সেনের জন্যই। মহা-নায়িকা সুচিত্রা সেনের এই ছোট নাতনি অনেকবার শালীন পোশাকে ছবি পোস্ট করলেও মন্তব্যের ঘরে জুটেছে মারাত্মক উষ্ণ শব্দমালা।

এ অভিনেত্রী যে কয়েকটি ওয়েব সিরিজ, সিনেমা করেছেন তাতেও তার চরিত্রে নামের পাশে রয়েছে ওই একই ট্যাগ। তবে কী এ কারণেই বলিউডকে বিদায় জানালেন রিয়া সেন?

গণমাধ্যমে তিনি জানান, অভিনয়ে আসার আগে থেকেই তার গায়ে এই তকমা। তার আফসোস, মাত্র ১৬ বছর বয়সে স্কুলে পড়ার সময় প্রথম শুনতে পান আমি সেক্সি! সেই ছোট সময় থেকেই যৌনতার এই তকমা বয়ে চলতে হয়েছে তার। আর এ কথা শুনতে শুনতে হাফিয়ে উঠতেন বলিউডের এই অভিনেত্রী।

অভিনয়ে ক্যারিয়ার শুরু করার পরও একই ঘটনা ঘটতে থাকে। তার ভাষ্যমতে, তখন তিনি অনেক ছোট। যা বলা হত তাই করতেন। ছোট পোশাক পরতেও রাজি হতেন। রূপসজ্জাও ভালো করতেন। এসবের মাধ্যমে তার যৌন আবেদন যে আরও জোরালো হত তা কখনোই বুঝতে পারেননি তিনি।

রিয়া সেন বলেন, এখন বুঝি, অনেকগুলো ছবিতে অভিনয়ের পরও কেন হাতেগোনা কয়েকটি ছবি দর্শকদের প্রশংসা লাভ করেছিল। সকলেই কেন বলতেন রিয়া বাজে অভিনেত্রী। শুধু যৌন আবেদনময়ী। দর্শক-সমালোচকদের কোনো দোষ নেই। প্রায় সকল ছবিতে আমাকে ওইভাবেই দেখানো হয়েছিল।

অভিনয় থেকে দূরে গিয়ে নিজের অভিনীত ছবি দেখে এখন নিজেই তা বুঝতে পারেন। সেই সঙ্গে লজ্জায় কুঁকড়ে যান। তার কাছে এখন মনে হয়, তিনি যা নন সেটাই তাকে দিয়ে পর্দায় ফুটিয়ে তোলা হয়েছ। অনেকেই মনে করেন পর্দা ও বাস্তবের রিয়া এক। তবে এটা যে সঠিক না তা কেউ বুঝতে পারেন না। এসব কারণে ভাবমূর্তি বদলানোর জন্য বলিউড থেকে সরে যান রিয়া সেন। 

নিউজ ট্যাগ: রিয়া সেন

আরও খবর



ভোলায় সেপটিক ট্যাংকে নেমে দুই শ্রমিকের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | ১১৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভোলা থেকে ইয়াছিনুল ঈমন

ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশায় আজ শনিবার সকালে নির্মাণাধীন সেপটিক ট্যাঙ্কির সেন্টারিং এর কাঠ খুলতে গিয়ে আবদুল মালেক ও জসিম দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়াও আরো ৩ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর ২ জনকে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ভোলার পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের জংসনের পন্ডিতের পোল এলাকায় নিরব বুলাই বাড়িতে রাজ শ্রমিক মালেক মিয়া গত ১ মাস আগে তার নিজের একটি সেফিটি ট্যাঙ্কি নির্মাণ করেন। আজ শনিবার সকালে আবদুল মালেক (৪৫) প্রথমে নিজেই সেপটিক ট্যাঙ্কির সেন্টারিং এর কাঠ খুলতে ভিতরে প্রবেশ করেন। তার সাড়া না পেয়ে এর পর জসিম (৪০), কবির (৩৫) ও সাহাবুদ্দিন (২১) নামে আরো ৩ রাজ শ্রমিক ট্যাঙ্কির ভিতরে গেলে বিষাক্ত গ্যাসের আক্রান্ত হন। এসময় মো: নবী (৪৫) অপর এক শ্রমিক উদ্ধার করতে গিয়ে ডাক চিৎকার দিয়ে তিনিও অসুস্থ পড়েন। খবর পেয়ে স্থানীয়রা বিষাক্ত গ্যাসে আক্রান্ত অবস্থায় ৫ জনকে উদ্ধার করেন। এদের মধ্যে ৪ আশংকাজনক অবস্থায় ৪ জনকে ভোলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে মেডিক্যাল অফিসার ডা: আমানউল্লাহ মালেক ও জসিম নামে ২ জনকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া কবির ও সাহাবুদ্দিন ভোলা সদর হাসপাতালে ও মো: নবী বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।


আরও খবর
ভোলার মেঘনায় ফেরিতে আগুন, পুড়ল ৮ ট্রাক

বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১




ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপন করেছিলেন আবু ত্ব-হা

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার আবু মারুফ হোসেন বলেছেন, সরকারকে বা দেশের মানুষকে বিব্রত করতে আত্মগোপন করেননি আবু ত্ব-হা। এটা উদ্দেশ্যমূলক নয়। এখন পর্যন্ত এটা মনে হয়নি। এত কিছু ভেবে তিনি এটা করেননি।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ডিবি কার্যালয়ে ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার জানান, আবু ত্ব-হা শিক্ষিত ছেলে। তাই সে ফোন বন্ধ করে রেখেছিল। সে জানে তার ফোন যদি অন করা হয় তাহলে তাকে শনাক্ত করা যাবে। তাই সে ফোন সুইচড অফ করে রেখেছিল। তারা সবাই একসঙ্গে ছিলেন। একই বাড়িতে ছিলেন।

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, ১০ জুন নিখোঁজের সময় ত্ব-হা রাজধানীর মিরপুরে অবস্থান করছিলেন। তখন রাত ২টা ৩৭ মিনিট। সর্বশেষ কথা হয়েছিল তার দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিকুন নাহার সারার সঙ্গে। এরপর থেকে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। পরে সেখান থেকে ব্যক্তিগত প্রাইভেট কারে রংপুরের উদ্দেশে রওয়ানা দেন।

তিনি জানান, ত্ব-হার বাড়ি রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল রোডের আহলে হাদিস মসজিদ এলাকায়। তবে তিনি প্রথম স্ত্রী হাবিবা নূর, দেড় মাসের ছেলে ও তিন বছরের মেয়েকে নিয়ে শালবন মিস্ত্রিপাড়া চেয়ারম্যান গলিতে ভাড়া বাসায় থাকেন। নিখোঁজের বেশ কিছুদিন আগে তিনি নগরীর মাস্টারপাড়ায় বাবার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন।

এর আগে ইসলামি বক্তা হিসাবে পরিচিত আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান শুক্রবার ফিরে এসেছেন। ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপন করেছিলেন বলে তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন। শ্বশুরবাড়িতে ফিরে আসার পর পুলিশ তাকে হেফাজতে নেয়। এছাড়া তার তিন সঙ্গীকেও হেফাজতে নেওয়া হয়।

রাতেই রংপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কেএম হাফিজুর রহমানের আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেওয়ার পর নিজ নিজ জিম্মায় তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

তার সফর সঙ্গী ছিলেন- বগুড়া জেলার শিবগঞ্জের বাসিন্দা মোহাম্মদ ফিরোজ আলম, গাড়িচালক রংপুর নগরীর উত্তর আশরতপুরের বাসিন্দা আমির হোসেন ফয়েজ ও রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার জায়গীর কাফ্রিখাল এলাকার বাসিন্দা আব্দুল মুহিত। তারা ঢাকা থেকে গাইবান্ধায় যান।

সেখানে ত্রিমোহনী এলাকায় বন্ধু সিয়াম ইসলামের বাসায় ওঠেন ত্ব-হা ও তার সঙ্গীরা। সেখানেই এতদিন আত্মগোপন করে ছিলেন তারা।

শুক্রবার সকালে গাইবান্ধা থেকে তারা তিনজন রংপুরে আসেন।

পথে মিঠাপুকুরের জায়গীর কাফ্রিখালে আব্দুল মুহিতকে নামিয়ে দিয়ে আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান গাড়িচালকসহ দুপুর সাড়ে ১২টায় রংপুরে শ্বশুরবাড়িতে প্রথম স্ত্রীর কাছে ফিরে আসেন।

ডিবি পুলিশ খবর পেয়ে বেলা ৩টায় নগরীর আবহাওয়া অফিসসংলগ্ন মাস্টারপাড়ায় শ্বশুর আজহারুল ইসলামের বাসা থেকে ত্ব-হাকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যায়। পরে গাড়িচালকসহ অপর দুই সঙ্গীকে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

 


আরও খবর