আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

মৃত্যুর খুব কাছাকাছি যাওয়ার অনুভূতি কেমন, জানালেন মার্কিন চিকিৎসক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৃত্যু মানব জীবনের একটি রহস্যময় অংশ। মৃত্যুর জীবনের অস্তিত্ব আছে কি না, তার উত্তর খুঁজে পেতে চলছে বৈজ্ঞানিক গবেষণাও। এ নিয়ে বিশদ এক গবেষণার পর সম্প্রতি নিজের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের একজন চিকিৎসক। জেফরি লং নামের ওই চিকিৎসকের দাবি, মৃত্যুর পরও জীবন আছে। এতে কোনো সন্দেহ নেই।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ইনসাইডারের প্রতিবেদনে বলা হয়, জেফরি লং যুক্তরাষ্ট্রের কেনটাকি রাজ্যের একজন খ্যাতনামা ক্যানসার বিশেষজ্ঞ। মৃত্যু নিয়েও বহুদিন ধরে গবেষণা করছেন তিনি। নিয়ার-ডেথ এক্সপেরিয়েন্স রিসার্চ ফাউন্ডেশন নামে একটি প্রতিষ্ঠানও গড়ে তুলেছেন। ১৯৯৮ সাল থেকে এখন পর্যন্ত পাঁচ হাজারের বেশি মৃতপ্রায় রোগী নিয়ে গবেষণা করার পর লং বলেন, নিঃসন্দেহে মৃত্যুর পরেও জীবন রয়েছে।

গবেষণায় লং পৃথক পৃথকভাবে প্রত্যেক ব্যক্তির গল্প শুনেছেন এবং সেগুলো বৈজ্ঞানিকভাবে বিশ্লেষণ করেছেন তিনি। তাঁর মতে, নিয়ার-ডেথ এক্সপেরিয়েন্স হলো একটি স্পষ্ট অভিজ্ঞতা, যা প্রকৃত মৃত্যু বা আসন্ন মৃত্যুর আগে মানুষের চেতনার সঙ্গে সম্পর্কিত।  গবেষণায় ৪৫ শতাংশ মৃতপ্রায় ব্যক্তি অন্য এক জগতে যাওয়ার কথা উল্লেখ করেছেন।

আরও পড়ুন>> ক্যান্সার প্রতিরোধী জাদুকরী গুণাগুণ রয়েছে করোসল ফলে

গবেষণায় অনেকেই অদ্ভুত এক টানেল বা সুড়ঙ্গের মধ্য দিয়ে পার হওয়ার অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন, যার শেষ প্রান্তে উজ্জ্বল আলো দেখা গেছে। এরপর সেই জগতে তারা আগেই মারা গেছে এমন প্রিয়জনের সাক্ষাৎ পাওয়ার কথা জানিয়েছেন।

জেফরি বলেছেন, অনেকে শৈশব, কৈশোর ও যৌবনের সব ঘটনা দেখতে পাওয়ার দাবি করেছেন। বেশিরভাগ মানুষই অপরিমেয় ভালবাসা ও চূড়ান্ত শান্তি অনুভবের কথাও জানিয়েছেন। এই সময় তাদের এমন অনুভূতি হয়েছে যে, এই জগতই তাদের আসল বাড়ি।

মার্কিন এই চিকিৎসক জানিয়েছেন, তিনি এর কোনো বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা খুঁজে পাননি।  মৃত্যু নিয়ে গবেষণা করা অনেক গবেষকই জেফরির গবেষণার সঙ্গে একমত হয়েছেন।


আরও খবর



বিদেশে কারাগারে আটক ৯৩৭০ বাংলাদেশি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কারাগারে ৯ হাজার ৩৭০ বাংলাদেশি প্রবাসী-শ্রমিক আটক রয়েছে। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি বন্দি সৌদি আরবের কারাগারে।

সোমবার জাতীয় সংসদে মোহাম্মদ হুছামুদ্দীন চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী এ প্রসঙ্গে আরও বলেন, বহির্বিশ্বের কারাগারে আটকদের বিষয়ে মিশনগুলো থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী পর্তুগালে একজন, মিশরে ছয়জন, ইতালিতে ৮১ জন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ৩৮৫ জন, কোরিয়ায় ছয়জন, শ্রীলঙ্কায় তিনজন, কাতারে ৪১৫ জন, লিবিয়ায় নয়জন, স্পেনে ১৯ জন, হংকংয়ে ১২২ জন, সিঙ্গাপুরে ৬৬ জন, ব্রুনাইয়ে ১৬ জন, চীনের বেইজিংয়ে ১৮৪ জন, কুনমিংয়ে সাতজন, আবুধাবিতে ৪০৪ জন, ইন্দোনেশিয়ায় ৪৯ জন, সৌদি আরবে ৫ হাজার ৭৪৬ জন, মালয়েশিয়ায় ২১৯ জন, আলজেরিয়ায় একজন, থাইল্যান্ডে চারজন, লেবাননে ২৮ জন, গ্রিসে ৪১৪ জন, ইরাকে ২১৭ জন, তুর্কিতে ৫০৮ জন, মিয়ানমারে ৩৫৮ জন, জাপানে দুজন, জর্ডানে ১০০ জন আটক রয়েছেন।

বিদেশের কারাগারে আটক প্রবাসীদের মুক্তির ব্যাপারে সরকারের পদক্ষেপ ও তা বাস্তবায়নের অগ্রগতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, গত বছরের জুলাই থেকে চলতি মাস পর্যন্ত মোট এক হাজার ২২৬ বাংলাদেশিকে লিবিয়া থেকে, ফ্রান্স ও ইউরোপের অন্য দেশের জেলখানা থেকে ৫১ জনকে প্রত্যাবাসন করা হয়েছে।

এছাড়া ভারত, মিয়ানমার ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের জেলখানা থেকে আরও এক হাজার ৯৫০ জনকে ফেরত আনা হয়েছে।


আরও খবর



সত্য তথ্য দিয়ে অপতথ্য ও ভুল তথ্যকে চ্যালেঞ্জ জানাতে চাই : আরাফাত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সত্য তথ্য দিয়ে অপতথ্য ও ভুল তথ্যকে চ্যালেঞ্জ জানাতে চান বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিজ দপ্তর কক্ষে বাংলাদেশ সফররত জার্মানীর বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের সাক্ষাৎকার প্রদানকালে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান।

জার্মানীর বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিক রিচার্ড বাইল, মাইকেল স্ট্যাং, সুসান ক্রুটজম্যান, আলজোসা হার্টম্যান, জুলিয়া থেরাস হেল্ড, নাটালি মেরোথ, বেঞ্জামিন বার্ন্ড থমাস এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

রিপোর্টার্স উইদাইট বর্ডারস (আরএসএফ) প্রকাশিত ২০২৩ সালের প্রতিবেদন ও র‌্যাংকিং এর জবাব প্রদান সংক্রান্ত জার্মান সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি আমি আরএসএফ ওয়েবসাইটে প্রকাশিত  প্রতিবেদন ও র‌্যাংকিং এর ব্যাপারে সমালোচনা নয় বরং প্রকৃত তথ্য তুলে ধরেছি। কারণ ২০২৪ সালেও এটি তাদের ওয়েবসাইটে আছে। আরএসএফ এর প্রতিবেদনে অনেক ভুল তথ্য আছে এবং এর বিপরীতে প্রকৃত সত্য আমি তথ্য-প্রমাণসহ গণমাধ্যমে তুলে ধরেছি এবং এ সংক্রান্ত একটা চিঠি আরএসএফ-কে পাঠিয়েছি। আমাদের উদ্দেশ্য আরএসএফ এর কাছে সত্য তুলে ধরা এবং আমাদের নিয়ে করা র‌্যাংকিং পুনর্মূল্যায়ন করা।

এ সময় তিনি আরও বলেন, মাঝে মাছে কিছু মানুষ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে খারাপ উদ্দেশ্যে সরকারের কাজের সমালোচনা করে। বর্তমান সরকার গঠনমূলক সমালোচনা স্বাগত জানায়। আমরা শুধু অপতথ্য ও ভুল তথ্য প্রতিরোধ করতে চাই। গণমাধ্যম সঠিক তথ্য-প্রমাণসহ সরকারের সমালোচনা করলে সেটি সরকারকে সহযোগিতা করে। কিন্ত ভুল তথ্য দিয়ে কোনকিছুর সমালোচনা করলে সেটা কাউকে সহযোগিতা করে না।

সাক্ষাৎকার প্রদানকালে তিনি আরও যোগ করেন, ডিজিটাল দুনিয়া থেকে জনগণকে নিরাপদ রাখার জন্য সরকার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করেছে। এর অপব্যবহার নিয়ে সমালোচনা হওয়ায় সরকার এটি পরিবর্তন করে সাইবার নিরাপত্তা আইন করেছে। এটিই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের সৌন্দর্য। তাঁর সরকার সবসময় চাহিদার নিরিখে সবকিছুর সমন্বয় করে, পরিবর্তন করে।  

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত এক প্রশ্বের জবাবে এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশ। বাংলাদেশ ডেল্টাকে রক্ষার জন্য বাংলাদেশ ১০০ বছরের ডেল্টা প্ল্যান প্রণয়ন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জলবায়ু উদ্বাস্তুদের জন্য গৃহ নির্মাণ করে দিচ্ছে। বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় আরও গবেষণা করা প্রয়োজন। এ বিষয়ে বাংলাদেশ সব সময় আন্তর্জাতিক ফোরামে জোরালো বক্তব্য তুলে ধরে আসছে। জলবায়ু ঝুঁকি মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আরও সহযোগিতা ও বাস্তবসম্মত সমাধানে আসা প্রয়োজন।

রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে এ সময় মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেন, রোহাঙ্গিদের প্রতি বাংলাদেশ সর্বোচ্চ সহানুভূতি দেখিয়েছে। বর্তমানে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিকরা বাংলাদেশের মতো ঘনবসতিপূর্ণ দেশের জন্য বড় ধরণের চাপের কারণ। বাংলাদেশ চায় রোহিঙ্গারা তাদের নিজ দেশে সম্মানজনকভাবে ফিরে যাক। গোটা বিশ্বের রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের নিয়ে দায়িত্ব রয়েছে। মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তনের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে উন্নত রাষ্ট্রসমূহের ভূমিকা নেয়া উচিত। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উচিত এ বিষয়ে মিয়ানমারের উপর চাপ অব্যাহত রাখা। তাছাড়া যেসব দেশের সামর্থ্য আছে তারা নিজ নিজ দেশে নিয়ে গিয়ে রোহিঙ্গাদের উন্নত জীবনযাপনে সহযোগিতা দিতে পারে।


আরও খবর



চট্টগ্রাম-২ আসনের এমপি সনির সংসদ সদস্য পদ বাতিল চেয়ে রিট

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের হলফনামায় ব্যাংক ঋণের তথ্য গোপনের অভিযোগে চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের বিজয়ী খাদিজাতুল আনোয়ার সনির সংসদ সদস্য পদ বাতিল ছাড়াও আসনটিতে পুনর্নির্বাচনের জন্য মামলা করা হয়েছে। একই আসনের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি-বিএসপির চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমেদ এ মামলা করেছেন। রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহ্আলম অভি জানান, নির্বাচনী হলফনামায় খেলাপি ঋণ সংক্রান্ত অর্থঋণ আদালতের মামলাসহ ৮টি ব্যাংক ঋণের তথ্য গোপন করে প্রতারণামূলকভাবে সংসদ সদস্য পদে নির্বাচন করেছেন খাদিজাতুল আনোয়ার সনি। রোববার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

গত ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী খাদিজাতুল আনোয়ার সনি পেয়েছেন ১ লাখ ৩৭০ ভোট। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ও তরমুজ প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী হোসাইন মো. আবু তৈয়ব পেয়েছেন ৩৬ হাজার ৫৮৭ ভোট।

এছাড়াও নির্বাচনে অন্যদের মধ্যে একতারা প্রতীকে সুপ্রিম পার্টির চেয়ারম্যান সাইফুদ্দিন আহমদ মাইজভান্ডারী ৩ হাজার ১৩৮ ভোট, ঈগল প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ শাহাজাহান ২৫৭ ভোট, মোমবাতি প্রতীকে মো. হামিদুল্লাহ ১ হাজার ৫২৫ ভোট, চেয়ার প্রতীকে মীর ফেরদৌস আলম ৫২৫ ভোট, ফুলকপি প্রতীকে রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী ৩১৩ ভোট এবং লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টির মো. শফিউল আজম ২৫৫ ভোট পেয়েছেন। আর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানো ১৪ দলীয় জোট নেতা ও এই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ফুলের মালা প্রতীকের প্রার্থী সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী পেয়েছেন ২১৩ ভোট।

ফটিকছড়ি উপজেলায় ১৮টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় মোট ১৪২টি ভোট কেন্দ্রে ৪ লাখ ৫৬ হাজার ৪৮৭ জন ভোটার রয়েছেন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৩৯ হাজার ৯০২ জন ও নারী ভোটার ২ লাখ ১৬ হাজার ৫৮২ জন।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ভারতে মার্কিন দূতাবাস উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারতের মুম্বাইয়ে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন এক অজ্ঞাত ব্যক্তি। দূতাবাসের অফিসিয়াল ইমেইলে এই হুমকি দিয়ে বেনামে একটি বার্তা পাঠানো হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইতোমধ্যে বান্দ্রা কুরলা পুলিশ এই ঘটনায় মামলা লিপিবদ্ধ করেছে। শনিবার স্থানীয় সময় দিবাগত রাত ৩টা ৫০ মিনিটের দিকে ইমেইলটি পাঠানো হয়।

পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ভারতীয় পেনাল কোডের ৫০৫ (১) ও ৫০৬ (২) ধারা অনুযায়ী অজ্ঞাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ইতোমধ্যে তদন্তও শুরু হয়েছে।

ইমেইলে ওই ব্যক্তি নিজেকে নির্বাসিত মার্কিন নাগরিক হিসেবে পরিচয় দেন। তিনি মার্কিন দূতাবাস বোমা দিয়ে উড়িয়ে সবাইকে হত্যার হুমকি দেন।


আরও খবর



টাঙ্গাইলে বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী মা‌ ও ছেলে নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

টাঙ্গাইলে বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী মা ও ছেলে নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার ঝাওয়াইল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হচ্ছেন, উপজেলার ঝাওয়াইল ইউনিয়নের মৃত কামরুজ্জামান তোতার স্ত্রী চায়না বেগম (৪৮) ও তাঁর ছেলে শাকিব মিয়া (১৯)।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইমদাদুল ইসলাম তৈয়ব জানান, সকালে শাকিব তাঁর মাকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে গোপালপুর উপজেলা সদরে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাঁরা ঘটনাস্থলে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামী একটি বাসের সঙ্গে মোটরসাইকেলটির ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই মা-ছেলে নিহত হন। বাসটি আটক করা হলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে যান।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪