আজঃ বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

মৎস্যসম্পদের বহুমুখী ব্যবহারের ক্ষেত্র সৃষ্টি করতে হবে : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৩১৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশকে উন্নত-সমৃদ্ধ করার জন্য মৎস্যসম্পদের বহুমুখী ব্যবহারের ক্ষেত্র সৃষ্টি করতে হবে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি। শুক্রবার (০৩ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মৎস্য ভবনে মৎস্য অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২১ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী একথা জানান।


এ বিষয়ে মন্ত্রী আরো বলেন, মৎস্যসম্পদের বহুমুখী ব্যবহারের ক্ষেত্র সৃষ্টির জন্য আমাদের কাজ করতে হবে। শুধু ভাতের সাথে মাছ খাওয়া নয়, মাছ থেকে কী কী পণ্য তৈরি করা যায় সেটা নিয়ে গবেষণা করতে হবে। পৃথিবীর অনেক দেশে মৎস্য ও মৎস্যজাতীয় জলজ সম্পদ থেকে বিভিন্ন বেকারি পণ্য তৈরি হচ্ছে। মাছ থেকে চিপস, ফিস বল বা অন্যান্য খাবার তৈরি করা যেতে পারে। মাছের বহুবিধ ব্যবহারে মানুষকে আকৃষ্ট করতে হবে। অনেকে স্বাভাবিকভাবে মাছ খায়না কিন্তু রেস্তোরায় মাছ দিয়ে তৈরি খাবার খেতে চায়। পুষ্টি চাহিদা পূরণে এক প্রক্রিয়ায় মাছ না খেলে মানুষকে অন্য প্রক্রিয়ায় খাওয়াতে হবে। আমরা চাই মাছের বহুমুখী পণ্যের বিকাশ হোক।


দেশের বাইরে থেকে আমদানি করা মৎস্য খাদ্য উপকরণ দেশে তৈরির শিল্প স্থাপনে বেসরকারি খাতকে এগিয়ে আসার জন্য এ সময় আহ্বান জানান মন্ত্রী। কর অব্যাহতি সুযোগসহ রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে যে ধরনের সহযোগিতা লাগবে তা দেওয়া হবে বলেও এসময় আশ্বস্ত করেন তিনি। আমাদের মৎস্যসম্পদ বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় কোন অংশে কম নয় উল্লেখ করে দেশের সমুদ্র অঞ্চল, বদ্ধ জলাশয় ও উন্মুক্ত জলাশয়সহ মৎস্য চাষ উপযোগী সব ক্ষেত্রের সর্বোচ্চ ব্যবহারের জন্য সৃজনশীল কাজ করার উপর গুরুত্বারোপ করেন মন্ত্রী।


এ সময় মন্ত্রী বলেন, মৎস্য খাতের যে কোন সমস্যা সমাধানে সরকারের পক্ষ থেকে যা কিছু করণীয় সেটা করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চান তাঁর সরকার আমলে মৎস্য খাত বিকশিত হোক। সেজন্য তিনি এ খাতে সকল সহযোগিতার দ্বার উন্মুক্ত করে দিয়েছেন। মৎস্যজীবী নয় এমন মানুষের কার্ড বাতিল করে প্রকৃত মৎস্যজীবীদের কার্ড দেয়া এবং তাদের কাছে যথাযথভাবে সরকারি সহযোগিতা পৌঁছে দেওয়ার ব্যাপারে পূর্বের চেয়ে বেশি গুরুত্বারোপ করে আমরা কাজ করছি।


এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, বিদেশে মৎস্য রপ্তানির ক্ষেত্রে দেশের স্বার্থে রপ্তানির সাথে সংশ্লিষ্টদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। যাতে কোন রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান জাল সনদ অথবা রাসায়নিক মিশ্রিত মৎস্য রপ্তানি না করে। মৎস্য খাতে কিছু অসাধু ব্যক্তির কারণে ভালো কাজ করা ব্যক্তিরা ক্ষতিগ্রস্ত হন। তাদের বিরুদ্ধে তথ্য দিলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ খাতে ভালো কাজ করা ব্যক্তিদের আমরা সহযোগিতা করতে চাই।


এ সময় তিনি বলেন, মৎস্য খাত সংশ্লিষ্টদের উদ্বুদ্ধ করা, উচ্ছ্বসিত করা ও কাজে সম্পৃক্ত করা, এ খাতের প্রতি জনগণকে আগ্রহী করে তোলা এবং এ খাতের সমস্যা চিহ্নিত করে তা সমাধানের মাধ্যমে খাতটিকে গতিশীল করার জন্য প্রতি বছর মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন করা হয়। পাশাপাশি এ খাতে উদ্ভাবনকে উৎসাহিত করাও মৎস্য সপ্তাহের অন্যতম লক্ষ্য। করোনায় সৃষ্ট বেকারত্ব দূর করতে মৎস্য খাত গুরুত্বপূর্ণ একটা ক্ষেত্র হতে পারে। এ কারণে এ বছর মৎস্য সপ্তাহে বিষয়টিকে প্রতিপাদ্য হিসেবে রাখা হয়েছে।


মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস আফরোজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য ও জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২১ উদযাপনের সাথে সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের বাস্তবায়িত কার্যক্রম তুলে ধরেন মৎস্য অধিদপ্তরের পরিচালক (অভ্যন্তরীণ মৎস্য) আজিজুল হক। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনিস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, মৎস্য অধিদপ্তরের বরিশাল বিভাগের উপপরিচালক মোঃ আনিছুর রহমান তালুকদার, যশোর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আনিছুর রহমান, ফিড ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ এর সদস্য সচিব মোঃ আহসানুজ্জমান, বাংলাদেশ ফ্রোজেন ফুড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আমানউল্লাহ, বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি সাইদুর রহমান অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ২০৪১ সালের মধ্যে মাছের উৎপাদন দ্বিগুণ করার প্রত্যয়ের কথা জানান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ। 


মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শ্যামল চন্দ্র কর্মকার ও মোঃ তৌফিকুল আরিফসহ মন্ত্রণালয় ও মৎস্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকতাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া মাঠ পর্যায়ের মৎস্য কর্মকর্তাগণ ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন।



আরও খবর
কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নতুনভাবে ভাবতে হবে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




মারা গেছেন আলজেরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট বুতেফ্লিকা

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আলজেরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট আবদেল আজিজ বুতেফ্লিকা মারা গেছেন। ৮৪ বছর বয়সী বুতেফ্লিকা শুক্রবার শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দুই দশক ধরে দেশটি শাসন করেছেন। পঞ্চম মেয়াদে দায়িত্ব গ্রহণের কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ব্যাপক বিক্ষোভ ও সামরিক বাহিনীর চাপে ২০১৯ সালের এপ্রিলে ক্ষমতা থেকে সরে যান। তাঁর মৃত্যুর খবর ঘোষণা করেছে দেশটির সরকারি টেলিভিশন।

ক্ষমতা ছেড়ে দেয়ার পরে জনসাধারণের দৃষ্টির বাইরে পশ্চিম আলজিয়ার্সে নিজ বাসভবনে কাটিয়েছেন তিনি। এক দশকের গৃহযুদ্ধের পর বুতেফ্লিকা ১৯৯৯ সালে প্রাক্তন ফরাসি উপনিবেশ হিসাবে আলজেরিয়ার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এই গৃহযুদ্ধে প্রায় ২ লাখ লোকের মৃত্যু হয়েছে।

শান্তি প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখার জন্য আলজেরিয়রা তাকে বুতেফ বলে অভিহিত করেছেন। প্রাথমিকভাবে তিনি সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেন। এতে উদ্ভুদ্ধ হয়ে হাজার হাজার ইসলাম পন্থী তাদের অস্ত্র সমর্পন করে।


আরও খবর
বিশ্বজুড়ে বেড়েছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




কেন সূর্যাস্তের আগে ফল খাওয়া উচিত

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফল ভিটামিন এবং খনিজের অন্যতম সেরা উৎস। প্রতিদিন তাজা অন্তত দুটি ফল খেলে তা আপনাকে সুস্থ এবং ফিট রাখতে সাহায্য করবে। ফল খেলে তা ওজন কমাতে সাহায্য করে, শরীরের ক্রিয়াকলাপ বজায় রাখে এবং দীর্ঘস্থায়ী রোগের ঝুঁকি কমাতে কাজ করে। খাবার থেকে সর্বোচ্চ পুষ্টি গ্রহণের জন্য খাবারের তালিকা মেনে খাওয়ার পাশাপাশি ফলও নির্দিষ্ট সময়ে খাওয়া উচিত। বিশেষজ্ঞদের মতে, দিনে একবাটি তাজা ফল আপনাকে সুস্থ রাখবে। তবে তা খেতে হবে সূর্যাস্তের আগেই।

কেন সূর্যাস্তের আগে ফল খাওয়া উচিত :

লাইফস্টাইল এবং ওয়েলনেস কোচ লুক কৌতিনহো সম্প্রতি তার ইনস্টাগ্রামে তার অনুসারীদের জানান, কেন সূর্যাস্তের আগে ফল খাওয়া উচিত। লুক লিখেছেন যে, প্রাচীন ভারতীয় চিকিৎসা পদ্ধতি অনুসারে সন্ধ্যায় ফল খেলে তা ঘুমের সময়সূচি এবং হজম প্রক্রিয়াকে ব্যাহত করতে পারে।

বেশিরভাগ ফলই সাধারণ কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ। এর অর্থ হলো, সেগুলো ভেঙে ফেলা যায়। ফল দ্রুত শক্তির একটি দুর্দান্ত উত্স, তবে এটি রক্তে শর্করার মাত্রাও বাড়িয়ে তোলে। রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধির কারণে এটি ঘুমকে ব্যাহত করতে পারে। এছাড়া, সূর্যাস্তের পর আমাদের বিপাক ধীর হয়ে যায় এবং কার্বস হজম করা কঠিন হয়ে পড়ে। সুতরাং, কার্বোহাইড্রেট খাওয়া সীমিত করা ভালো।


আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

আজ প্রথম প্রেম দিবস

শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১




১২ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুল-কলেজ খোলা: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। শুক্রবার শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের সব মেডিকেল কলেজ খুলবে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি থাকায় শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় নিয়ে সরকার ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে। পরে কয়েক দফা চেষ্টা করেও এই মহামারির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো আর খোলা সম্ভব হয়নি। দীর্ঘ দিন ধরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে।

চলমান এই ছুটি আরেক দফা বাড়ানো হয়েছে। সে অনুযায়ী, আগামী ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলমান ছুটি অব্যাহত থাকবে। সম্প্রতি সচিব সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্রুত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশ দেন। এরপর থেকেই জোরেশোরে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন সংশ্লিষ্টরা।


আরও খবর



স্কুল-কলেজে দিনে কত বিষয়ের ক্লাস হবে জানালো মাউশি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

২০২১ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সপ্তাহে ছয়দিন, ২০২২ সালের পরীক্ষার্থীদের দুইদিন ও সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার অন্যান্য স্তরে ক্লাস নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার স্কুল-কলেজের প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করে একটি মৌলিক রুটিন প্রণয়ন করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। আজ মঙ্গলবার বা আগামীকাল বুধবার এটি মাউশির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হতে পারে বলে জানা গেছে।

আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কবে কোনদিন কাদের ক্লাস নেওয়া হবে সে বিষয়ে একটি মৌলিক রুটিন তৈরি করা হয়েছে। এটি অনুসরণ করে সারাদেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শ্রেণিপাঠ পরিচালনা করতে হবে। শিক্ষকরা মৌলিক ক্লাস রুটিনকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। এটি অনুসরণ করে তারা ক্লাস করাতে সম্মতি প্রকাশ করেছেন।

নতুন ক্লাস রুটিনে দেখা গেছে, ২০২১ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সপ্তাহে শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার দুটি বিষয়ের চারটি ক্লাস নেওয়া হবে। ২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের শনিবার ও রোববার দুটি বিষয়ের চারটি ক্লাস হবে। এছাড়া ষষ্ঠ শ্রেণির ক্লাস সোমবার, সপ্তম শ্রেণির মঙ্গলবার, অষ্টম শ্রেণির বুধবার ও নবম শ্রেণির ক্লাস বৃহস্পতিবার নেওয়া হবে। মাধ্যমিকের সকল স্তরে প্রতিদিন দুটি বিষয়ের চারটি করে ক্লাস করানো হবে।

তিনি বলেন, করোনার মধ্যে আমরা কীভাবে, কখন ও কতক্ষণ ক্লাস নেবো তা নিয়ে একধরনের দুশ্চিন্তা তৈরি হয়েছিল। বর্তমানে সেটি কেটে গেছে। আমাদের নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে শ্রেণিতে পাঠদান শুরু করতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তা করতে হবে।

দেখা গেছে, স্কুল-কলেজে প্রভাতী শিফট সকাল সাড়ে ৭টায় শুরু হয়ে বেলা ১১টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত ও দিবা ১২টা ৪০ মিনিটে শুরু হয়ে ৪টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত চলবে। একটি শিফট শেষে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কাজের জন্য এক থেকে দেড় ঘণ্টা বিরতি দিতে হবে। শিক্ষার্থীদের প্রতিটি আগের নিয়মে ক্লাস ৪৫ মিনিটের পরিবর্তের ৪০ মিনিট করে নেওয়া হবে। যে সকল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিকস্তর যুক্ত রয়েছে সেখানে এ সময়ের সঙ্গে সমন্বয় করে ক্লাস রুটিন তৈরি করতে হবে। প্রত্যেক ছাত্রছাত্রীকে ক্লাসে তিন ফুট দূরত্বে বসাতে হবে।

জানতে চাইলে মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক মঙ্গলবার বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করে আমরা একটি গাইডলাইনমূলক মৌলিক ক্লাস রুটিন তৈরি করছি। সেটি অনুসরণ করে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রুটিন ও ক্লাস পরিচালনা করতে হবে।

তিনি বলেন, মৌলিক এ রুটিন দিয়ে আপাতত ছাত্রছাত্রীদের ক্লাস করাতে হবে। এটি অনুসরণ করে শ্রেণি পাঠদান পরিচালিত হচ্ছে কিনা ও সার্বিক অবস্থা মূল্যায়নে সারাদেশে মনিটরিং করা হবে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত এ ক্লাস রুটিন কার্যকর থাকবে। মঙ্গলবার বা বুধবার এটি মাউশির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হতে পারে।


আরও খবর



দেশব্যাপী বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের “সার্ভিস ক্যাম্প” শুরু

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশব্যাপী গ্রাহকসেবা উন্নয়নের লক্ষ্যে, এলপি গ্যাস ব্যবহারকারীদের ফ্রি সিলিন্ডার সার্ভিসিং দিতে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস শুরু করেছে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস সার্ভিস ক্যাম্প নামে একটি বিশেষ ক্যাম্পেইন।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বসুন্ধরা হেডকোয়ার্টার-২ এ সার্ভিস ক্যাম্পের উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার মাহবুব আলম, বসুন্ধরা গ্রুপের সেক্টর-এ (সিওও, ব্র্যান্ড অ্যান্ড মার্কেটিং) এম এম জসীম উদ্দীন, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের হেড অব এইচ আর সাদ তানভীর, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের হেড অব সেলস জাকারিয়া জালাল, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের জি এম (সাপ্লাই চেইন) সরওয়ার হোসেন সোহাগ।

এ ক্যাম্পেইনের পরীক্ষামূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছিল ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে নারায়ণগঞ্জ শহরে। করোনা পরিস্থিতির কারণে পরবর্তীতে এ কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। সেই পাইলট প্রকল্পের ব্যাপক সাফল্য এবং ভোক্তাদের অনুরোধে সারাদেশে ফ্রি সার্ভিস ক্যাম্পেইন আনুষ্ঠানিকভাবে এবার শুরু করতে যাচ্ছে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেড।

বসুন্ধরা এলপি গ্যাস কর্তৃপক্ষ জানায়, এলপিজি নিরাপদ ব্যবহার সম্পর্কে সচেতনতা অযাচিত দুর্ঘটনা কমাতে পারে। বাংলাদেশের এক নম্বর এলপিজি ব্র্যান্ড হিসেবে আমরা মনে করি আমাদের দায়িত্ব এলজিপি সিলিন্ডার নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করা, রান্নাঘরকে নিরাপদ এবং স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ কীভাবে করা যায় তার সঠিক নির্দেশনা দেওয়া। তাই আমরা এলপিজি যে কোনো ব্র্যান্ডের সিলিন্ডার ব্যবহারকারীদের সিলিন্ডারের বিভিন্ন এক্সেসোরিজ, যেমন: সংযুক্ত পাইপ, রেগুলেটর এবং বার্নারের সঙ্গে অন্য সংযোগ বিনামূল্যে পরীক্ষা করার ক্যাম্পেইন শুরু করছি। রান্নাঘরকে কি করে নিরাপদ এবং স্বাস্থ্যকর রাখা যাবে সেই বিষয়ে খুব অল্প সময়ে গ্রাহকের নিজ বাসায় প্রশিক্ষণ দেবে আমাদের নিজস্ব সেবাকর্মী। এছাড়াও এলপিজি সিলিন্ডারের জন্য যে বিস্ফোরণ সংঘঠিত হয় না, বরং পাইপ লিকেজ, রেগুলেটর ইন্সটল্যাশন, ব্যবহারকারীর অবহেলা এবং অসচতনতার দরুন দুর্ঘটনা ঘটে থাকে, এবিষয়ে গ্রাহকদের সচেতন করার লক্ষ্যেই এ কার্যক্রমের আয়োজন করা হয়েছে।

এ সেবা পেতে আগ্রহীরা বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের হটলাইনে- ১৬৩৩৯ অথবা ০১৩১৩৪৪ ৫৫৫৫, ফেসবুক পেজ অথবা নিকটস্থ ডিস্ট্রিবিউটর বা রিটেইল পয়েন্টে যোগাযোগ করে কিউআর কোড স্ক্যাননিং এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করলে, বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের সার্ভিস টিম স্বাস্থ্যবিধি মেনে পৌঁছে যাবে গ্রাহকের কাছে। সার্ভিস টিম গ্রাহকের রান্নাঘরটি পর্যবেক্ষণ করে সিলিন্ডারের এক্সেসরিজ এবং এর সঙ্গে চুলার সংযোগ ঠিকঠাক আছে কিনা তা কীভাবে নির্ধারণ করা যায় এ বিষয়ে খুব স্বল্প সময়ে গ্রাহককে সিলিন্ডারের নিরাপদ ব্যবহারের প্রশিক্ষণ দিয়ে আসবে।

আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে শুরু হচ্ছে এ ক্যাম্পেইন এর কার্যক্রম। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে বিভিন্ন ধাপে এ কার্যক্রম চলমান থাকবে। গ্রাহকরা বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের ফেসবুক পেজে এবং পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানতে পারবেন সার্ভিস ক্যাম্পেইনের এলাকাগুলো।


আরও খবর
পুঁজিবাজারে সূচকের মিশ্র প্রবণতা

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

পুঁজিবাজারে সূচকের মিশ্র প্রবণতা

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১