আজঃ বুধবার ২১ এপ্রিল 20২১
শিরোনাম

মুক্তিযোদ্ধার খসড়া তালিকা প্রকাশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | ৮৩২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সারা দেশে ১ লাখ ৮০ হাজার মুক্তিযোদ্ধার খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। খসড়া তালিকায় কারও নাম নিয়ে আপত্তি থাকলে তা যাচাই-বাছাই শেষে চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করবে মন্ত্রণালয়টি।

মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এবারের তালিকায় যেন ভুল না হয়, সেজন্য আগেভাগেই যাচাই-বাছাইয়ের জন্য অনলাইনে মুক্তিযোদ্ধার খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এখানে কোনো বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম ভারতীয় তালিকা বা লাল মুক্তিবার্তা বা মন্ত্রণালয়ের স্বীকৃত ৩৩ ধরনের প্রমাণে অন্তর্ভুক্ত থাকলে তিনি এই যাচাই-বাছাইয়ের আওতার বাইরে থাকবেন। তবে নতুন করে যাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তারাই মূলত যাচাই-বাছাইয়ের মধ্যে থাকবেন।

এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এর আগে বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের খসড়া তালিকা আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি এবং চূড়ান্ত তালিকা ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে প্রকাশ করা হবে। অনলাইনে ১ লাখ ৪০ হাজার মুক্তিযোদ্ধার তালিকাভুক্তি শেষে উপজেলা পর্যায়ে যাচাই-বাছাইয়ের প্রক্রিয়া চলছে। এবার শহীদ, যুদ্ধাহত, খেতাবপ্রাপ্ত, বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধাসহ আরও ১৫ হাজারের মতো বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। প্রকৃত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রকাশের অংশ হিসেবে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) অনুমোদন ছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রকাশিত বেসামরিক গেজেট যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।


আরও খবর



পূর্ণ অধিকার দিতে না পারার শর্তে দ্বিতীয়-তৃতীয় বিয়ে করেন মামুনুল

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | ১৩২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, প্রথম স্ত্রীকে তিনি শরীয়ত সম্মত ও প্রচলিত আইন মেনে বিয়ে করেছেন। কিন্তু বাকি দুই নারীকে বিয়ের দাবি করলেও কাবিননামা নেই বলে জানান তিনি। এই দুই নারীকে তিনি কন্ট্রাক্ট ম্যারেজ করেছিলেন বলে দাবি করেন মামুনুল হক।

জান্নাত আরা ঝর্ণার বিচ্ছেদ হওয়ার পর তিনি তার অভিভাবকত্ব নেন। এসময় তিনি জান্নাতকে পূর্ণ স্ত্রীর মর্যাদা দিতে পারবেন না এমন মৌখিক শর্তে বিয়ে করেন বলে দাবি করেন। মামুনুল হকের দাবি, তার শর্ত জান্নাত আরা মেনে নিয়েছিল। দুই বছর ধরে তিনি জান্নাত আরার ভরণ-পোষণ ছাড়াও ব্যবসা করার জন্য মূলধন দিয়েছেন এবং কারিগরি শিক্ষার ব্যবস্থা করেছিলেন।

স্ত্রীর মর্যাদা না দিলে কেন বিয়ে করেছিলেন এমন প্রশ্নের জবাবে মামুনুল হক বলেন, স্ত্রীর মর্যাদা না দেওয়ার শর্ত দিয়েই তিনি বিয়ে করেছিলেন। ইসলামে এটা জায়েজ রয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। প্রথম স্ত্রীর কাছে দ্বিতীয় স্ত্রীকে শহীদুল ভাইয়ের ওয়াইফবলার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে মামুনুল হক জানান, বিষয়টি জানার পর তার প্রথম স্ত্রী যদি স্ট্রোক বা খারাপ কিছু একটা করে ফেলে সেই আতঙ্ক থেকে মিথ্যা বলেছিলেন তিনি।

তৃতীয় স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস লিপিকে বিয়ে করা নিয়েও একই বক্তব্য ছিল মামুনুল হকের। তৃতীয় স্ত্রী দাবি করা জান্নাতুল ফেরদৌস সম্পর্কে মামুনুল বলেন, এশিয়ান ইউনিভার্সিট অব বাংলাদেশে একসঙ্গে অনার্স ও মাস্টার্স করার সময় তার সঙ্গে সখ্যতা গড়ে ওঠে। এরপর জান্নাতুলের বিয়ে হয়ে যায়। কিন্তু প্রথম স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর তাকেও স্ত্রীর অধিকার না দেয়ার মৌখিক শর্তে তাকে বিয়ে করেন তিনি।


আরও খবর



মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে মামুনুল

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ৬৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে গ্রেফতারের পর রাজধানীর মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হবে।

রোববার মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগ তাকে গ্রেফতার করে। ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় ও অন্যান্য মামলার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মামুনুলকে আমাদের হেফাজতে নেয়া হবে। আজ বিকেলেই তাকে ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হবে।

এদিকে, তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. হারুন-অর-রশিদ বলেন, গ্রেফতারের পর মামুনুলকে মোহাম্মদপুর থানায় নেয়া হয়। এরপর তাকে তেজগাঁওয়ের ডিসি কার্যালয়ে নেয়া হয়। পরে সেখান থেকে আবারও মোহাম্মদপুর থানায় নেয়া হয়। তাকে ডিবি কাছে হস্তান্তর করা হবে।


আরও খবর



আজ সাতক্ষীরা ও গোপালগঞ্জ সফরে যাবেন নরেন্দ্র মোদি

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে দুই দিনের সফরে শুক্রবার ঢাকায় এসেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আজ শনিবার (২৭ মার্চ) সাতক্ষীরা ও গোপালগঞ্জ সফরে যাবেন তিনি।

প্রথমে মোদি ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে সাতক্ষীরা যাবেন। শ্যামনগরে যশোরেশ্বরী দেবি মন্দির পরিদর্শন করবেন তিনি। নতুনরুপে সেজেছে পুরো এলাকা। নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে গেছে শ্যামনগর। নেওয়া হয়েছে মোদিকে বরণের আনুষ্ঠানিকতার প্রস্তুতি।

সাতক্ষীরা থেকে সরাসরি যাবেন গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায়, শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে। মোদি যাওয়ার আগে টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবেন তিনি। সেখান থেকে মোদি যাবেন কাশিয়ানীর ওড়াকান্দিতে। সেখানে তিনি হরিচাঁদ ঠাকুরের বাড়িতে শ্রীশ্রী হরিচাঁদ ও গুরুচাঁদ ঠাকুরের মন্দিরে পূজা-অর্চনা করবেন।


আরও খবর



একটি লেবুর দাম ২০ টাকা!

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ এপ্রিল 2০২1 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ এপ্রিল 2০২1 | ৮৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আসন্ন রমজান উপলক্ষে লেবুর দাম সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাহিরে চলে গেছে। অসাধু ও সুযোগসন্ধানী ব্যবসায়ীরা নিজেদের ইচ্ছামতো যখন তখন যে কোনো নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছেন। দেশে করোনা ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেছে। দৈনিক রেকর্ড সংখ্যক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন।

করোনার সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে বা আক্রান্ত হয়ে গেলেও সেই রোগের উপশমে ভিটামিন সি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। অনেক দেশেই করোনা আক্রান্ত রোগীকে বিভিন্ন ডোজে ভিটামিন সি দিয়ে অনেক উপকার পাওয়া গেছে।  আর আমাদের দেশে এ ভিটামিন সি-এর সবচেয়ে সহজলভ্য উৎস হচ্ছে লেবু।

কিন্তু করোনার এই উদ্ভূত পরিস্থিতিকে একশ্রেণির অসাধু ও সুযোগসন্ধানী ব্যবসায়ীরা হাতিয়ার হিসেবে নিয়েছেন। সুযোগ বুঝে বাজারে লেবু কম বলে দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন পণ্যটির।

রাজধানীর বেশ কয়েকটি কাঁচাবাজারে এক হালি লেবুর দাম ৮০ টাকা চাওয়া হচ্ছে! সে হিসাবে একটি লেবুর দাম ২০ টাকা।

কাঁচাবাজারের ব্যবসায়ী জানান, গত সপ্তাহে লেবুর দাম ছিল ১০০ টাকা। আজ (শুক্রবার) ৮০ টাকা হালি বিক্রি হচ্ছে। বাজারে লেবু কম। এ জন্য দাম বেশি। পাইকারি বাজার থেকে বেশি দামে লেবু কিনতে হচ্ছে বলে জানান তারা।

কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এক হালি দেশি লেবু ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। একটি লেবুর দাম ২০ টাকা। তবে কাগজি লেবুর দাম কম। এই জাতের এক হালি লেবুর দাম ৫০ টাকা।


আরও খবর



ইসলামী পিপলস পার্টির ঘোষণা

মামুনুলকে গ্রেপ্তার না করলে ৫ তারিখে সকাল সন্ধ্যা হরতাল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ এপ্রিল ২০২১ | ১৯৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
পাঁচ তারিখ হরতাল দেব। সেদিন মামুনুল হকের বাড়ি ঘেরাও করবো। মামুনুল হক যেখানেই থাকবে তার বাড়ি আমরা ঘেরাও করবো। তাকে আমরা প্রসাশনের হাতে তুলে দেব

হেফাজত নেতা মামুনুল হকসহ যারা ইসলামের নামে রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংসের সঙ্গে জড়িত তাদের ৪ এপ্রিলের মধ্যে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী পিপলস পার্টি। এই সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার না হলে আগামী ৫ এপ্রিল সকাল-সন্ধ্যা হরতাল দেওয়ারও হুঁশিয়ারি দিয়েছে এই সংগঠনটি৷

আজ (বৃহস্পতিবার) রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে ইসলামী পিপলস পার্টি আয়োজিত ইসলামের নামে যারা রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করে ইসলামের দৃষ্টিতে তাদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া উচিত-শীর্ষক আলোচনা সভা থেকে এ ঘোষণা দেন বাংলাদেশ পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান মাওলানা মো. ইসমাইল হোসাইন।

ইসলামী পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান মাওলানা মো. ইসমাইল হোসাইন বলেন, সরকারের প্রতি জোর দাবি থাকবে, ইসলামের নামে যারা এ সমস্ত সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করেছে তাদেরকে আগামী চার দিনের মধ্যে গ্রেফতার করতে না পারলে আমরা আগামী ৫ তারিখে সকাল সন্ধ্যা হরতাল দেব।

মাওলানা মো. ইসমাইল হোসাইন বলেন, পবিত্র কুরআন ও হাদিসের আলোকে এ কথা প্রতীয়মান হয় যে, অযথা জ্বালাও-পোড়াও করে রাষ্ট্রীয় সম্পদ নষ্ট করার কোনও সুযোগ নেই। ইসলামের স্বার্থে বা ইসলাম কোনও দাবি-দাওয়া আদায়ের ক্ষেত্রেও ইসলামের প্রকৃত দৃষ্টিভঙ্গী এবং শান্তিপূর্ণ পদ্ধতি অনুসরণ করা উচিত। এক্ষেত্রে দেশের ইসলামী বা ধর্মীয় দলগুলোকে আরও সচেতন হওয়া দরকার।

তিনি বলেন, ধর্মীয় সংগঠনের নামে রাষ্ট্রের সম্পদ নষ্টের মতো কর্মকাণ্ড চালানো মোটেও শোভা পায় নাই। ইসলাম শান্তির ধর্ম। চারদিনের মধ্যে মামুনুল হকসহ যারা ইসলামের নামে, আন্দোলনের নামে রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করেছে তাদের গ্রেপ্তার করতে হবে। নতুবা পাঁচ তারিখ হরতাল দেব। সেদিন মামুনুল হকের বাড়ি ঘেরাও করবো। মামুনুল হক যেখানেই থাকবে তার বাড়ি আমরা ঘেরাও করবো। তাকে আমরা প্রসাশনের হাতে তুলে দেব।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির মহাসচিব মাওলানা কাজী শাহ মো. ওমর ফারুক, ইসলামী চিন্তাবিদ আলহাজ মো. হাজী হাবিব উল্লাহ, নড়াইলের পীর হারুনুর রশিদ মিরন মাওলানা কাজী আব্দুল কাইয়ুম ও হাফেজ মাওলানা আব্দুল আজীজ প্রমুখ।


আরও খবর