আজঃ বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

ময়মনসিংহের ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ ভাই নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ নভেম্বর 2০২1 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ নভেম্বর 2০২1 | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহের ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই ভাই নিহত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশাল থানার কাজীর শিমলার দুলালবাড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে একটি মোটরসাইকেলকে কাভার্ড ভ্যান পেছন থেকে সজোরে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী দুই সহোদর ভাই নিহত হয়। নিহতরা হলেন, জামালপুর সদর থানার খরখরিয়া এলাকার আজিজুল হকের বড় ছেলে ফিরোজ মোর্শেদ (৩৫) ও তৌহিদুল ইসলাম জিহাদ (২৮)।

জানা যায়, বড় ভাই ফিরোজ মোর্শেদ গাজীপুর জেলার ভবানীপুর এলাকার ডিবিএল সিরামিক্সে কাজ করতেন। ছোট ভাই তৌহিদুল ইসলাম জিহাদ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত ছিলেন। জিহাদ বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা শেষ করে বড় ভাইকে নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে তাদের পারিবারিক সূত্র নিশ্চিত করে।

ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাইন উদ্দিন জানান, ঘাতক কাভার্ড ভ্যানটি আটক করা হয়েছে। ড্রাইভার পলাতক রয়েছে। নিহত দুই ভাইয়ের লাশ থানায় আছে এবং তাদের হস্তান্তর প্রক্রিয়া চলছে। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


আরও খবর
চট্টগ্রামে পাট গুদামে ভয়াবহ আগুন

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১




সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম তরুণদের উদ্বুদ্ধ করবে : রাষ্ট্রপতি

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, কবি সুফিয়া কামালের জীবনাদর্শ ও সাহিত্যকর্ম বৈষম্যহীন-অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিনির্মাণে তরুণ প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ ও অনুপ্রাণিত করবে।

২০ নভেম্বর কবি কবি সুফিয়া কামালের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন। গণতন্ত্র, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও নারীমুক্তি আন্দোলনের অগ্রদূত কবি সুফিয়া কামালের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকীতে রাষ্ট্রপতি তাঁর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।

তিনি বলেন, কবি সুফিয়া কামাল ছিলেন নারী আন্দোলনের পথিকৃৎ এবং সাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে এক অকুতোভয় যোদ্ধা। তাঁর জন্ম ১৯১১ সালের ২০ জুন বরিশালে। তখন বাঙালি মুসলমান নারীদের লেখাপড়ার সুযোগ একেবারে সীমিত থাকলেও তিনি নিজ চেষ্টায় লেখাপড়া শেখেন এবং ছোটবেলা থেকেই কবিতাচর্চা শুরু করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, সুললিত ভাষায় ও ব্যঞ্জনাময় ছন্দে তাঁর কবিতায় ফুটে উঠত সাধারণ মানুষের সুখ-দুঃখ ও সমাজের সার্বিক চিত্র। তিনি নারী সমাজকে অজ্ঞানতা ও কুসংস্কারের বেড়াজাল থেকে মুক্ত করতে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। মহান ভাষা আন্দোলন, স্বাধিকার আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধসহ গণতন্ত্র ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার প্রতিটি আন্দোলনে তিনি আমৃত্যু সক্রিয় ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের জন্য যে আন্দোলন শুরু হয়েছিল, তিনি ছিলেন তার অন্যতম উদ্যোক্তা।

আবদুল হামিদ বলেন, কবি সুফিয়া কামাল নিজ উদ্যোগে শুধু নিজেকে শিক্ষিত করেননি, পিছিয়ে পড়া নারী সমাজকে শিক্ষার সুযোগ করে দেয়ারও আন্দোলন শুরু করেছিলেন। তাঁর প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারী অধিকার আদায়ের এক অনন্য প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন গণতান্ত্রিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনে তাঁর অবদানের জন্য তাঁকে জননী সাহসিকা উপাধিতে ভূষিত করা হয়।

তিনি বলেন, কবি সুফিয়া কামাল তাঁর কাব্য প্রতিভা ও কর্মের গুণে আমাদের মাঝে চিরকাল বেঁচে থাকবেন। মহীয়সী এ নারীর জীবনাদর্শ ও সাহিত্যকর্ম একটি বৈষম্যহীন ও অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিনির্মাণে তরুণ প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ ও অনুপ্রাণিত করবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

তিনি কবি সুফিয়া কামালের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।


আরও খবর



বারোমাসি তরমুজ চাষে সফল সিংড়ার আদিবাসী কৃষক নিতিশ

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ৪১৫জন দেখেছেন

Image

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি:

মেধা, শ্রম ও চেষ্টা থাকলে কম পড়া-লেখা আর দরিদ্র পরিবার থেকেও যে সফলতা অর্জন করা যায় তারই এক দৃষ্টান্ত আদিবাসী কৃষক নিতিশ চন্দ্র সরদার ওরাওঁ। মাছ চাষ ও তরমুজ চাষে সফল এক কৃষক। আদিবাসী সফল এই কৃষকের বাড়ি নাটোরের সিংড়া উপজেলার শুকাশ ইউনিয়নের চালা পাড়া গ্রামে। নিতিশ ওরাওঁ কিছু দিন আগে পাবদা মাছ চাষ করে সফল মাছ চাষী হিসাবে এলাকায় পরিচিত হয়েছেন। এখন আবার পরিচিত হচ্ছেন সফল তরমুজ চাষী হিসাবে। মাত্র ৭০ শতাংশ জমিতে বারোমাসী হলুদ তরমুজ চাষ করে অধিক লাভবান হওয়ায় নিতিশের এই পরিচিত এনে দিয়েছে। নিতিশের এই সাফল্য দেখে অনেক বেকার যুবক বাণিজ্যিক ভাবে শুরু করেছেন তরমুজ চাষ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নিতিশের খেতের মাচায় ঝুলছে তরমুজ। খেত জুড়ে শোভা পাচ্ছে হলুদ, কালো ও ডোরাকাটা তরমুজ। উচ্চ ফলনশীল ব্লাক বেবী, বাংলালিংক এবং গোল্ডেন ক্রাউন নামের তিন জাতের এই তরমুজ খেতে যেমন সুস্বাদু দেখতেও আকর্ষণীয়।

কৃষক নিতিশ জানায়, প্রথমে ফেসবুকের একটি ভিডিও দেখে বারোমাসী তরমুজ চাষের ধারণা পান তিনি। পরে স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তার সহযোগিতায় গত সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে শুরু করেন চাষ। জমি লিজ, মাচা তৈরীর দড়ি, গুনা, বাঁশ, বেডসহ অন্যান্য বাবদ ৭০ শতাংশ জমিতে তার মোট খরচ হয় ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা। মাত্র ৬০ থেকে ৬৫ দিনেই নিতিশের খেতের তরমুজ বিক্রির উপযোগী হয়। প্রথম দফায় ঢাকায় গিয়ে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকার তরমুজ বিক্রয় করেন তিনি। প্রথম দফা বিক্রয়ের এক সপ্তাহের মধ্যেই আবারও বিক্রয়ের উপযোগী হয় খেতের তরমুজ।

কৃষক নিতিশ জানায়, প্রথম দফা তরমুজ বিক্রয় করে তার খরচের টাকা উঠে গেছে। এখনও দুই থেকে আড়াই লাখ টাকার তরমুজ তার খেতে আছে। বাকি তরমুজ ঠিক ঠাক বিক্রয় করতে পারলে খরচ বাদে ২ লাখের বেশি আয় হবে বলে আশা করছেন তিনি।

বারোমাসী এই তরমুজ একই জমিতে তিনবার চাষ করা যায়। প্রথমবার মাচান ও বেড তৈরী করতে যে খরচ হয় দ্বিতীয় ও তৃতীয় বার খরচ হয় তুলনামূলক খুবই কম। সেই হিসাবে নিতিশের ওই ৭০ শতাংশ জমিতে খরচ বাদে বছরে আয় হবে ৫ লাখ থেকে ৬ লাখ টাকা। এমনটাই স্বপ্ন দেখছেন কৃষক নিতিশ ওরাওঁ।

নিতিশের স্ত্রী অভিরন রাণীও কাজ করেন তরমুজের খেতে। বারোমাসী তরমুজ চাষের এই সফলতা স্বামী স্ত্রী দুজনারই। নিতিশের এমন সাফল্য এখন ছড়িয়ে পড়েছে লোকে মুখে। স্থানীয়দের কাছে একজন আদর্শ কৃষক হয়ে উঠেছেন তিনি।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবীদ মোঃ সেলিম রেজা বলেন, চলনবিল অধ্যুষিত সিংড়া উপজেলার শুকাশ ইউনিয়নের জমি তুলনামুলক উচুঁ হওয়ায় বারোমাসী তরমুজ চাষের উপযোগী এই অঞ্চল। এখানে নিতিশের মত অনেক কৃষকই প্রথমবারের মত তরমুজ চাষ শুরু করেছেন। দেশে তিন জাতের বারোমাসী তরমুজের অনেক চাহিদা রয়েছে। যারা বাণিজ্যিক ভাবে চাষ করছেন তারা লাভবান হচ্ছেন। আমরা চাষীদের পাশে আছি। চাষীদের সব ধরনের পরামর্শ ও সহযোগিতা করছি। এই সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

নিউজ ট্যাগ: তরমুজ চাষী

আরও খবর



‘বিনা প্রয়োজনে ঢাবিতে বহিরাগতরা অবস্থান করতে পারবেন না’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিনা প্রয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) এলাকায় বহিরাগতরা অবস্থান করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন ঢাবি প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমকে এ কথা জানান তিনি।

ঢাবি প্রক্টর বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বহিরাগতরা যেন অবস্থান করতে না পারেন সেজন্য গত রবিবার রাত থেকে অভিযান চালানো হচ্ছে। আমাদের ক্যাম্পাস অনেক ছোট। বহিরাগতদের অনুরোধ করছি, প্রয়োজন ছাড়া কেউ যেন ক্যাম্পাসে অবস্থান না করেন। শিক্ষার্থীবান্ধব ক্যাম্পাস বজায় রাখতে এ অভিযান চালানো হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন,কারো প্রয়োজন থাকলে একাধিকবার ক্যাম্পাসে আসতে পারবেন। সাবেক শিক্ষার্থীরাও ছুটির দিনে বা প্রয়োজনে আসবেন। ক্যাম্পাসকে পার্ক বা বিনোদনকেন্দ্রের মতো ব্যবহার করা যাবে না। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস আড্ডার জায়গা নয়।

এ বিষয়ে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন।


আরও খবর



রামপুরায় বাসে অগ্নিসংযোগ, ২ মামলায় আসামি ৮০০

প্রকাশিত:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | ৪৯৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর রামপুরায় শিক্ষার্থী মৃত্যু কেন্দ্র করে বাসে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দুটি মামলা করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার করা মামলা দুটিতে অজ্ঞাত ৮০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

রামপুরা থানার ওসি রফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বাসচাপায় শিক্ষার্থী মাঈনুদ্দিন নিহত হওয়ার পর উত্তেজিত জনতা কয়েকটি বাসে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর চালায়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে দুটি মামলা করে। একটি মামলায় ২৫০ থেকে ৩০০ জন এবং অপরটিতে ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

এ ছাড়া নিহত শিক্ষার্থীর মা রাশেদা বেগম বাদী হয়ে নিরাপদ সড়ক আইনে একটি মামলা করেছেন। এ মামলায় অনাবিল পরিবহণের বাসচালককে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

প্রসঙ্গত গত সোমবার রাত পৌনে ১১টার দিকে রাজধানীর রামপুরা এলাকায় গ্রিন অনাবিল পরিবহণের বাসের চাপায় মাঈনুদ্দিন নিহত হন। এ ঘটনায় রাতে সড়ক অবরোধ করে উত্তেজিত জনতা। এ সময় ঘাতক বাসসহ আটটি বাসে আগুন দেওয়া হয়। ভাঙচুর করা হয় আরো চারটি বাস।


আরও খবর
আবরার হত্যায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড

বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১




সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে জ্যাকলিনের ‘ঘনিষ্ঠ’ ছবি

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে প্রেম করতেন জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ। অতীতে এমনই দাবি করেছিলেন সুকেশের আইনজীবী। এ বার সামনে এল এক ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি। তাতে জ্যাকলিনের সঙ্গীর মুখ পুরো দেখা না গেলেও অনুমান, সেই ব্যক্তিই সুকেশ।

এক ওষুধ সংস্থার প্রাক্তন মালিক শিবেন্দ্র সিংহ এবং মালবেন্দ্র সিংহের পরিবারকে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণায় অভিযুক্ত সুকেশ এবং তাঁর স্ত্রী লীনা পাল। অভিযুক্তের সঙ্গে সম্পর্কের গুঞ্জনকে ভুয়ো বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন রেস থ্রি-র অভিনেত্রী। সম্প্রতি প্রকাশ্যে আসা ঘনিষ্ঠ ছবিটি নতুন করে উস্কে দিয়েছে সেই বিতর্ক।

কী দেখা যাচ্ছে সেই ছবিতে?

নিজস্বীতে নায়িকার গালে চুমু দিচ্ছেন এক ব্যক্তি। জ্যাকলিনের মুখে হাসি। ছবিতে সঙ্গের ব্যক্তির মুখ অর্ধেকটা ধরা পড়েছে। তাতেই মনে করা হচ্ছে, তিনি আর কেউ নন, সুকেশ।

সূত্রের খবর, চলতি বছরের এপ্রিল-জুন মাস নাগাদ ছবিটি তোলা হয়েছে। সুকেশ তখন অন্তর্বর্তী জামিন পেয়ে হাজতের বাইরে ছিলেন। সেই সময়ে নাকি জ্যাকলিনের সঙ্গে চার বার দেখা হয়েছিল তাঁর। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) সূত্রে খবর, জ্যাকলিনের জন্য একটি ব্যক্তিগত বিমানেরও ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন সুকেশ।

অক্টোবর মাসে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণার মামলায় একাধিক বার জেরা করা হয় জ্যাকলিনকে। অভিনেত্রীর মুখপাত্রের বিবৃতিতে লেখা জ্যাকলিনকে শুধুমাত্র এই মামলার সাক্ষী হিসেবে তলব করে ইডি। তিনি নিজের বয়ান রেকর্ড করেছেন। পরবর্তীতে ডাকলে তিনি একই ভাবে তদন্তকারী সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতা করবেন।


আরও খবর
সায়ন্তিকার গাড়িতে ট্রাকের ধাক্কা

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১