আজঃ বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

নাঈমের হত্যাকারীর ফাঁসি চাইলেন মেয়র তাপস

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৭১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসানের হত্যাকারীর বিচারের দাবিসহ ছাত্রদের অন্যান্য দাবির সঙ্গে শুধু একমত পোষণই না, ঘাতক সেই খুনির ফাঁসিও দাবি করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। বৃহস্পতিবার নগর ভবনের সামনে নিহত শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের হত্যার বিচারের দাবিতে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের সমাবেশে এসে তিনি এ কথা বলেন।

মেয়র তাপস বলেন, আমি জানি এই কষ্ট কী। একজন মেধাবী ছাত্র নাঈম আমার এই সিটি করপোরেশন এলাকার সড়কে আমার করপোরেশনের গাড়ি দ্বারা দুর্ঘটনা কবলিত হয়ে নিহত হবে- সেজন্য আমি রাজনীতিতে আসি নাই। আমার কাছে আমার সন্তানের সুখ, সন্তানের হাসি, সন্তানের ভালোবাসা অনেক অনেক মূল্যবান। আপনারা যে দাবি দিয়েছেন, সেই দাবির সঙ্গে আমি শুধু একমত পোষণই না, শুধু সম্মতিই না- আমি আরও দাবি করি, যেন সেই খুনির ফাঁসি হয়। আমি দাবি করি, এ শহরের সড়কে আর যেন কোনো নাঈমের প্রাণহানি না ঘটে।

তিনি বলেন, আমি আপনাদের কাছে ওয়াদা করছি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সব জঞ্জাল মুক্ত করব ইনশাআল্লাহ। আমাদের তারপরও আইনের আওতায় থাকতে হয়। আমাদের সরকারি নীতিমালা-নিয়মকানুন মানতে হয়। মেনে চলতে হয়। সেই নিয়মকানুন মেনেই গাড়িচালকের গাড়ি চালানোর দায়িত্ব ছিল। সে সেই দায়িত্ব পালন করেনি। আরেকজন ভাড়াটিয়া গাড়িচালককে দিয়ে গাড়ি চালিয়েছে। সুতরাং সবাইকে শাস্তি ভোগ করতে হবে। যার দায়িত্ব ছিল তাকে আমরা সাময়িক বরখাস্ত করেছি এবং ইনশাআল্লাহ চাকরি থেকে অপসারণ করব। যে চালক গাড়ি চালানো অবস্থায় ছিল সে খুনি। তার সর্বোচ্চ শাস্তি ইনশাআল্লাহ আমরা নিশ্চিত করব। আপনাদের সঙ্গে কণ্ঠে কণ্ঠ লাগিয়ে আমি বলি- সেই খুনির ফাঁসি চাই আমি।

এ সময় আন্দোলনরত ছাত্রদের দাবির পক্ষে সরকারের উচ্চপর্যায়ে অ্যাডভোকেসি করবেন জানিয়ে মেয়র তাপস বলেন, কোনো বহিরাগত যেন ডিএসসিসির কোনো গাড়ি চালাতে না পারে, সেই কঠোর ব্যবস্থা নেব। আপনাদের যে দাবি এসেছে আমি আপনাদের হয়ে সরকারের উচ্চপর্যায় পর্যন্ত আপনাদের পক্ষে অ্যাডভোকেসি করব। সরকারের কাছ থেকে সব দাবি আদায়ের ব্যবস্থা করব। ঢাকা নিরাপদ শহর হবে আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার ছিল। নিরাপদ সড়ক করতে আপনাদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধে মিলিয়ে কাজ করব।

নাঈমকে নিজের সন্তানতুল্য উল্লেখ করে মেয়র তাপস বলেন, সম্প্রতি আমি আমার সন্তানের সঙ্গে ছুটি কাটিয়ে এসেছি। কিন্তু আসার দিনেই আমি নাঈমকে হারাব সেটা আমি কল্পনাও করতে পারিনি। নাঈম শুধু আপনাদের ভাই না, আপনাদের বন্ধু না- একটি সতেরো বছরের আমার সন্তান।

এ সময় ছাত্রদের দাবি মেনে নাঈমের নামে এ বছরের মধ্যে দক্ষিণ সিটির নিজস্ব অর্থায়নে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের ঘোষণা দেন মেয়র তাপস।

নিউজ ট্যাগ: মেয়র তাপস

আরও খবর



বরিশালে মালবাহী ট্রলারে আগুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | ৫৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায় একটি মালবাহী ট্রলারে পেট্রল থেকে আগুন লেগেছে। এ সময় দগ্ধ হয়েছেন অলিউল ইসলাম নামে এক শ্রমিক।

সোমবার রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলার ইলুহার ইউনিয়ন পরিষদসংলগ্ন মলুহার নতুন বাজারের ট্রলার ঘাটে এ ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে ইলুহার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম জানান, সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি তার পরিষদে কাজ করছিলেন। এ সময় চিৎকার শুনে তার ইউনিয়ন পরিষদসংলগ্ন মলুহার নতুন বাজারের ট্রলারঘাটে এগিয়ে যান।

তিনি জানান, শ্রমিকরা একটি মালবাহী ট্রলার থেকে মলুহার নতুন বাজারের হার্ডওয়্যার ব্যবসায়ী মিরাজ হোসেনসহ কয়েকজন মুদি দোকানির বিভিন্ন প্রকার মালামাল আনলোড করছিলেন। এ সময় অন্ধকারের মধ্যে অলিউল ইসলাম (৩৮) নামে এক শ্রমিক ওই ট্রলারে ম্যাচলাইট জ্বালায়।

এতে ম্যাচলাইটের আগুন ওই ট্রলারে থাকা পেট্রল কনটেইনারে লেগে যায়। মুহূর্তেম মধ্যে সেই আগুন অন্যান্য মালামালের ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় অলিউল অগ্নিদগ্ধ হয়ে  চিৎকার দেন এবং তিনি নিজের জীবন বাঁচাতে গিয়ে জনতার খালে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

অগ্নিদগ্ধ অলিউলকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। 

নিউজ ট্যাগ: ট্রলারে আগুন

আরও খবর
পিরোজপুর মুক্ত দিবস আগামীকাল

মঙ্গলবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২১




টেস্ট ক্রিকেটকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানালেন মাহমুদউল্লাহ

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে টেস্ট থেকে অবসরের ঘোষণা দিলেন বাংলাদেশ দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এর আগে জিম্বাবুয়েতে সতীর্থদের গার্ড অব অনারে দিয়েছিলেন অবসররের আভাস। এরপর কয়েক দফা প্রশ্ন করা হলেও কিছুতেই সেটা মুখ ফুটে বলছিলেন না মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দীর্ঘ ১৬ মাস পর টেস্ট দলে ফিরে টেস্টে দেড়শ রানের মহাকাব্যিক এই ইনিংস খেলে রিয়াদ সতীর্থদের জানিয়ে দেন, অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন। ২২০ রানের রেকর্ড গড়া ব্যবধানে জয়ের ম্যাচটিতে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। দলও জয়টি তাকেই উৎসর্গ করে।

তবে অবসরের ব্যাপারে কোথাও আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা দেননি তিনি। তখন রিয়াদ আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না দিলেও ক্রিকেটের সব মহলে হারারে টেস্টকেই তার ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট হিসেবে গণ্য করা হয়।

বাংলাদেশের হয়ে ৫০ টেস্টে পাঁচটি শতক ও ১৬টি অর্ধশতক রয়েছে টি-টোয়েন্টি অধিনায়কের। ৩৩.৪৯ গড়ে রান করেছেন ২৯১৪। টেস্টে বাংলাদেশের ষষ্ঠ সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক রিয়াদ। বল হাতে নিয়মিত না হলেও নামের পাশে আছে ৪৩টি উইকেট। ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক হিসেবে ৬টি টেস্টে দলকে নেতৃত্বও দিয়েছিলেন তিনি।


আরও খবর
মেসির সামনেই রেকর্ড ভেঙে দিলেন এমবাপে

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১




পাচারের শিকার হয়েছে মাদারীপুরের অর্ধশতাধিক যুবক

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ | ২৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

উন্নত জীবনের আশায় ইউরোপের পথে পা বাড়িয়ে মানব পাচারের শিকার হয়েছে মাদারীপুরের অর্ধশতাধিক যুবক। এদের মধ্যে অনেকেই প্রাণ হারিয়েছেন। এসব পরিবারে চলছে মাতম। মাদারীপুরের ঘরে ঘরে কান্নার রোল। সম্প্রতি পাচারের শিকার ৫৭ পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের উদ্ধার ও দালালদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে।

এদিকে গত দুই তিন ধরে পাচারের শিকার পাঁচ যুবকের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। এক মিনিট সাত সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যায় পাঁচ যুবক একটি ঘরে বন্দী। ভিডিওতে তারা কান্নাজড়িত কণ্ঠে উদ্ধারের আকুতি জানিয়ে বলেন, গত ১৫ দিন ধরে রোমানিয়ার একটি ঘরে আমাদের আটকে রেখেছে। ঠিকমতো খাবারও দেয় না। আমরা বাঁচতে চাই, আমাদের বাঁচান। দালাল শামিম ও আল আমিনের কাছে টাকা দিয়েছে বলেও দাবি করেন ভিডিওতে।

অনুসন্ধান করে জানা গেছে, রোমানিয়ায় বন্দীরা হলেন, মাদারীপুর সদর উপজেলার খোয়াজপুর গ্রামের মিলন মিয়া ও মস্তফাপুর ইউনিয়নের সিকি নওহাটা গ্রামের মোফাজ্জেল হাওলাদার এবং ডাসার উপজেলার বালিগ্রামের মৃত সৈয়দ সালামের ছেলে তানভীর এবং একই গ্রামের সাঈদ হাওলাদারের ছেলে বায়েজিদ হাওলাদার ও রাশেদ হাওলাদার।

বন্দীদের পরিবারের দাবি, রোমানিয়া থেকে ইতালি পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে তাদের পরিবারের কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে চক্রটি। বর্তমানে রোমানিয়ার অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে পরিবারের কাছে ভিডিও বার্তা পাঠিয়ে আরও টাকা দাবি করছে। এই ঘটনায় অভিযোগ পেয়ে দালাল চক্রের একজনকে গ্রেফতার করেছে মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ।

ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ, এই দালাল চক্রের হাতেই বসনিয়ায় বন্দী রয়েছে মাদারীপুরের আরও পাঁচ যুবক। বৃহস্পতিবার বিকালে ভুক্তভোগী পরিবার থানায় অভিযোগ দিলে সেদিনই চক্রের একজনকে আটক করে পুলিশ। আটক আল আমিন (২৯) মাদারীপুর সদর উপজেলার হাজির হাওলা এলাকার জাফর বেপারীর ছেলে। অভিযোগ রয়েছে আরও পাঁচজনের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুর সদর হাজির হাওলা এলাকার জাফর বেপারীর ছেলে আল আমিন (২৯), রাস্তি এলাকার শামিম আকন ও তার স্ত্রী সুমি বেগম (২৮), সিরাজ আকন (৬০), হাজির হাওলা এলাকার জাফর বেপারী ও তার স্ত্রী রীনা বেগম, সিরাজ আকনের স্ত্রী রানু বেগম। তারা সবাই একই দালাল চক্রের সদস্য। রোমানিয়ায় অবস্থানরত স্বজনদের মাধ্যমে ইতালিতে পৌঁছে দেওয়া এবং উচ্চ বেতনে চাকরির প্রলোভনে চলতি বছরের ৩ আগস্ট ভুক্তভোগী পাঁচজনের পরিবারের কাছ থেকে ৮ লাখ টাকা করে নেয়।

এক মাসের মধ্যে ইতালিতে পৌঁছে দেওয়ার কথা থাকলেও তারা কালক্ষেপণ করতে থাকে। বর্তমানে ওই পাঁচ যুবককে ১৫ দিন ধরে রোমানিয়ায় আটকে রেখে ১০ লাখ টাকা দাবি করছে চক্রের সদস্যরা। ভুক্তভোগী পরিবার থানায় অভিযোগ করলে দালাল চক্রের সদস্য আল আমিনকে আটক করে। ভুক্তভোগী পরিবার জানায়, তাদের মাধ্যমে ইতালিতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে গিয়ে মাদারীপুরের আরও পাঁচজন অনেকদিন ধরে বসনিয়ায় রয়েছে।

রোমানিয়ায় বন্দী থাকা তানভীরের ভাই মো. সৈয়দ সেলিম জানান, রোমানিয়া থেকে ইতালিতে পাঠাতে গ্রিসে অবস্থানরত শাহিনের সঙ্গে চুক্তি করে তার ভাগনে আল আমিন ও তার স্ত্রী সুমিসহ সবাইকে উপস্থিত রেখে পাঁচ পরিবার তাদের ৮ লাখ টাকা করে ৪০ লাখ টাকা দেই। কিন্তু তারা আমার ভাইসহ অন্যদের ইতালিতে না নিয়ে রোমানিয়ায় আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবি করছে। আমরা ভাইসহ সবার মুক্তি চাই এবং দোষীদের বিচার চাই।

এদিকে গত ২০ নভেম্বর লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ায় ট্রলার ডুবিতে মারা গেছে মাদারীপুর সদর উপজেলার পশ্চিম খাগদী এলাকার আবুল কালাম খানের ছেলে সাব্বির খান ও বড়াইলবাড়ি গ্রামের হাবিবুর রহমান তালুকদারের ছেলে সাকিবুল। নিহতের স্বজনরা জানান, চরনাচনা গ্রামের দালাল চক্রের সক্রিয় সদস্য সেকেন মোড়লের ছেলে আতিবর ও কাশেম এবং পেয়ারপুর ইউনিয়নের বড়াইলবাড়ী গ্রামের কবির মীরার ছেলে সবুজ মীরা ও তার স্ত্রী মাহমুদা ইতালি নেওয়ার কথা বলে নিহতদের পরিবারের কাছ থেকে ১০ লাখ করে টাকা নেয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নিহতের পরিবার জানায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের এক প্রভাবশালী নেতা মোটা অংকের টাকার বিনিময় ঘটনা ধামাচাপা দিতে চেষ্টা করছেন। নিহতের ঘটনায় থানায় মামলা না দিতেও হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ।

এছাড়া মাদারীপুর সদর উপজেলার মধ্য পেয়ারপুর গ্রামের হাকিম তালুকদারের ছেলে রুবেল তালুকদার, তোতা তালুকদারের ছেলে তরিকুল ইসলাম, জুলহাস বেপারীর ছেলে আসাদ বেপারী, মির্জন মোল্লার ছেলে এলাহী মোল্লা, রাজৈরের বৈলগ্রামের সামিউল শেখসহ অর্ধশতাধিক যুবক পাচারের শিকার হয়েছে।

পাচারের শিকার রুবেলের মা শাহনা বেগম বলেন, আমার ছেলের খোঁজখবর নেই অনেক দিন। সে বেঁচে আছে নাকি মারা গেছে তাও জানি না। আমরা চাই আমার ছেলেসহ নিখোঁজ সবার সন্ধান। মাদারীপুরের পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল বলেন, আমরা মানবপাচারের ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি।

অভিযোগ পাওয়ার পরই মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ একজনকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে যেই দোষী প্রমাণ হবে তাকেই আইনের আওতায় আনা হবে।

নিউজ ট্যাগ: মানব পাচার

আরও খবর



‘বিশ্বে যে কোনো স্থানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ প্রস্তুত’

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ | ৩২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
শান্তি মানুষের সকল স্বাধীনতার মূলমন্ত্র। ৫০ বছর আগে স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু সংবিধানে শান্তির কথা বলতেই লেখা হয়েছে, ‘সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়’

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, বিশ্বে যে কোনো স্থানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ প্রস্তুত রয়েছে। ডাক দিলেই হাজির হয়ে যাব।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ শনিবার (৪ ডিসেম্বর) বিকেলে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের উদ্বোধন অনুষ্ঠান বিশ্ব শান্তি সম্মেলনে এসব কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, শান্তি মানুষের সকল স্বাধীনতার মূলমন্ত্র। ৫০ বছর আগে স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু সংবিধানে শান্তির কথা বলতেই লেখা হয়েছে, সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়। এ কারণেই বঙ্গবন্ধু থেকে তিনি বিশ্ব নেতা হয়ে উঠেছিলেন।

নতুন বিশ্বে নানান চ্যালেঞ্জ লক্ষ্য করা যাচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, কোভিড-১৯ আমাদের দুর্বলতা বের করে দিয়েছে। জলবায়ু সংকট মানব জাতিকে বিপদে ফেলছে। সবার জন্য সমান অধিকার নিশ্চিত করা গেলেই বিশ্বে শান্তি নিশ্চিত হবে।

বিশ্ব শান্তি সম্মেলন উদ্বোধনের আগে বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ পাঠ করা হয়। থিম সঙ্গীত, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার এবং রোহিঙ্গাসহ নির্যাতিত মানুষের ওপর ভিডিও ক্লিপ পরিদর্শন করা হয়।

সম্মেলনের সভাপতি জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বিশ্ব এখন বিভিন্নভাবে বিভক্ত। টিকা পেতেও এখন বিশ্ব বিভক্ত হয়ে গেছে। সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দরিদ্র মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা দরকার। বিশ্বে মাত্র ১ শতাংশ মানুষ বিশ্বের অর্ধেক সম্পত্তির মালিক।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সাধারণ মানুষের জন্য সামাজিক ন্যায় বিচার ও শোষণ থেকে রক্ষা করতে সংগ্রাম করে গেছেন। আমাদের সংবিধানের প্রতিটি ছত্রে ছত্রে মুজিবের এই দর্শন প্রতিফলিত হয়েছে। ১৯৭৪ সালে জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু তার ভাষণই বিশ্ব শান্তির কথা বলেছেন।

জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি-মুন রেকর্ডকৃত বক্তব্যে বলেন, শান্তির জন্য সকলকে একত্রে কাজ করতে হবে। কোভিড-১৯ মহামারি থেকে বাচঁতে ধনী-গরিব নির্বিশেষে টিকা নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বলেন, কেউ একা বিশ্বে নিরাপদ নয় যতক্ষণ পর্যন্ত সকলে নিরাপদ হবে না।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু তার সারাজীবন শান্তি অন্বেষণ করেছেন। মানুষের জন্য শান্তির খোঁজই তাকে ক্যারিশম্যাটিক নেতা হিসেবে উপস্থাপিত করেছে।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন অনুষ্ঠানের শুরুর বক্তব্যে সম্মেলনের উদ্দেশ্য বর্ণনা করেন।

সম্মেলনে শান্তি রক্ষায় কাজ করা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কবি, সাহিত্যিক, নোবেল বিজয়ী, শিক্ষাবিদ, বিজ্ঞানী, শিল্পী, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, রাজনীতিক, মানবাধিকারকর্মী ও বুদ্ধিজীবীরা অংশ নিচ্ছেন। এতে বিশ্বের ৫০টি দেশের প্রতিনিধিরা অংশ নেবেন। তাদের মধ্যে ৬০ জন প্রতিনিধি সশরীরে আসবেন। বাকি ৪০ জন প্রতিনিধি ভার্চুয়ালি অংশ নেবেন।


আরও খবর



ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের অডিও ফাঁস : রিপোর্ট দাখিলের নির্দেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহারের অডিও ক্লিপের বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন আগামী ৩১ জানুয়ারির মধ্যে দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

আদালতে এ সংক্রান্ত রিটের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. আব্দুল্লাহ আল হারুন ভূঁইয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার। ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মুশফিক উদ্দিন বখতিয়ার।

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবক মোহাম্মদ মোর্শেদ আলম এ রিট করেন। এরপর মন্ত্রণালয় কী পদক্ষেপ নিয়েছে সে বিষয়ে জানতে চেয়ে শুনানি মুলতবি করেছিলেন হাইকোর্ট। 

রিটে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষের অসাদাচরণ ও দুর্নীতির বিষয়ে তদন্ত করতে বিভাগীয় ব্যবস্থার কার্যক্রম চালু না করায় বিবাদীদের ব্যর্থতা এবং নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ হবে না ও বিভাগীয় ব্যবস্থার কার্যক্রম শুরু করতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়। এ রুল বিবেচনাধীন থাকা অবস্থায় একজন সিনিয়র শিক্ষককে দায়িত্ব দিয়ে অধ্যক্ষ হিসেবে কার্যক্রম চালানো থেকে বিরত থাকতে নিষেধাজ্ঞা জারির আবেদন জানানো হয় রিটে।

আবেদনে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করা হয়েছে। প্রতিবেদনগুলোতে ওই অধ্যক্ষের একটি ফোনালাপ বিষয় তুলে ধরা হয়। রিটে শিক্ষা সচিব, শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচলক, অধ্যক্ষ কামরুন নাহার ও গভর্নিং বডির সভাপতিকে বিবাদী করা হয়েছে।


আরও খবর
আবরার হত্যায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড

বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১