আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

নয় আসনে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী

প্রকাশিত:বুধবার ২২ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

শেখ হাসিনার পক্ষে গোপালগঞ্জ-৩ আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন দলটির নেতারা। এ আসনে অন্য কেউ নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন চেয়ে ফরম তোলেননি।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ গত চার দিন দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে। ৩০০ আসনের বিপরীতে ৩ হাজার ৩৬২টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে। এর মধ্যে ৯টি আসনে একক প্রার্থী রয়েছে বলে জানা গেছে। 

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রির বুথ সূত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে। তবে গত ৪ দিনে ১২১টি ফরম অনলাইনে বিক্রি হয়েছে। কিন্তু এই ৯ আসনে কোনো প্রার্থী অনলাইনে ফরম কিনেছেন কি না তা জানা সম্ভব হয়নি।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রির কাজ শেষ করেছে আওয়ামী লীগ। আগামীকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে দলটির সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই সভায় চূড়ান্ত হবে কে হবে কোন আসনের নৌকার মাঝি। 

বুথ সূত্রে জানা যাচ্ছে, আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে গোপালগঞ্জ-৩ ও রংপুর-৬ আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন দলটির নেতারা। এর মধ্যে গোপালগঞ্জ-৩ আসনের জন্য অন্য কেউ নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন চেয়ে ফরম তোলেননি। একই তালিকায় রয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কার্যনির্বাহী সদস্য আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী নেতা শামীম ওসমান, বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন, শেখ সালাউদ্দিন ও শেখ তন্ময়। এসব নেতার আসনে আর কোনো প্রার্থী নৌকার মনোনয়নের প্রত্যাশায় ফরম সংগ্রহ করেননি। ফলে এ ৯ আসনে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী থাকছে।

বাগেরহাট-১ আসন থেকে শেখ হেলাল উদ্দিনের বিপরীতে দলের আর কোনো প্রার্থী ফরম নেননি। শেখ হেলাল আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার আপন চাচাতো ভাই। অন্যদিকে শেখ হেলালের ছেলে শেখ তন্ময় বাগেরহাট-২ আসন থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী। তার আসন থেকেও অন্য কেউ দলের মনোনয়ন প্রত্যাশায় ফরম নেননি।

দলের কার্যনির্বাহী সদস্য আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ বরিশাল-১ আসন থেকে একক মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। অন্য দিকে শেখ হেলালের আরেক ভাই শেখ সালাহউদ্দিন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য। তার আসনেও নৌকা প্রত্যাশায় ফরম সংগ্রহ করেননি কেউ। 

এদিকে জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী মাদারীপুর-১ আসনে একক প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসন বর্তমান সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। তার আসনেও মনোনয়ন প্রত্যাশায় অন্য কেউ ফরম নেননি।


আরও খবর



অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ

নেপালকে হারিয়ে সেমির পথে বাংলাদেশের যুবারা

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ পূনরুদ্ধার করার লক্ষ্য নিয়ে ভালোভাবেই এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ যুব ক্রিকেট দল। সুপার সিক্সে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ নেপাল অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে ৫ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়ে সেমি ফাইনালের পথে একধাপ এগিয়ে গেলো টাইগার জুনিয়ররা।

ব্লুমফন্টেইনের মাঙ্গুয়াঙ ওভালে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নেপাল যুব ক্রিকেট দল অলআউট হয় ১৬৯ রানে। জবাব দিতে নেমে জিসান আলম এবং আরিফুল ইসলামের ব্যাটে চড়ে ২৫.২ ওভারেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

সুপার সিক্সে বাংলাদেশ খেলবে আর একটি ম্যাচ। পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে ১৪৮ বল হাতে রেখে এই জয় বাংলাদেশের যুবাদের রান রেট বাড়িয়ে দিয়েছে অনেক, সন্দেহ নেই। তবে, সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে হলে, পাকিস্তানের বিপক্ষেও বড় ব্যবধানে জিততে হবে টাইগার যুবাদের।

সুপার সিক্সের গ্রু-১ এর পয়েন্ট টেবিলে বাংলাদেশ রয়েছে তিন নম্বরে। গ্রুপ পর্বের ভারত এবং আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের ফল এবং পয়েন্ট সুপার সিক্সেও হিসেব হবে। সে ক্ষেত্রে গ্রুপ পর্বে ভারতের কাছে হারের কারণে, সুপার সিক্সে বাংলাদেশের পয়েন্ট ৩ ম্যাচে ৪।

অন্যদিকে ভারত এবং পাকিস্তান ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট করে নিয়ে রয়েছে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে। আবার রানরেটও বাংলাদেশের চেয়ে পাকিস্তানের ভালো। সে ক্ষেত্রে সুপার সিক্সের শেষ ম্যাচে পাকিস্তানকে বড় ব্যবধানে হারাতে পারলেই সেমিফাইনালে উঠতে পারবেন মাহফুজুর রহমান রাব্বিরা।

ব্লুমফন্টেইনের মাঙ্গুয়াঙ ওভালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় নেপাল। বিশাল বিক্রমের ৪৮ এবং দেব খানালের ৩৫ রানের ওপর ভর করে ৪৯.৫ বলে ১৬৯ রান তুলে অলআউট হয়ে যায় নেপাল। রোহানাত দৌলা বর্ষণ ১৯ রান দিয়ে নেন ৪ উইকেট। শেখ পারভেজ জিবন নেন ৩ উইকেট।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল উদ্বোধনী জুটিতে তোলে ৬৭ রান। আশিকুর রহমান শিবলি ৩৪ বলে ১৬ রান করে আউট হন। ৪৩ বলে ৫৫ রান করেন জিসান আলম। ১১ বলে ১৫ রান করে আউট হন চৌধুরী মোহাম্মদ রিজওয়ান।

আরিফুল ইসলাম ৩৮ বলে ৫৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। ৭টি বাউন্ডারির সঙ্গে ২টি ছক্কার মারও মারেন তিনি। মোহাম্মদ শিহাব জেমস শূন্য রানে আউট হয়ে যান। ৫ রানে অপরাজিত থাকেন শেখ পারভেজ জীবন। নেপালের হয়ে সুবাশ বান্দারি একাই বাংলাদেশের ৫টি উইকেট দখল করেন।


আরও খবর



আজ শেষ হচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদের মেয়াদ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আনুষ্ঠানিকভাবে আজ শেষ হচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদের মেয়াদ। বিদায়ী এই সংসদের যাত্রা শুরু হয় ২০১৯ সালের ৩০ জানুয়ারি আর শেষ হয় ২০২৩ সালের ২ নভেম্বর। এতে কার্যদিবস কম হলেও সর্বোচ্চসংখ্যক ২৫টি অধিবেশন বসেছে।

সর্বশেষ ২৫তম অধিবেশনের ৯ কার্যদিবসসহ এই সংসদের মোট কার্যদিবস ছিল ২৭২টি। এর আগে দশম সংসদে কার্যদিবস ছিল ৪১০ ও নবম সংসদে কার্যদিবস চলে ৪১৮।

অন্যদিকে আগামীকাল মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) ইতিহাসের সর্বোচ্চ সংখ্যক স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য নিয়ে বসছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন। ওই দিন বিকেল ৩টায় রাষ্ট্রপতির ভাষণের মধ্য দিয়ে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হবে।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ গতবারের মতো এবারও স্পিকার হিসেবে শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং ডেপুটি স্পিকার পদে শামসুল হক টুকুকে মনোনীত করেছে। সংসদ নেতা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর উপনেতা মতিয়া চৌধুরী। বিরোধী দলীয় নেতা হয়েছেন জাতীয় পার্টির জি এম কাদের ও উপনেতা আনিসুল ইসলাম মাহমুদ।

অধিবেশনের প্রথম দিনেই রাষ্ট্রপতি স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারকে শপথবাক্য পাঠ করাবেন বলে জানিয়েছে সংসদ সচিবালয়। এরপর নতুন সংসদ সদস্যদের উদ্দেশ্যে প্রথমবারের মত ভাষণ দেবেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন। পরে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নেবেন সদস্যরা।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, দ্বাদশ সংসদে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ২২৩, স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ৬২, জাতীয় পার্টির ১১, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের ১, ওয়ার্কার্স পার্টির ১ আর কল্যাণ পার্টির ১ জন সংসদ সদস্য আছেন।

এবারই ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিরোধী দলের থেকে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের সংখ্যা ছয় গুণ বেশি। সরকার প্রধান বলছেন, জাতীয় পার্টির পাশাপাশি সংসদে বিরোধী ভূমিকায় থেকে সরকারের গঠনমূলক সমালোচনা করার সবচেয়ে বেশি সুযোগ রয়েছে স্বতন্ত্র এমপিদের।

এদিকে অধিবেশন চলাকালে সংসদ ভবন ও আশপাশের এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য কিছু নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ধামরাইয়ে ধনিয়া ফুল থেকে মৌমাছির মধু সংগ্রহ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
ধামরাই প্রতিনিধি

Image

মৌমাছি মৌমাছি ,কোথা যাও নাচি নাচি, দাঁড়াও না একবার ভাই,ওই ফুল ফোটে বনে,যাই মধু আহরণে, দাঁড়াবার সময় তো নাই। নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্যের এই কবিতার মত ঢাকার ধামরাই উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের দেউলি গ্রামে মৌমাছিরা এখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ধনিয়া ক্ষেতের ধনিয়া ফুল থেকে মধু আহরণে।

ধনিয়া ক্ষেতের সুগন্ধি ও ফুলের অপরূপ দৃশ্য যেন মনমুগ্ধকর । এই সুযোগে ফসলের জমির পাশে পোষা মৌমাছির বাক্স নিয়ে হাজির হয়েছেন মৌয়ালরা। ওই সব বাক্স থেকে হাজার হাজার মৌমাছি উড়ে গিয়ে মধু সংগ্রহে ঘুরে বেড়াচ্ছে সরিষা ফুলের মাঠে।

ধনিয়া ফুলের মধুর বৈশিষ্ট এটা সংগ্রহের পর দেখতে সাদা পানির কালার মত দেখায়, এটা সংগ্রহ করা হয় সাধারণত জানুয়ারী মাসের শেষে থেকে ফেব্রুয়ারী মাস জুড়ে তবে সময়ের কম বেশি হতে পারে। এই মধুটি অন্যান্য মধুর মত কালার ও স্বাদের পরিবর্তন হয় দীর্ঘ সময় পার হওয়া পর। ধনিয়া ফুলের মধুর প্রধান বৈশিষ্ট এটা সরিষা ফুলের মত জমে বা বসে যায়। এই মধুটি আমাদের দেশে উৎপাদন পরিমান খুবই সীমিত।

চাষীরা সাধারণত পছন্দের একটি ধনিয়া ক্ষেতের পাশে খোলা জায়গায় চাক ভরা বাক্স ফেলে রাখেন। একেকটি বাক্সে মোম দিয়ে তৈরি ছয় থেকে সাতটি মৌচাকের ফ্রেম রাখা হয়। আর তার ভেতর রাখা হয় একটি রাণী মৌমাছি। রাণী মৌমাছির কারণে ওই বাক্সে মৌমাছিরা আসতে থাকে। মৌমাছিরা ফুল থেকে মধু এনে বাক্সের ভেতরের চাকে জমা করে। আর এই চাক থেকেই মধু সংগ্রহ করেন মৌচাষীরা। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত মৌ-চাষিরা এসব মৌচাক থেকে মধু সংগ্রহ করেন। মৌ চাষের মাধ্যমে চাষীরা একদিকে যেমন আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন, অন্যদিকে দূর হচ্ছে বেকারত্ব।

ময়মনসিংহ থেকে আসা মৌ-চাষী জিহাদ বলেন, ধনিয়া ক্ষেতের পাশে মধু সংগ্রহের জন্য ২৬টি বাক্স বসানো হয়েছে।ওইসব বাক্স থেকে হাজার হাজার মৌমাছি উড়ে গিয়ে মধু সংগ্রহে ঘুরে বেড়াচ্ছে ধনিয়া ফুলের ক্ষেতে । তবে আবহাওয়া কিছুটা খারাপ হওয়ার কারণে মধু কম সংগ্রহ হয়েছে।

ধামরাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আরিফুর রহমান জানান, ধনিয়া ক্ষেতের পাশে মৌমাছির চাষ হলে ফলন বেড়ে যায় ফলনও ভালো হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বাক্স পদ্ধতি ব্যবহার করে বাণিজ্যিকভাবে এসব মধু সংগ্রহ করা হচ্ছে। এতে মৌমাছি ব্যবসায়ীরা যেমন একদিকে মধু বিক্রি করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হচ্ছেন, অন্যদিকে ক্ষেতে মধু চাষ করায় ফলনও বাড়ছে।

নিউজ ট্যাগ: মৌমাছি

আরও খবর



বিগত বছরে নিহত ৯৯ সাংবাদিকের মধ্যে ৭২ জন গাজা যুদ্ধে নিহত : সিপিজে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে) বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) জানিয়েছে, ২০২৩ সালে নিহত ৯৯ জন সাংবাদিকের মধ্যে ৭২ জন ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধে নিহত হয়েছেন। নিহতের এই সংখ্যা প্রায় এক দশকের মধ্যে গণমাধ্যমের জন্য সবচেয়ে প্রাণঘাতী ছিল।

সোমালিয়া ও ফিলিপাইনে মৃত্যুর সংখ্যা স্থিতিশীল থাকলেও সিপিজে বলছে, গাজা, ইসরায়েল ও লেবাননে নিহতের সংখ্যা না থাকলে বিশ্বজুড়ে সাংবাদিক হত্যার ঘটনা বছরওয়ারি কমে যেত।

সাংবাদিক নিহতের এই সংখ্যা ২০১৫ সালের পর থেকে সর্বোচ্চ এবং ২০২২ সালের পরিসংখ্যানের প্রায় ৪৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

২০২৩ সালের ডিসেম্বরে সিপিজে জানিয়েছিল, ইসরায়েল-গাজা যুদ্ধের প্রথম তিন মাসে পুরো এক বছরে কোনো দেশে যত সাংবাদিক নিহত হয়েছেন, তার চেয়ে বেশি সাংবাদিক নিহত হয়েছেন।

ইসরায়েল-হামাস সংঘাতে নিহত ৭২ সাংবাদিকের মধ্যে তিনজন লেবাননের ও দুজন ইসরায়েলি বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

সিপিজের প্রধান নির্বাহী জোডি গিন্সবার্গ বলেন, গাজার সাংবাদিকরা সামনের সারিতে আছেন।


আরও খবর



৩০ জানুয়ারি নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার আহ্বান: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আগামী ৩০ জানুয়ারি বিএনপির কালো পতাকা মিছিলের দিন সারাদেশে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার ও নিজেদের স্থানে লাল-সবুজ পতাকা হাতে সমাবেশের আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকালে রাজধানী গুলিস্তানে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে অনুষ্ঠিত শান্তি ও গণতন্ত্র সমাবেশে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের সমাবেশে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিএনপির ৩০ তারিখের কালো পতাকা মিছিলের দিন আপনারা লাল-সবুজ পতাকা নিয়ে গণতন্ত্র, শান্তি, উন্নয়ন সমাবেশ করবেন। সারা দেশে আমাদের নেতাকর্মীরা পাহারায় থাকবেন। নির্বাচনের খেলা শেষ, এখন খেলা হবে রাজনীতির খেলা। সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে খেলা হবে। খেলা হবে হরতাল, আগুন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে।

তিনি আরও বলেন, আন্দোলন করে বিএনপি ভুয়া হয়ে গেছে, তারা আবার মাঠে নেমেছে। তাদের এই আন্দোলনে পাবলিক সাড়া দেয় না। অবরোধ ডাকে কেউ শুনে না, হরতাল ডাকে রাস্তায় যানজট। বিএনপির অবরোধ, হরতাল ভুয়া। বিএনপি মানেই ভুয়া।

বিএনপির বিদেশিদের ভয় দেখানোর বিষয়ে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ৪১.৮ পার্সেন্ট ভোটারের ভোটে শেখ হাসিনা সরকার নির্বাচিত করেছে। এটা জনগণের সরকার। কোনো বিদেশিদের সরকার না। বাংলাদেশের মানুষের ভোটে নির্বাচিত সরকার। তারা কালো পতাকা মিছিল করে। কালো পতাকা মানে কী, শোকের মিছিল। কালো পতাকা ভুয়া।

উল্লেখ্য, এদিন দুপুরে দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ কারাবন্দি নেতাকর্মীদের মুক্তি, নিত্যপণ্যের দাম কমানো এবং অবৈধ সংসদ বাতিলের দাবিতে নয়াপল্টন থেকে ৩০ তারিখ কালো পতাকা মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএনপি।


আরও খবর