আজঃ মঙ্গলবার ২৮ মার্চ ২০২৩
শিরোনাম

অফিসে থাকুন তরতাজা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ মার্চ ২০২৩ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক


Image

যানজট আর দূষণের এই শহরে অফিসে ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা তরতাজা থাকা ভীষণ কঠিন। তারপরেও বিষয়টি নিয়মিত চর্চার মধ্যে নিতে হয়। নইলে দুশ্চিন্তাসহ সবকিছুর ছাপ ফুটে ওঠে শরীরে। তখন মানসিক চাপ আরও বাড়ে। পুরো কর্মঘণ্টায় তরতাজা থাকতে কয়েকটি টিপস কার্যকর হতে পারে।

সকালে দ্রুত ঘুম থেকে উঠুন: সকালে কোনোমতে ঘুম থেকে উঠে পাঁচ মিনিটে তৈরি হয়ে অফিসের জন্য বেরিয়ে পড়াটা অনেকেরই অভ্যাস। এই অভ্যাস অস্বাস্থ্যকর। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে শরীরে। সকালে অফিসে যাওয়ার অন্তত দুই ঘণ্টা আগে ঘুম থেকে উঠুন। তারপর যা করতে পারেন:

খালি পেটে আধা লিটার পানি পান করুন। হালকা ব্যায়াম করুন। এতে ঠিকমতো রক্ত চলাচল করবে শরীরে। এটি চেহারায় উজ্জ্বলতা আনবে। সকালে জেড রোলার দিয়ে ত্বক ম্যাসাজ করতে পারেন। এতে ত্বকের ফোলা ভাব দূর হবে। ভালোমতো নাশতা করুন। এতে দিনের শুরুতে কাজ করার শক্তি পাবেন। সকালে উঠে এই অভ্যাসগুলো গড়ে তুলতে পারলে সারা দিন অনেকটাই তরতাজা থাকতে পারবেন।

মুখ পরিষ্কার ও গোসল করুন: সকালে উঠে অবশ্যই মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করে নেবেন। তারপর গোসল করবেন। সকালে উঠতে দেরি হলেও গোসল করা বাদ দেবেন না। এটি শরীর ঠান্ডা রাখে। তরতাজা থাকতে সহায়তা করে। গোসলের পর প্রসাধনী ব্যবহার করবেন।

সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন: শুধু সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে বাঁচার জন্য নয়, বরং ল্যাপটপ ও মোবাইলের র‍্যাডিয়েশন থেকে ত্বক রক্ষার জন্যও সানস্ক্রিন ব্যবহার করা জরুরি। সকালে মুখ পরিষ্কার করে সবার আগে সানস্ক্রিন লাগিয়ে তারপর অন্য কিছু ব্যবহার করুন। অফিসে গিয়ে দুই ঘণ্টা পরপর মুখ পরিষ্কার করে পুনরায় সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।

ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করুন: সানস্ক্রিনের মতো ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করাটাও জরুরি। আপনার অফিসে যদি এসি থাকে, তাহলে ময়শ্চারাইজার ব্যবহার না করলে ত্বক শুষ্ক ও নিষ্প্রাণ দেখাবে। ত্বক শুষ্ক লাগলে আবার ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। এটি আপনার ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখতে সহায়তা করবে।

চুল বেঁধে রাখুন: অফিসে লম্বা সময় চুল ছেড়ে রাখা মোটেই স্মার্ট কোনো সিদ্ধান্ত নয়। এতক্ষণ চুল ছেড়ে রাখলে গরম লাগবে। চুলও রুক্ষ হতে পারে। তাই অফিসে চুল বেঁধে রাখার চেষ্টা করুন। বেণি, খোঁপা, ঝুঁটি ইত্যাদির মধ্যে আপনার পছন্দের যেকোনো স্টাইলে চুল বাঁধতে পারেন। লাঞ্চ ব্রেকে অবশ্যই চুল একবার আঁচড়িয়ে নিন। এতে চুলের গোড়ায় রক্তসঞ্চালন হবে এবং চুল ভালো থাকবে।

আরামদায়ক পোশাক পরুন: অফিসে অবশ্যই আরামদায়ক পোশাক ব্যবহার করুন। এতে আপনি স্বস্তিবোধ করবেন। ফলে নিজেকে আত্মবিশ্বাসী মনে হবে। আঁটসাঁট পোশাকে নিজের যেমন অস্বস্তি লাগবে, তেমনি ফ্রেশ দেখাবে না। সুতি বা লিনেনের আরামদায়ক পোশাকে অফিস করার চেষ্টা করুন।

হালকা মেকআপ করুন: অফিসে ন্যাচারাল লুকে যাওয়ার চেষ্টা করুন। এ জন্য বিবি ক্রিম, কাজল ও লিপবাম ব্যবহার করতে পারেন। হালকা মেকআপে নিজেকে দেখতে যেমন সুন্দর লাগে, ঠিক তেমনি সহজেই টাচ আপ করে ফেলা যায়। 

লিপ বাম সঙ্গে রাখুন: সাধারণত শীতকালে বা অফিসে এসি থাকলে শরীরের আর্দ্রতা কমে। ফলে ঠোঁট শুকিয়ে ফেটে যায়। এর সমাধানে সঙ্গে লিপ বাম রাখুন। ঠোঁট শুকিয়ে গেলে লিপ বাম লাগিয়ে ফেলুন।

পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন: অফিসে বাসার মতো মুখ পরিষ্কার করা সম্ভব নয়। অফিসে থাকা অবস্থায় অন্তত দুবার শুধু পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। তা ছাড়া যখন সানস্ক্রিন ও ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করবেন, এর আগে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বকে সানস্ক্রিন ও ময়শ্চারাইজার ভালোমতো বসে যাবে।

পর্যাপ্ত পানি পান করুন: একজন সুস্থ মানুষের দিনে অন্তত দুই লিটার পানি পান করা উচিত। শরীরের আর্দ্রতা বজায় রাখতে অফিসে থাকা অবস্থায় পর্যাপ্ত পানি পান করুন। ক্লান্তি লাগলে কফি বা চা খাওয়ার বদলে গ্রিন টি বা ডিটক্স পানি পান করুন।

নিউজ ট্যাগ: ভূমি অফিস

আরও খবর