আজঃ মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

ওমিক্রন: ওমরাহ পালনে যেসব দেশের নাগরিকের সৌদি প্রবেশ নিষিদ্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ১০৮০জন দেখেছেন

Image

সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের পর বিশ্বের বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা অঞ্চলের দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। ওমিক্রনের কারণে ওমরাহ পালনে তুরস্কসহ ১৮ দেশের নাগরিকের সৌদি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

টিকা নেওয়া থাকলেও তুরস্ক, লেবানন ও আফগানিস্তানসহ ১৮ দেশের নাগরিকদের ওমরাহ পালনে সৌদি প্রবেশে নিষেজ্ঞা আরোপ করেছে কর্তৃপক্ষ। যেসব দেশকে সৌদি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে সেগুলো হচ্ছে- মালাবি, জাম্বিয়া, মাদাগাস্কার, মরিশাস, অ্যাঙ্গোলা, মোজাম্বিক, সিশেল, দক্ষিণ আফ্রিকা, কোমোরোস, লেসোথু,নামিবিয়া, বোতসোয়ানা,ইউথুপিয়া ও এসওয়াতিনি।

রোববার সৌদির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত দেশটিতে ওমিক্রন সংক্রমিত রোগী পাওয়া যায়নি।

আফ্রিকার বেশ কয়েকটি দেশে করোনার এই নতুন ধরন শনাক্ত হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, ইতালি, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, বতসোয়ানা, হংকং ও ইসরায়েলসহ বিশ্বের আরও কয়েকটি দেশে ওমিক্রন আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে।


আরও খবর



ভাড়া নির্ধারণ না হওয়ায় আগাম টিকিট বিক্রি বন্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলমান করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারি প্রজ্ঞাপন মোতাবেক আগামী বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) থেকে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে চলবে বাস-লঞ্চ-ট্রেন। কিন্তু এখনও ভাড়া নির্ধারিত না হওয়ায় আগাম টিকেট বিক্রি বন্ধ রেখেছে দূরপাল্লার সব গণপরিবহন।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) সকাল থেকে রাজধানীর সায়েদাবাদ, গাবতলী ও মহাখালী টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে, আগাম টিকেট বিক্রি করা হচ্ছে না কোথাও। কাউন্টারে থাকা কর্তৃপক্ষ বলছেন, সরকার এবং মালিকপক্ষকে এখনও ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়ে কোনও নির্দেশনা আসেনি। তাই আগাম টিকেট বিক্রি বন্ধ রয়েছে।

এদিকে যাত্রীদের অভিযোগ, তেলের দাম বৃদ্ধির পর বাড়তি ভাড়ার ধকল এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি মানুষ। তার ওপর এখন আবার এক আসন ফাঁকা রাখার কথা বলে ভাড়া বৃদ্ধি করা হলেও, বেশিরভাগ পরিবহনেই তা মানা হচ্ছে না।

এমন অবস্থায় নতুন করে এমন নির্দেশনা আসলে, সেটি অসহনীয় পর্যায়ে চলে যাবে বলে দাবি যাত্রীদের। একইসঙ্গে আসন ফাঁকা নয়, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে সরকারের কড়াকড়ি আরোপের দাবি জানিয়েছেন যাত্রীরা। সম্প্রতি আবারও বাড়তে থাকা করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সোমবার (১০ জানুয়ারি) ১১ দফা বিধিনিষেধ আরোপ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

যে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়- ট্রেন, বাস এবং লঞ্চে আসন সংখ্যার অর্ধেক সংখ্যক যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কার্যকারিতার তারিখসহ আলাদাভাবে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি করবেন।

এছাড়াও সব যানবাহনের চালক ও সহকারীদের আবশ্যিকভাবে কোভিড-১৯ টিকা সনদধারী হতে হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়।


আরও খবর



আজ থেকে অর্ধেক জনবল নিয়ে চলবে সব অফিস

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | ১৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা ভাইরাসজনিত রোগ (কোডিড-১৯) সংক্রমণের পরিস্থিতি বিবেচনায় আজ (২৪ জানুয়ারি) থেকে অর্ধেক জনবল নিয়ে সব অফিস পরিচালনা করতে হবে। 

আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সব অফিস অর্ধেক জনবল নিয়ে পরিচালনার নির্দেশ দিয়ে রোববার (২৩ জানুয়ারি) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, সকল সরকারি/আধা সরকারি/স্বায়ত্তশাসিত/বেসরকারি অফিসসমূহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক অর্ধেক সংখ্যক কর্মকর্তা/কর্মচারী নিয়ে পরিচালনা করতে হবে। অন্যান্য কর্মকর্তা/কর্মচারীরা নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করবেন এবং দাপ্তরিক কার্যক্রম ভার্চুয়ালি (ই-নথি, ই-টেন্ডারিং, ই-মেইল, এসএমএস, হোয়াটসঅ্যাপসহ অন্যান্য মাধ্যম) সম্পন্ন করবেন।

২. বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আদালতসমূহের বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করবে।

৩. ব্যাংক/বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিবে।

উল্লিখিত বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সব সচিব/সিনিয়র সচিবকে অনুরোধ করা হয়েছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এজজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অর্ধেক জনবলের বিষয়ে এখন নিজ নিজ মন্ত্রণালয় নির্দেশনা জারি করবে। আজকের মধ্যে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেওয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



প্রধান বিচারপতি হচ্ছেন হাসান ফয়েজ

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | ৮৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পরবর্তী প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন আপিল বিভাগের বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। তার নিয়োগবিষয়ক আনুষ্ঠানিক প্রজ্ঞাপন প্রকাশের পর বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ শপথ পড়াবেন। এর মধ্য দিয়েই দেশের ২৩তম প্রধান বিচারপতি হতে যাচ্ছেন তিনি।

চলতি বছরের শেষ দিন অর্থাৎ ৩০ ডিসেম্বর অবসরে যাচ্ছেন দেশের ২২তম প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আগামী ৩১ ডিসেম্বর তার বয়স ৬৭ বছর পূর্ণ হলেও ওইদিন শুক্রবার হওয়ায় একদিন আগেই অবসরে যাচ্ছেন তিনি।

সংবিধানের ৯৫ (১) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, প্রধান বিচারপতি রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নিযুক্ত হইবেন এবং প্রধান বিচারপতির সহিত পরামর্শ করিয়া রাষ্ট্রপতি অন্যান্য বিচারককে নিয়োগ করিবেন। অর্থাৎ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতি প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দিয়ে থাকেন। তবে দীর্ঘদিনের রীতি অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতি আপিল বিভাগের যে বিচারপতিকে প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেবেন, তার বিষয়ে সম্মতি দিয়ে প্রথমে আইন মন্ত্রণালয়কে জানাবেন।

আবদুর গফুর মোল্লা ও নূরজাহান বেগম দম্পতির সন্তান হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ১৯৭২ সালে খোকসা জানিপুর পাইলট হাইস্কুল থেকে এসএসসি পাস করেন। আইএসসি পাস করেন ১৯৭৪ সালে সাতক্ষীরার সরকারি পিসি কলেজ থেকে। এরপর বিএ পাস করেন সাতক্ষীরা সরকারি কলেজ থেকে। আর এমএ পাস করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ থেকে। পরবর্তীতে ধানমন্ডি কলেজ থেকে এলএলবি পাস করেন।

এরপর ১৯৮১ সালে ঢাকা জজ কোর্টে আইন পেশায় যোগ দেন হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। ১৯৮৩ সালে হাইকোর্ট বিভাগে এবং ১৯৯৮ সালে আপিল বিভাগে আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হন তিনি। ২০০৯ সালে হাইকোর্ট ডিভিশনের স্থায়ী বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান। ২০১৩ সালের ২৮ মার্চ আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান। তার বড় ভাই বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী আপিল বিভাগের বিচারপতি থেকে অবসরে গিয়েছেন।

বর্তমানে আপিল বিভাগে পাঁচ বিচারকের মধ্যে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন অবসরে গেলে বাকি থাকবেন বিচারপতি ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান ননী ও বিচারপতি ওবায়দুল হাসান। সুপ্রিম কোর্ট সূত্র অনুযায়ী, বিচারপতি মুহাম্মদ ঈমান আলী ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ২০২৩ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর, বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান ২০২৩ সালের ৩০ জুন এবং বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ২০২৬ সালের ১০ জানুয়ারি অবসরে যাবেন।


আরও খবর



দ্রুত এগিয়ে চলছে আশ্রয়ণ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ২৬৫জন দেখেছেন

Image

আবু বকর সিদ্দিক, শেরপুর (বগুড়া)

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় তৃতীয় পর্যায়ের আরো ৪৫ টি ভূমিহীন পরিবারের মাঝে ভূমিসহ ঘর বরাদ্দ দেওয়ার উদ্দেশ্যে উপজেলার ৪ টি ইউনিয়নে ৪৫টি ঘর নির্মাণের কাজ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ময়নুল  ইসলামের প্রত্যক্ষ তত্বাবধানে দ্রুত এগিয়ে চলেছে। সমানতালে তদারকি করছেন শেরপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শামসুন্নাহার শিউলীসহ সংশ্লিষ্টরা।  

সরেজমিনে উপজেলার মির্জাপুর, ভবানীপুর, গাড়ীদহ ও বিশালপুর ইউনিয়নের প্রকল্প এলাকাসমুহ ঘুরে দেখা যায়, বেশিরভাগ ঘরের নির্মাণ কাজ কোথাও ২০ ভাগ,  কোথাও ৩০ভাগ আবার কোথাও ৫০ ভাগ ইটের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করার জন্য যেমন রয়েছে উপজেলা প্রশাসনের তদারকি তেমনি ব্যস্ততা নির্মাণ কর্মীদের। এছাড়াও অতিরিক্ত আরো ১০০টি ঘর বরাদ্ধ পাওয়া গেছে যারমধ্যে থেকে ৩০টি ঘরের নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। বিশালপুর ইউনিয়নের সুবিধাভোগীদের সাথে কথা বলে তাদের অনুভূতি জানতে চাইলে তার জানান, কবে স্বপ্নের ঘরে উঠবে সেই অপেক্ষায় আনন্দচিত্তে অপেক্ষা করছেন তারা।   

মুজিববর্ষে ‘বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা  বাস্তবায়নে দেশের সব ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম অন্যান্য এলাকার মত শেরপুরেও চলমান। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শামসুন্নাহার শিউলীর দেয়া তথ্যানুযায়ী মুজিব বর্ষ উপলক্ষে সারাদেশে অর্ধলক্ষেরও বেশি পরিবারকে বিনামূল্যে দুই শতক জমি ও সেমিপাকা ঘর করে দেয়া হচ্ছে। গত বছর২০ জুন এর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ  হাসিনা। শেরপুর উপজেলায় প্রথম পর্যায়ে ৮ টি ইউনিয়নে ১৬৩ টি ঘর বরাদ্দ করা হয়েছে প্রতিটি নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছিল ১ লাখ ৭০ হাজার  টাকা, ২য় পর্যায়ে ৫ টি ইউনিয়নে ১৭ টি ঘর বরাদ্দ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যয় ধরা হইয়েছিলো ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা। তৃতীয় পর্যায়ে ৪৫ টি নির্মাণাধীন ঘরের প্রতিটি ঘরের ব্যয় ধরা হয়েছে ২লাখ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা।    

এ প্রসঙ্গে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ময়নুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, তৃতীয় পর্যায়ের ৪৫টি ঘর এবং নতুন বরাদ্ধ পাওয়া ১০০টি ঘরের মধ্যে ৩০টি সহ মোট ৭৫টি ঘরের কাজ এগিয়ে চলেছে। মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিটি প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়নের জন্য আমি এবং আমার টিম সর্বদা সচেষ্ট। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষে প্রকৃত গৃহহীন সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের ঘর বুঝিয়ে দিবো ইনশাআল্লাহ।



আরও খবর
বগুড়ায় শক্তিশালী ৭ বিস্ফোরক উদ্ধার

শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১




রাষ্ট্রপতির সংলাপে অংশ নেবে না রবের জেএসডি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে রাষ্ট্রপতির চলমান সংলাপে অংশ নেবে না আ স ম আব্দুর রবের জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি)।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীতে নিজ বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এ তথ্য জানান দলটির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব।

সরকার সংবিধানের ইচ্ছা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিনিধিত্ব করে না অভিযোগ করে তিনি বলেন, শুধু নির্বাচন কমিশন গঠন নিরপেক্ষ-অবাধ নির্বাচনের জন্য কোনো সমাধান নয়। তাই বাস্তবতার পরিপ্রেক্ষিতে মহামান্য রাষ্ট্রপতির সংলাপে জেএসডি অংশগ্রহণ করছে না।

আব্দুর রব বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব নয় বলে তারা বিশ্বাস করেন। এ ছাড়া তথাকথিত নির্বাচন সরকার বৈধতা অর্জনের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে।

অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে দলটির পক্ষ থেকে জাতীয় সরকার-এর প্রস্তাবনা উত্থাপন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ইতোমধ্যে সংলাপে অংশগ্রহণের বিষয়ে দলটির অবস্থান জানিয়ে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।


আরও খবর