আজঃ রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩
শিরোনাম

অপ্রয়োজনীয় টেস্ট নিয়ে রোগীদের হয়রানি করবেন না: রাষ্ট্রপতি

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ১৩ মার্চ ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দেশে স্বনামধন্য চিকিৎসক ও প্রতিষ্ঠান থাকার পরও মানুষ চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাচ্ছে কেন তা খতিয়ে দেখার ওপর জোর দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। তিনি অপ্রয়োজনীয় পরীক্ষা নিয়ে রোগীদের হয়রানি না করার আহ্বানও জানিয়ছেন।

সোমবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) চতুর্থ সমাবর্তনে এ কথা বলেন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আচার্য আবদুল হামিদ।

সমাবর্তনে তিনজনকে সম্মানসূচক (পিএইচডি) ডিগ্রি প্রদান করা হয়। তারা হলেন সূচনা ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ, বিএসএমএমইউর সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর ও বিশিস্ট ভাইরোলজিষ্ট অধ্যাপক ডা. মো. নজরুল ইসলাম এবং বিশিস্ট অর্থোপেডিক সার্জন অধ্যাপক ডা. কাজী শহিদুল আলম। চতুর্থ সমাবর্তনে ৩৫ জনকে চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।

রাষ্ট্রপতি তার বক্তব্যে বলেন, রোগীর আস্থা অর্জনে একজন ডাক্তারকে সবার আগে ভালো শ্রোতা হতে হবে। অনেক কথা অপ্রাসঙ্গিক মনে হলেও রোগীর কাছে তা মানসিক সন্তুষ্টির বিষয়। তাই রোগীকে পর্যাপ্ত সময় নিয়ে দেখতে হবে। রোগীকে ওষুধ প্রদানের ক্ষেত্রে ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক চিকিৎসককে বিভিন্নভাবে প্রলুব্ধ করার রিপোর্ট প্রায়ই পত্রিকায় আসে। এই অসুস্থ ও অসৎ প্রতিযোগিতা পরিহার করতে হবে। এ ক্ষেত্রে বিদেশের মতো ট্রেডনেমের পরিবর্তে জেনেরিক নেম চালু করার বিষয়টি ভাবতে হবে।

সমাবর্তনে ডিগ্রি পাওয়া চিকিৎসকদের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি বলেন, আজ আপনারা যারা বিভিন্ন বিষয়ে ডিগ্রিপ্রাপ্ত হলেন তার পেছনে আপনাদের মা-বাবা, অভিভাবক ও শিক্ষকদের যেমন অবদান রয়েছে, তেমনি রয়েছে এ দেশের খেটে খাওয়া মানুষেরও বড় অবদান। প্রতিটি হাসপাতাল তাদের ঘাম ঝরানো পয়সায় পরিচালিত হয়। তাই কর্মক্ষেত্রে ও পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় এ কথাটি মনে রাখবেন। রোগী আছে বলেই চিকিৎসা পেশা আছে। তাই যাদের কারণে আপনাদের রুটিরুজি তাদের প্রতি আপনাদের আরো যত্নবান হওয়া উচিত। বড়ো ডাক্তার হয়ে অপ্রয়োজনীয় বড়ো বড়ো টেস্ট দিয়ে রোগীদের হয়রানি করবেন না।

আবদুল হামিদ বলেন, পত্রপত্রিকায় প্রায়ই দেখি যে, ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা হাসপাতাল-ক্লিনিকগুলো রোগীদের জিম্মি করে ব্যবসা করে। অনেক সময় দালালদের খপ্পরে পড়েও রোগীরা বিশেষ করে গ্রাম থেকে আসা রোগীরা চরম হয়রানির শিকার হন। প্রয়োজনের তুলনায় সরকারি হাসপাতালে সেবার সুযোগ অপ্রতুল। তাই বেসরকারি খাতে হাসপাতাল-ক্লিনিক থাকা খুবই জরুরি। তবে এসব হাসপাতাল-ক্লিনিক অবশ্যই গুণে-মানে সমৃদ্ধ হতে হবে। চিকিৎসার প্রয়োজনীয় সকল সুযোগ-সুবিধা থাকতে হবে। চিকিৎসার নামে সাইনবোর্ডসর্বস্ব ও দালান-নির্ভর এসব প্রতারণা বন্ধ করতে প্রশাসনিক উদ্যোগের সাথে চিকিৎসকদেরও এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, কিছুসংখ্যক অসাধু ও প্রতারক চিকিৎসকদের জন্য যাতে গোটা চিকিৎসক সমাজের সুনাম ক্ষুণ্ন না হয় সেদিকেও সচেতন থাকতে হবে।

রোগীর স্বজনদের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি বলেন, আবার রোগী ও তাদের আত্মীয়-স্বজনদেরও মনে রাখতে হবে ডাক্তাররা আল্লাহ বা ভগবান নন। তারাও মানুষ। কেবল চিকিৎসা সেবা দিতে পারেন। তাই রোগীর কিছু হলেই ডাক্তারদের দায়ী করবেন আর হাসপাতাল ভাংচুর করবেন এটাও কাম্য নয়। তাই ডাক্তার, রোগী ও আত্মীয়স্বজনদের আরও বেশি দায়িত্বশীল হতে হবে। এমন অবস্থা কারোরই কাম্য নয় যার ফলে সাধারণ মানুষ ও রোগীরা অসহনীয় দুর্ভোগের শিকার হন।

সমাবর্তনে সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন ভারতীয় ইউনিভার্সিটি সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক রাজ বর্ধন আজাদ।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ও বিএসএমএমইউর উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. মোশাররফ হোসেন, প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ, ও প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. মনিরুজ্জামান খান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান ও প্রক্টর অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুর রহমান দুলাল।


আরও খবর



বাংলাদেশের সিদ্ধান্ত বাংলাদেশই নেবে : শাহরিয়ার আলম

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশের নির্বাচনকে সামনে রেখে বিদেশি কূটনীতিকদের তৎপরতা নিয়ে সন্তুষ্ট নয় সরকার। কূটনীতিকদের তৎপরতা আরও বাড়তে থাকলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

বুধবার (৮ নভেম্বর) সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ বিষয়ে অসন্তোষ জানান প্রতিমন্ত্রী।

শাহরিয়ার আলম বলেন, বিষয়টা আমরা পছন্দ করি না (কূটনীতিকদের তৎপরতা)। কিন্তু তারপরও আমরা তাদের একটা কালচারাল স্পেস দিয়েছি। এ কালচারটা বাংলাদেশে আছে অনেকদিন থেকে। কিন্তু আমরা চাই, সামনের দিনে তারা এ কালচার থেকে সরে আসবে। বাংলাদেশের সিদ্ধান্ত বাংলাদেশই নেবে।


আরও খবর
আচরণবিধি লঙ্ঘনে শামীম ওসমানকে শোকজ

রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩




দুই দিনের মধ্যেই বকেয়া বেতন পাচ্ছেন নারী ক্রিকেটাররা

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ১৩ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image
গত জুন মাসের বৈঠক শেষে দেশের নারী ক্রিকেটারদের বেতন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আসে। সব ক্যাটাগরিতেই বাড়ানো হয়েছে প্রায় ২০ শতাংশ করে। কিছু ক্ষেত্রে ২০ শতাংশের বেশি।

দেশের পুরুষ ক্রিকেট দল যখন বিশ্বকাপের বড় মঞ্চে একের পর এক ম্যাচ হেরে দেশকে হতাশায় ডুবিয়েছেন, ঠিক তখন নারী ক্রিকেটাররা দিয়েছেন খানিক স্বস্তির সুবাতাস। পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি এবং ওয়ানডে সিরিজে জয় পেয়েছিল জ্যোতি-ফারজানারা। তবে এর মাঝেও ছিল আক্ষেপ। লম্বা সময় ধরে বেতন পাচ্ছেন না নারী ক্রিকেটাররা, এমন অভিযোগও শোনা গিয়েছিল জোরেশোরে।

বলা হচ্ছিল, গত ৫ মাস বেতন হচ্ছে না নারী ক্রিকেটারদের। এটা সত্য কিনা জানতে যোগাযোগ করা হয় বিসিবির নারী বিভাগের প্রধান শফিউল আলম চৌধুরি নাদেলের সঙ্গে। জবাবে তিনি বলেন, 'এটা সত্য আসলে। তবে আমি বিষয়টি জানতাম না, বেশি সময় পেরিয়ে গিয়েছে। ৫ মাস আগে নতুনভাবে বেতনের তালিকা দিয়েছিলাম, এরপর বোর্ডে এপ্রুভ করার পরে হবে বেতন। আমরা তো দিয়ে দিয়েছি সব। আমাকে কেউ আসলে আর ইনফর্ম করেনি পরে।'

নাদেলের সঙ্গে বিসিবি সভাপতির নির্দেশ দ্রুত এর সমাধান করার, 'এটা বোর্ড থেকেই পরে একাউন্টসে পাঠানোর কথা। তবে মেয়েরা এটা নিয়ে কোনো কথা বলে নি, কোনো ইস্যু বানায়নি। তাদের সাথে সবসময় যোগাযোগ হচ্ছে। বোর্ডে আমার পক্ষ থেকে যা দেওয়ার সেটা আমি দিয়েছি। সিইওকে বলেছি দ্রুত এর সমস্যা সমাধান করতে। পাপন ভাইকেও বলেছি, ওনিও এটার সমাধানের জন্য আদেশ দিয়েছেন।

তাহলে কবে নাগাদ এই বকেয়া বেতন পাচ্ছেন ক্রিকেটাররা এমন প্রশ্নে নাদেল বলেন, 'বলা যাচ্ছে কাল পরশুর মধ্যেই মেয়েরা বকেয়া বেতন পেয়ে যাবে। দুই দিনের মধ্যেই তারা বেতন পেয়ে যাবে।'

উল্লেখ্য, গত জুন মাসের বৈঠক শেষে দেশের নারী ক্রিকেটারদের বেতন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আসে। সব ক্যাটাগরিতেই বাড়ানো হয়েছে প্রায় ২০ শতাংশ করে। কিছু ক্ষেত্রে ২০ শতাংশের বেশি। একই সঙ্গে সবগুলো রাউন্ড ফিগার করে দেওয়া হয়েছে।

আগে 'এ' ক্যাটাগরিতে ছিল ৮০ হাজার, সেটা বর্তমানে এক লাখ। বি ক্যাটাগরি ৬০ হাজার থেকে এখন ৭৫ হাজার, সি ক্যাটাগরি ৩৫ হাজার থেকে এখন ৫০ হাজার ও ডি ক্যাটাগরি ২৫ হাজার থেকে এখন ৩০ হাজার টাকা হয়েছে।

উল্লেখযোগ্য হারে বাড়ানো হয়েছে ম্যাচ ফিও। আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি ম্যাচে ৫০ হাজার এবং ওয়ানডে ম্যাচের ফি এক লাখ টাকা করা হয়েছে। আগে অবশ্য ম্যাচ ফি দেওয়া হতো ডলারে। টি-টুয়েন্টিতে ১৫০ ডলার এবং ওয়ানডেতে ৩০০ ডলার ম্যাচ ফি পেত মেয়েরা।


আরও খবর
হঠাৎ দুবাইয়ে সাকিব

শনিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২3




দেশের ইতিহাসে সোনার দাম সর্বোচ্চ

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

দেশের বাজারে আবার সোনার দাম বাড়ানো হয়েছে। সব থেকে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের এক ভরি সোনার দাম ১ হাজার ৭৫০ টাকা বাড়িয়ে নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে ভালো মানের এক ভরি সোনার দাম হয়েছে ১ লাখ ৬ হাজার ৩৭৬ টাকা। দেশের ইতিহাসে সোনার দামের এটিই সর্বোচ্চ রেকর্ড।

শনিবার বাজুসের মূল্য নির্ধারণ ও মূল্য পর্যবেক্ষণ স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান এনামুল হক ভুইয়া লিটন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়েছে, স্থানীয় বাজারে তেজাবি সোনার দাম বেড়ে‌ছে। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশন সোনার নতুন দাম নির্ধারণ করেছে। রোববার থেকে এটি কার্যকর করা হবে। 

আরও পড়ুন>> কমেছে সবজির দাম, মাছ নাগালের বাইরে

নতুন মূল্য অনুযায়ী সবচেয়ে ভালোমানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১.৬৬৪ গ্রাম) সোনার দাম হবে ১ লাখ ৬ হাজার ৩৭৫ টাকা। ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি ১ লাখ ১ হাজার ৫৩৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের দাম ৮৭ হাজার ১৩ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনার দাম ৭২ হাজার ৫৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

তবে রুপার দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। ২২ ক্যারেটের রুপার দাম (ভরি) ১ হাজার ৭১৫ টাকা, ২১ ক্যারেটের দাম ১ হাজার ৬৩৩ টাকা, ১৮ ক্যারেটের দাম ১৪০০ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রুপার দাম ১০৫০ টাকা পড়বে।


আরও খবর
এলপিজির নতুন দাম নির্ধারণ রোববার

শুক্রবার ০১ ডিসেম্বর ২০২৩




মিরপুরে বাসে আগুন

প্রকাশিত:সোমবার ২০ নভেম্বর ২০23 | হালনাগাদ:সোমবার ২০ নভেম্বর ২০23 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বর এলাকায় বিআরটিসি পরিবহনের একটি বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিএনপির ঢাকা ৪৮ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন সোমবার (২০ নভেম্বর) দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে এ ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মিডিয়ার শাখার কর্মকর্তা তালহা বিন জসিম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, রাজধানীর মিরপুর ১০ নম্বর এলাকায় দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে আগুন লাগার সংবাদ পাওয়া যায়। ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে ২টা ৪৬ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। মিরপুর ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট আগুন নির্বাপণে কাজ করে। কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।


আরও খবর



ইতিহাসের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা দেখল বিশ্ব

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

বৈশ্বিক গড় তাপমাত্রার রেকর্ড গত শুক্রবার প্রথমবারের মতো শিল্পায়নের আগের স্তরের চেয়ে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি ছিল। ইউরোপের কোপার্নিকাস জলবায়ু মনিটর গতকাল সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে। সংস্থাটি বলেছে, পরদিন শনিবারও সম্ভবত অভূতপূর্ব উষ্ণতার এ ধারা অব্যাহত ছিল।

অস্বাভাবিক তাপমাত্রার একের পর এক মাস ২০২৩ সালকে ইতিহাসের সবচেয়ে উষ্ণতম বছরে পরিণত করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এদিকে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পৃথিবীর বিস্তীর্ণ অংশে খরা, ব্যাপক দাবানল ও ভয়ংকর ঝড়ের ঘনঘটা চলে আসছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ক্লাইমেট চেঞ্জ সার্ভিসের নতুন তথ্যানুসারে, ১৭ নভেম্বর বৈশ্বিক তাপমাত্রা প্রাক্‌-শিল্প স্তরের গড় থেকে ২ দশমিক শূন্য ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি ছিল।

ক্লাইমেট চেঞ্জ সার্ভিসের উপপ্রধান সামান্থা বার্গেস বলেন, এই প্রথম বিশ্বের তাপমাত্রা ১৮৫০-১৯০০ সালের স্তরের চেয়ে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি ছিল।

কোপার্নিকাস এক্সে (টুইটার) দেওয়া এক পোস্টে জানিয়েছে, প্রাথমিক তথ্য ইঙ্গিত দিচ্ছে, রেকর্ডটি গত শনিবার পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। এদিন তাপমাত্রা প্রাক্‌-শিল্প স্তরের গড় থেকে প্রায় ২ দশমিক শূন্য ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি ছিল। তাপমাত্রার সঠিক তথ্য আজ মঙ্গলবারের মধ্যে নিশ্চিত করার কথা জলবায়ু মনিটরের।

২০১৫ সালে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি সই হয়। চুক্তিতে বিশ্বের গড় তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার প্রাক্‌-শিল্প স্তরের তুলনায় ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নামিয়ে আনার কথা বলা হয়। তারপর চেষ্টা থাকবে গড় তাপমাত্রা ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে বেঁধে রাখার।

উষ্ণায়নের ফলে জলবায়ু পরিবর্তনের মারাত্মক প্রভাব এড়াতে তাপমাত্রা কমানোর লক্ষ্যে বিশ্বকে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে আসছেন বিশেষজ্ঞরা।


আরও খবর
যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করল ইরাক

রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩