আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

অর্থসংকটে দুর্নীতির অনুমতি চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ মার্চ ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে এশিয়ার দেশ পাকিস্তান। পরিস্থিতি ক্রমেই ক্রমেই খারাপের দিকে যাচ্ছে সেখানে। এরই মধ্যে মুদ্রাস্ফীতির হার বাড়তে বাড়তে ৪৭ শতাংশে পৌঁছেছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছেন দেশটির নাগরিকেরা। পরিস্থিতি এতটাই বেগতিক যে, অর্থসংকটের কারণে সংসারই চালাতে পারছেন না তারা।

এমতাবস্থায় ন্যূনতম চাহিদা পূরণে দুর্নীতির চেয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফের কাছে চিঠি লিখেছেন দেশটির শীর্ষ এক করকর্তা। এতে তোলপাড় চলছে পাকিস্তানজুড়ে।

নিত্যপ্রয়োজনীয় চাহিদা পূরণে দুর্নীতিতে যুক্ত হতে চাই এই মর্মে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন দেশটির ফেডারেল বোর্ড অব রেভিনিউ (এফবিআর) ওই কর্মকর্তা। করকর্তার ওই চিঠি ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। যদিও ওই চিঠির সত্যতা নিরপেক্ষভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে ওই করকর্তা লিখেছেন, এই মুহূর্তে আমাদের প্রিয় দেশের বিপজ্জনক অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে আমি অবগত। দেশের অর্থনীতিতে স্থিতাবস্থা ফেরাতে আপনার সরকার চেষ্টার ত্রুটি করছে না।

চিঠিতে তিনি আরও লিখেছেন, করকর্তা হিসেবে গত ৪ বছর ধরে তিনি কাজ করছেন। কিন্তু কখনওই দুর্নীতির সঙ্গে নিজেকে জড়াননি। তবে দেশের বর্তমান পরিস্থিতি যা, তাতে দুর্নীতি করা ছাড়া তার আর কোনও উপায় নেই।

তিনি আরও লিখেছেন, দুর্নীতির কার্যকলাপে যুক্ত হলে অতিরিক্ত টাকা উপার্জন করতে পারব। ফলে সহজেই ন্যূনতম দৈনন্দিন চাহিদাও মেটাতে পারব।


আরও খবর



শেষ মুহূর্তে বাদ পড়লেন সাই পল্লবী, সীতা হবেন জাহ্নবী কাপুর

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

ঘোষণার পর থেকে আলোচনায় ভারতীয় মহাকাব্য রামায়ণ নিয়ে বলিউড সিনেমা রামায়ণ। অবশেষে আগামী মাসে শুরু হচ্ছে সিনেমার শুটিং। নীতীশ তিওয়ারির পরিচালনায় এতে রাম চরিত্রে রণবীর কাপুর ও সীতার চরিত্রে সাই পল্লবীর অভিনয়ের কথা। শেষ পর্যন্ত রণবীর টিকে গেলেও শুটিং শুরুর এক মাস আগে পরিবর্তন হয়ে গেল নায়িকা। সাই পল্লবী নয়, শোনা যাচ্ছে সীতা হবেন শ্রীদেবীকন্যা জাহ্নবী কাপুর; এমনটাই জানাচ্ছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম পিঙ্কভিলা।

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, নীতীশের পরিচালনায় বাওয়াল সিনেমায় অভিনয় করেছেন জাহ্নবী। সেখানেই নাকি তাঁকে পছন্দ হয়ে গিয়েছিল পরিচালকের। তাঁর মনে হয়েছিল, সীতার চরিত্রে জাহ্নবীকেই সবচেয়ে ভালো মানাবে। সে কারণেই সাই পল্লবীকে বাদ দিয়ে জাহ্নবীকে নেওয়া হচ্ছে। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অফিশিয়াল বক্তব্য পাওয়া যায়নি। সংবাদমাধ্যমটি আরও জানায়, সাই পল্লবীর আগে সীতা চরিত্রের জন্য যোগাযোগ করা হয়েছিল আলিয়া ভাটের সঙ্গে। তিনি রাজি না হলে সেই প্রস্তাব যায় সাই পল্লবীর কাছে। 

আরও পড়ুন>> পরিচালকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ ফরাসি অভিনেত্রীর

সীতা বদলে গেলেও বাকি চরিত্রগুলোয় কোনো পরিবর্তন হয়নি। রাবণের ভূমিকায় দেখা যাবে কেজিএফ তারকা যশকে। বিভীষণের চরিত্রে অভিনয় করবেন বিজয় সেতুপতি। আর হনুমান হচ্ছেন সানি দেওল।

জানা গেছে, মার্চের শেষ সপ্তাহ থেকে শুরু হবে রামায়ণের শুটিং। মুম্বাইয়ে বেশির ভাগ শুটিংয়ের পর রামায়ণ টিম যাবে লন্ডনে। রামায়ণের লঙ্কা অংশের চিত্রায়ণ হবে সেখানে। এ সময় রণবীরের সঙ্গে যোগ দেবেন যশ। মোট ১২০ দিন চলবে শুটিং।

শোনা যাচ্ছে, রাম চরিত্রের প্রতি সম্মান রেখে প্রস্তুতিস্বরূপ কিছুদিন ধরে অ্যালকোহল, আমিষ এমনকি মধ্যরাতের পার্টিও ছেড়ে দিয়েছেন রণবীর কাপুর।


আরও খবর
টেইলর সুইফট ইফেক্টে আক্রান্ত সিঙ্গাপুর

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

শাকিব ‘রাজকুমার’ হলে আমি রাজা: জায়েদ খান

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দেশে ফিরছেন আরও ১৪৪ লিবিয়া প্রবাসী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

লিবিয়া থেকে আরও ১৪৪ জন বাংলাদেশি নাগরিককে দেশে প্রত্যাবাসন করা হয়েছে। দূতাবাসের সার্বিক তত্ত্বাবধানে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এর সহযোগিতায় এরই মধ্যে তারা বেনগাজী থেকে বিমানে করে রওনা দিয়েছেন।

ফেরত আসাদের মধ্যে ১২ জন বাংলাদেশি নাগরিক বেনগাজীর গানফুদা ডিটেনশন সেন্টারে আটক ছিলেন। শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাদের বহন করা বিমানটি অবতরণ করবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

কয়েক বছর ধরে মানব পাচার হচ্ছে লিবিয়ায়। দেশটির বিভিন্ন ডিটেনশন সেন্টারে আটকসহ স্বেচ্ছায় দেশে যেতে ইচ্ছুক বাংলাদেশি নাগরিকদের নিরাপদে দেশে প্রত্যাবাসনের জন্য দূতাবাস স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এবং আইওএম এর সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

এ লক্ষ্যে বাংলাদেশের দূতাবাস নিয়মিতভাবে ডিটেনশন সেন্টার পরিদর্শন করছে এবং আটক বাংলাদেশিদেরকে আউটপাস প্রদানসহ প্রয়োজনীয় আইনগত সহায়তা দিচ্ছে বলে দাবি করছে দূতাবাসের কর্মকর্তারা। সমস্যাগ্রস্তদের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে পর্যায়ক্রমে আইওএম-এর সহায়তায় দেশে প্রত্যাবাসন করছে।

নিউজ ট্যাগ: লিবিয়া আইওএম

আরও খবর



সুবর্ণচরে মা-মেয়েকে ধর্ষণ, আসামি হারুন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

সুবর্ণচরে মা-মেয়েকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় মামলার এজহারভুক্ত আসামি মো. হারুনকে (৪২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে ঢাকার গাবতলী থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

চরজব্বর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তারকৃত মো. হারুন সুবর্ণচর উপজেলার চরওয়াপদা ইউনিয়নের চর কাজী মোখলেছ গ্রামের মৃত বশির আহম্মদের ছেলে।

আরো পড়ুন :মা-মেয়েকে দলবদ্ধ ধর্ষণ : প্রধান আসামি আ.লীগ নেতা গ্রেপ্তার

চরজব্বর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, পুলিশের বিশেষ অভিযানের মাধ্যমে হারুনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি পালিয়ে ঢাকা চলে গিয়েছিলেন। তাকে ঢাকা থেকে আনা হচ্ছে। তারপর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে।

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, এই মামলার আসামি তিনজন। আমরা দুইজনকে আগেই গ্রেপ্তার করেছি। হারুন বাকি ছিল। আবুল খায়ের মুন্সি মেম্বার ও মেহেরাজকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। মেহেরাজ ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

আরো পড়ুন :সুবর্ণচরে ধর্ষণের জন্যই সিঁধ কাটা হয় : পুলিশ সুপার

এর আগে সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ২টার দিকে চরওয়াপদা ইউনিয়নের চরকাজী মোখলেছ গ্রামের একটি বাড়িতে গৃহবধূ ও তার মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘর থেকে দুটি নাকফুল, কানের দুল এবং নগদ ১৭ হাজার ২২৫ টাকা লুট করে নিয়ে যায় বলে জানা গেছে। ভুক্তভোগীর দিনমজুর স্বামী কাজের জন্য ওই রাতে বাইরে থাকায় গৃহবধূ তার তিন সন্তান নিয়ে বাড়িতে একা ছিলেন। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ধর্ষণের পরিকল্পনা সাজান আসামিরা।

আরো পড়ুন : সুবর্ণচরে ভোটের রাতে গৃহবধূকে ধর্ষণ: ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড

উল্লেখ্য, সুবর্ণচর উপজেলাটি ধর্ষণের জন্য দেশব্যাপী বারবার আলোচনায় আসছে। ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটের দিন সুবর্ণচর উপজেলায় এক গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে দেশব্যাপী ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। গত ৫ ফেব্রুয়ারি দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নোয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক (জেলা জজ) ফাতেমা ফেরদৌস ওই ধর্ষণ মামলায় ১৬ আসামির মধ্যে ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড ও ছয় আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে তাদের অর্থদণ্ডও করা হয়।


আরও খবর
৯ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষিকা বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সুবর্ণচরে গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় পলাতক আসামি গ্রেফতার

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নোয়াখালী প্রতিনিধি

Image

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের দিন রাতে গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আরও এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার মো. মিন্টু ওরফে হেলাল উপজেলার মধ্যম বাগ্যা গ্রামের মৃত আরব আলীর ছেলে। রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার যাত্রা বাড়ি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

জানা যায়, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রাতে স্থানীয় আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেতা রুহুল আমিনের নেতৃত্বে স্বামী ও সন্তানদের বেঁধে রেখে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়। ভুক্তভোগীর অভিযোগ, ভোটকেন্দ্রে থাকা ব্যক্তিদের পছন্দের প্রতীকে ভোট না দেওয়ার জেরে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পরদিন ভুক্তভোগী গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে চরজব্বর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। ঐ মামলায় গত ৫ ফেব্রুয়ারি ১০ জনের ফাঁসির আদেশ ও ছয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। এ মামলার পলাতক এক মাত্র আসামি যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত মিন্টু ওরফে হেলালকে র‌্যাব-১০ এর সহযোগিতায় গ্রেফতার করে চরজব্বর থানার পুলিশ।

চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন। গ্রেফতারকৃত আসামিকে নোয়াখালী আদালতে সোপর্দ করা হবে।


আরও খবর
৯ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষিকা বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পুতিনবিরোধী বরিস নাদেজদিনের প্রার্থিতা বাতিল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধের বিরোধিতা করা বরিস নাদেজদিনের প্রার্থিতা বাতিল করে দিয়েছে রাশিয়ার নির্বাচন কমিশন। দেশটিতে আগামী মাসে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। খবর বিবিসি

ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধে ভ্লাদিমির পুতিনের কঠোর সমালোচক বরিস নাদেজদিন। তিনি নির্বাচন কমিশনের অভিযোগকে চ্যালেঞ্জ করার জন্য আবেদনপত্রের সঙ্গে জমা দেয়া ১৫ শতাংশ স্বাক্ষরকে ত্রুটিপূর্ণ বলেছেন। তবে নির্বাচন কমিশন তার এ অভিযোগকে অস্বীকার করেছে।

এদিকে নির্বাচন কমিশনের এমন পদক্ষেপের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ জানাতে রাশিয়ার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হওয়ার ঘোষণা দিয়ে নাদেজদিন বলেন, পুরো রাশিয়া জুড়ে ২ লাখ স্বাক্ষর সংগ্রহ করেছি এবং এটি আমরা সততার সঙ্গেই করেছি।

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, নাদেজদিনের জমা দেয়া স্বাক্ষরের মধ্যে ৯ হাজারই ভুয়া। রাশিয়াতে আগামী ১৫ থেকে ১৭ মার্চের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে এ নির্বাচনে কে জয়ী তা নিয়ে আর সন্দেহ থাকল না। কারণ ক্রেমলিম যাদেরকে নির্বাচনে প্রতিযোগিতা করার অনুমতি দিয়েছে তারাই এতে অংশ নিতে পারবেন। তবে নির্বাচনে চূড়ান্তভাবে কারা অংশ নিতে পারবেন তা আগামী শনিবার জানা যাবে।

২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের অভিযান চালানোর পর থেকেই রাশিয়া সরকারের যে কয়জন সমালোচনা করছেন তার মধ্যে বরিস নাদেজদিন অন্যতম।

প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য নাদেজদিনের দৌড় ঝাঁপকে সন্দেহের চোখে দেখছেন দেশটির বিরোধীরা। তারপরও তাকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছেন জেলে থাকা রাশিয়ার প্রধান বিরোধী দলের নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি।

গত মাসে বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে নাদেজদিন বলেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে পারলে তিনি প্রথম দিনই ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ বন্ধ করবেন।

নিউজ ট্যাগ: বরিস নাদেজদিন

আরও খবর