আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

অভিযানের খবরে দাম কমল ডিম-পেঁয়াজ-আলুর

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাজারের লাগাম টানতে ডিম-পেঁয়াজ-আলুর সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য বেঁধে দেয় সরকার। কিন্তু সরকারের নির্ধারণ করে দেওয়া দামে কোথাও পাওয়া যাচ্ছে না এসব পণ্য। এমন পরিস্থিতিতে বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে শনিবার রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় অভিযান চালাতে যায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। খবরটি শোনার পর এসব পণ্যের দাম কমিয়ে দেয় ব্যবসায়ীরা।

শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) নিউমার্কেটে এলাকায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর অভিযান চালাতে গেলে দাম কমিয়ে পণ্য বিক্রি করতে দেখা যায়।

সরেজমিনে নিউমার্কেট কাঁচাবাজার এলাকায় দেখা গেছে, ভোক্তা অধিকারের অভিযানের খবর শোনার পর ব্যবসায়ীরা প্রতিটি দোকানে মূল্য তালিকা ঝুলিয়ে দেন। যদিও সকাল থেকে তালিকা প্রদর্শনে ছিল না তেমন তোড়জোড়।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের আসার খবরে কিছু দোকানে আলু, পেঁয়াজ, ডিম কম আগের চেয়ে কম দামে বিক্রি করতে দেখা যায়। তবে অধিকাংশ দোকানে সরকারের বেঁধে দেওয়া দামে পণ্য বিক্রি করতে দেখা যায়নি। কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা বলেন, বেশি দামে আগে এসব পণ্য কিনে রাখায় তারা সরকারের নির্ধারিত দামে বিক্রি করতে পারছেন না। এজন্য অনেকে চালান রশিদ দেখান। তবে অভিযানকালে তাদের কিছুটা দাম কমিয়ে পণ্য বিক্রি করতে দেখা গেছে।

গত বৃহস্পতিবার দেশি পেঁয়াজ, ডিম ও আলুর সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য বেঁধে দেয় সরকার। সেদিন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছিলেন, এখন থেকে খুচরা পর্যায়ে প্রতিটি ডিমের দাম হবে সর্বোচ্চ ১২ টাকা, প্রতি কেজি আলু ৩৬ এবং দেশি পেঁয়াজ ৬৫ টাকা। যা সেদিন থেকেই কার্যকর হওয়ার কথা।

কিন্তু গতকাল শুক্রবার রাজধানীর বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরলেও কোথাও সরকারের বেঁধে দেওয়া দামে এসব পণ্য বিক্রি করতে দেখা যায়নি। খুচরা পর্যায়ে দেশি পেঁয়াজ ৭৫-৮০ টাকা কেজি, আলু ৪৫ টাকা ও ডিম ১৫৫ থেকে ১৬০ টাকা দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে। ব্যবসায়ীরা দাম না কমালে হার্ডলাইনে যাওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পক্ষ থেকে। এরই অংশ হিসেবে আজ নিউমার্কেট কাঁচাবাজার এলাকায় অভিযানে যায় ভোক্তা অধিদফতর। অধিদফতরের সহকারী পরিচালক মাগফুর রহমানসহ বেশ কয়েকজন অভিযানে অংশ নিয়েছেন।

জানা যায়, সকালে দোকানিরা আলু বিক্রি করছেন ৪৫-৫০ টাকা কেজি দরে। কিন্তু ভোক্তা অধিকারের অভিযানের সংবাদে দোকানিরা দাম কমিয়ে দেয়। অভিযানের প্রভাব পড়েছে পেঁয়াজ ও ডিমের বাজারেও। এসব পণ্যেও আগের চেয়ে কিছুটা কম দামে বিক্রি করতে দেখা গেছে। অভিযানকালে অনেক দোকানিকে চালান রশিদ দেখতে অপারগতা প্রকাশ করতেও দেখা গেছে।

মাছবাজারেও দোকানিদের দাম পরিবর্তন করতে দেখা গেছে। অনেকেই নতুন করে প্রদর্শন করেছেন তালিকা। কেউ কেউ তালিকায় পণ্যের দাম লিখছেন।

নিউমার্কেট বনলতা মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির আহ্বায়ক মো. বাদল মিয়া জানান, সকল ব্যবসায়ীদের মূল্য তালিকা প্রদর্শনসহ চালান রশিদ রাখার নির্দেশনা দেওয়া আছে। তবে অনেক ক্ষেত্রেই খুচরা ব্যাবসায়ীরা যেখান থেকে পণ্য ক্রয় করেন, তারাই মালের রশিদ দেয় না বলেও দাবি তার।

নিউজ ট্যাগ: ডিম-পেঁয়াজ-আলু

আরও খবর



বরগুনায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত; জনমনে আতঙ্ক

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

দক্ষিণ অঞ্চলের উপকূলীয় জেলা বরগুনায় ঘূর্ণিঝড় 'রেমালে'র প্রভাবে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলেছেন আবহাওয়া অফিস।

রোববার (২৬ মে) আবহাওয়াবিদ মোঃ হাফিজুর রহমানের স্বাক্ষরিত আবহাওয়া বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে দক্ষিণাঞ্চলে উপকূলীয় নয়টি জেলার মধ্যে বরগুনাকেও ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় আনতে বলা হয়েছে। এমতো অবস্থায় ঝড়ো বাতাস ও থেমে থেমে বৃষ্টির গতিবেগের কারণে জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

দেখা যায়, কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকত, বরগুনার পায়রা, বিশ খালি, বলেশ্বর নদীতে জোয়ারে পানি বৃদ্ধিসহ ঢেউয়ের উচ্চতাও বৃদ্ধি পেয়েছে। আশপাশের আবহাওয়া গম্ভীর হয়ে উঠতে শুরু করছে। বাতাসের গতিও আগের তুলনায় বাড়ছে কিছুটা এবং আকাশে কালো মেঘ ও ঝড়ো বৃষ্টি হচ্ছে। এই অবস্থায় সিপিপি, রেডক্রিসেন্ট, কোস্টগার্ড, জেলা প্রশাসকের তথ্য অফিসসহ বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো শহর-গ্রাম ও নিম্ন অঞ্চলের মানুষকে সতর্ক বার্তা পৌঁছে দিচ্ছে।

তবে ঘূর্ণিঝড়টি 'রেমাল' উপকূলে যেকোনো সময় আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে! তাই ঘূর্ণিঝড় 'রেমালে'র সম্ভাব্য ক্ষতি মোকাবিলায় ইতিমধ্যে সরকারি-বেসরকারিসহ বিভিন্ন ভাবে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বরগুনার জেলা প্রশাসক মুহা. রফিকুল ইসলাম।


আরও খবর



বেনজীরের সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক বন্ধ ঘোষণা

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জমি ও সড়ক দখলসহ অবৈধ সম্পদ অর্জনের দায়ে অভিযুক্ত পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে গোপালগঞ্জে করা সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

ফলে সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কে সোমবার (৩ জুন) থেকে আর কোনো দর্শনার্থী যেতে পারবেন না। সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কের বুকিং ম্যানেজার মো. সাব্বির সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক বন্ধের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, ২০১৫ থেকে ২০২০ সালে র‌্যাবের মহাপরিচালক এবং ২০২০ সাল থেকে থেকে ২০২২ পর্যন্ত আইজিপি থাকাকালীন সময়ে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার বৈরাগীটোল গ্রামে ৬২১ বিঘা জমির ওপর গড়ে তোলেন সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক। এ পার্কে জমির প্রায় সবই হিন্দু সম্প্রদায়কে ভয় দেখিয়ে, জোর করে এবং নানা কৌশলে জমি কেনা হলেও অনেক জমি করা হয়েছে দখল। বিষয়টি গণমাধ্যে প্রচার হলে দুর্নীতি দমন কমিশন তদন্ত শুরু করে। পরে আদালত সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কসহ বিভিন্ন স্থাপনা ক্রোকের নির্দেশ দিলে বিভিন্ন সময়ে রাতের আধারে ট্রাকের করে মালামাল সরিয়ে নেয়া হয়।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমে এলাকাবাসী বক্তব্য দিলে পার্ক কর্তৃপক্ষ পুলিশ এনে হামলা চালায় বলে অভিযোগ ওঠে। পুলিশের লাঠির আঘাতে চারজন আহত হয়েছেন। তারা হলেন ইকোপার্ক-সংলগ্ন সাহাপুর ইউনিয়নের বৈরাগীটোল গ্রামের বিনোদ বিহারি বলের ছেলে বিপ্লব বল, সন্তোষ বলের ছেলে সঞ্জয় বল ও সাগর বল এবং ওই এলাকার রনি নামের এক যুবক। পরে পার্কের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ মোতায়েন করা হলেও সোমবার থেকে সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কের কার্যক্রম বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ বলে জানায় এলাকাবাসী।

সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কের বুকিং ম্যানেজার মো. সাব্বিরের জানান, আপাতত সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পার্কের সার্ভারের সমস্যার কারণে দর্শনার্থীদের ভিতরে প্রবেশ করার যাচ্ছে না। যার কারণে কয়েক দিনের জন্য পার্ক বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সার্ভার সমস্যা সমাধন হলে আগামী ৪ থেকে ৫ দিনের মধ্যে পার্ক খুলে দেওয়া হবে।


আরও খবর



জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা সেই বাড়িতে অভিযান শুরু

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

নেত্রকোনায় জঙ্গি আস্তানায় সন্দেহে ঘিরে রাখা বাড়িটিতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশের এন্টিটেরিজম ইউনিট। রোববার (৯ জুন) সদর উপজেলার কাইলাটি ভাসাপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের বাড়িতে অভিযান শুরু করে পুলিশ।

এন্টিটেরিজম ইউনিট এর পুলিশ সুপার সানোয়ার হোসেন জানান, বাড়িটির ভেতরের এখনও অভিযান চলছে। তিনি জানান, সেখানে জঙ্গি প্রশিক্ষণ ও তাদের তৎপরতার জন্য বিভিন্ন সরঞ্জাম রয়েছে। পুলিশ সুপার আরও জানান, অভিযান শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে শনিবার (৮ জুন) দুপুর থেকে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে উপজেলার কাইলাটি ইউনিয়নের ভাসাপাড়া এলাকায় চারদিকে উঁচু প্রাচীর ঘেরা দ্বিতল বাড়িটির চারপাশে অবস্থান নেয় পুলিশের একটি দল। তাদের ধারণা, ওই বাড়িতে জঙ্গি প্রশিক্ষণের জন্য ব্যবহার করা অস্ত্র ও বোমা থাকতে পারে। এরই মধ্যে কিছু সরঞ্জাম উদ্ধারের দাবি করেছে পুলিশ।

নেত্রকোণার পুলিশ সুপার ফয়েজ আহমেদ জানিয়েছেন, বাড়ির মালিক হচ্ছেন অবসরপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়ার ড. আব্দুল মান্নান। বাড়িটি দুই বছর আগে আরিফ নামের এক ব্যক্তিকে ভাড়া দেয়া হয়েছে।


আরও খবর



চাঁদ দেখা গেছে, ঈদুল আজহা ১৭ জুন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশের আকাশে পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। আগামী ১৭ জুন পবিত্র ঈদুল আজহা পালিত হবে। শুক্রবার (৭ জুন) রাতে ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

এর আগে, জিলহজ মাসের চাঁদ দেখতে ধর্মমন্ত্রীর সভাপতিত্বে শুক্রবার রাতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে বৈঠকে বসে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি।

এদিকে, সৌদি আরবে বৃহস্পতিবার (৬ জুন) জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় আগামী ১৬ জুন দেশটিতে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে।

উল্লেখ্য, জিলহজ আত্মত্যাগের মাস। মুসলিম জাতির পিতা ইব্রাহিম (আ.) এ মাসেই নিজের প্রিয় সন্তান ইসমাইলকে (আ.)-কোরবানির মাধ্যমে প্রভুপ্রেমের অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন। যদিও আল্লাহর বিশেষ রহমতে ইসমাইল (আ.) এর পরিবর্তে একটি পশু কোরবানি হয়েছে।


আরও খবর



কত আয় করলে কত কর দিতে হবে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটেও ব্যক্তিপর্যায়ে করমুক্ত আয়সীমা সাড়ে ৩ লাখ টাকা থাকছে। তবে আগের চেয়ে বেড়ে যাচ্ছে আয়কর।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করার সময় ব্যক্তিপর্যায়ে আয়করের প্রস্তাবনায় এ বিষয়টি উত্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

বাজেট অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যক্তিগত করদাতাদের জন্য করমুক্ত আয়ের সর্বোচ্চ সীমা ২০০৯-১০ অর্থবছরে ছিল ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা, যা ধাপে ধাপে বাড়িয়ে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। নারী, প্রবীণ নাগরিক, শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী, তৃতীয় লিঙ্গের সদস্য এবং গেজেটেড যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য করমুক্ত আয়ের সীমা আরও বেশি।

তিনি বলেন, এতে করে স্বাভাবিক ব্যক্তি করদাতাদের করভার লাঘবের ফলে জীবনযাত্রায় কিছুটা স্বাচ্ছন্দ্য ফিরে এসেছে এবং করদাতারা নিয়মিতভাবে কর পরিশোধে উৎসাহিত হয়েছেন। আমি ২০২৪-২৫ অর্থবছরে বিদ্যমান স্বাভাবিক ব্যক্তি করদাতা, ফার্ম ও হিন্দু অবিভক্ত পরিবারের করমুক্ত আয়ের সীমা অপরিবর্তিত রাখার প্রস্তাব করছি।

প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ৬৫ বছর বা তার বেশি বয়সী নারী ও প্রবীণ নাগরিকদের করমুক্ত আয়সীমা হবে ৪ লাখ টাকা, শারীরিক প্রতিবন্ধী ও তৃতীয় লিঙ্গের করদাতাদের জন্য ৪ লাখ ৭৫ হাজার টাকা এবং যুদ্ধাহত গেজেটেড বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য করমুক্ত আয়ের সীমা ৫ লাখ টাকা। এ ছাড়া, শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী শিশু বা দত্তক নেওয়া সন্তানের পিতামাতা বা আইনি অভিভাবকদের জন্য করমুক্ত আয়সীমা সন্তান প্রতি ৫০ হাজার টাকা করে বাড়বে।

প্রস্তাবনা অনুযায়ী, স্বাভাবিক ব্যক্তি করদাতা, ফার্ম ও হিন্দু অবিভক্ত পরিবারের আয় সাড়ে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত করমুক্ত থাকবে। পরবর্তী ১ লাখ টাকার ওপর পাঁচ শতাংশ কর বসবে। পরবর্তী চার লাখ টাকার ওপর ১০ শতাংশ কর দিতে হবে। পরবর্তী পাঁচ লাখ টাকার ওপর ১৫ শতাংশ কর দিতে হবে। পরবর্তী পাঁচ লাখ টাকার ওপর ২০ শতাংশ দিতে হবে। পরবর্তী ২০ লাখ টাকার ওপর ২৫ শতাংশ কর দিতে হবে। আর অবশিষ্ট টাকার ওপর ৩০ শতাংশ কর দিতে হবে।


আরও খবর