আজঃ রবিবার ২১ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

পারিবারিক অনুষ্ঠানে মদপানে গৃহবধূর মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
গাজীপুর প্রতিনিধি

Image

পারিবারিক অনুষ্ঠানে মদপান করে অসুস্থ হয়ে ঈশিতা রানী মন্ডল (২৪) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। গত বুধবার (২০ জুন) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গুলশানের এভার কেয়ার হাসপাতালে তিনি মারা যান।

মৃত ঈশিতা রানী মণ্ডল গাজীপুর সিটি করপোরেশনের গাছা থানার বাসিন্দা বিপ্লব মল্লিকের স্ত্রী। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকেলে গাছা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

ডিএমপির গুলশান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রোজিনা আক্তার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ঘটনাটি গাজীপুরের গাছা থানা এলাকার। তিনি মারা গেছেন এভার কেয়ার হাসপাতালের আইসিইউতে। ওই থানার নারী পুলিশ কর্মকর্তা ছুটিতে থাকায় আমরা ডিসি স্যারের কথা মতো থানাটির পুলিশের সহযোগিতায় আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহটি উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করি।

পরে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে পুরো বিষয়টি গাজীপুরের গাছা থানা তদন্ত করছে বলে জানান এসআই।

গাছা থানা সূত্রে জানা গেছে, ১৭ জুন পরিবারিক গেট-টুগেদার অনুষ্ঠানে মদপান করে অসুস্থ হয়ে পড়েন ঈশিতা। স্বজনরা ১৮ জুন বিকালে তাকে উত্তরার ক্রিসেন্ট হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকের পরামর্শে রাত ৯টার দিকে তাকে ভাটারা এলাকার এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

ঈশিতার স্বামী বিপ্লব মল্লিক স্টেশনারি ব্যবসায়ী। তার বাড়ি গাজীপুরের গাছা উপজেলার জামর মল্লিক গ্রামে। তার দুটি মেয়ে রয়েছে।


আরও খবর



ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বিদায় করে সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

জিতলে সেমিফাইনালে, হারলে বিদায়- এমন সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে নবম টি-২০ বিশ্বকাপের সুপার এইটের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যেখানে ক্যারিবীয়দের কাঁদিয়ে শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছে এইডেন মার্করামের দল।

অ্যান্টিগুয়ার নর্থ সাউন্ডে আগে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৩৫ রান সংগ্রহ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে বৃষ্টি বাধায় ডিএলএস মেথডে দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন লক্ষ্য দাঁড়ায় ১২৩ রান (১৭ ওভারে)। সেই লক্ষ্য তাড়ায় ৩ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে নোঙর করে প্রোটিয়ারা। এই জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে দ্বিতীয় দল হিসেবে সেমিফাইনালের টিকিট পেল দক্ষিণ আফ্রিকা। অন্যদিকে লড়াকু হারে ঘরের মাঠের বিশ্বকাপে বিদায়ঘণ্টা বাজলো ক্যারিবীয়দের।

রান তাড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন কুইন্টন ডি কক ও রেজা হেনড্রিকস। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই এ জুটি ভাঙেন রাসেল। তাতে গোল্ডেন ডাক খেয়ে সাজঘরে ফেরেন রেজা। একই ওভারের শেষ বলে রাসেলের শট লেংথের বল বাউন্ডারির বাইরে আছড়ে ফেলতে গিয়ে রাদারফোর্ডের তালুবন্দী হন ডি কক। আউট হওয়ার আগে ৭ বলে ১২ করেন তিনি। এরপরেই বৃষ্টি নামে অ্যান্টিগুয়াতে।

বৃষ্টি থামার পর মাঠে নেমেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেন এইডেন মার্করাম। তাতে অবশ্য কপালও পুড়েছে তার। আলজারি জোসেফের ওপর চড়াও হতে গিয়ে নিজের উইকেট খুইয়েছেন তিনি। ব্যাট হাতে ঝড় তুলে প্রোটিয়াদের জয়ের পথ সহজ করেন হেনরিখ ক্লাসেন। তবে ১০ বলে ২২ রান করে আউট হয়ে যান তিনি। উইকেটে এসে ব্যর্থ হয়েছেন ডেভিড মিলার। ১৪ বলে ৪ রান করেন বাঁহাতি এই ব্যাটার। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ধীরে ধীরে ম্যাচ থেকে ছিটকে যাচ্ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত লড়াই করে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছেড়েছেন মার্কো জানসেন। ২১ অপরাজিত ছিলেন তিনি। উইন্ডিজের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেন রস্টন চেজ। এছাড়া দুটি করে উইকেট নেন আন্দ্রে রাসেল ও আলজারি জোসেফ।

এর আগে টস জিতে উইন্ডিজকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক এইডেন মার্করাম। ব্যাট হাতে বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিয়েও মাঝারি লক্ষ্য সংগ্রহ করে তাড়া। দলের হয়ে কাইল মেয়ার্স (৩৫) ও রস্টন চেজ (৫২) ছাড়া কেউই সেভাবে পারফর্ম করতে পারেননি। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ধীরে ধীরে রানের গতি কমে যায় ক্যারিবীয়দের। স্বাগতিকদের ৬ ব্যাটার দুই অঙ্কের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ১৩৫ রানে থেমেছে স্বাগতিকরা।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেছেন তাবরাইজ শামসি। এছাড়া একটি করে উইকেট নিয়েছেন কাগিসো রাবাদা, মার্কো জানসেন, কেশব মহারাজ ও এইডেন মার্করাম।


আরও খবর



শিক্ষার্থীদের ওপরে হামলার প্রতিবাদে ছাত্রলীগ থেকে গণহারে পদত্যাগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

কোটা আন্দোলনকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগ হামলা চালিয়েছে। এই হামলার প্রতিবাদে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা গণহারে পদত্যাগ করছেন। এছাড়া অন্যান্য ক্যাম্পাসেও ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগের বিষয়ে জানা যাচ্ছে।

সোমবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যা থেকে শুরু করে প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিভিন্ন হলের নেতাকর্মী প্রায় ৩০ থেকে ৪০ জন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট দিয়ে এই পদত্যাগ ঘোষণা করেছেন।

জানা যায়, বর্তমানে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার দায়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানী হল, শহীদ ধীরেন্দ্র নাথ দত্ত হল এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগ থেকে সরে আসার ঘোষণা দিয়েছেন।

সদ্য পদত্যাগ করা শহীদ ধীরেন্দ্র নাথ দত্ত হলের আইন বিষয়ক সম্পাদক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করে বলেন, ছাত্র রাজনীতি ছিল আমার পছন্দের জায়গা, ভালোবাসার স্থান। আজকের পর থেকে ছাত্রলীগের সঙ্গে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নাই। কেউ আমাকে ডাকবেন না। দত্ত হল কারও বাপের না।

সদ্য পদত্যাগকারী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, দুনিয়াই সবকিছু না, আখেরাত বলেও কিছু আছে। যে সংগঠনের কেউ মারা গেলে সবাই আলহামদুলিল্লাহ পড়ে এমন সংগঠনে আমার নাম না থাকুক।

নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানী হলের সাংগঠনিক সম্পাদক ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগ করে পোস্ট করে বলেন, আমি লজ্জিত যে আমি এমন সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলাম।

সদ্য ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগকারী ও ২০২১-২২ ব্যাচের তানজিনা আক্তার বলেন, আমিসহ নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানী হলের ১৬তম ব্যাচের সব মেয়ে ছাত্রলীগ কর্মীরা ছাত্রলীগ থেকে ইস্তফা দিয়েছি। আজ থেকে ছাত্রলীগের কোনো প্রোগ্রামে আমরা যাব না।

কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেছেন, একজন ছাত্র হয়ে আরেকজন ছাত্রের শরীরে এমন নির্মমভাবে যারা আঘাত করতে পারে সেই দল থেকে ইস্তফা দিলাম।


আরও খবর
আরও ৩ দিনের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




বিশ্ববিদ্যালয়ে আটকেপড়া পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করল হেলিকপ্টার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর মেরুল বাড্ডায় কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের ভেতর থেকে হেলিকপ্টারে করে পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে দুটি হেলিকপ্টার প্রবেশ করে। পরে একটি হেলিকপ্টারে কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে তুলে নিয়ে যেতে দেখা যায়।

এর আগে আজ সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর মেরুল বাড্ডায় ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। পরে শিক্ষার্থীদের সড়ক থেকে সরিয়ে দিতে গেলে পুলিশের সঙ্গে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়। এ সময় পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। এ এলাকার সংঘর্ষে দুলাল মাতবর নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

উল্লেখ্য, চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলা, সাধারণ শিক্ষার্থীদের হত্যা এবং ঢাবি প্রশাসনের নির্দেশে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের নির্বিচার হামলার প্রতিবাদে এ কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি ঘোষণা করে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন। গতকাল বুধবার রাত পৌনে ৮টায় সংগঠনের অন্যতম সমন্বয়ক আসিফ মাহমুদ তার ফেসবুক পোস্টে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ঘোষণা অনুযায়ী, আজ বৃহস্পতিবার হাসপাতাল ও জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এছাড়া রাস্তায় অ্যাম্বুলেন্স ছাড়া কোনো যানবাহন চলবে না বলেও জানানো হয়।


আরও খবর



কাঁচা রাস্তায় দুর্ভোগ চরমে, ধানের চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
শাওন মিয়া (জাজিরা) শরীয়তপুর

Image

দের কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা। শুকনো মৌসুমে ধুলোবালু আর বর্ষায় কর্দমাক্ত। দীর্ঘদিন বেহাল রাস্তা সংস্কার না করায় ক্ষোভে ধানের চারা লাগিয়ে অভিনব প্রতিবাদ জানিয়েছেন শরীয়তপুরের জাজিরার পুর্ব নাওডোবা ইউনিয়নের মোহর আলী হাজী কান্দির এলাকাবাসী।

শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে উপজেলার পূর্বনাওডোবা ইউনিয়নের মোহর আলী হাজী কান্দির এলাকাবাসী এ অভিনব প্রতিবাদ জানান।

স্থানীয়রা জানান, রাস্তাটি প্রায় ১২ থেকে ১৫টি গ্রামের ৩০ হাজার লোকের চলাচলের একমাত্র মাধ্যম। বর্ষার সময় রাস্তাটি কর্দমাক্ত হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। তবে এবছর পাশের শুক্কুর হাওলাদার কান্দি গ্রামে একটি কালভার্টের কাজের সরঞ্জামাদি ও মাটি মাহিন্দ্রা (ট্রাক্টর) গাড়ির মাধ্যমে বহন করায় রাস্তাটি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জানালেও তারা কোনো উদ্যোগ নেননি। তাই রাস্তায় ধানের চারা লাগিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তারা।

রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী শাহজাহান মাদবর আজকের দর্পণকে বলেন, রাস্তাটি ঠিক করার জন্য মেম্বার ও চেয়ারম্যানকে বারবার জানানো হয়েছে। কিন্তু তারা বিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছেন না। সামান্য বৃষ্টি হলে রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায়। অথচ একটি কালভার্টের মাটি মাহিন্দ্রা গাড়ি (ট্রাক্টর) দিয়ে নিচ্ছেন। তাতে রাস্তাটি গর্ত হয়ে পানি জমে একাকার হয়ে যাচ্ছে সে দিকে তাদের কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই। সেজন্য আমরা এলাকাবাসী রাস্তায় ধানের চারা রোপণ করে প্রতিবাদ জানিয়েছি।

স্থানীয় আরেক বাসিন্দা চুন্নু হাওলাদার অভিযোগ করে আজকের দর্পণকে বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ আমাদের অত্র অঞ্চলের মানুষ অবহেলিত। আদি যুগের মত মাথায় করে বস্তা নিয়ে কাজিরহাটে যেতে হয়। যেনো আমাদের দেখার কেউ নেই।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার বহুদিন ধরে ক্ষমতায় আছেন। আমাদের স্থানীয় এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নজরেই আসে না যে জনগনের দুর্ভোগ কোথায়। জনগনের জন্য সরকার, জনগনের ভোটে সরকার। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার পরেও আমরা অবহেলিত। সরকার ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে আহবান করি তারা যেনো আমাদের এই এলাকাবসীর স্বার্থে অতিদ্রুত রাস্তাটি সংস্কার করে দেন।

মোহর আলী হাজী কান্দির বাসিন্দা রাশিদা নামের এক গৃহিণী ক্ষোভ প্রকাশ করে আজকের দর্পণকে বলেন, এক মাসের বাচ্চা নিয়ে টিকা দেওয়ার জন্য বের হয়েছিলাম। বাচ্চাকে নিয়ে বাড়ির সামনের রাস্তায় আসার পরেই কাদায় পড়ে গিয়ে ব্যথা পেয়েছি দুজনেই। এখান দিয়ে যে মাহিন্দ গাড়ি গুলো চলে তাদের না চলার অনুরোধ জানাই। নয়তো আমরা পরবর্তীতে গাড়ির সামনে দাঁড়াবো।

পার্শ্ববর্তী এলাকার মোড়ল বাসিন্দা শাহিদা বেগম জানান, আমাদের পোলাপান পড়তে যাইতে পারে না সময় মত। আজকে আমার মেয়ে রাস্তার কাদায় পড়ে মাথায় আঘাত পেয়েছে। আমরা চাইলেও গাড়িতে করে যাইতে পাড়ি না। ১ কিলোমিটার রাস্তা কাদা দিয়ে হেটে যাওয়া লাগে।

পূর্ব নাওডোবা পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লামিয়া আক্তার, হাসিফা ও সোহাগী আক্তার শোভার সাথে কথা হলে তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে আজকের দর্পণকে বলেন, প্রতিদিন স্কুলে যাওয়া-আসা করতে কষ্ট হয়। জুতা খুলে হাতে নিয়ে এ রাস্তায় চলাচল করতে হয়। এতে কাদা লেগে জামা কাপড় নষ্ট হয়ে যায়। রাস্তাটি পাকা হলে আমাদের জন্য অনেক সুবিধা হতো বলেন তারা।

এ বিষয়ে পূর্বনাওডোবা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলতাফ খান আজকের দর্পণকে বলেন, রাস্তাটি এমন বেহাল হয়েছে সে বিষয়ে আমকে কেউ কিছু বলেনি। তবে রাস্তাটির সামনেই একটি কালভার্টের কাজ চলছে। সেখানে ট্রাক্টর দিয়ে মালামাল নেওয়ায় হয়তো রাস্তাটির বেহাল দশা হয়েছে। তবে রাস্তায় ধান লাগানোর বিষয়টি সম্পর্কে আমি জানি না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সাদিয়া ইসলাম লুনা বলেন, স্থানীয় কেউ বা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা আমাকে জানায়নি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব।


আরও খবর



ভাঙনরোধে কাজ করছে সরকার : এনামুল হক শামীম

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
শরীয়তপুর প্রতিনিধি

Image

সাবেক পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি বলেছেন, আগামী বর্ষাকে সামনে রেখে সারাদেশে নদীভাঙন রোধে কাজ করছে সরকার। কোথাও যেন ভাঙন না হয়, সে লক্ষ্যে আগে থেকেই কাজ করা হচ্ছে। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে স্থায়ী প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশের মানুষ অনেকাংশে জলাবদ্ধতা ও নদীভাঙন থেকে রক্ষা পাবে।

বুধবার (৩ জুলাই) সকালে শরীয়তপুরের নড়িয়ায় পদ্মা নদীর ডানতীর রক্ষা প্রকল্প পরিদর্শন ও বিভিন্ন স্থানে জিও ব্যাগ ডাম্পিং শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।

এনামুল হক শামীম আরও বলেন, দেশকে পিছিয়ে নেওয়ার জন্য বিএনপি-জামায়াত এখনো নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে। এরা গুজব ছড়িয়ে বাংলাদেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করতে চায়। তারা জানে দেশের মানুষের ভোটের মধ্য দিয়ে তারা কখনোই ক্ষমতায় আসতে পারবে না। এ কারণে তারা ভোটের রাজনীতি ছেড়ে সরকারের বিরুদ্ধে, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তাই এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ কাজ করতে হবে।

আওয়ামী লীগের সাবেক এই সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার যে দুর্নীতিবিরোধী জিরো টলারেন্স নীতি তা বাস্তবায়ন করতে হবে। সমাজের সর্বস্তরের মানুষ এগিয়ে এলে দুর্নীতিকে প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।

এসময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন, শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী এসএম আহসান হাবীব, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মাল, সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান খোকন, সখিপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির মোল্যা, সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান মানিক সরকার প্রমূখ। পরে বিকালে তিনি সখিপুর হাজী শরীয়তউল্যাহ কলেজ ও সিরাজ সিকদার কলেজে বৃক্ষরোপন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।


আরও খবর