আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

পাথরঘাটায় ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৬১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা:

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার গাববাড়িয়া এলাকায় জমি দখলের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা নাইমুল রাব্বিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। একই মামলায় ১ নম্বর আসামি এনামুল হোসাইনকে ২০ দিনে জামিন মঞ্জুর করেন এবং অন্য আসামিদের স্থায়ী জামিন দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) আসামিরা আদালতে হাজির হলে তাদের এ আদেশ দেন পাথরঘাটা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট আদালতের বিচারক (অতিরিক্তি) রাসেল মজুমদার। নাইমুল রাব্বি পাথরঘাটা ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি।

মামলার বাদী রফিকুল ইসলাম জানান, আমরা স্থানীয়রা গুচ্ছগ্রামের জমি ঘর তুলে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছি। সেই জমি ছেড়ে দেওয়ার জন্য আসামিরা বিভিন্ন সময়ে হুমকি দিয়ে আসছে। পরে এনামুল হোসাইন, নাইমুল রাব্বিসহ কয়েকজনকে নিয়ে হঠাৎ করে হামলা করে আমাদের ওপর। এ নিয়ে বিভিন্ন জনের কাছে বিচার চাইলেও কোনো বিচার পাইনি। পরে প্রধানমন্ত্রী বরাবার স্বারকলিপি দিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করি।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাইফুর ইসলাম জানান, এ মামলায় মোট ১২ জনকে আসামি করে পাথরঘাটা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট আদালতে মামলা দয়ের করেন রফিকুল ইসলাম সিকদার। এতে এনামুল ও রাব্বিসহ প্রায় ১২ জনকে আসামি করা হয়। পরে ১২ মে আসামিরা স্বেচ্ছায় হাজির হয়ে জামিন চাইলে ২ নম্বর আসামি রাব্বিকে  কারাগারে পাঠান আদালত এবং ১ নম্বর আসামি এনামুলকে আহতদের মেডিক্যাল রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত ২০ দিনের জামিন দেন।

এ ব্যাপারে বিবাদীপক্ষের আইনজীবী মো. ফারুক হোসেনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

নিউজ ট্যাগ: বরগুনা

আরও খবর



আজ ঐতিহাসিক ফারাক্কা লংমার্চ দিবস

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ২১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ ১৬ মে ঐতিহাসিক ফারাক্কা লংমার্চ দিবস। ফারাক্কা বাঁধের ফলে নদীর নাব্যতা হারানোর আশঙ্কায় ও পানির নায্য হিসসার দাবিতে ১৯৭৬ সালের এই দিনে মজলুম জননেতা  মওলানা ভাসানীর নেতৃত্বে লংমার্চ অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহীর মাদ্রাসা ময়দান থেকে ফারাক্কা বাঁধ অভিমুখে লাখো জনতার সেই লংমার্চ রওনা হয় ফারাক্কা বাঁধ অভিমুখে। লংমার্চ শেষে কানসাট হাই স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত বিশাল সমাবেশে বক্তব্য দেন মজলুম জননেতা। সেই  থেকে ১৬ মে ফারাক্কা দিবস নামে পরিচিতি লাভ করে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ১৮ কিলোমিটার উজানে ভারত ফারাক্কা বাঁধটি নির্মাণ করে।

১৯৭২ সালে ভারত-বাংলাদেশ যৌথ নদী কমিশন গঠন করা হয়। এরপর ১৯৭৪-এর ১৬ মে একটি সমঝোতায় পৌঁছায় বাংলাদেশ ও ভারত। কিন্তু ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মালদহ ও মুর্শিদাবাদ জেলায় অবস্থিত ফারাক্কা ব্যারাজের নির্মাণকাজ ১৯৭৫ সালে শেষ করে দেশটি। ওই বছর থেকেই ব্যারাজের মাধ্যমে পানিপ্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করে ভারত। ১৯৭৬ সাল থেকে একতরফাভাবে পানি নিজ দেশের অভ্যন্তরে ফিডার ক্যানাল দিয়ে প্রত্যাহার অব্যাহত রাখে ভারত। এর বিরূপ প্রভাবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মা, মহানন্দাসহ দেশের বড় বড় সব নদী নাব্যতা হারিয়ে হয়ে পড়ে পানিশূন্য বালির চর।

ফারাক্কার প্রভাবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মাসহ চার নদীই এখন মৃতপ্রায়। স্থানীয়রা বলছেন, নদীতে এখন পানির প্রবাহ নির্ভর করে ভারতের ইচ্ছা-অনিচ্ছার ওপর। শুষ্ক মৌসুমে পানি পাওয়া যায় না, আবার বর্ষায় হঠাৎ পানি ছেড়ে দিলে বন্যা এবং নদীভাঙন দেখা দেয়। পরিবেশবাদীরা বলছেন, নদী শুকিয়ে যাওয়ায় জীববৈচিত্র্যের ওপর মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে।

সেভ দ্য নেচারসহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের নেতারা জানান, পদ্মায় পানি না থাকায় পরিবেশের ওপর পড়ছে বিরূপ প্রভাব। সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে উদ্ভিদ ও জীবচক্র।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা জানান, ফারাক্কা ব্যারাজের দীর্ঘমেয়াদি প্রভাবের কারণে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মাসহ অন্য তিন নদী- মহানন্দা, পাগলা ও পুনর্ভবা শুকিয়ে যাচ্ছে, ব্যারাজ নির্মাণের পর পানিপ্রবাহ বাধাগ্রস্ত হওয়ায় নদীতে নাব্যসংকট দেখা দিয়েছে। এখন প্রয়োজনীয় পানি পেলেও তা ধরে রাখা যায় না। আর ফারাক্কা ব্যারাজের দরজা হঠাৎ খুলে দেওয়ার কারণে বন্যা ও নদীভাঙন প্রবণতা বাড়ছে।


আরও খবর
১২ মে: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২




ঈদযাত্রায় শিমুলিয়া ফেরিঘাটে মানুষের উপচে পড়া ভিড়

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দরজায় কড়া নাড়ছে ঈদ। নাড়ির টানে বাড়ি ফিরছে মানুষ। সব পেশার, সব বয়সিদের দেখা মিলছে ফেরিঘাটে। কেউ ফিরছেন পরিবহণে, কেউ বা ব্যক্তিগত গাড়ি, মাইক্রোবাস, মোটরবাইকে। অনেকে ভাড়া করে নিয়ে এসব যানবাহনে ফিরছেন বাড়ি।

তবে, নদী পাড়ে ফেরি পেতে যানবাহনের দীর্ঘ অপেক্ষার কথা ভেবে যানবাহনে সরাসরি বাড়ির পথ না ধরে ভেঙে ভেঙে বিভিন্ন গাড়িতে করে রওনা হয়েছেন অনেকে। ফলে ফেরিঘাটে আজ যানবাহনের পাশাপাশি শত শত মানুষের ভিড় দেখা যাচ্ছে।

এদিকে, কিছু এলাকার ব্যাংক বাদে গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে ঈদের আগের শেষ কর্মদিবস, পাশাপাশি অনেক বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেরও। ফলে বিকেলের পর থেকে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ফেরিঘাটে যানবাহনের চাপ ছিল। এদিন ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরবাইকের চাপ ছিল অন্য যেকোনো দিনের তুলনায় বেশি। আর, আজ যানবাহনের পাশাপাশি সাধারণ মানুষ ফেরি পারের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছেন।

আজও শুক্রবার ভোর থেকে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে আগের দিনের তুলনায় একটি ফেরি বেড়েছে। ১০টি ফেরি যোগে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। তারপরও যাত্রী ও যানবাহনের তুলনায় ফেরির রয়েছে সংকট। সময়মতো ফেরি না ছাড়ায় আজও ঝুঁকি নিয়ে লঞ্চে ও স্পিডবোট যাতায়াত করছেন যাত্রীরা।

আজ সকাল থেকে দেখা যাচ্ছে, বাস-লেগুনা, ব্যটারিচালিত অটোরিকশা বা ভাড়ায় মোটরসাইকেলে করে ঘাটে এসে লঞ্চে ও স্পিডবোটে পাড়ি দিচ্ছেন মানুষ। ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে যশোর যাবেন আতাহার মোল্লা। তিনি বলেন, ভোরের একটু আগেভাগে রওনা হয়েছি। দুই ঘণ্টা হয়ে গেছে, ফেরি পাইনি। কখন পার হতে পারব, জানি না।

বেসরকারি কিন্ডারগার্টেন স্কুল শিক্ষক শবনম বলেন, ফেরিঘাটে যানবানের অপেক্ষার কথা ভেবে ঢাকা থেকে মাওয়ার গাড়িতে ঘাটে পৌঁছেছি। এভাবে আগেভাগে নদী পার হতে পারব বলে আশা করছি।

কলেজছাত্র আরিফিন মোল্লা বলেন, বাসে করে এসেছি, কোনো কষ্ট হয়নি। স্পিড বোটে নদী পাড়ি দেব। এতে তাড়াতাড়ি নদী পার হওয়া যাবে। তারপর ভাড়ায় মোটরসাইকেল নিয়ে শিবচরে যাব।

বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. ফয়সাল  জানান, বর্তমানে মোট ১০টি ফেরি পারাপারে কাজ করছে। বাংলাবাজার নৌরুটে সাতটি ও মাঝিরকান্দা নৌরুটে তিনটি ফেরি চলাচল করছে। গতকাল ছিল নয়টি ফেরি। বাংলাবাজার নৌরুটে একটি ফেরি বাড়ানো হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ শিমুলিয়া ঘাটের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী পরিচালক মো. শাহাদাত হোসেন জানান, ফেরিঘাটে যানবাহনের পাশাপাশি মানুষের সংখ্যাও বেড়েছে। তাঁরা ফেরির জন্য অপেক্ষা না করে লঞ্চ ও স্পিডবোটে নদী পার হচ্ছেন। ভোর থেকে ১৫৫টি স্পিডবোট  ও ৮৭টি লঞ্চ চলাচল করছে।

 

 

 


আরও খবর



ত্বকেরও যত্ন নেয় ঢেঁড়শ, আর কী গুণ আছে ?

প্রকাশিত:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সব্জি খেতে পছন্দ করলেও ঢেঁড়শের নাম শুনলেই নাক সিঁটকোন অনেকে। বিশেষ করে গরমে বাজার ছেয়ে যায় ঢেঁড়সে। খেতে তেমন সুস্বাদু না হলেও ঢেঁড়শ কিন্তু শরীর অনেক যত্ন নেয়। এমনকি, ভাল করে রান্না করলেও ঢেঁড়শের যেকোনও পদ অত্যন্ত সুস্বাদু এবং উপাদেয় হয়ে ওঠে। গাজর, সিম, পালংশাক, কুমড়ো, বিটের মতো ঢেঁড়সও অত্যন্ত স্বাস্থ্য উপকারী একটি সব্জি। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, ভিটামিন এ, সি, ফলেট, ক্যালশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট এবং বিটা ক্যারোটিন। ডায়াবিটিস, অ্যাস্থমা, অ্যানিমিয়ার সমস্যা দূর করে ঢেঁড়শ।

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমায় :

ঢেঁড়শে থাকা ফাইবার পেটের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে যাঁরা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভুগে থাকেন তাঁদের জন্য ঢেঁড়শ অত্যন্ত উপকারী। কোষ্ঠকাঠিন্যে ছাড়াও বদহজম এবং গ্যাস-অম্বলের মতো সমস্যা দূর করতেও সাহায্য করে। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, নিয়মিত ঢেঁড়শ খাওয়ার অভ্যাস কোলন ক্যানসারের প্রবণতা কমায়।

দৃষ্টিশক্তি উন্নত করতে সাহায্য করে :

দৃষ্টিশক্তি উন্নত করতে দারুণ সাহায্য করে ঢেঁড়শ। এই গরমে রোজের খাদ্যতালিকায় ঢেঁড়শ রাখতেই পারেন। এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট চোখের দৃষ্টি পরিষ্কার রাখে।

ওজন কমাতে সাহায্য করে :

ঢেঁড়শে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। তা হজমশক্তি উন্নত করতে সাহায্য করে। পরিপাক ক্রিয়ার ভাল মন্দের উপর শরীরের ওজন নির্ভর করে। পরিপাক ক্রিয়া স্বাভাবিক থাকলে ওজনও নিয়ন্ত্রণে থাকে।

ত্বক ভাল রাখে :

ঢেঁড়শে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। ত্বকের অনেক সমস্যা দূর করতে দারুণ কার্যকরী ভিটামিন সি। ব্রণর সমস্যা কমায়, ত্বকের অবাঞ্ছিত দাগছোপ কমায়, ত্বকে ভিতর থেকে পুষ্টি জোগায় ভিটামিন সি। আর ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ঢেঁড়শ শরীরের পাশাপাশি যত্ন নেয় ত্বকেরও।

অতিরিক্ত শ্বেতস্রাব কমায় :

শ্বেতস্রাবের সমস্যায় অল্পবিস্তর সব মহিলাই ভুগে থাকেন। মানসিক অশান্তি, গর্ভ-নিরোধক ওষুধ গ্রহণ, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব ইত্যাদি কারণে শ্বেত স্রাবের সমস্যা দেখা দিতে পারে। ঢেঁড়শে শ্বেসস্রাবের সমস্যা কম করতে পারে। এক লিটার জলের মধ্যে ২০০ গ্রাম ঢেঁড়শ সেদ্ধ করুন। জল ঘন হয়ে অর্ধেক হয়ে আসলে সেই জল পান করতে পারেন। সপ্তাহে দুথেকে তিন বার এই জল খান। তবে শ্বেতস্রাবের সমস্যা বেশি হলে অতি অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।

নিউজ ট্যাগ: ঢেঁড়শ

আরও খবর
‘আম’ চিনুন তারপর কিনুন

বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২




নিষেধাজ্ঞা উঠলেও টুইটার ব্যবহার করবেন না ট্রাম্প

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টুইটারের মালিকানা পরিবর্তন হচ্ছে। এই অবস্থায় যদি নতুন কার্য নির্বাহি পরিষদ ট্রাম্পের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেন তবু আর টুইটার ব্যবহারের ইচ্ছে নেই বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প। সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজকে এমনটি জানিয়েছে ট্রাম্প।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানান, পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী সাত দিনের মধ্যে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে তার নিজের মালিকানাধীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে যোগ দেবেন।  আমি টুইটারে যাচ্ছি না। আমি আশা করি ইলন টুইটার কিনেছেন কারণ তিনি এটির উন্নতি করবেন। তিনি একজন ভালো মানুষ।

সোমবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে টেক জায়ান্ট টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্কের কাছে টুইটার বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ।

প্রসঙ্গত, ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলা হয়। এ ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগে ট্রাম্পের টুইটার ও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করা হয়। এরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম চালুর ঘোষণা দেন ট্রাম্প।


আরও খবর



দেশে কমছে স্বর্ণের না দাম

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত সপ্তাহে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে বড় পতন হয়েছে। সেই সঙ্গে কমেছে রুপা ও প্লাটিনামের দাম। গত এক সপ্তাহে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম দুই শতাংশের ওপর কমেছে। এতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ৪০ ডলারের ওপর কমে ১৯৫০ ডলারের নিচে নেমেছে। বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে বড় পতন হলেও আপাতত দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম কমানোর পরিকল্পনা নেই বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস)।

বাজুস সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা সর্বশেষ যখন স্বর্ণের দাম বাড়িয়েছি, সে সময় পরিকল্পনা ছিল ভরিতে ২ হাজার ৫০০ টাকা বাড়ানোর। কিন্তু বৈশাখ ও ঈদের কথা চিন্তা করে দেড় হাজার টাকার মতো বাড়ানো হয়েছে। তাই বিশ্ববাজারে দাম কমলেও আমরা এখনই স্বর্ণের দাম কমানোর চিন্তা করছি না। ডলারের দাম হু হু করে বাড়ছে। বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামেও বেশ অস্থিরতা দেখা যাচ্ছে। স্বর্ণের বাজার কোন দিকে যাচ্ছে এ নিয়ে সবাই কনফিউজড। আমাদের ক্রেতারাও কনফিউজড। এবার ঈদকেন্দ্রিক বিক্রি জমে ওঠেনি।

এদিকে ইউক্রেনে রাশিয়া আগ্রাসন শুরু করার পর থেকেই বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে ব্যাপক অস্থিরতা দেখা যাচ্ছে। হুট করে স্বর্ণের দামে বড় উত্থান, এরপর আবার বড় পতনের ঘটনা ঘটছে গত দুই মাস ধরেই। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে আগ্রাসন শুরু করে রাশিয়া। এতে ব্যাপক প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। রাশিয়া ইউক্রেনে আক্রমণ শুরুর পর প্রথম সপ্তাহেই বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ বা ৮২ দশমিক ৪৮ ডলার বেড়ে যায়। এতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৯৭০ দশমিক শূন্য ৭ ডলারে উঠে যায়। যার পরিপ্রেক্ষিতে ৩ মার্চ থেকে দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়েছে। সবচেয়ে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণের দাম ৩ হাজার ২৬৫ টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে ৭৮ হাজার ২৬৫ টাকা।

২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ৩ হাজার ৯১ টাকা বাড়িয়ে ৭৪ হাজার ৭৬৬ টাকা করা হয়েছে। ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ২ হাজার ৩৩৩ টাকা বাড়িয়ে ৬৪ হাজার ১৫২ টাকা করা হয়েছে। সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ২ হাজার ২১৬ টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে ৫৩ হাজার ৪২১ টাকা। দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম বাড়ানোর পর এক সপ্তাহের মধ্যে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম বেড়ে দুই হাজার ডলার ছাড়িয়ে যায়। ফলে ৯ মার্চ দেশের বাজারে আবার বাড়ানো হয় স্বর্ণের দাম। এ দফায় ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৫০ টাকা বাড়িয়ে করা হয় ৭৯ হাজার ৩১৫ টাকা।

২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ৯৩৩ টাকা বাড়িয়ে ৭৫ হাজার ৬৯৯ টাকা করা হয়। ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম ৮১৬ টাকা বাড়িয়ে ৬৪ হাজার ৯৬৮ টাকা আর সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ৬৪২ টাকা বাড়িয়ে করা হয় ৫৪ হাজার ৬২ টাকা। অবশ্য এরপর বিশ্ববাজারে টানা দরপতনের মধ্যে পড়ে স্বর্ণ। ফলে ১৬ মার্চ এবং ২২ মার্চ দুই দফায় দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম কমানো হয়। এর মধ্যে ২২ মার্চ সবচেয়ে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৫০ টাকা কমিয়ে করা হয় ৭৭ হাজার ৯৯ টাকা। এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম ১ হাজার ৫০ টাকা কমিয়ে ৭৩ হাজার ৬০০ টাকা, ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম ৯৩৩ টাকা কমিয়ে ৬৩ হাজার ১০২ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ৪৫৮ টাকা কমিয়ে ৫২ হাজার ৬০৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

এরপর রোজা শুরু হলে দেশের বাজারে ঈদকেন্দ্রিক স্বর্ণালঙ্কারের বিক্রি কিছুটা বেড়ে যায়। যার প্রভাব পড়ে দামেও। বিশ্ববাজারে খুব একটা দাম না বাড়লেও গত ১২ এপ্রিল থেকে সবচেয়ে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৭৫০ টাকা বাড়িয়ে ৭৮ হাজার ৮৪৯ টাকা নির্ধারণ করে বাজুস। এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৭৪৯ টাকা বাড়িয়ে ৭৫ হাজার ৩৪৯ টাকা করা হয়েছে। ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৪৫৮ টাকা বাড়িয়ে ৬৪ হাজার ৫৬০ টাকা করা হয়েছে। সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ১ হাজার ২২৪ টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে ৫৩ হাজার ৮২৯ টাকা।

বাজুস দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম বাড়ানোর মধ্যেই বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কিছুটা বাড়তে দেখা যায়। এতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম প্রায় দুই হাজার ডলারের কাছাকাছি চলে যায়। তবে গত সপ্তাহে বড় দরপতন হওয়ায় প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১৯০০ ডলারের নিচে নেমে গেছে। গত এক সপ্তাহে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ২ দশমিক ২০ শতাংশ বা ৪২ দশমিক ৪৮ ডলার কমেছে। এর মধ্যে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসেই কমেছে ২০ দশমিক ৫০ ডলার বা ১ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। এতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯৩১ ডলার।

এদিকে স্বর্ণের পাশাপাশি গত এক সপ্তাহে বিশ্ববাজারে রুপা ও প্লাটিনামের দামেও বড় পতন হয়েছে। এক সপ্তাহে ৬ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ কমে প্রতি আউন্স রুপার দাম দাঁড়িয়েছে ২৪ দশমিক ১২ ডলারে। আরেক দামি ধাতু প্লাটিনামের দাম গত সপ্তাহজুড়ে কমেছে ৬ দশমিক ২৪ শতাংশ। এতে প্রতি আউন্স প্লাটিনামের দাম দাঁড়িয়েছে ৯২৮ ডলার।

নিউজ ট্যাগ: স্বর্ণের দাম

আরও খবর
ফের বাড়লো স্বর্ণের দাম

মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২