আজঃ শনিবার ০২ মার্চ 2০২4
শিরোনাম

পাটুরিয়ায় ফেরি ডুবি, ৬ জনকে জীবিত উদ্ধার

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে রজনীগন্ধা নামের ছোট ফেরি ডুবির ঘটনা ঘটেছে। নদীতে নোঙর করা অবস্থায় ফেরিটি ডুবে যায়।

মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাট থেকে আটটি ট্রাকসহ পাটুরিয়া ঘাটের উদ্দেশ্য ছেড়ে আসে। তবে নদীতে ঘন কুয়াশার কারণে মাঝ নদীতে নোঙর করে ফেরিটি।

বুধবার (১৭ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়ের বাণিজ্য শাখার ব্যবস্থাপক মো. সালাম হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর



শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ব্রাজিলের নাটকীয় জয়

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

দুবাইয়ে চলছে বিচ সকার ফুটবল বিশ্বকাপের ১২তম আসর। যেখানে অংশ নিচ্ছে ৬টি মহাদেশের ১৬টি দেশ। এবারের আসরে লাতিন আমেরিকা থেকে সুযোগ পেয়েছে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল ও কলম্বিয়া। আর্জেন্টিনা খেলছে বি গ্রুপে। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ স্পেন, ইরান ও তাহিত। অন্যদিকে ব্রাজিল খেলছে ডি গ্রুপে। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ ওমান, পর্তুগাল ও মেক্সিকো।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় রাত পৌণে ১১টায় দুবাই ডিজাইন ডিস্ট্রিক্ট স্টেডিয়ামে গ্রুপ পর্বের তৃতীয় ম্যাচে মেক্সিকোর বিপক্ষে মাঠে নামে সেলেসাওরা।

ম্যাচে দুর্দান্ত শুরু পায় ব্রাজিল। প্রথম পিরিয়ডে মাউরিসিনহো ও এডসন হাল্কের করা গোলে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় তারা। অন্যদিকে মেক্সিকোর হয়ে একটি গোল শোধ করেন ক্রিস্টোফার ক্যাস্টিলো। দ্বিতীয় পিরিয়ডে মেক্সিকোর সালোমন ওবিয়াস একটি গোল করলে ম্যাচে সমতা ফেরে।

তবে ম্যাচ জমে ওঠে তৃতীয় পিরিয়ডে। ব্রাজিলের অ্যালিসন গোল করে দলকে লিড এনে দিলেও বেশিক্ষণ সে লিড ধরে রাখতে পারেনি তারা। উল্টো ম্যাচ শেষের আগ মুহূর্তে গোল করে ম্যাচে সমতা ফেরান মেক্সিকোর রোমান মালডোনাডো। ৩-৩ সমতায় ম্যাচ যখন ড্র হওয়ার পথে ঠিক তখন নির্ধারিত সময়ের অতিরিক্ত সময়ে জয়সূচক গোলের দেখা পায় ব্রাজিল। দলটির পক্ষে এডিসন হাল্ক গোল করলে ৩-৪ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল।

আগের ম্যাচেও পর্তুগালের বিপক্ষে ব্রাজিল অতিরিক্ত সময়ে করা গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে। এ জয়ে গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচেই অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়লো সেলেসাওরা।

কোয়ার্টারে তাদের প্রতিপক্ষ এশিয়ার দেশ জাপান। আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ডিজাইন ডিস্ট্রিক্ট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



ঝুলে থাকা তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে কৌতূহল

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জনমানুষের বহুল প্রত্যাশিত তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি আজও আলোর মুখ দেখেনি। একটি সমঝোতার ব্যাপারে দিল্লি সম্মত হলেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তিস্তা চুক্তির ব্যাপারে নারাজ। মূলত তার আপত্তির কারণেই তিস্তা চুক্তি হচ্ছে না। এমন এক বাস্তবতায় টানা চতুর্থ মেয়াদে আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন হওয়ার পর গতকাল প্রথম দ্বিপক্ষীয় সফরে নয়াদিল্লি যান নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাসের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত প্রতিবেশী ভারতে নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরটি নানা কারণে তাৎপর্যপূর্ণ। সেখানে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন তিনি; বৈঠক করবেন ভারতের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গেও।

সফরকালে তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি নিয়েও আলোচনা হবে বলে জানা গেছে। তবে ঝুলে থাকা তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি ও সীমান্ত হত্যার মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলো নিয়ে কতটুকু আলোচনার সুযোগ হবে বা অগ্রগতিই বা কতটুকু হবে তা নিয়ে কৌতূহল রয়েছে। যদিও তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি যে বাংলাদেশের মানুষের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা, সেই বার্তা জয়শঙ্করকে দেবেন হাছান মাহমুদ।

অন্যদিকে ঢাকা ও নয়াদিল্লির কূটনৈতিক সূত্র দাবি করেছে ০৭ ফেব্রুয়ারি দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দলের দ্বিপক্ষীয় আলোচনা ছাড়া মন্ত্রীর সফরের অনেক কিছুই এখনো চূড়ান্ত হয়নি। দ্বিপক্ষীয় প্রথম সফরে সাধারণত সরকারপ্রধানের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ হয়। গত ১০ বছরে বাংলাদেশে গুড উইল সফরে আসা দিল্লির পররাষ্ট্র সচিবরাও সরকারপ্রধানের সাক্ষাৎ পেয়েছেন। কিন্তু হাছান মাহমুদের সফরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাক্ষাৎ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। এ ছাড়া তিস্তায় চীন যে প্রকল্পের প্রস্তাব দিয়েছে, সে বিষয়ে ভারত জানতে চাইলে মতামত দেবে বাংলাদেশ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলী সাবরীন এ বিষয়ে বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার বিভিন্ন বিষয় আলোচনায় থাকবে। এর মধ্যে তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে আলোচনা হবে বলে আমরা আশা করছি। তিস্তায় চীনের প্রকল্প প্রসঙ্গে মুখপাত্র বলেন, চীনের প্রকল্পের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে কিনা, তা এখন বলা যাচ্ছে না। কারণ এজেন্ডাগুলো নিয়ে এখনো কাজ হচ্ছে। যদি ভারত এ বিষয়ে আমাদের কাছে কিছু জানতে চায়, তখন আমরা বিষয়টি ভেবে দেখব।

সম্প্রতি যশোর সীমান্তে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশের বিজিবির এক সদস্য নিহত হন। বিজিবি সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনায় বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার সম্পর্কে এক ধরনের অস্বস্তি তৈরি হয়েছে। সেই অস্বস্তি দূর করতে সীমান্তে হত্যা শূন্যে নামিয়ে আনার যে অঙ্গীকার দুই দেশের রয়েছে, সে বিষয়েও আলোচনা করবেন হাছান মাহমুদ। আলোচনা হবে বাণিজ্য বৃদ্ধি ও কানেক্টিভিটি নিয়েও।

নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পরই হাছান মাহমুদকে অভিনন্দন বার্তা পাঠান জয়শঙ্কর। ঢাকায় ভারতের হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা পরের দিন তার মন্ত্রণালয়ে গিয়ে শুভেচ্ছা জানান। পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকদের জানান, তাকে ভারত সফরের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন জয়শঙ্কর। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফরটি তিন দিনের হতে পারে। তবে সফরসূচি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। আলোচ্য বিষয়বস্তুও ঠিক হয়নি। এসব নিয়ে এখনো কাজ চলছে।

ভারত সফর সম্পর্কে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে। মিয়ানমার ও ভারত প্রতিবেশী রাষ্ট্র। তাই মিয়ানমারের ইস্যুতে ভারতের সহযোগিতা সব সময় চেয়ে এসেছি। মিয়ানমার যাদের জোরপূর্বক উচ্ছেদ করেছে, যারা বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছে, তাদের বিষয়ে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। সার্বিকভাবে মিয়ানমার ইস্যুতে ভারতের সঙ্গে আলোচনার সুযোগ রয়েছে।


আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ বাতাস নিয়ে দূষণে দ্বিতীয় ঢাকা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিশ্বে দূষিত শহরের তালিকায় সম্প্রতি প্রায় প্রতিদিনই শীর্ষ তিনের মধ্যে থাকছে ঢাকার নাম। আজও দূষণের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ঢাকা। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা ১০ মিনিটে বায়ুমানের সূচক (একিউআই) অনুযায়ী ঢাকায় বাতাসের মান ছিল ২৩২ স্কোর। বায়ুর মান বিচারে এ মাত্রাকে খুব অস্বাস্থ্যকর বলা হয়।

এ ছাড়া স্কোর ২৬৬ নিয়ে প্রথম স্থানে রয়েছে ভারতের দিল্লি। ২১১ স্কোর নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারতের মুম্বাই। ২০২ স্কোর নিয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে পাকিস্তানের লহোর এবং ১৭৮ স্কোর নিয়ে পঞ্চম স্থানে পাকিস্তানের আরেক শহর করাচি।

তথ্যমতে, একিউআই স্কোর ১০১ থেকে ২০০ এর মধ্যে থাকলে অস্বাস্থ্যকর, ২০১ থেকে ৩০০ এর মধ্যে থাকলে খুব অস্বাস্থ্যকর এবং স্কোর ৩০১ থেকে ৪০০ এর মধ্যে থাকলে ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়।

ঢাকায় বায়ুদূষণের জন্য ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলোকে দায়ী করে আসছেন বিশেষজ্ঞরা। ভয়াবহ এই দূষণের ফলে গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। এটা সব বয়সী মানুষের জন্য ক্ষতিকর। বিশেষ করে শিশু, অসুস্থ ব্যক্তি, প্রবীণ ও অন্তঃসত্ত্বাদের জন্য বায়ুদূষণ খুবই ক্ষতিকর।

নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. আদিল মুহাম্মদ খান বলেন, ঢাকার বায়ু দূষণ ধারাবাহিকভাবেই উদ্বেগজনক। বায়ুদূষণের অনেক উৎসের মধ্যে ইদানীং নির্মাণযজ্ঞও উঠে এসেছে। ভবন বা অবকাঠামো নির্মাণে আদর্শ মান মানা হয় না। সরকারি ও বেসরকারি সব উন্নয়নকাজ উন্মুক্তভাবেই করা হচ্ছে।


আরও খবর
২৯ ফেব্রুয়ারি: ইতিহাসের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পরমাণু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার জন্মদিন আজ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রংপুর প্রতিনিধি

Image

দেশবরেণ্য পরমাণু বিজ্ঞানী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী প্রয়াত ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার ৮২তম জন্মবার্ষিকী আজ।

এ উপলক্ষে পীরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন, পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ, এম এ ওয়াজেদ ফাউন্ডেশন এবং আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন, স্মৃতিচারণ, ফাতেহা পাঠ, মিলাদ মাহফিল, গরিব ও দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণসহ নানা কর্মসূচি পালনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

আজ শুক্রবার সকাল থেকে প্রয়াত বিজ্ঞানীর বাসভবন লালদীঘির ফতেহপুরের জয়সদন, উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় ও উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এসব কর্মসূচি পালিত হবে। সকালে বিজ্ঞানীর কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের মধ্যদিয়ে দিনের কর্মসূচির সূচনা হবে। সকালে জয় সদন প্রাঙ্গণে দোয়া মাহফিল, আলোচনা সভা, তবারক বিতরণ, বিকেলে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্মৃতিচারণ ও উপজেলা মসজিদে বিশেষ মোনাজাত, বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে স্মৃতিচারণ দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে গোপিনাথপুর হাফিজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানায় কোরআন খতম ও শিক্ষার্থীদের উন্নত মানের খাবার পরিবেশন করা হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইকবাল হাসান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও প্রয়াত বিজ্ঞানীর ভাতিজা পৌর মেয়র তাজিমুল ইসলাম শামীম এ কর্মসূচি নিশ্চিত করেন।

উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ওয়াজেদ মিয়ার জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভায় থাকবেন পীরগঞ্জ আসনের এমপি ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।


আরও খবর



চিতাবাঘটির হত্যাকাণ্ড তদন্তে মতপার্থ্যক্য

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
পঞ্চগড় প্রতিনিধি

Image

পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার তোড়িয়া ইউনিয়নের দ্বারখোর সীমান্ত এলাকার নাগর নদ থেকে উদ্ধার মৃত চিতাবাঘটিকে হত্যা করা হয়েছে প্রাথমিক তদন্তে এই তথ্য উঠে এসেছে। তবে হত্যাকাণ্ডের ধরন নিয়ে মতপার্থ্যক রয়েছে সংশ্লিষ্টদের মধ্যে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন ও পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শেষে মৃত্যুর আসল কারণ যাবে বলছেন তারা।

শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) বাঘটিকে মৃত অবস্থায় উদ্ধারের পর বন বিভাগ থেকে জানানো হয়, তাদের ধারণা বাঘটি ভারত থেকে এসেছে। বাঘের মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে নামে দুটি টিম। একটির তদন্ত করছেন বন অধিদপ্তরের বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের তিন সদস্য। অপরটি স্থানীয়ভাবে জেলা বন বিভাগ, উপজেলা প্রশাসন ও প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর সমন্বিতভাবে তদন্ত করছে।

বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের তদন্ত কমিটির প্রধান বন্যপ্রাণী পরিদর্শক অসীম মল্লিক বলেন, আমরা স্থানীয় লোকজন, জনপ্রতিনিধি, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছ থেকে তথ্য নিয়েছি। প্রাথমিক তদন্তে আমরা পেয়েছি বাঘটিকে হত্যায় স্থানীয়রা জড়িত ছিল। হত্যা করা হয় শ্বাসরোধে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে সম্পূর্ণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।

স্থানীয়ভাবে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান আটোয়ারী উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, হত্যার কারণ হিসেবে পিটিয়ে, বিষ প্রয়োগসহ তিন ধরনের তথ্য এসেছে। ময়নাতদন্তে এ ধরনের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য ভিসেরা পরীক্ষা করা প্রয়োজন। এজন্য ঢাকায় ল্যাবে নমুনা পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন কত দিনের মধ্যে আসবে তা বলা যাচ্ছে না।

সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায় দ্বারখোর সীমান্ত এলাকার মানুষ বাঘটিকে লাঠিসোটা নিয়ে ধাওয়া করছেন। তখন বাঘটি ভয়ে নদের পানিতেই ছোটাছুটি করছে। মানুষজন নদীতে নেমে মাছ ধরার জাল দিয়ে বাঘটিকে তাড়া করতে থাকেন। তখন নদের তীরে একটি জঙ্গলে আশ্রয় নেয় বাঘটি। সেখানেও ধাওয়া দিলে আবার নদীতে নামে বাঘটি। একপর্যায়ে বাঘটি ক্লান্ত হয়ে স্থানীয়দের জালে ধরাশায়ী হয়। পরে বাঘটিকে ধরে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হত্যার পর বাঘটিকে একটি বাঁশে বেঁধে নেওয়া হয় বোধঁগাঁও বিজিবি ক্যাম্পে। সেখান থেকে বাঘটিকে নেওয়া হয় বারঘাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে। সেখান থেকে বাঘটিকে ময়নাতদন্তের জন্য আটোয়ারী উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসে নেওয়া হয়।

স্থানীয় কৃষক আব্দুল জব্বার বলেন, চেঁচামেচি শুনে আমি কাছে যাই। দেখি বাঘটি বসে আছে। কাছে গেলেও বাঘটি নড়াচড়া করতে পারছিল না। আমরা তখন একটি জাল দিয়ে বাঘটিকে ঢেকে দেই। তখন বাঘটি নড়াচরা শুরু করলে একটি লাঠি দিয়ে ভালো করে জালে পেঁচিয়ে ধরি। তখন বাঘটি মনে হয় মারা গিয়ে নদীতে ডুবে যাচ্ছিল। পরে নদী থেকে ডাঙায় নিয়ে একটি বাশঁ দিয়ে বাঘের চার পা বেঁধে সামনে নিয়ে আসি।

স্থানীয়দের দাবি নয় দিন আগে এক কৃষকের গরু খেয়ে ফেলেছিল বাঘটি। পরে গরুটিতে বিষ ছিটিয়ে রাখা হয়। সেই গরুটি আবারো খেয়ে নদীতে পানি খেতে নামে বাঘটি। সেখানেই মরে পড়ে থাকতে দেখেন নাগর নদে মাছ ধরতে যাওয়া কয়েকজন। পরে বাঘটিতে উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় গৃহবধূ ময়না বেগম বলেন, গত রবিবার আমার একটি গরু মারা যায়। গরুটিকে বাঘ নাকি শিয়াল আক্রমন করেছিল জানি না। তবে আমার ছোট ছেলে বলেছিল আমাদের এতবড় ক্ষতি করল, আমি তাকেও মেরে ফেলব। এরপর সে গরুর মধ্যে অল্প করে দানাদার বিষ দিয়েছে বলে শুনেছি। এখন বাঘটি বিষ খেয়ে মারা গেছে, নাকি ঠান্ডায় অসুস্থ বা অন্য কোনো কারণে মারা গেছে আমি জানি না।

তোড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য নজরুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল থেকে আমার বাড়ি সাড়ে তিন কিলোমটিার দূরে। স্থানীয়দের কাছে শুনতে পাই একটি বাঘ গরু খেয়েছে। পরে গরুতে বিষ দেওয়া হলে বাঘটি গরুটি খেয়ে মারা যায়। বাঘটিকে পিটিয়ে হত্যার বিষয়টি আমি জানতাম না। ঢাকা থেকে একটা টিম এসেছে শুনেছি, আমার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেনি।

বন অধিদপ্তরের বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের বন্যপ্রাণী পরিদর্শক অসীম মল্লিক বলেন, আমরা বিশেষ পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য বাঘের শরীর এবং উদ্ধারকাজে ব্যবহৃত জাল থেকে কিছু নমুনা সংগ্রহ করেছি। বিষ টোপের কারণে না কি আঘাতে বাঘের মৃত্যু হয়েছে, সেটা পরে নিশ্চিত করে বলা যাবে। আমাদের তদন্তে উঠে আসা বিষয়গুলো নিয়ে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করব।

বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন-২০১২ অনুযায়ী কোনো ব্যক্তি চিতা বাঘ হত্যা করলে তিনি সর্বোচ্চ তিন বছর কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ তিন লাখ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ পাঁচ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। তবে শর্ত থাকে চিতা বাঘ কোনো ব্যক্তিকে আক্রান্ত করলে এবং এতে তার জীবনশঙ্কার সৃষ্টি হলে জীবন রক্ষার্থে আক্রমণকারী চিতা বাঘ হত্যার ক্ষেত্রে এই ধারার বিধান প্রযোজ্য হবে না। তবে আরও শর্ত থাকে এ সংক্রান্ত বিষয়ে কোনো মামলা দায়েরের প্রশ্ন দেখা দিলে, সংশ্লিষ্ট স্টেশন কর্মকর্তা ওয়ার্ডেনের সঙ্গে পরামর্শ করে মামলা দায়ের করতে পারবেন। বাঘের মৃত্যুর ঘটনায় শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) বিকাল পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা বা অভিযোগ দায়ের হয়নি।

জানতে চাইলে পঞ্চগড় বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা মধুসুধন বর্মন বলেন, হত্যা হলেও সেটা পিটিয়ে না কি শ্বাসরোধে তা নিশ্চিত হয়। ঢাকা থেকে বন বিভাগের লোকজন এসে তদন্ত করছে। স্থানীয়ভাবেও তিন সদস্যর একটি তদন্ত দল তদন্ত করছে। মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যারা দোষী শনাক্ত হবেন আইন অনুযায়ী অবশ্যই তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।

নিউজ ট্যাগ: পঞ্চগড়

আরও খবর