আজঃ বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

পি কে হালদারসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন

প্রকাশিত:বুধবার ১০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ নভেম্বর ২০২১ | ৬৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক এমডি পিকে হালদারসহ মোট ১৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ৪২৬ কোটি টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও বিভিন্ন ব্যাংক হিসাবে প্রায় ৬ হাজার ৮০ কোটি টাকা লেনদেনের মামলায় এই অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

দুদকের প্রধান কার্যালয়ে বুধবার (১০ নভেম্বর) কমিশন থেকে ওই চার্জশিট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে ওই মামলাটি দায়ের করেন সংস্থাটির সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী।

জানা গেছে, শিগগিরই উপ-পরিচালক মো. সালাউদ্দিন আদালতে চার্জশিট জমা দেবেন। অনুমোদিত চার্জশিটে পিকে হালদারের বিরুদ্ধে অবৈধ উপায়ে প্রায় ১ কোটি ১৭ লাখ কানাডিয়ান ডলারের সমপরিমাণ অর্থ দেশটিতে পাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে।

চার্জশিটে প্রশান্ত কুমার হালদার ছাড়া অন্যান্য আসামিরা হলেন- প্রশান্ত কুমার হালদারের মা লীলাবতী হালদার, অবন্তিকা বড়াল, শংখ বেপারী, সুকুমার মৃধা, অনিন্দিতা মৃধা, পূর্ণিমা রানী হালদার, উত্তম কুমার মিস্ত্রি, অমিতাভ অধিকারী, প্রীতিশ কুমার হালদার, রাজীব সোম, সুব্রত দাস, অনঙ্গমোহন রায় ও স্বপন কুমার মিস্ত্রি।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৮ জানুয়ারি প্রায় ২৭৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে প্রশান্ত কুমার হালদারের বিরুদ্ধে মামলা হয়।


আরও খবর



পরীমণির মামলায় নাসির-অমির জামিন

প্রকাশিত:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চিত্রনায়িকা পরীমণির করা ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টার মামলায় ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ এবং তুহিন সিদ্দিকী অমির জামিন মঞ্জুর করেছেন ট্রাইব্যুনাল।

বুধবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৯ এর বিচারক হেমায়েত উদ্দিনের আদালতে মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণের দিন ধার্য ছিল। এদিন পরীমণি আদালতে উপস্থিত হয়ে অভিযোগপত্রের ওপর নারাজি দেন।

অন্যদিকে নাসির ও অমি আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। তাদের জামিন মঞ্জুর করেন আদালত। আর নারাজি আবেদনের আদেশ পরে দেবেন বলে জানান।

আদালতে উপস্থিত ছিলেন নাসির ও অমি। তবে মামলার অপর আসামি শহিদুল আলম পলাতক রয়েছেন।

গত ৬ সেপ্টেম্বর আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক কামাল হোসেন অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এর আগে গত ১৪ জুন ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টার অভিযোগে নাসির উদ্দিন ও তার বন্ধু অমির নাম উল্লেখ করে এবং চারজনকে অজ্ঞাত আসামি করে পরীমণি সাভার থানায় মামলা করেন।

পরীমণির মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৫ জুন ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তার বন্ধু অমিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এরপর রাজধানীর বিমানবন্দর থানায় করা মাদক মামলায় সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ২৩ জুন পরীমনির ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টার মামলায় তাদের পাঁচদিনের রিমান্ড দেওয়া হয়।

এই রিমান্ড ২৯ জুন আসামিদের ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পুলিশ। তখন মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাদের কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা। অন্যদিকে তাদের আইনজীবীরা জামিন আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকার জ্যেষ্ঠ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাহজাদী তাহমীদা তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করে আদেশ দেন।


আরও খবর



ইউপি চেয়ারম্যান পদে এবার তৃতীয় লিঙ্গের ঋতু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ৮৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার ত্রিলোচনপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় লিঙ্গ (হিজরা) নজরুল ইসলাম ঋতু চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। আনারস প্রতীক নিয়ে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থী হওয়ায় এলাকায় আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। আগামী ২৮ নভেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

কালীগঞ্জ উপজেলার দাদপুর গ্রামের বাসিন্দা নজরুল ইসলাম ঋতু ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে থাকেন। চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি তৃতীয়। মাঝে মধ্যে গ্রামে আসেন। কিছু সামাজিক কাজকর্ম করেন। আপদ বিপদে গ্রামের মানুষকে সাহায্য করেন। এভাবেই এলাকায় পরিচিত হয়ে উঠেন।

করোনায় আরও পাঁচজনের মৃত্যু, শনাক্ত  ২৪৪করোনায় আরও পাঁচজনের মৃত্যু, শনাক্ত  ২৪৪

নজরুল ইসলাম ঋতু জানান, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আনারস মার্কা নিয়ে লড়ছেন। ভোটার তালিকায় তার নাম আছে নজরুল হিজরা বলে। এ নামেই তিনি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। নির্বাচনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকার মার্কার প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত পাখা মার্কার প্রার্থী মো. মাহবুবুর রহমান।  বিজয়ী হলে তিনি এলাকার উন্নয়ন ও মানুষের  সেবা করবেন বলে জানান।

প্রতীক নিয়ে তিনি ভোটারদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন। ভোট চাচ্ছেন, দোয়া চাচ্ছেন। প্রচারে গেলে উৎসাহী ভোটাররা তার পাশে ভিড় করছেন।

নিউজ ট্যাগ: ইউপি চেয়ারম্যান

আরও খবর
চট্টগ্রামে পাট গুদামে ভয়াবহ আগুন

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১




আমরা সফলভাবে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করেছি : সজীব ওয়াজেদ জয়

প্রকাশিত:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | ৪৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগ সরকারের দেওয়া ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রতিশ্রুতি সফলভাবে বাস্তবায়ন করেছেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। বুধবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের ভেরিফাইড পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এ তথ্য জানান তিনি।

ফেসবুকে দেওয়া সজীব ওয়াজেদ জয়ের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর।

বিজয়ের মাসের শুরুতে স্মরণ করছি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লক্ষ শহিদকে। একই সাথে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি জাতীয় চার নেতাকে, যাদের নেতৃত্ব ও দৃঢ়তার কাছে হেরে গিয়েছিল বর্বর পাকিস্তানি বাহিনী, অর্জিত হয়েছিল বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা।

ডিসেম্বর মাস আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের। আমি অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে ধন্যবাদ জানাই বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের, যাদের সীমাহীন ত্যাগের মাধ্যমে আমরা পেয়েছি এই স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।

বিজয়ের ৫০তম বছরে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে, জাতি হিসেবে যা আমাদের জন্য একটি ঐতিহাসিক অর্জন।

আওয়ামী লীগ সরকার ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, ইতোমধ্যেই আমরা সফলভাবে সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করেছি। সামনে আমাদের লক্ষ্য ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তোলা, ইনশা আল্লাহ্‌ আপনাদের সকলের সহযোগিতা ও অংশগ্রহণে আমরা সেই লক্ষ্যও অর্জনে সফল হবো।

বিজয়ের মাসে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়াই হোক আমাদের সকলের প্রত্যয়।

জয় বাংলা

জয় বঙ্গবন্ধু।

নিউজ ট্যাগ: সজীব ওয়াজেদ জয়

আরও খবর



ইতিহাসে ২১ নভেম্বর একটি স্মরণীয় দিন

প্রকাশিত:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে ২১ নভেম্বর একটি স্মরণীয় দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে তিন বাহিনী সম্মিলিতভাবে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর উপর সর্বাত্মক আক্রমণ শুরু করে।

সমন্বিত এই আক্রমণে একতাবদ্ধ হয় মুক্তিবাহিনী, বিভিন্ন আধাসামরিক বাহিনীর সদস্যগণ ও দেশপ্রেমিক জনতা। পরাজিত হয় পাক হানাদার বাহিনী। প্রতি বছর দিনটিকে সশস্ত্র বাহিনী দিবস পালন করা হয়।

সশস্ত্র বাহিনী দিবসকে যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে উদযাপন করতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, দেশের সকল সেনানিবাস, নৌ ঘাঁটি এবং বিমান বাহিনী ঘাঁটির মসজিদসমূহে সবার কল্যাণ, সমৃদ্ধি এবং সশস্ত্র বাহিনীর উত্তরোত্তর উন্নতি ও অগ্রগতি কামনা করে ফজরের নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হবে।

মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ২১ নভেম্বর (রোববার) সকালে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে পুস্পস্তবক অর্পণ করবেন।

এরপর সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল মোহাম্মদ শাহীন ইকবাল এবং বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান নিজ নিজ বাহিনীর পক্ষ থেকে শিখা অনির্বাণে পুস্পস্তবক অর্পণ করবেন।

তিন বাহিনী প্রধানরা সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এবং বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন।

সশস্ত্র বাহিনী দিবস-২০২১ উপলক্ষে  প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে সংযুক্ত থেকে ঢাকা সেনানিবাসস্থ আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে বীরশ্রেষ্ঠদের উত্তরাধিকারী এবং নির্বাচিত সংখ্যক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা প্রদান করবেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী স্বশরীরে উপস্থিত থেকে ০৫ জন সেনা, ০২ জন নৌ এবং ০১ জন বিমান বাহিনী সদস্যদের ২০২০-২০২১ সালের শান্তিকালীন পদকে ভূষিত করবেন।

অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনী প্রধান, নৌবাহিনী প্রধান, বিমানবাহিনী প্রধান, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও), প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ২১ নভেম্বর বিকেল ৪টায় ঢাকা সেনানিবাসস্থ সেনাকুঞ্জে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ভিটিসির মাধ্যমে যোগ দিবেন।

সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে নৌবাহিনী প্রধান এবং বিমানবাহিনী প্রধান স্ব-স্ব বাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা দিবেন।

এছাড়া সেনাবাহিনী প্রধান ২৩ নভেম্বর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা/তাঁদের উত্তরাধিকারীদের অনুরূপ সংবর্ধনা দিবেন।

ঢাকা ছাড়াও বরিশাল, কক্সবাজার, বগুড়া, সিলেট, ঘাটাইল, চট্টগ্রাম, যশোর, রংপুর ও খুলনা সেনানিবাস/ঘাঁটিতে সংশ্লিষ্ট এরিয়া সদর দপ্তরের ব্যবস্থাপনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

এদিকে, দিনটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের জন্য ঢাকার বাইরে দেশের অন্যান্য সেনা গ্যারিসন, নৌ জাহাজ/স্থাপনা এবং বিমান বাহিনী ঘাঁটিতেও বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। ঢাকা, খুলনা, চাঁদপুর, বরিশাল ও চট্টগ্রামে বিশেষভাবে সজ্জিত নৌবাহিনী জাহাজসমূহ ২১ নভেম্বর বেলা ২টা থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত সর্বসাধারণের দেখার জন্য নিকটস্থ ঘাটে অবস্থান/নোঙর করে রাখা হবে।

সশস্ত্র বাহিনী দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে ২০ নভেম্বর (শনিবার) বাংলাদেশ টেলিভিশন রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর সশস্ত্র বাহিনীর পরিবেশনায় ‘‘বিশেষ অনির্বাণ’’ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে।  ২১ নভেম্বর (রোববার) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বাংলাদেশ বেতার ‘‘বিশেষ দূর্বার’’ সম্প্রচার করবে।

সশস্ত্র বাহিনীর পরিচালনাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার (অনলাইন ভিত্তিক) আয়োজন করা হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে শনিবার রাষ্ট্রপতি ও সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী প্রদান করেছেন।


আরও খবর



ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন

মিরপুরে বাসের অপেক্ষায় শত শত যাত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | ২৬২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর মিরপুরে দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে পরিবহণ শ্রমিকদের ধর্মঘট।  গণপরিবহণের জন্য সকাল থেকে শত শত যাত্রী বিভিন্ন পয়েন্টে দাঁড়িয়ে থাকলেও বাসের দেখা নেই। অনেকক্ষণ পর পর দুএকটি বাস এলে তাতে উঠতে যাত্রীদের ঠেলাঠেলি করতে দেখা গেছে। গন্তব্যে যাওয়ার জন্য বাস না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রীসাধারণ।

সরেজমিন বুধবার সকালে মিরপুর ১০, ১১, ১২, কালশী, পূরবী, সিরামিক রোড ঘুরে দেখা যায়, অফিস ও  শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগামী যাত্রীরা বাসের জন্য অনেকক্ষণ ধরে ঠায় দাঁড়িয়ে রয়েছেন। অনেকে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করছেন; কিন্তু কোনো গাড়ি পাচ্ছেন না।

মিরপুর ১২ নম্বর থেকে হাতেগোনা দুয়েকটি বাস ছাড়লেও ওইসব বাস যাত্রীতে ঠাসা।  মূল সড়কে কয়েশ বাস পার্কিং করে রাখা রয়েছে। ওই সব বাসের শ্রমিকরা  সকাল থেকেই বিভিন্ন জায়গায় জড়ো হয়ে ধর্মঘট করছেন।

সকাল ৮টায় মিরপুর ১২ নম্বর পূরবী সিনেমা হলের সামনে ৩০-৪০ শ্রমিক জড়ো হয়ে মিরপুর ১০ নম্বর থেকে আসা কয়েকটি বাস থামিয়ে ওই বাসের যাত্রীদের নামিয়ে দেন। এতে যাত্রীদের সঙ্গে পরিবহণ শ্রমিকদের কয়েক দফা বাদানুবাদ হয়। সকাল সাড়ে ৮টায় পুলিশ এসে ওই স্থান থেকে শ্রমিকদের সরিয়ে দেয়। পরে শ্রমিকরা  সড়কের আশপাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে অবস্থান নেন।

এ সময় কথা হয় নাজমা আক্তার নামে এক গৃহিণীর সঙ্গে। তিনি বলেন, আমি মিরপুর ১২ নম্বরে যাব। সকাল ৮টায় পূরবী সিনেমা হলের সামনে শ্রমিকরা আমাদের বাস থেকে নামিয়ে দেন। আরও অনেক যাত্রী ছিল যারা উত্তরা, গুলশানে কর্মস্থলে যেতেন। বাস না থাকায় অনেকে হেঁটে রওনা দেন।

বেসরকারি ব্যাংক কর্মকর্তা নকিব খান বলেন, মতিঝিলে অফিসের কাজে যাওয়ার কথা।  সকাল  সাড়ে ৭টা থেকেই পূরবীর সামনে বাসের জন্য দাঁড়িয়ে রয়েছি। ১২ নম্বর থেকে দুয়েকটি বাস এলেও অনেক যাত্রী। বাসে ওঠা যায় না। আবার শ্রমিকরা বাস থেকে যাত্রী নামিয়ে দিচ্ছেন। সিএনজি অটোরিকশাও নেই। রিকশায় করে মতিঝিল যাব কিনা ভাবছি।

মিরপুর ১২ নম্বরের ট্রাফিক পরিদর্শক সোহেল রানা বলেন, শ্রমিকরা বাস না চালিয়ে আন্দোলন করছেন।  সকাল থেকে কিছু বাস চললেও তা পরিমাণে খুবই কম। পূরবীর সামনে সকাল ৮টায় শ্রমিকরা জড়ো হয়ে বাস থেকে যাত্রী নামিয়ে দিলেও পুলিশ  শ্রমিকদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়। তবে এ নিয়ে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। 


আরও খবর